English Version

আজকের চাকরির খবর লাইভ খেলা দেখুন

অবাস্তবে ভরা পর্নছবি: পর্নোতারকা মিসিনা

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

বিডিটুডেস আন্তর্জাতিক: বিশ্বব্যাপী ভয়ংকর ব্যাধির মতো ছড়িয়ে পড়ছে পর্নোছবি এবং ভিডিও। পর্নোগ্রাফি সাময়িক বিনোদনের উৎস হলেও, শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য তা মোটেও ভালো কিছু বয়ে আনে না বলে বিভিন্ন সময়ে জানিয়েছেন গবেষকরা। এবার মিলল আরো ভেতরের খবর। পর্ণতারকারা বলছেন, এই ধরণের ছবি বা ভিডিও শুধু দর্শকদের জন্য বানানো হয়। আর এর মধ্যে মিথাই বেশি।

মেডিসন মিসিনা নামের ৩৫ বছর বয়সী পর্নোতারকা জানান, পর্নোছবি শুধু দর্শকদের জন্যই হানিকারক না, বরং তা এসব ছবিতে অংশ নেওয়া অভিনেতাদের জন্য অস্বস্তির কারণ। আর ছবিতে যা দেখা যায় তার প্রায় সবটুকুই অবাস্তব। কারণ ভালোবাসা ছাড়া শারীরিক সম্পর্ক করা খুবই যন্ত্রণাদায়ক।

দুই শতাধিক পর্নোছবিতে অংশ নেওয়া মেডিসন অস্ট্রেলিয়াভিত্তিক সংবাদমাধ্যম নিউজ ডটকমকে বলেন, ‘ক্যামেরার সামনে বিছানায় যাওয়া মোটেও সুখের কিছু নয়। আমরা শুটিং করার আগে অনেক বিষয়ে আলোচনা করি, যেন ক্যামেরায় সব ভালোভাবে ফুটে ওঠে।’

অস্ট্রেলিয়ার এই পর্নোতারকা জানান, ছবির প্রয়োজনে অভিনেত্রীদের অস্বাভাবিক নানা অঙ্গভঙ্গি করার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়। এতে শরীরের বিভিন্ন অংশে যন্ত্রণার সৃষ্টি করে। এ ছাড়া পর্নোছবি অনেক সময় কোনো বিরতি ছাড়াই ক্যামেরায় ধারণ করা হয়। তবে শুটিংয়ের মধ্যে বার বার বিরতি নেওয়াও বিরক্তিকর বলে জানান মেডিসন। তিনি বলেন, পুরুষ সঙ্গীদের কারণেই বার বার বিরতি নিতে হয়।

পর্নোছবির দর্শকদের উদ্দেশে মেডিসন বলেন, পর্নোছবির নায়কদের দেখে ঈর্ষান্বিত হওয়ার কিছুই নেই। সেগুলো একেবারেই প্রাকৃতিক নয়। কারণ ভায়াগ্রাসহ বিভিন্ন যৌনশক্তিবর্ধক ওষুধ নিয়ে তারা অভিনয়ে নামে। তবে এত অভিযোগের পরও পর্নো ছবিতে কাজ করতে পেরে নিজেকে সৌভাগ্যবান বলে জানান মেডিসন। কারণ সেখানে কাজ করা নাকি খুবই রোমাঞ্চকর।

বিডিটুডেস/ এস আই/ ২৩ নভেম্বর, ২০১৭