English Version

আজকের চাকরির খবর লাইভ খেলা দেখুন

ঢাকাকে হারাতে পারলেই ফাইনালে কুমিল্লা।

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

 

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) পঞ্চম আসরের সেরা চার ঠিক হয়ে গিয়েছিল আগেই। অপেক্ষা ছিল কোয়ালিফায়ার ও এলিমেনেটরে মুখোমুখি হবে কে কার। বুধবার লিগ পর্বের শেষ ম্যাচের আগেই চূড়ান্ত হয়ে যায় সেটা। ঢাকা ডায়নামাইটস দিনের প্রথম ম্যাচে রংপুরকে হারিয়ে দিলে দ্বিতীয় হয়ে শেষ করে তারা লিগ পর্ব। যাতে আগেই শীর্ষস্থান নিশ্চিত করে রাখা কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের বিপক্ষে তারা মুখোমুখি হবে ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে।

আর তৃতীয় হওয়া খুলনা টাইটানস ফাইনাল স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখার লক্ষ্যে এলিমেনেটর ম্যাচে নামবে রংপুরের বিপক্ষে। খুলনার কোয়ালিফায়ারে খেলাটা নির্ভর করছিল ঢাকার ম্যাচের ফলের ওপর। রংপুরের বিপক্ষে ১২ পয়েন্ট নিয়ে মাঠে নামা ঢাকা হেরে গেলেই ১৫ পয়েন্ট থাকা খুলনা দ্বিতীয় হয়ে উঠে যেত কোয়ালিফায়ার ম্যাচে। কিন্তু রংপুরকে হারিয়ে ১৫ পয়েন্ট নিয়ে ঢাকা লিগ পর্ব শেষ করে দ্বিতীয় স্থানে থেকে। পয়েন্ট খুলনার সমান হলেও নেট রানরেটে এগিয়ে থাকার সুবিধায় ফাইনালে যাওয়ার দুটো সুযোগ পাবে সাকিব আল হাসানরা। কারণ কুমিল্লার বিপক্ষে হারলেও দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচে খেলার সুযোগ পাবে ঢাকা। কুমিল্লার বেলাতেও একই সুবিধা। বিপরীতে খুলনা ও রংপুরের পথটা কঠিন। এলিমেনেটর ম্যাচ জিতে তবে তাদের খেলতে হবে কোয়ালিফায়ার ম্যাচ। আর হেরে গেলে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায়।

শীর্ষস্থান আগে থেকেই নিশ্চিত ছিল কুমিল্লার। সিলেট সিক্সার্সের বিপক্ষে বুধবারের ম্যাচটি না জিতলেও তারা থাকতো এক নম্বরে। যদিও সিলেটকে হারিয়ে শী্র্ষস্থানে ব্যবধান আরও বাড়িয়েছে তারা।

লিগ পর্ব শেষ করলো তামিম ইকবালরা ১২ ম্যাচে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে। দ্বিতীয় স্থানে থাকা ঢাকার পয়েন্ট ১৫। তাদের সমান পয়েন্ট নিয়ে তিন নম্বরে খুলনা, আর ১২ পয়েন্ট নিয়ে চতুর্থ স্থানে রংপুর। বৃহস্পতিবার একদিনের বিরতি দিয়ে শুক্রবার প্রথম কোয়ালিফায়ার ও এলিমিনেটর ম্যাচ। সবার আগে সেরা চার নিশ্চিত করা খুলনা এলিমিনেটরে মুখোমুখি হবে রংপুরের। ম্যাচটি মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে শুরু হবে দুপুর ২টায়। দিনের দ্বিতীয় ম্যাচটি প্রথম কোয়ালিফায়ারের। কুমিল্লা-ঢাকার এই ম্যাচটি শুরু হবে সন্ধ্যা ৭টায়। এদিকে আজ লিগ পর্বের শেষ ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিলো কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ও সিলেট সিক্সার্স।

তবে নিরুত্তাপ এ ম্যাচে সিলেটকে ২৫ রানে হারিয়ে জয় দিয়েই শেষ করলো কুমিল্লা। যেখানে শীর্ষস্থান থেকে প্লে-অফে যাওয়া আগেই নিশ্চিত করেছিল দলটি। টসে জিতে কুমিল্লাকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় সিলেট। যেখানে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে চার উইকেট হারিয়ে ১৭০ রান করে কুমিল্লা।

জবাবে খেলতে নেমে পুরো ওভার খেললেও সাত উইকেট হারিয়ে ১৪৫ রানের বেশি করতে পারেনি নাসির-সাব্বিরের দল। মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে ১৭১ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে সিলেট। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৩১ রান করেন সাব্বির। ২০ বলে চারটি চার ও একটি ছক্কায় নিজের ইনিংস সাজান। এছাড়া ২৫ করেন ওপেনার আন্দ্রে ফ্লেচার। কুমিল্লা বোলারদের মধ্যে চার ওভারে ১৫ রান দিয়ে সর্বোচ্চ তিন উইকেট নেন লেগ স্পিনার গ্রায়েম ক্রেমার। এছাড়া দুটি করে উইকেট পান মেহেদি হাসান ও হাসান আলি।

এর আগে টসে হারা কুমিল্লার ব্যাটিংয়ের শুরুটা অবশ্য ভালো হয়নি। নিয়মিত অধিনায়ক তামিম ইকবাল বিশ্রামে থাকায় ওপেন করতে নামা জস বাটলার তিন রানেই ফিরে যান। সাত করে প্যাভিলিওনে ফেরেন ইমরুল কায়েস। তবে তৃতীয় উইকেট জুটিতে দুর্দান্ত পার্টনারশিপ গড়েন আরেক ওপেনার লিটন দাশ ও মারলন স্যামুয়েলস।

লিটন ৪৩ বলে ছয়টি চার ও তিনটি ছক্কায় সর্বোচ্চ ৬৫ করে আউট হন। ৪৩ বলে পাঁচটি চারও দুটি ছক্কায় ৫৫ করেন স্যামুয়েলস। শেষ দিকে ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ১৮ বলে একটি চার ও দুটি ছক্কায় ২৮ করে অপরাজিত থাকেন অধিনায়কের দায়িত্বে থাকা শোয়েব মালিক। সিলেট বোলারদের মধ্যে একটি করে উইকেট পান নাবিল সামান, নাসির হোসেন, কামরুল ইসলাম রাব্বি ও রস হুইটলি। এ ম্যাচটি নিরুত্তাপই বটে, কেননা এ ম্যাচ ছাড়াই আসরের শীর্ষস্থান থেকে লিগ পর্ব শেষ করছে কুমিল্লা। পাশাপাশি এ ম্যাচ জিতলেও পয়েন্ট টেবিলের পঞ্চমস্থান থেকে ওপরে উঠতে পারবে না সিলেট।

এ ম্যাচে কুমিল্লার নিয়মিত অধিনায়ক তামিম ইকবাল বিশ্রামে থাকায় তার পরিবর্তে নেতৃত্ব দিচ্ছেন শোয়েব মালিক। এছাড়া সলোমান মায়ার ও মেহেদি হাসান রানার পরিবর্তে নেওয়া হয়েছে লিটন দাশ, মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন ও হাসান আলীকে। আর সিলেট দলে একটি পরিবর্তন হয়েছে।

আবুল হাসানকে সরিয়ে মোহাম্মদ শরিফকে নেওয়া হয়েছে। প্রথমবারের দেখায় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে হারিয়ে দিয়েছিল সিলেট সিক্সার্স। ফলে আজকের ম্যাচটি সেদিক থেকে কুমিল্লার জন্য প্রতিশোধের ম্যাচই ছিল। এই ম্যাচের মাধ্যমেই শেষ হলো লিগ পর্ব। আর এই জয়ের মাধ্যমে লিগ পর্ব শেষে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলে শীর্ষে থাকল কুমিল্লা। ৯ পয়েন্ট নিয়ে পঞ্চম অবস্থানে থেকে বিদায় নিল সিলেট। আগামী ৮ ডিসেম্বর সন্ধ্যা সাতটায় প্রথম কোয়ালিফায়ার ম্যাচে ঢাকা ডায়নামাইটসের মুখোমুখি হবে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। সিলেট একাদশ: মোহাম্মদ রিজওয়ান, আন্দ্রে ফ্লেচার, বাবর আজম, সাব্বির রহমান, নাসির হোসেন (অধিনায়ক), রস হুইটলি, সোহেল তানভির, মোহাম্মদ শরিফ, কামরুল ইসলাম রব্বি, শরিফুল্লাহ, নাবিল সামাদ।

কুমিল্লা একাদশ: ইমরুল কায়েস, লিটন দাশ, জস বাটলার, শোয়েব মালিক (অধিনায়ক), মারলন স্যামুয়েলস, মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, রকিবুল হাসান, গ্রায়েম ক্রেমার, মেহেদি হাসান, হাসান আলি, আল আমিন হোসেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

ফল: ২৫ রানে জয়ী কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স।

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ইনিংস: ১৭০/৪ (২০ ওভার)

(লিটন দাস ৬৫, জস বাটলার ৩, ইমরুল কায়েস ৭, মারলন স্যামুয়েলস ৫৫, শোয়েব মালিক ২৮*, হাসান আলী ১*; নাবিল সামাদ ১/৩৩, সোহেল তানভীর ০/৩০, নাসির হোসেন ১/২০, মোহাম্মদ শরীফ ০/২৫, কামরুল ইসলাম রাব্বী ১/২৯, রস হোয়াইটলি ১/২৬)।

সিলেট সিক্সার্স ইনিংস: ১৪৫/৭ (২০ ওভার)

(মোহাম্মদ রিজওয়ান ৬, আন্দ্রে ফ্লেচার ২৫, নাসির হোসেন ১২, বাবর আজম ২০, সাব্বির রহমান ৩১, রস হোয়াইটলি ৬, সোহেল তানভীর ৯, মোহাম্মদ শরীফ, শরীফুল্লাহ; আল-আমিন হোসেন ০/২৭, মেহেদী হাসান ২/৩১, হাসান আলী ২/৩৫, গ্রায়েম ক্রেমার ৩/১৫, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ০/২৬)।

প্লেয়ার অব দ্য ম্যাচ: লিটন দাস (কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স)।