English Version

আজকের চাকরির খবর লাইভ খেলা দেখুন

কাদের কি বলে সে নিজেই বুঝে না


বিডিটুডেস ডেস্ক : আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সাহেব যে কি কথা বলে তা নিজেই বুঝে না বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

আজ মঙ্গলবার বিকালে হাইকোর্ট অডিটোরিয়ামে বিএনপির সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ফখরুল এই কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদেরকে উদ্দেশ্য করে ফখরুল বলেন, ‘কার কথা কে বলে? সে নিজের কথা নিজেই বুঝে না । বিচারপতি খায়রুল হকের রায়ের ওপর ভিত্তি করে আপনারা ক্ষমতায় এসেছিলেন। একইসঙ্গে এদেশের সব মানুষ জানে, কোন বিদেশিদের কর্মতৎপরতায় আপনারা ক্ষমতায় এসেছেন। সুতরাং বিএনপিকে এ ধরনের  কথা বলবেন না।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘বিএনপিকে ক্ষমতায় নিয়ে আসে জনগণ। যতবারই বিএনপি ক্ষমতায় এসেছে জনগণের ভোটের মাধ্যমে ক্ষমতায় এসেছে। অন্য কোনো পথে বিএনপি আসেনি। বিএনপি অন্য কারো সঙ্গে আঁতাত, সমঝোতা বা রাতের অন্ধকারে ষড়যন্ত্র করে ক্ষমতায় আসেনি।’

এসময় বিচার বিভাগে ষোড়শ সংশোধনীর রায় নিয়ে অর্থমন্ত্রীর করা বক্তব্যের বিষয়ে ফখরুল বলেন, ‘আওয়ামী লীগের নেতাদের কথা জবাব দেয়াকে গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করে না বিএনপি। তিনি (অর্থমন্ত্রী) সবাইকে বলেন রাবিশ। আসলে তিনি কী?

 

ষোড়শ সংশোধনীর রায়ের পর অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত বলেছিলেন, ‘ষোড়শ সংশোধনী যতবার আদালত বাতিল করবে ততবার সংসদে তা পাস করা হবে।’

গতকাল মন্ত্রিসভায় বিচার বিভাগে ষোড়শ সংশোধনীর রায় নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়েছে দাবি করে ফখরুল বলেন, ‘এ ধরনের প্রশ্ন তোলা উদ্বেগজনক। যেখানে আমাদের সবার আশা-ভরসাস্থল বিচার বিভাগ, আপিল বিভাগ। সেখান থেকে যখন কোনো রায় আসে, তখন সেই রায়কে সমস্ত জাতি যে কেবল শুধু মেনে নেয় তা নয়, তাকে মানতে চেষ্টা করে। সেখানে তারা বলছেন এ রায়ের বিরুদ্ধে জনমত সৃষ্টি করবে।’

মির্জা ফখরুল প্রশ্ন তুলে বলেন, ‘কার বিরুদ্ধে জনমত সৃষ্টি করবেন? এই ১৬ কোটি মানুষের মনের যে চিন্তা-ভাবনা যে রায়ের মধ্য দিয়ে এসেছে তার বিরুদ্ধে জনমত সৃষ্টি করবেন? জনগণ আপনাদের সঙ্গে থাকবে না। জনগণ আপনাদের সঙ্গে নেই বলেই আজকে আপনারা এধরনের কথা বলছেন। ’

আওয়ামী লীগ সরকারের সমালোচনা করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘এ সরকার অত্যন্ত সচেতনভাবে বাংলাদেশের গণতন্ত্রকে ধ্বংস করেছে। আওয়ামী লীগের যে আকাঙ্ক্ষা এক দলীয় শাসনব্যবস্থা। সেটিকে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য প্রতিটি স্তম্ভকে ধ্বংস করে দিয়েছে।’

বিএনপির সদস্য সংগ্রহে ব্যাপক সাড়া পাচ্ছেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমরা ব্যাপক সাড়া পেয়েছি। রিকশাচালক, ঠেলাগাড়ি চালকরা এসে বিএনপির সদস্য হচ্ছেন। সবাই চায় এ সরকার কবে বিদায় হবে এবং বিএনপি সরকার কবে আসবে।’

অনুষ্ঠানে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি জয়নুল আবেদীনের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য দেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, ভাইস চেয়ারম্যান  খন্দকার মাহবুব হোসেন, আহমেদ আজম খান, যুগ্ম মহাসচিব মাহবুব উদ্দীন খোকন প্রমুখ।

বিডিটুডেস /জেডএইচ /০৮আগস্ট’১৭