English Version

আজকের চাকরির খবর লাইভ খেলা দেখুন

দলীয় প্রধানের পদ হারাতে পারেন নওয়াজ!


বিডিটুডেস আন্তর্জাতিক : পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব থেকে পদত্যাগের পর এবার দলীয় প্রধানের পদও হারাচ্ছেন নওয়াজ শরিফ। মঙ্গলবার দেশটির নির্বাচন কমিশন তাকে পাকিস্তান মুসলিম লিগ-এনের প্রধানের পদ থেকে নওয়াজ শরিফকে সরিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে পাকিস্তানভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ডন।

নির্বাচন কমিশনের আদেশে বলা হয়েছে, পাকিস্তানের রাজনৈতিক দলবিধি ২০০২ অনুযায়ী অযোগ্য ঘোষিত ব্যক্তি কোনও রাজনৈতিক দলের প্রধানের দায়িত্ব পালন করতে পারেন না।

পানামা পেপারস নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশও তুলে ধরেছে নির্বাচন কমিশন। ওই নির্দেশে তাকে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর নির্দেশ দেয় আদালত।

নওয়াজের দল পিএমএল-এনের গঠনতন্ত্রের ১৫ বিধিও তুলে ধরেছে কমিশন। ওই বিধিতে বলা হয়েছে, দলীয় প্রধানের পদ খালি হলে সাত দিনের মধ্যে তা পূরণ করতে হবে।

পিএমএল-এনকে নতুন দলীয় প্রধান নির্বাচন করে তা কমিশনকে অবহিত করার নির্দেশও দেওয়া হয়েছে। এ নির্দেশ পাওয়ার পর অর্থমন্ত্রী ইশাক দার এবং সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী চৌধুরি নিসার আলী খানসহ পিএমএল-এনের প্রবীণ নেতারা বৈঠকে বসেছেন।

এদিকে নওয়াজ শরিফ পাকিস্তানের বিচারকদের সমালোচনা করে বলেছেন, দেশে কি এমন কোনও বিচারক আছেন, যিনি জেনারেল (অবসর) পারভেজ মোশাররফের মতো স্বৈরাচারের বিচার করতে পারবেন?

১৯৯৯ সালে এক সামরিক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে সেসময়কার প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফকে অপসারণ করে ২০০৮ সাল পর্যন্ত পাকিস্তান শাসন করেন মোশাররফ। প্রায় এক দশক দেশ শাসন করে তিনি ২০০৮ সালে ক্ষমতা ছাড়ার পর স্বেচ্ছা নির্বাসনে যান। চার বছর লন্ডন ও দুবাইয়ে কাটিয়ে ২০১৩ সালে নির্বাচনের আগে দেশে ফিরে বেশ কয়েকটি মামলার মুখে পড়েন তিনি। তার ওপর বিদেশ ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। বেলুচিস্তানের জাতীয়তাবাদী নেতা আকবার বাগতি ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেনজীর ভুট্টোকে হত্যার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। ২০১৬ সালের মার্চে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতি প্রকাশের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই দুবাইয়ের উদ্দেশে পাকিস্তান ছাড়েন মোশাররফ। এরপর আর দেশে ফেরেননি।

নওয়াজকে অযোগ্য ঘোষণা করে দেওয়া সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পর এক প্রতিক্রিয়ায় মোশাররফ বলেছেন, পাকিস্তান সেনা সরকারের শাসনে সঠিক পথে ছিল, কিন্তু যখনই তারা ক্ষমতা থেকে সরে গেছে তখনই বেসামরিক সরকার দেশকে বিপথে নিয়ে গেছে।

নওয়াজ বলেন, যদি একটি রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান অন্যটিকে শ্রদ্ধা না করে তাহলে এই দেশ কিভাবে চলবে?

উল্লেখ্য, শুক্রবার (২৮ জুলাই) পানামা পেপারস কেলেঙ্কারি মামলায় নওয়াজ শরিফকে অযোগ্য ঘোষণা করে সুপ্রিম কোর্টের রায় দেওয়ার পর তিনি পদত্যাগ করেন। এর আগে বিচারপতি আসিফ সাইদ খোসার নেতৃত্বে সুপ্রিমকোর্টের পাঁচ সদস্যের বেঞ্চ সর্বসম্মতিক্রমে রায় ঘোষণা করেন।

আর এস – বিডিটুডেজ – ০৯/০৮/২০১৭ইং


  • 1.4K
    Shares