English Version

আজকের চাকরির খবর লাইভ খেলা দেখুন

টেস্ট অভিষেকেই ৫ ওভারে ৫ উইকেট!


বিডিটুডেস স্পোর্টস :টেস্ট অভিষেকেই ৫ উইকেট! দারুণ এক অর্জন। কিন্তু এই ৫ উইকেট যদি কোনো বোলার প্রথম বোলিংয়ে আসার প্রথম ৫ ওভারের মধ্যেই পেয়ে যান, তবে তো সেটি রীতিমতো রূপকথা! ক্রিকেট ইতিহাসে এমন রূপকথারই জন্ম দিয়েছিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের পেসার লেস্টার কিং। ১৯৬১-৬২ সালে ভারতের বিপক্ষে বল করার সুযোগ পাওয়ার ৫ ওভারের মধ্যেই তুলে নিয়েছিলেন ৫ উইকেট।

ওল্ডট্রাফোর্ড টেস্টে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে অভিষেকেই ৫ উইকেট পেয়েছিলেন ইংলিশ পেসার টোবি-রোল্যান্ড জোন্স। তাঁর আফসোস হতেই পারে। ১৬.৪ ওভারেই ৫ উইকেট নিয়ে প্রোটিয়াদের ধসিয়ে দিলেও ৫৫ বছর আগের লেস্টার কিংয়ের সেই রেকর্ড থেকে দূরেই ছিলেন।

লেস্টারের বিধ্বংসী বোলিংয়ে ৫৫ বছর আগে ধসে গিয়েছিল ভারতের ব্যাটিং। ২৬/৫-এ পরিণত হওয়া মনসুর আলী খান পতৌদির ভারত ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে হেরেছিল ১২৩ রানে। দুঃখজনক ব্যাপার হচ্ছে, অভিষেকেই নিজেকে দারুণভাবে মেলে ধরা লেস্টার টেস্ট খেলতে পেরেছিলেন আর মাত্র একটি। চোটে পড়ে পরের টেস্টেই বসে যেতে হয় তাঁকে। ক্রিকেটের সর্বোচ্চ পর্যায়ে পা রাখতে তাঁকে অপেক্ষা করতে হয় আরও সাত বছর। ১৯৬৭-৬৮ সালে জর্জটাউনে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে একটি টেস্ট খেলার সুযোগ মিলেছিল তাঁর।

অভিষেকে না হলেও টেস্টের এক ইনিংসে দ্রুততম ৫ উইকেটের রেকর্ড আছে দুজনের। ১৯৪৭-৪৮ মৌসুমে ভারতের বিপক্ষে ব্রিসবেন টেস্টে ১৯ বলের মধ্যে ৫ উইকেট তুলে নিয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়ার বাঁহাতি স্পিনার এর্নি তোশাক। সে টেস্টে ৩১ রানে ১১ উইকেট নিয়েছিলেন তিনি। তোশাকের পাশাপাশি টেস্টে দ্রুততম ৫ উইকেট তুলে নেওয়ার আরেকটি রেকর্ড ইংলিশ পেসার স্টুয়ার্ট ব্রডের। ২০১৫ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে অ্যাশেজ সিরিজের ট্রেন্টব্রিজ টেস্টে ১৫ রানে ৮ উইকেট নিয়েছিলেন তিনি।

ছবির ক্যাপশন: অভিষেকে ৫ ওভারেই ৫ উইকেট তুলে নিয়েছিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের লেস্টার কিং। ছবি: উইকিপিডিয়া।

টেস্ট ক্রিকেট এক পরীক্ষার নাম। সবাই খেলার সুযোগ পায় না। কাউকে আবার সয় না। প্রথম ম্যাচ খেলতে নেমেই সেঞ্চুরিতে বাজিমাত করেছিলেন মো: আজহারউদ্দিন, মো: আশরাফুলরা। আবার মারভান আতাপাত্তুর মতো প্রথম টেস্টেই ‘পেয়ার’ পাওয়ার ঘটনাও আছে। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে অভিষেকে মাত্র ১৬ ওভার ৪ বলেই পাঁচ উইকেট নিয়েছেন পেসার টোবি রোল্যান্ড-জোনস। তারপরও অভিষেকে দ্রুততম ৫ উইকেটের রেকর্ড গড়া হয়নি তাঁর।

১৯৬১-৬২ সালে ভারতের বিপক্ষে কিংসটন টেস্টে অভিষেক হয়েছিল পেসার লেস্টার কিং এর। বল হাতে নিয়েই ৫ উইকেট বাগিয়েছিলেন কিং। সময় লেগেছিল মাত্র ৫ ওভার! ভারত পরিণত হয় ৫ উইকেটে ২৬। মনসুর আলী খান পতৌদির ভারত ১২৩ রানে হেরেছিল ফ্র্যাঙ্ক ওরেলের ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে।

পরের টেস্টেই ইনজুরিতে পড়েন কিং। আর কখনো টেস্ট খেলা হয়নি তাঁর।

টেস্টে দ্রুততম পাঁচ উইকেট শিকারের রেকর্ড যুগ্মভাবে অস্ট্রেলিয়ান বাঁহাতি স্পিনার আর্নি টোশ্যাক ও ইংলিশ পেসার স্টুয়ার্ট ব্রডের। ১৯৪৭-৪৮ সালে ব্রিসবেনে ভারতের বিপক্ষে এই রেকর্ড গড়েন টোশ্যাক। ম্যাচে উইকেট পেয়েছিলেন ১১ টি।

ব্রডের রেকর্ডটা আসে ২০১৫ সালে টেন্ট ব্রিজে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে। ইনিংসে ৮ উইকেট নিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে মুড়ে দিয়েছিলেন স্রেফ ৬০ রানে!

বিডিটুডেস /জেএস /০৯আগস্ট’১৭


  • 1.4K
    Shares