English Version

আজকের চাকরির খবর লাইভ খেলা দেখুন

লালুর সঙ্গে ভুলু ফ্রি!


বিডিটুডেস ডেস্ক
 বেশ আদর-যত্ন চলছে গরুটির। ক্রেতারা দরদাম করতে এলেই গায়ে হাত বুলিয়ে দেন ওর মালিক শাহ আলম।এত যত্ন কেন? জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘দুই বছর ধইর‍্যা পালতাছি। খড়-ভুসি ছাড়া কিছুই খাওয়াই নাই। দেখছেন না কি সুন্দর আমার লালু।’লালুর দাম কত? জিজ্ঞেস করতেই শাহ আলম বলেন, ‘অর পুরো গায়ের রং লাল। গরুটায় কোনো খুঁত নাই। তাই দাম চাইতাছি আড়াই লাখ টাকা। এই দামে কিনলে ভুলুকে ফ্রি দিয়া দিমু।’ভুলু কোথায় আছে? জানতে চাইলে ছোট একটি গরুকে লালুর পাশে বেঁধে দিলেন। লালুর মতো ভুলুও লাল রঙের। দেখতে ছোট হলেও ভুলু আর লালু একই বয়সী।
 এ কথা জানিয়ে শাহ আলম বলেন, ‘ভুলু আর লালুর বয়স দুই বছরের বেশি হইব। দুইটা গরুরই চাইর দাঁত। বাছুর অবস্থায় এই দুইটারে কিনছিলাম। ভুলু হচ্ছে ভুইট্টা জাতের গরু। এইডা আর বাড়ব না। ছোটই থাকব।’আড়াই লাখ টাকার কম দামে লালু বিক্রি হলে ভুলুকে আর ফ্রি দেবেন না বলে জানান মাদারীপুরের শিবচর থেকে আসা এই খামারি। সে জন্য ভুলুর দাম রাখবেন ৫০ হাজার টাকা।আজ বুধবার গাবতলী পশুর হাটে বেড়িবাঁধের পাশে শামিয়ানার নিচে মোট ১১টি গরু রেখেছেন শাহ আলম। তবে একটিও বিক্রি হয়নি।
ঈদের সময় যত এগিয়ে আসছে, গাবতলী পশুর হাটে কোরবানির গরুর সংখ্যা বাড়ছে। ক্রেতারাও আসছেন। দাম যাচাই-বাছাই করছেন তাঁরা।
তবে ব্যবসায়ীরা যেমন দাম কমাচ্ছেন না, তেমনি ক্রেতারাও দামের সঙ্গে গরুর আকারে সন্তুষ্ট হচ্ছেন না। এই দুইয়ে সমন্বয় না হওয়ার বেচাকেনাও জমে উঠছে না।মানিকগঞ্জের শিবালয় থেকে আসা বাচ্চু মিয়া নামে এক খামারির দাবি, খাবারসহ লালন-পালনে খরচ বেশি হওয়া তাঁরা দাম কমাতে পারছেন না। এর সঙ্গে ভারতীয় গরু চলে আসায় তাঁদের লোকসান গুনতেই হচ্ছে।
এম এস-  বিডিটুডেস- ৩১/৮/২০১৭

  • 25
    Shares