English Version

আজকের চাকরির খবর লাইভ খেলা দেখুন

ফ্রান্সের প্যারিসে ‘বাংলা ডে’ অনুষ্ঠিত 


দেলওয়ার হোসেন সেলিম, প্যারিস (ফ্রান্স) : প্যারিসের অদূরেই বিশাল এলাকা জুড়ে অবস্থিত গুড প্ল্যানেট ফাউন্ডেশন । সবুজে ঘেরা, ছায়া ঢাকা, পাখি ডাকা, স্নিগ্ধ পরিবেশ । সারি সারি নানান জাতের গাছের সমারোহ । বনজ, ফলজ, ঔষধি, শোভা বর্ধনকারী – কিছুই যেনো বাদ নেই। এমনি চমৎকার পরিবেশে অনুুুষ্ঠিত হলো গুড প্ল্যানেট ফাউন্ডেশন এবং ফ্রেন্ডশীপ বাংলাদেশ – এর যৌথ উদ্যোগে ‘বাংলা ডে’ অনুুুষ্ঠান ।
গত রোববার (১০ সেপ্টেম্বর ২০১৭) দিনব্যাপী এই অনুষ্ঠানে বিপুল সংখ্যক ফরাসী তথা ইউরোপীয়ান লোকজনের পাশাপাশি এখানকার প্রবাসী বাংলাদেশীদের উপস্থিতিতে উৎসব মুখর হয়ে ওঠে । ফ্রান্স ও বাংলাদেশের ‘ সেতু বন্ধন ‘ হিসেবে পরিণত হয় সমগ্র অনুষ্ঠানটি । আইফেল টাওয়ার হতে বাংলাদেশের দুরত্ব প্রায় ৮ হাজার কিলো মিটার । কিন্তু ফ্রান্সে ‘বাংলা ডে’  অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহণকারী প্রবাসী বাংলাদেশীদের মনে হয়েছিল যেনো এই অনুষ্ঠান স্বদেশের মাটিতেই উদযাপন করছেন । একদিনের জন্যে সবাই চলে গিয়ে ছিলেন প্রিয় মা, মাটি মানুষের সন্নিকটে ! এটাই ছিলো চমৎকার অনুভুতি ।
মনোরম পরিবেশে দেশের কৃষ্টি কালচার তুলে ধরার কোনো কমতি ছিল না দিনব্যাপী এই অনুষ্ঠানমালায় । বাংলাদেশের গান , পুঁথি সাহিত্য, শিশুদের. চিত্রাঙ্কন, ভয়েস অব বাংলাদেশ, বাংলাদেশের লাল সবুজ পতাকা , সোনালী আঁশ অর্থাৎ পাটের তৈরী পণ্য, বেতের তৈরি জিনিসপত্র, পুুরাতন জামদানি ও মসলিন কাপড়,  আমাদের দেশের ঐতিহ্যবাহী নৌকার ছোট ছোট মডেল , ভ্যান গাড়ি , রিকশা , পুঁথি সাহিত্য, আলোকচিত্র , পোস্ট কার্ড, ফ্যাসটুন সকলের বিশেষ  দৃষ্টি কেড়েছে । এদিন মনে হচ্ছিলো, এ যেনো ফ্রান্সের বুকে এক টুকরো বাংলাদেশ ।
প্রথমবারের মতো, ফ্রান্সের এমন স্বনামধন্য এসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে আমন্ত্রণ পেয়ে বাংলাদেশ কমিউনিটি ইন ফ্রান্সে (বিসিএফ) – এর সকল সদস্য উৎসাহ উদ্দিপনার সাথে অংশ নিযেছিলেন । তাঁরা সেখানে রকমারি মিষ্টি যেমন :  রসগোল্লা , চমচম , কাঁচা গোল্লা , রসমলাই সহ আরো অনেক খাবার, পানীয়  এবং স্নাক্স  পরিবেশন করেছিলেন । ফরাসীরা অনেকটা লাইন ধরেই বাংলা খাবার খেয়ে তৃপ্তির ঢেকুর তোলেন ।  সৈয়দ মুজতবা আলীর ‘রসগোল্লা ‘ গল্পে যেমন ইতালির চুঙ্গিঘররের সবাই  রসগোল্লার স্বাদে মজেছিলেন ঠিক তেমনি ‘বাংলা ডে’  ইভেন্টে ফরাসীরাও  সকলেই বাংলাদেশীয় সুস্বাধু খাবার বিশেষ করে মিষ্টি খেয়ে মুগ্দ্ধ হয়েছেন ।
প্রবাসী অনেক বাংলাদেশী অবাক হয়েছেন  ফরাসি ছেলেদের লুঙ্গি পড়া দেখে । একজন ফরাসী বেশ আনন্দের সাথে রিকশা ভ্যানে করে বাংলাদেশী প্রবাসীদের নিয়ে ঘুরে বেড়িয়েছেন । বিদেশের মাটিতে ভিনদেশি যুবকেদের আমাদের দেশের এই ঐতিহ্যবাহী পোশাক পরা দেখে অনেকেই সেলফি তুলেছেন । অনেকেই সোশ্যাল মিডিয়া ফেইসবুকে লাইভ করেছেন ।  এই প্রোগ্রামে প্রায় ১০০০ জন আমন্ত্রিত অতিথি এসেছিলেন যাঁর অধিকাংশই ছিলেন ফরাসি । বিশেষ এপ্রোগ্রামের ইভেন্টের মধ্যে  ছিলো : বাংলা দেশের ঐতিহ্যবাহী নাচ , গান, আল্পনা , বস্র শিল্পের প্রদর্শনী , বাংলাদেশ কিভাবে জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি গুলি মোকাবেলা করছে তার  উপর  ইয়ান আর্খথুস-বার্খথোন (Yann Arthus-Bertrand), আনাস্তাসিয়া মিকোভা কর্তৃক নির্মিত বিশেষ ডকুমেন্টারী প্রদর্শনী ইত্যাদি ।

ফ্রেন্ডশীপ  ফ্রান্সের  সেক্রেটারি জেনারেল নিকোলাস দোপোখতে – এর সঞ্চালনায় কনফারেন্স একসেপসিওনে দ্যু রোনা খান ইভেন্টে বক্তব্য রাখেন  গুড প্ল্যানেট ফাউন্ডেশনের ফাউন্ডার প্রেসিডেন্ট ইয়ান আর্খথুস-বার্খথোন (Yann Arthus-Bertrand) , ফ্রান্সে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এম শহিদুল ইসলাম , ফ্রেন্ডশীপ বাংলাদেশের পরিচালক, ফ্রান্সে ‘বাংলাদেশ ডে’  আয়োজনের অন্যতম রূপকার রুনা খান, বি সি এফ এম, ডি নুর প্রমুখ । ম্যাডাম রোনা খান তাঁর বক্তব্যে ফ্রেন্ডশীপ’র পরিচালিত আর্ত মানবতার কল্যাণে বিভিন্ন প্রকল্পের বিবরণ তোলে ধরেন। মুহুরমুহুর করতালির মাধ্যমে তিনিকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানানো হয়েছে । ফুলের তোড়া দিয়ে ফ্রান্সে বরণ করা হয় প্রিয় এই আপনজনকে । এসময় তিনি সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, বিদেশের মাটিতে দেশকে উপস্থাপনে প্রবাসীদের ভুমিকা অনেক ।

উন্মুক্ত প্রশ্নোত্তর পর্ব পরবর্তীতে প্রবাসী বাংলাদেশীরা বলেন, এই ধরনের আয়োজনে খুব আনন্দিত হয়েছি । আমাদের দেশের সমৃদ্ধশালী সংস্কৃতিকে ফরাসিদের সামনে তুলে ধরতে এই ধরণের আয়োজন দরকার বলে তাঁরা মতামত ব্যাক্ত করেন । সিলেট টু লন্ডন ফেইসবুক পেইজের এডমিনরা কয়েকজনের অনুভূতি জানার  জন্য সাক্ষাৎকার ভিত্তিক লাইভ প্রচার করেন।
অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ দূতাবাস প্যারিসের কাউন্সিলর এন্ড হেড অফ চ্যান্সারি হযরত আলী খান , বাংলাদেশ দূতাবাসের জ্যৈষ্ঠ কর্মকর্তা ম্যাডাম আনিসা  আমিন । ফ্রান্স প্রবাসীদের পাশাপাশি  বি সি এফ এর পক্ষ থেকে  অনেক মেম্বার উপস্থিত ছিলেন। যাঁদের মধ্যে অন্যতম  বি সি এফ এর  উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য  মোজাম্মেল , রিয়াজ , আল মাহিন , আকাশ মোহামেদ  হেলাল , শাহ জাহান , শাহেদ ভূইয়াঁ , রাকিব , হিরণ , ফটো সাংবাদিক ফরিদ আহমেদ রনি , এস এম আহসানুল করিম , আব্দুল আহাদ , আব্দুর রহমান শিপন , হোসাইন মোহাম্মদ মনির , কাব্য কামরুল , সিনিয়র সাংবাদিক দেলওয়ার হোসেন সেলিম, আব্দুল হাই ইমরান, হোসাইন মোহাম্মদ মনির , আবুল কালাম আজাদ , দেলোয়ার হোসাইন , মিয়া ফয়সাল , সোহেল , শিপন, শাহ জাহান চৌধুরীসহ ফ্রান্সে বসবাসরত অনেক গুণী শিল্পী এবং মানুষ জন উপস্থিত ছিলেন ।
এছাড়া, ফরাসী সাংবাদিক, সাহিত্যিক, আর্টিস্ট, সমাজ বিজ্ঞানীদের স্বতস্ফুর্ত অংশ গ্রহণে অনুষ্ঠান আরো জমজমাট হয়ে ওঠে । প্রবাসে বেড়ে উঠা শিশুদের মধ্যে ছিলো অন্য রকমের একটি আমেজ পরিলক্ষিত হয় । আবহমান বাংলার চিরায়ত ঐতিহ্য পুঁথি সাহিত্যের গান গেয়ে মাতিয়ে রাখেন  পুঁথি কাব্য সাহিত্যিক কাব্য কামরুল । আর্টিস্ট প্লাস্টিসিয়েন টেক্সটাইল ডিজাইনার  নিলুফার জাহান তাঁর লোকজ নকশা দিয়ে তৈরি কাপড়ের শিল্পকর্ম প্রদর্শনীতে ছিলো উপছে পড়া ভীড় । এসোসিয়েশন ইমপুল্স প্রজেক্টের পরিচালক মনের আনন্দে বাংলাদেশী প্রবাসী সাংবাদিক ও লেখক দেলওয়ার হোসেন সেলিমকে নিয়ে রিকশা চালানোর দৃশ্য ছিলো খুবই উপভোগ্য । পসকা কলোরিংয়ের চিত্রকলা, ভালোট ই ইউ, লে ক্রিয়েটিফ দ্যু লন্ডাখ, সিফাত আর্টিস্ট প্লাস্টিসিয়েন এর আকর্ষণীয় প্রদর্শনীগুলো ছিলো খুবই আকর্ষণীয় । আরো ইভেন্টের আকর্ষণ ছিলো  লেখক ও কবি শেজার দজার কার্যক্রম এবং শিল্পী কাকলী সেন গুপ্তার কনসার্ট ।  কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব মোহাম্মদ হান্নান দেশে ফ্রেন্ডশীপ এর সেবামুলক বিভিন্ন কার্যক্রমের ভুঁয়শী প্রসংশা করে ধন্যবাদ জানিয়ে তাদেরকে বাংলাদেশের শারীরিক প্রতিবন্ধীদের সহযোগিতার অনুরোধ জানান । বিসিএফ এর পরিচালক এমডি নূর বলেন, ফ্রান্সের মাটিতে ফরাসিদের সহযোগিতায় এমন বিশাল আয়োজনে  অংশ নিতে পেরে তাঁরা আনন্দে অভিভূত এবং গর্ববোধ করছি ।  তিনি  প্রতি বছর  অন্তত একটা দিন ফ্রান্সের মাটিতে বাংলা ডে আয়োজন করার জন্য  বিসিএফ – এর পক্ষ থেকে অনুরোধ জানান ।
বিশ্বের অন্যতম শিল্পকলা, সাহিত্য, সাংস্কৃতিক কেন্দ্র প্যারিসে প্রতি বছর ধারাবাহিকভাবে  ‘বাংলা ডে’ উদযাপন করা হবে ।  সেই প্রত্যাশা করছেনা অংশ গ্রহণকারীরা ।

বিডিটুডেস/জেডএইচ/১৯সেপ্টেম্বর’১৭


  • 1.6K
    Shares