English Version

আজকের চাকরির খবর লাইভ খেলা দেখুন

মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে তদন্তের দাবি জানিয়ে কুণাল ঘোষের চিঠি


বিডিটুডেস আন্তর্জাতিক: সম্প্রতি পশ্চিমবঙ্গের তৃণমূল থেকে পদত্যাগ করা সংসদ সদস্য (এমপি) মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে তদন্তের দাবিতে জানিয়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও বিজেপি সভাপতি অমিত শাহকে চিঠি দিয়েছেন তৃণমূল থেকে বহিষ্কৃত আরেক সংসদ সদস্য কুণাল ঘোষ।

গতকাল (বৃহস্পতিবার) গণমাধ্যমে দেয়া সাক্ষাৎকারে কুণাল ঘোষ ওই তথ্য জানিয়েছেন। মুকুল রায় বিজেপিতে যোগ দিতে পারেন এমন জল্পনার জেরে তিনি ওই চিঠি পাঠিয়েছেন।

কুণাল বলেন, ‘আমি প্রধানমন্ত্রী, অমিত শাহ, অরুণ জেঠলি, কৈলাস বিজয়বর্গীয়কে চিঠি দিয়েছি। তাতে বলেছি, মুকুলের সম্পর্কে এই বিষয়ে তদন্তের অবকাশ আছে। কিন্তু তার আগে কেউ যদি আপনাদের রাজনৈতিক সুরক্ষা পায়, সেটা গণতন্ত্রের জন্য লজ্জার হবে।’

মুকুল রায় তৃণমূলের মধ্যে পরিবারতন্ত্র নিয়ে যে মন্তব্য করেছেন কুণাল ঘোষ আজ তার সমালোচনা করেছেন। তিনি বলেন, ওনার ছেলে শুভ্রাংশ রায় তৃণমূলের বিধায়ক ছাড়াও দলের রাজ্য যুব কমিটির কার্যকরী সভাপতি ছিলেন। কাঁচরাপাড়ায় কি আর লোক ছিল না বিধায়ক হওয়ার মতো? নাকি কার্যকরী সভাপতি হওয়ার লোক ছিল না? উনি দলে দ্বিতীয় স্থানে ছিলেন বলেই ছেলে বড় জায়গা পেয়েছেন।’

মুকুল রায় অবশ্য কুণাল ঘোষের দাবি প্রসঙ্গে বলেন, ‘যার যোগ্যতা আগে সে এমনিই এগিয়ে যাবে। তার জন্য পরিবারতন্ত্রের কোনো প্রয়োজন নেই।’  সারদা, নারদা  কেলেঙ্কারি প্রসঙ্গে কুণাল ঘোষের অন্য অভিযোগও নাকচ করে দিয়েছেন মুকুল রায়।

এদিকে, মুকুল রায় মুখ্য নির্বাচন কমিশনারের সঙ্গে সাক্ষাৎ করার সময় চেয়েছেন। নতুন দল তৈরির বিষয়ে নিয়ম-কানুন সম্পর্কে অবগত হতেই মুকুল রায় নির্বাচন কমিশনের শীর্ষ কর্মকর্তাদের সঙ্গে দেখা করতে চাচ্ছেন বলে খবর ছড়িয়েছে।

কিন্তু মুকুল রায়ের দাবি, তিনি নতুন দল সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে কমিশনের কাছে যাচ্ছেন না। তার যাওয়ার উদ্দেশ্য, আগামী বিধানসভা উপ-নির্বাচন নিয়ে আলোচনা করা। তিনি বলেন, ‘আগামী নভেম্বরে পশ্চিমবঙ্গের দু’টি বিধানসভা আসনে উপ-নির্বাচন হবে। আমি নির্বাচন কমিশনকে অনুরোধ করব, যাতে ভোটগ্রহণ অবাধ ও নিরপেক্ষ হয়।’ এজন্য নির্বাচন কমিশনকে তিনি প্রয়োজনীয় পরামর্শও দেবেন বলে  জানিয়েছেন।

বিডিটুডেস/ এস আই/ ১৩ অক্টোবর, ২০১৭