English Version

আজকের চাকরির খবর লাইভ খেলা দেখুন

প্রস্তুতি ম্যাচে হার টাইগারদের


বাংলাদেশের দেওয়া ২৫৬ রানের জবাবে ২৫ বল ও ছয় উইকেট হাতে রেখেই জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে যায় দক্ষিণ আফ্রিকার দলটি। মার্করাম ৮১ ও ব্রিজকে ৭১ রান করেন। এ ছাড়া ডি ভিলিয়ার্স ৪৩ ও জেপি ডুমিনি করেন ৩৪ রান।

উদ্বোধনী জুটিতেই জয়ের কাজটি সেরে রাখে দক্ষিণ আফ্রিকা আমন্ত্রিত একাদশ। ব্রিজকে-মার্করাম জুটিতেই আসে ১৪৭ রান। ৮২ রান করে নাসিরের বলে তাঁকেই ক্যাচ দেন মার্করাম। এরপর দলীয় ১৪৭ রানে বিজকেকে ফেরান মাশরাফি। এরপর জেপি ডুমিনি ও ডি ভিলিয়ার্সকে ফেরান মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ততক্ষণে অবশ্য জয়ের একেবারে কাছে চলে আসে সফরকারীরা। বাকি পথটা অবশ্য নির্বিঘ্নেই পার করেছে দলটি। খায়া জোন্ডো ও হেনরিক ক্লাসেন সহজভাবেই দলকে জয়ের বন্দরে নোঙর করান।

এর আগে আজ দেশটির আমন্ত্রিত একাদশের বিপক্ষে টস জিতে ব্যাটিং করতে নেমে ২৫৫ রানে অলআউট হয় বাংলাদেশ একাদশ। ইনজুরির কারণে এই ম্যাচে ছিলেন না তামিম ইকবাল। দেশের সেরা ব্যাটসম্যান দলে না থাকলেও তাঁর অভাব অনেকটাই পুষিয়ে দিয়েছেন সাকিব আল হাসান ও সাব্বির রহমান।

আজ ব্যাটিংয়ে নেমে প্রোটিয়া বোলারদের দাপটে শুরুটা অবশ্য ভালো হয়নি বাংলাদেশের। ৩১ রানে দুই উইকেট হারিয়ে বসে সফরকারীরা। দুজনকেই ফেরান ফ্রাইলিঙ্ক। ২৭ রান করেন ইমরুল। সৌম্য সরকার আউট হন তিন রান করে। এরপর মুশফিকুর রহিম ইনিংস সামলানোর চেষ্টা করলেও শেষ পর্যন্ত সফল হননি। তাঁকে ফিরিয়ে দেন ফাঙ্গিসো। লিটন দাসও ব্যাটিংয়ে ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছেন।

তবে দারুণ ব্যাটিং করে বাংলাদেশের স্কোরটাকে হৃষ্টপুষ্ট করেন সাকিব আল হাসান। ৬৭ বলে ৯টি চারে ৬৮ রান করেন বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার। বাংলাদেশ দলে আরেকবার নিজের অপরিহার্যতা প্রমাণ করলেন তিনি। আজ সাকিবকে দারুণ সঙ্গ দেন সাব্বির রহমান। টেস্ট সিরিজে ফ্লপ সাব্বিরও আস্থার পরিচয় দিয়েছেন। ৫৪ বলে দুটি চার ও তিনটি ছয়ে ৫২ রান করেন এই তরুণ ক্রিকেটার।