English Version

আজকের চাকরির খবর লাইভ খেলা দেখুন

বর্তমান শিশুতোষ এবং প্রাসঙ্গিক কিছু কথা


husneara-begum-1234

ডরিমন জ্বরে ভুগছে সারা দেশ। অবস্থাটি মনে হয় দেখার কেউ নেই। বলা হয়” ঘুমিয়ে আছে শিশুর পিতা সব শিশুরই অন্তরে’। তাহলে আমাদের ভবিষ্যৎ পিতারা কি শিখছেন। প্রতি বছর ফেব্রুয়ারি মাস আসে। ঘটা করে পালন করা হয় মহান আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস-২১ শে ফেব্রুয়ারি। দিনভর চলে মাতৃভাষার অবিস্বরণীয় গান, ” আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো ২১ শে ফেব্রুয়ারি”। তারপর ফেব্রুয়ারি চলে যায়, চলে যায় মাতৃভাষার কদর। বাংলা ভাষার চেয়ে ভিন ভাষায় কথা বলাতে যেন বেশি আভিজাত্য প্রকাশ পায়।

অনেক মাকে গর্ব করে বলতে শুনি,” আমার বাচ্চাতো হিন্দি ছাড়া কথাই বলেনা। ” একি গৌরবের নাকি অপমানের তা কখনো ভেবেছেন কি? একটা মানুষের একাধিক ভাষা জানা থাকতেই পারে। কিন্তু নিজের ভাষার উর্ধ্বে কিছু না। ভারত যদি নিজের ভাষায় ডাবিং করতে পারে তবে আমরা কেন বাংলা ভাষার বদলে ভিনভাষায় শিশুদের আত্মস্ত করছি। একি আমাদের উদারতা নাকি হীনমন্যতা? একবার ভেবে দেখা উচিত নয় কি?

সময়ের প্রয়োজনে আজ আমরা ঘরে বাইরে সবাই ব্যস্ত।ইচ্ছে থাকলেও বাচ্চাদের যথেষ্ট সময় দেওয়া যাচ্ছে না। যখন মা- বাবা কাছে না থাকে তখন শিশুরা টেলিভিশনেই সুখ খোজে। আমাদের সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় এগিয়ে যাবে এদেশ। আমি আমার যে সন্তান ঘরে রেখে আসছি সে বিনোদনে কি পাচ্ছে। ভিন ভাষার চর্চা। এদেশে কি আমার শ্রম নেই? প্রতিটি বাংলাদেশির শ্রমে গড়া আমার এ বাংলা। তাই এদেশের যারা নীতি নির্দারক তাদের কাছে বিনীত অনুরোধ ভিন ভাষার বদলে বাংলায় ডাবিং করে কার্টুন প্রচার করুন। আমার এও বিশ্বাস সঠিক পৃষ্ঠপোষকতা পেলে বাংলার ছেলেরাও বিশ্বমানের কার্টুন নির্মান করতে পারবে। সমৃদ্ধ হবে বাংলা মায়ের শিশুসম্ভার।

 

মোসাম্মাৎ হোসনেয়ারা আক্তার
সহকারী শিক্ষিকা, কুতুবখালি প্রাথমিক বিদ্যালয়।