English Version

আবারো আলোচনার মুখে জয়া আহসান


বিডিটুডেস ডেস্কঃ জনপ্রিয় অভিনেত্রী জয়া আহসান এখন শুধু বাংলাদেশেরই অভিনেত্রী নন। কলকাতার ছবিতে একের পর এক অভিনয় করে রীতিমতো দুই ভুবনের বাসিন্দা বনে গেছেন।

শুধু তাই নয়, দুই বাংলায় এখন সমান জনপ্রিয় তিনি।এখন জয়া অভিনয় করছেন কলকাতার আরেক নতুন ছবি ‘বিসর্জন’-এ। কৌশিক গাঙ্গুলি পরিচালিত এ ছবিতে তার বিপরীতে অভিনয় করছেন আবির। এতে পরিচালক কৌশিক নিজেও অভিনয় করছেন। সমপ্রতি প্রকাশিত হয়েছে ছবিটির লোগো পোস্টার।

এ প্রসঙ্গে নির্মাতা কৌশিক বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের সাক্ষাৎকারে বলেন, ছবির গল্পের মধ্যে একটা পুরনো দিনের অনুভূতি আছে। এটি গ্রামের গল্প। এক বিধবা বাংলাদেশি মেয়ের সঙ্গে এক ভারতীয় পুরুষের প্রেম নিয়ে ছবির কাহিনী এগিয়েছে। সীমান্ত টেনে যে প্রেমকে ভাগ করা যায় না তা দেখানো হয়েছে। এদিকে, ‘বিসর্জন’ ছবির ডাবিংয়ে জয়ার অভিনয় দেখে অনেকেই চমকে গেছেন।

সে সঙ্গে নতুন করে আবারো আলোচনায় এসেছেন তিনি। কেউ কেউ তো বলছেন, পরের জাতীয় পুরস্কার তার জন্য। কিন্তু এই পুরস্কার তিনি পাবেন না দুটো কারণে। এক, জয়া ভারতীয় নাগরিক নন। দুই, ছবিটা যদি দু’দেশের মধ্যে জয়েন্ট ভেঞ্চার হয়, তবেই সেই ছবির নায়ক-নায়িকা অন্য দেশের হলেও জাতীয়
পুরস্কারের জন্য বিবেচিত হবেন। ‘বিসর্জন’ যেহেতু জয়েন্ট ভেঞ্চার নয়, তাই জয়া ভারতের জাতীয় পুরস্কারের জন্য বিবেচিত হবেন না। জয়া আহসান বলেন, কৌশিকদার পরিচালনায় কাজ করার ইচ্ছা আমার বহুদিনের। এর আগে ‘আবর্ত’ ছবিতে তার সঙ্গে অভিনয় করেছি। এবার তার পরিচালনায় অভিনয় করছি। বিষয়টি নিয়ে বেশ উচ্ছ্বসিত। বর্তমানে বাংলাদেশি নির্মাতা নূরুল আলম আতিকের ‘লাল মোরগের ঝুটি’ শিরোনামের ছবিতে অভিনয় করছেন জয়া। কিছুদিন আগে দেশে এসে এ ছবির শুটিংয়ে অংশ নেন তিনি। জানা গেছে, জয়া এবার থার্টিফার্স্ট নাইট কাটাবেন সিডনিতে। এজন্য ৩১শে ডিসেম্বর অস্ট্রেলিয়ায় অবস্থান করবেন জয়া। এখন পর্যন্ত দু-দুবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেছেন জয়া। নাসিরউদ্দিন ইউসুফ পরিচালিত ‘গেরিলা’ (২০১১) এবং রেদওয়ান রনি পরিচালিত ‘চোরাবালি’ (২০১২) চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য তিনি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে ভূষিত হন।

এ প্রসঙ্গে জয়া বলেন, সত্যি বলতে কী ভীষণ ভালো লেগেছিল। ভাষায় প্রকাশ করতে পারবো না। আমি আমার কাজের প্রতি ভালোলাগা ভালোবাসার প্রাপ্য সম্মান পেয়েছি। আমি তাতেই সন্তুষ্ট। টিভি পর্দায় ক্যারিয়ার শুরু হলেও এ মুহূর্তে চলচ্চিত্রের ব্যস্ততার কারণে সে জায়গাটি থেকে বিরতি নিয়েছেন জয়া। তবে টিভি অঙ্গনের প্রতি যে ভালোবাসা আর শ্রদ্ধা সেটা কখনোই হারাননি। এ বিষয়ে জয়া বলেন, ছোট পর্দায়ই কিন্তু আমাকে আজকের জয়া আহসান হিসেবে তৈরি করেছে। সে কারণে ছোট পর্দার নিয়মিত যারা দর্শক তাদের প্রতি শ্রদ্ধা রেখেই বলছি আপাতত আমি ছোট পর্দায় বিরতি নিয়েছি চলচ্চিত্রে অভিনয়ের কারণেই।

কয়েক বছর ধরে আমি ছোট পর্দার কাজ করছি না। সবচেয়ে বড় কথা হলো চলচ্চিত্রে কাজ করতে হলে সময়টা একটু বেশিই দিতে হয়। সবমিলিয়ে এ মুহূর্তে টিভি পর্দায় কোনো কাজ করা হচ্ছে না। ২০১০ সালে ‘ডুব সাঁতার’, ‘ফিরে এসো বেহুলা’, ২০১১ সালে ‘গেরিলা’, ‘চোরাবালি’, ২০১৩ সালে ‘পূর্ণদৈর্ঘ্য প্রেম কাহিনী’ এবং সর্বশেষ  ২০১৬ সালে ‘পূর্ণদৈর্ঘ্য প্রেম কাহিনী টু’ ছবিতে অভিনয় করে নায়িকা হিসেবে আলোচনায় ছিলেন জয়া।

 

আরডি-১২/১২/২০১৬ইং