English Version

আজকের চাকরির খবর লাইভ খেলা দেখুন

আমার অব্যক্ত কথা


 বিজয়ের ৪৫ বছরে পদার্পণ করেছে আমাদের বাংলাদেশ।বছর ঘুরে যখন ডিসেম্বর মাস আসে,দলমত নির্বিশেষে সকল বাঙালীদের প্রানে বিজয়ের সুর বেজে উঠে।কিন্ত আমার প্রানে বিজয়ের সুর শুধু নয়,পাশাপাশি বেদনার সুরও বেজে ওঠে।কারন বিজয় মানে কি?স্বাধীনতার যুদ্ধ কেন হয়েছিল?এসব প্রাইমারী স্কুলে পড়ার সময় আমি জানতে পারিনি।কেন জানতে পারিনি,এসকল প্রশ্নের উত্তর খুজে পেয়েছি,যখন হাইস্কুলে ৬ষ্ট শ্রেনীতে পদার্পন করি।বাংলার স্যার ছিলেন মফিজুল ইসলাম।তিনি বিজয়ের কথা,স্বাধীনতার কথা,বাঙালীর বীরত্বের কথা,বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে আমরা পেয়েছি লাল সবুজের পতাকা এসব ইতিহাস আমাদের জানিয়েছেন।মফিজ স্যার আজ নেই আমাদের মাঝে।তিনি গত হয়েছেন।স্যারের প্রতি রইলো এ বিজয়ের দিন আমার লাল সালাম।কারন স্যারের মাধ্যমে সত্যিকার ইতিহাস আমি জানতে পেরেছিলাম।কিন্ত কস্ট বুকে পাথর চাপা দেয় একারনে,প্রাইমারীতে বিজয়ের দিন স্কুল বন্ধ থাকবে,এটই ছিল মুল আনন্দ।
কিন্তু কেন এদিনটিতে সরকারী ছুটি নির্ধারিত হলো,দিনটির মানে কি,এসম্পর্কে কিছুই জানা হয়নি।আমার মনে প্রশ্ন জাগে? তৎকালীন সময়ে ওই সময়কার শিক্ষকেরা কি এদেশের নাগরিক ছিলনা,তারাতো জাতী গঠনের প্রথম কারিগর।তাদের প্রতি আমার যে ক্ষোভ, লিখার মতো ভাষা আমার জানানেই।বর্তমানে পরিবর্তন লক্ষ্য করা যাচ্ছে।ওই দিন গুলোতে স্কুল খোলা রেখে আনুস্ঠানিকতা করতে দেখাযায়।রাস্ট্রের প্রতি রইলো আমার আবেদন,সত্যিকারের ইতিহাস প্রাইমারী থেকেই যেনো জানাযায় সেদিকটির প্রতি বেশী নজর যেনো দেওয়া হয়।
লেখা:
আবু সিদ্দিক বাদল (সাংবাদিক)