English Version

আজকের চাকরির খবর লাইভ খেলা দেখুন

বান্ধবীর প্রতি অতিরিক্ত প্রেমের মূল্য দিতে হল টাইগার শ্রফকে


বলিউডে এখনও পর্যন্ত টাইগার শ্রফকে রাখা হয় তৃতীয় স্তরে। তিন খান, অক্ষয়, হৃতিক, সইফ বা রণবীর সিংয়ের পরে যদি থাকেন সুশান্ত সিং রাজপুত, অর্জুন কপূর, রণবীর কপূর বা বরুণ ধবন তবে টাইগারকে রাখতে হয় তৃতীয় স্তরে। এখনও পর্যন্ত যা পারফরম্যান্স তিনি হিন্দি ছবিতে দেখিয়েছেন তা দিয়ে দ্বিতীয় স্তরে তাঁকে ফেলা যায় না। বরং থার্ড টায়ারে আদিত্য রায় কপূরের সঙ্গে তাঁকে এক বেঞ্চে বসানোই যায়। অথচ নয় নয় করে দু’তিনটি ছবি করা হয়ে গিয়েছে। কিন্তু তাঁর ছবি না বাণিজ্যিক সাফল্য পেয়েছে না তিনি উঁচুদরের অভিনেতা হিসেবে নাম কিনেছেন।

এই রকম অবস্থায়, যখন তাঁর নিজের পায়ের নীচের জমিই নড়বড়ে তখন তাঁর পক্ষে অন্য কারও কেরিয়ার তৈরি করে দেওয়ার দায়িত্ব নেওয়াটা মূর্খামি। কিন্তু টাইগার ঠিক সেটাই করেছেন এবং বার বার করেছেন আর সেই কারণেই সম্প্রতি প্রযোজক-পরিচালকদের কুনজরে পড়েছেন তিনি। এই গোটা বিষয়টির মূলে কিন্তু রয়েছে দিশা পাটনির প্রতি টাইগারের অন্ধ প্রেম। দিশার সঙ্গে টাইগার যে প্রেম করছেন, সেটা অফিসিয়ালি কখনও বলেননি। তিনি বলেছেন যে দিশা শুধুই তাঁর ভাল বন্ধু। দিশার সঙ্গে তাঁর সিনেমা দেখতে ভাল লাগে, কফি খেতে ভাল লাগে কিন্তু তার বেশি কিছু নয়।

অথচ তিনি বান্ধবীকে নিয়ে ভেকেশনে গিয়েছেন, সেই ছবি ইন্টারনেটে ভাইরাল হয়েছে। কিন্তু তা সত্ত্বেও টাইগারের বক্তব্য তিনি দিশার সঙ্গে প্রেম করেন না। অথচ তিনি বার বার দিশার জন্য তদ্বির করে চলেছেন পরিচালক ও প্রযোজকদের কাছে। ‘বাগী ২’-এর জন্য তিনি প্রথমে সাজিদ নাদিয়াদওয়ালার কাছে দিশার নাম প্রস্তাব করেন। সাজিদ তাঁকে না বলে দেন। এর পরে ‘হিরোপন্তি ২’-এ দিশাকে হিরোইনের চরিত্রটি দেওয়ার জন্য আবারও অনুরোধ করেন সাজিদের কাছে। দ্বিতীয়বারও বেশ ভদ্রভাবেই টাইগারকে ফিরিয়ে দেন সাজিদ।

সামান্য বুদ্ধি থাকলে কেউ আর তৃতীয়বার একই নাম নিয়ে তদ্বির করার কথা ভাববে না কিন্তু টাইগার ভেবেছেন। ‘হিরোপন্তি ২’-এর পরিচালক সাব্বির খানের কাছে আবারও তিনি দিশার জন্য সুপারিশ করেন। এই খবর প্রযোদক সাজিদ নাদিয়াদওয়ালার কাছে পৌঁছতেই প্রচণ্ড রেগে যান তিনি। একটি গসিপ ওয়েবসাইটের প্রতিবেদন অনুযায়ী, সাজিদ টাইগারকে রীতিমতো ওয়ার্নিং দিয়েছেন যাতে ভবিষ্যতে আর কোনও মিটিংয়ে দিশা-র নাম তিনি না করেন। করলে ঠিক কী হতে পারে সেটা প্রতিবেদনে না লেখা থাকলেও সহজেই অনুমান করা যায়। টাইগার বলিউডের প্রাক্তন হিরোর ছেলে হতে পারেন কিন্তু যেহেতু তিনি বিরাট কোনও প্রতিভা নিয়ে আসেননি তাই প্রযোজকদের কুনজরে পড়লে তাঁর কেরিয়ারের যে বারোটা বেজে যেতে পারে, সেটা বলাই বাহুল্য।

অন্যদিকে দিশা কিন্তু তাঁর কেরিয়ারের জন্য বলিউডে আটকে নেই। ইতিমধ্যেই তিনি কাজ পেয়েছেন জ্যাকি চ্যানের ছবিতে। এই মাসেই মুক্তি পেতে চলেছে সেই ছবি, ‘কুংফু ইয়োগা’। সেখানে রাজকুমারী অস্মিতার ভূমিকায় অভিনয় করেছেন দিশা। এর পরেও কেন বলিউডের অপেক্ষাকৃত কম গ্ল্যামারের ছবির জন্য তাঁর নাম সুপারিশ করতে হবে, সেটাই আশ্চর্যের বিষয়! নাকি পুরোটাই অন্ধ প্রেমের ফলে ঘটছে? যদি টাইগার এই সব ছেলেমানুষি বন্ধ না করেন তবে কেরিয়ার মুখ থুবড়ে পড়তেই পারে।

০৭/০১/২০১৭-ZR