English Version

আজকের চাকরির খবর লাইভ খেলা দেখুন

মেয়েকে ধর্ষনের পর হত্যা, দাড়িয়ে দেখল মা


মেয়েকে নিজের প্রেমিক ধর্ষণ করে হত্যা করছে এবং দাঁড়িয়ে থেকে তা দেখছে মা! এমনই এক ঘটনা ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভানিয়া রাজ্যে। আত্মহত্যার নাটক সাজানো এক মামলার তদন্ত শেষে এ ঘটনায় মেয়েটির মা ও তার প্রেমিককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
তদন্ত করে পুলিশ জানতে পারে, গত ১ বছর ধরে সারা প্যাকার ও তার প্রেমিক জ্যাকব সুলিভেন ১৪ বছর বয়সী পালক কন্যা গ্রেসকে হত্যার পরিকল্পনা করছিল। আর তার অংশ হিসেবে সারা তার বাসা থেকে ১৪ বছর বয়সী গ্রেসকে নিজেদের নতুন বাসায় নিয়ে আসে ২০১৫ সালের জুলাই মাসে। সেখানে দাঁড়িয়ে থেকে পালক মা দেখে, কিভাবে তার মেয়েকে ধর্ষণ করছে জ্যাকব। এরপর মেয়েকে অর্ধ মৃত অবস্থায় ঐ বাসায় ফেলে চলে আসে তারা। পরের দিন বাসাটিতে গিয়ে দেখে, কিশোরী মেয়েটি এখনো বেঁচে আছে। এ সময় শ্বাসরোধ করে হত্যা করে গ্রেসের দেহটি ঐ বাসায় ফেলে আসে এই খুনি যুগল।
পরবর্তীতে গ্রেসের পালক মা সারা পুলিশের কাছে জানায়, বাড়িতে ঝগড়া করে গ্রেস বাড়ি ছেড়ে চলে গেছে এবং তার কোন খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু করে পুলিশ। এ সময় সারা ও তার প্রেমিক ভয় পেয়ে গ্রেসের লাশ এবং সে সময় গ্রেসের সঙ্গে থাকা অন্যান্য দ্রব্য দূরে ফেলিয়ে আসে।
তদন্তকারী এক পুলিশ কর্মকর্তা জানান, গ্রেসের হারিয়ে যাওয়ার বিষয়ে পুলিশকে জানালেও স্টেট ডিপার্টমেন্টকে এ বিষয়ে কিছু জানায়নি সারা। তাদের লক্ষ্য ছিল, এই পালিত কন্যার জন্য পাওয়া ৭৫০ ডলার পাওয়া। প্রতি মাসে এই টাকা নিজেদের কাজে ব্যবহারের জন্য পালিত কন্যাকে হত্যা করে তারা।
তদন্তের এত পর্যায়ে ৩০ ডিসেম্বর ধরা পরে যাওয়ার ভয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে সারা ও তার স্বামী। এ সময় প্রতিবেশীরা তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে প্রেরণ করে। সেখানেই পুলিশের কাছে স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দী দেয় এই পালক মা।
১১/০১/২০১৭-ZR

  • 1.5K
    Shares