English Version

ভালোবাসার শাস্তি ৭ বছর গৃহবন্দী

ভারতের এক তরুণী মুসলিম ছেলেকে ভালবেসেছিল। সেটাই ছিল তার অপরাধ। যার শাস্তি হিসাবে তাকে সাতটি বছর বাড়িতে তালাবন্ধ করে রাখার অভিযোগ উঠেছে তার পরিবারের বিরুদ্ধে। সম্প্রতি দিল্লির মহিলা কমিশনের সদস্যরা গিয়ে মেয়েটিকে উদ্ধার করে। এখন তার বয়স ৩২।

তরুণীর জানান, ২৫ বছর বয়সে সহপাঠী এক মুসলিম যুবকের সঙ্গে তার সম্পর্ক গড়ে ওঠে। যা মানতে পারেনি তার পরিবার। সম্পর্কের কথা জানাজানি হতেই মেয়েটিকে বাড়িতে আটকে রাখতে শুরু করে তার পরিবার। ২০০৯ সালের ১৪অগস্ট থেকে তাকে ঘরের মধ্যে তালাবন্ধ করে রাখা শুরু হয়। ফোন, ইন্টারনেট কিছুই ব্যবহার করতে দেওয়া হতো না। এমনকি পালাতে চাইলে তার বাবা মারধর করতেন। মা আত্মহত্যার হুমকি দিতেন। শুধু তাই নয়, ছেলেটি আসলে ‘লাভ জিহাদের’ নামে তাকে ফাঁসাচ্ছে বলেও মেয়েটিকে বোঝানোর চেষ্টা করে তার পরিবার। কিন্তু কোন কিছুতেই ওই তরুণী রাজি হননি।

অবশেষে একদিন সুযোগ পেয়ে মায়ের ফোন থেকে ওই তরণী দিল্লির মহিলা কমিশনের হেল্পলাইন নম্বর ১৮১-তে ফোন করে সাহায্য চান। এরপরেই মহিলা কমিশনের সদস্যরা গিয়ে ওই তরুণীকে উদ্ধার করেন। তরুণী অবশ্য নিজের পরিবারের বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ জানাননি। এমনকি তিনি জাানান, তার প্রাক্তন প্রেমিক যদি অন্য কাউকে জীবনসঙ্গী হিসেবে বেছেও নিয়ে থাকেন, তাতেও তিনি রাগ করবেন না। কারণ দীর্ঘদিন প্রেমিকের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেননি তিনি। তিনি তার মতো করে তাকে ভালোবেসে যাবেন।

Shares