English Version

আজকের চাকরির খবর লাইভ খেলা দেখুন

জঙ্গি নিয়ে দেশের মানুষ আজ নির্বাক


পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের সাথে চুক্তি এবং দেশে গর্জে ওঠা জঙ্গিদের উত্থান এর মধ্যে সম্পর্ক কোথায়? পাঠক গুলশানে জঙ্গি হামলার পর মিডিয়ার মাধ্যমে আমরা জেনেছি, রাস্ট্র ক্ষমতায় নেই একটি বিশেষ দল জঙ্গিদমনে সরকারের পাশে থাকবে, এমনটাই বক্তব্য উঠে আসে। দেশের সুধী মহল আশার আলো দেখতে পেয়েছিল। কিন্তু বর্তমান পর্যায়ে জঙ্গিদের যে উত্থান ঘটেছে, বাংলাদেশ পুলিশবাহিনীর ৬টি তাজা প্রানের বিনিময়ে জঙ্গিদের দমন করা হলো।

আর এ এমুহুর্তে ওই দল এবং সরকারি দলের কতিপয় নেতাদের বক্তব্য দেশবাসীকে ভাবিয়ে তুলেছে। সরকারি দলের কতিপয় নেতা বক্তব্যে বলেছেন, জঙ্গি উত্থান বিএনপির সৃষ্টি ।  অন্য দিকে ওই দল যে দলটি জঙ্গি দমনে তাদের সহযোগীতার কথা বলেছিলেন, তাদের মুখে এখন শুনা যাচ্ছে, ভারতের সাথে একটি বিশেষ চুক্তি সম্পাদনের জন্য সরকারী দল এ এমুহুর্তে দেশে জঙ্গি উত্থান পরিকল্পনা মাফিক ঘটানো হচ্ছে । যা মিডিয়ার মাধ্যমে আমরা জানতে পারলাম।

সত্যিই দেশবাসী আজ হতবাক,বাকরুদ্ধ হয়ে পরেছে সরকারি দল তথা সরকারের বাহিরে থাকা দল গুলোর নেতাদের এধরনের বক্তব্য শুনে। দেশবাসীর কাছে আজ প্রশ্ন হয়ে দাড়িয়েছে, দেশ ও দশের জন্য যদি হয়ে থাকে রাজনীতি, তাহলে তাদের বক্তব্যতো প্রমান করে গদী দখলে রক্তের হুলি খেলায় মেতে উঠেছে দলগুলি। দেশবাসী এমনটি আশা করেনা। দেশবাসী আশা করে জঙ্গিদমনে দেশের সকল দল এক হয়ে কাজ করবে। কারন দল গুলোতো দেশও দশের জন্য রাজনীতি করে তাইনা।

জঙ্গিরা যদিও হয়ে থাকে কারো না কারো সন্তান, কিংবা ভাই-বোন। তাদের বর্তমান পরিচয় হচ্ছে, তারা দেশও জাতীর শত্রু। দেশও দশের জন্যে যদি হয়ে থাকে রাজনীতি, তাহলে এ জাতীকে জঙ্গিদের হাত থেকে রক্ষা করতে এগিয়ে আসা আপনাদের নৈতিক দায়িত্ব। আর এ দায়িত্ব পালনে যদি হন ব্যর্থ, তাহলে ওই জঙ্গিদমনে নিহত ৬ পুলিশ সদস্যদের আত্মা এবং দেশবাসী করবেনা আপনাদের ক্ষমা।

 

লেখা: আবু সিদ্দিক বাদল (সাংবাদিক)