English Version

বিয়ে ভেঙ্গে গেল গরুর মাংস খেতে চাওয়ায়!


গবাদি পশু বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা নিয়ে গোটা ভারত জুড়ে বিতর্ক তুঙ্গে। মামলা গড়িয়েছে আদালত পর্যন্ত। আর এবার ভারতের উত্তরপ্রদেশেই পাত্রপক্ষ গরুর মাংস খেতে চাওয়ায় বিয়েই ভেঙে দিলেন পাত্রীর পরিবার। ঘটনায় পাত্রপক্ষের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগও দায়ের করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের উত্তরপ্রদেশের রামপুর জেলার দারিয়াগড় গ্রামে।

ভারতে পশু হাটে বা পশু বাজারে মাংস খাওয়ার বা ধর্মীয় কারণে জবাই দেওয়ার জন্য গরু, বাছুরের মতো গবাদি পশু কেনাবেচা করা যাবে না বলে নির্দেশিকা জারি করেছে ভারপ্তের আদালত। তার উপর উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ ক্ষমতায় বসার পরই বেআইনি মাংস বিক্রেতাদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নিয়েছেন তিনি। বন্ধ করা দেওয়া হয়েছে বেআইনি কসাইখানাগুলি। তাই শুধু গো-মাংস নয়, উত্তরপ্রদেশের এখন কার্যত মাংসেরই আকাল দেখা দিয়েছে।

জানা গেছে, এই পরিস্থিতিতে বিয়ের অনুষ্ঠানে যে মাংস পরিবেশন করা সম্ভব নয়, তা আগেই পাত্রপক্ষকে জানিয়ে দিয়েছিল পাত্রীর বাড়ির লোকেরা। কিন্তু বিয়ের দিন বেঁকে বসে পাত্রের বাড়ি লোকেরা। বরযাত্রীদের গরুর মাংস খাওয়ানোর দাবি তোলে তারা। পাত্রীর পরিবারকে শর্ত দেওয়া হয়, হয় গরুর মাংসের ব্যবস্থা করতে হবে নতুবা বিয়ে বাতিল করে দেওয়া হবে। এরপরই বিয়ে ভেঙে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন পাত্রীর বাড়ির লোকেরা। পাশাপাশি পণ হিসেবে পাত্রকে একটি গাড়ি দেওয়ার দাবিও মেনে নেননি তারা।

ঘটনার পরই স্থানীয় থানায় পাত্রপক্ষের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন পাত্রীর বাড়ির লোকেরা। স্থানীয় থানার কর্মকর্তা রাজেশ কুমার তিওয়ারি জানিয়েছেন, পাত্রপক্ষের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করে করা হয়েছে।

বিডিটুডেস/জেডআর/১৮জুন’১৭