ঢাকা, বাংলাদেশ, ২৭°সে | আজ |
ইংরেজী ভার্সন English Version

অনলাইন পত্রিকা নিবন্ধন। তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

সারা দেশে ইন্টারনেট পত্রিকার হালনাগাদ এর কোনো তালিকা সরকারের কাছে নেই। তবে অনলাইন পত্রিকা নিবন্ধনের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন আছে। এখন পর্যন্ত নিবন্ধনের জন্য ২ হাজার ১৮টি আবেদন পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেন।

আরো পড়ুন:- বিশ্ব ইজতেমা ইসলামী উম্মাহর ঐক্য জোরদারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। মহামান্য রাষ্ট্রপতি

সরকারি দলের সদস্য নুরুন্নবী চৌধুরীর প্রশ্নের জবাবে আজ বৃহস্পতিবার তিনি সংসদে এ তথ্য জানান। তথ্যমন্ত্রী জানান, সারা দেশে এখন নিবন্ধিত পত্রিকার (প্রিন্ট মিডিয়া) সংখ্যা ৩ হাজার ২৫টি। এর মধ্যে দৈনিক পত্রিকার সংখ্যা এক হাজার একশত একানব্বই টি। দৈনিক পত্রিকাগুলোর মধ্যে ঢাকা থেকে প্রকাশিত হয় চারশত সত্তরটি। অর্ধসাপ্তাহিক পত্রিকা তিনটি, সাপ্তাহিক পত্রিকা এক হাজার পঁচাত্তরটি, পাক্ষিক দুইশত বারটি, মাসিক মাসিক চারশত চারটি, দ্বিমাসিক সাতটি, ত্রৈমাসিক আটাশ টি, চতুর্মাসিক একটি, ষাণ্মাসিক দু্ইটি এবং বার্ষিক পত্রিকা দুইটি।

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু জানান, এখন দেশে অনুমোদিত বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলের সংখ্যা পঁয়তাল্লিশটি। বিরোধী দলের সদস্য ফখরুল ইমাম সম্পূরক প্রশ্নে জানতে চান, ইসলামিক টিভি ও দিগন্ত টিভির সম্প্রচার স্থগিত কেন?  জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ইসলামিক টিভি ও দিগন্ত টিভির সম্প্রচার স্থগিত আছে। এই দুটি টিভির লাইসেন্স বাতিল করা হবে কি না, তা এখনো কোন চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি। তিনি বলেন, হেফাজতে ইসলামের নেতৃত্বে যেদিন ঢাকা তথা দেশ দখলের চেষ্টা হয়েছিল সেদিন সরাসরি সম্প্রচারে নিয়ম ভেঙে এই দুটি টিভি চ্যানেল উসকানি দিয়েছিল। উসকানি বন্ধ করতে তাৎক্ষণিকভাবে এই দুটি টিভির সম্প্রচার সাময়িকভাবে স্থগিত করতে সরকার বাধ্য হয়েছিল। তাদের কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তাদের জবাবে কর্তৃপক্ষ সন্তুষ্ট হয়নি। বিডিটুডেজ/আরএ/১১ জানুয়ারি, ২০১৮