English Version

আগামী বুধবার সুন্দরবনে রাসমেলা শুরু

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

এম.পলাশ শরীফ, বাগেরহাট:  প্রতি বছরের মতো এবারও রাস পূর্ণিমা উপলক্ষে সুন্দরবনের দুবলার চরে ২১ থেকে ২৩ নভেম্বর পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে তিন দিনব্যাপী ‘রাস পূর্ণিমা পুণ্যস্নান’। উৎসব ঘিরে দর্শনার্থী ও পুণ্যার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে বন বিভাগ। যাতায়াতের জন্য নিরাপদ আটটি পথ নির্ধারণ করেছে সুন্দরবন পশ্চিম বন বিভাগ। এসব পথে নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত থাকবে বন বিভাগ, পুলিশ, বিজিবি ও কোস্টগার্ডের টহল দল। অনুমোদিত আটটি পথ হলো বুড়িগোয়ালিনী, কোবাদক থেকে বাটুলা নদী-বল নদী-পাটকোষ্টা হয়ে হংসরাজ নদী হয়ে দুবলার চর, কদমতলা হতে ইছামতী নদী, দোবেকী হয়ে আড়পাঙ্গাসিয়া-কাগাদোবেকী হয়ে দুবলার চর, কৈখালী স্টেশন হয়ে মাদার গাং,

খোপড়াখালী ভাড়ানী, দোবেকী হয়ে আড়পাঙ্গাসিয়া-কাগাদোবেকী হয়ে দুবলার চর, কয়রা, কাশিয়াবাদ, খাসিটানা, বজবজা হয়ে আড়ুয়া শিবসা-শিবসা নদী-মরজাত হয়ে দুবলার চর, নলিয়ান স্টেশন হয়ে শিবসা-মরজাত নদী হয়ে দুবলার চর, ঢাংমারী অথবা চাঁদপাই স্টেশন হয়ে পশুর নদ দিয়ে দুবলার চর, বগী-বলেশ্বর-সুপতি স্টেশন-কচিখালী-শেলার চর হয়ে দুবলার চর এবং শরণখোলা স্টেশন-সুপতি স্টেশন-কচিখালী-শেলার চর হয়ে দুবলার চর। দর্শনার্থী ও তীর্থযাত্রীরা ২১ থেকে ২৩ নভেম্বর যাতায়াতের অনুমতি পাবেন। প্রবেশের সময় ফি দিতে হবে।

 ইউটিউব এ সাবস্ক্রাইব করুন

যাত্রীরা নির্ধারিত রুটের পছন্দমতো একটি পথ ব্যবহারের সুযোগ পাবেন এবং শুধু দিনের বেলায় চলাচল করতে পারবেন। আর বন বিভাগের চেকপয়েন্ট ছাড়া অন্য কোথাও নৌকা, লঞ্চ বা ট্রলার থামানো যাবে না। প্রতিটি ট্রলারের গায়ে রঙ দিয়ে বিএলসি অথবা সিরিয়াল নম্বর লিখতে হবে। রাস পূর্ণিমায় আগত পুণ্যার্থীদের সুন্দরবনে প্রবেশের সময় জাতীয় পরিচয়পত্র অথবা ইউপি চেয়ারম্যানের কাছ হতে প্রাপ্ত সনদপত্র সঙ্গে রাখতে হবে। পরিবেশ দূষণ করে, এমন বস্তু, মাইক বাজানো, পটকা ও বাজি ফোটানো, বিস্ফোরক দ্রব্য বা দেশীয় অস্ত্র ও আগ্নেয়াস্ত্র বহন নিষেধ। সুন্দরবনের অভ্যন্তরে অবস্থানকালে টোকেন ও টিকিট সঙ্গে রাখতে হবে। সুন্দরবন বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা বশিরুল আল মামুন এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এ ব্যাপারে বিভাগীয় বন কর্মকর্তা আমির হোসাইন বলেন, রাস পূর্ণিমা উপলক্ষে আমরা সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়েছি। পুণ্যার্থীরা যাতে অবাধে চলাচল করতে পারেন, সেসঙ্গে বনের প্রাণ ও পরিবেশ সুরক্ষিত থাকে, সে বিষয়টি নিশ্চিত করতে ব্যবস্থা নেয়া হবে। বিডিটুডেস/আরএ/১৮ নভেম্বর, ২০১৮

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

20 − 14 =