English Version

আজকের চাকরির খবর লাইভ খেলা দেখুন

উল্কাঝড় দেখতে উঠে পড়ুন চাঁদপুরগামী কোন লঞ্চে!!!

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

 

 

 

আগামী ১৬ তারিখ পর্যন্ত অজস্র উল্কার উৎসব দেখা যাবে আকাশে। গড়ে এই সংখ্যা প্রতি ঘণ্টায় প্রায় ১২০টি! উল্কাপতন বা তারা খসা দেখলে নাকি মনের ইচ্ছাপূরণ হয়! তাই আলোকবিন্দুর রাত্রিকালীন নৃত্যকলা দেখাই এখন অসংখ্য ভ্রমণকারীর প্রধান ইচ্ছা। ঢাকার ধূলা ভরা আকাশে তো উল্কার মেলা সেই আনন্দ দেবে না। পরিষ্কার আকাশ চাই। কোনো পাহাড়ের চূড়ায়, নদীতে ভাসমান অবস্থায় অথবা অন্তত কোনো গ্রামের প্রান্তরে যেখানে আকাশটা অনেক বড়, দিগন্তজোড়া, চোখ আটকে যায় না বৈদ্যুতিক তারের ব্যারিকেডে সেখানেই তো যাওয়া চাই! ভাবছেন আশেপাশে কোথায় গেলে রাতটিকে উপভোগ করা যাবে সবচেয়ে চমৎকারভাবে! আজ রাতে উঠে বসতে পারেন চাদপুরগামী কোন লঞ্চে। বর্তমান সময় হিসেবে রুটটির যাত্রী চাহিদা অনেক এবং রুটে চলাচল করা লঞ্চের সংখ্যাও বেশ ভালই। প্রতিদিন প্রায় ১৪-১৫ টি লঞ্চে চলাচল করেন প্রায় হাজার হাজার মানুষ।

 

 

কোনো অণুবীক্ষণ যন্ত্রের প্রয়োজন নেই। খালি চোখেই দেখতে পাবেন উল্কাপতন।উন্মুক্ত প্রান্তর যেখানে আকাশ অনেক বিশাল আর পরিষ্কার সেখানেই আপনার চোখ ধাধিঁয়ে দেবে প্রাকৃতিক আলোর ঝলকানি। এই সময় চাঁদ উঠবে পৌনে ৪টার দিকে। তাই দীর্ঘ একটি সময় পাবেন নিশ্ছিদ্র অন্ধকার। রাত ৯ টা থেকে ৩ টার মধ্যে সবচেয়ে ভালো দেখা যাবে উল্কার আলোকঝর্ণা। তাই আসুন, জেনে নেই ঢাকা-চাঁদপুর-ঢাকা রুটে চলাচলরত কোন  লঞ্চে আপনি উঠে উপভোগ করতে পারবেন আজকের উল্কাপাত।

 

 

ঢাকা থেকে চাঁদপুর যেতে পারেন

রাত ৯ টার এম ভি আচলে। লঞ্চটি মূলত ভোলার অন্তর্গত ইলিশা ঘাটের।কিন্তু মাঝের স্টপেজ হিসেবে চাঁদপুর ঘাটে থামে।

রাত ১১:৩০ এর এম ভি আব এ জমজমে

রাত ১২ টার এম ভি রফরফ-২ এ

রাত ১২:৩০ টার এম ভি প্রিন্স অফ রাসেল-৩ এ

 

ঢাকা থেকে রাতের লঞ্চে উল্কাপাত উপভোগ করতে করতে চাঁদপুর পৌঁছে ঘাটে ইলিশ মাছ দিয়ে ভরপেট ভাত খেতে পারেন। এর পর ঘাটের অদূরে তিন নদীর মোহনায় অবস্থিত স্মৃতিসৌধ ‘রক্তধারা’য় কিছু সময় উপভোগ করতে পারেন। দেখতে পারেন রঙিন সূর্যোদয়। তারপর চাঁদপুর ঘুরে যেকোন সময় ফিরে আসতে পারেন কোলাহলের শহর ঢাকায়।

 

চাঁদপুর থেকে ঢাকা ফেরার লঞ্চ

সকাল ৬ টায় এম ভি আল বোরাক

সকাল ৬:৪৫ টায় এম ভি সোনারতরী-৫/৬

সকাল ৭:২০ টায় এম ভি সোনারতরী-২/৫

সকাল ৮ টায় এম ভি ঈগল-১/২

সকাল ৯ টায় এম ভি ঈগল২/৩

সকাল ৯:৩০ টায় এম ভি রফরফ

সকাল ১০:৪০ টায় এম ভি বোগদাদীয়া-৯/তাক্বওয়া

সকাল ১১:৫ টায় এম ভি প্রিন্স অফ রাসেল-৩

দুপুর ১২ টায় এম ভি রফরফ-২

দুপুর ১ টায় এম ভি আব এ জমজম

দুপুর ২ টায় এম ভি নিউ মেঘনা রানী

দুপুর ২:৪০ টায় সোনারতরী-২/৫/৬

দুপুর ৩:৩০ টায় এম ভি সোনারতরী

বিকাল ৫ টায় এম ভি বোগদাদীয়া-৭

সন্ধ্যা ৬ টায় এম ভি ইমাম হাসান-৫ (প্রক্সি ইমাম হাসান-২ কিংবা ইমাম হাসান-০)

রাত ৯:৪০ টায় এম ভি মিতালী-৪

রাত ১১:১৫ টায় এম ভি ইমাম হাসান-২

রাত ১২:১৫ টায় এম ভি ময়ূর-৭

রাত ১২:৪৫ টায় এম ভি ময়ূর-২

রাত ১ টায় বি আই ডব্লিউ টিসির রকেট সার্ভিস।

বিভিন্ন শ্রেণীর ভাড়ার তালিকা।

 

ডেক: ১০০/-
দ্বিতীয় শ্রেণী (নন এসি চেয়ার): ১৩০-১৫০/-
প্রথম শ্রেনী (এসি ইকোনোমিক চেয়ার): ২২০-২৫০/-
বিজনেস ক্লাস (এসি বিজনেস চেয়ার): ২৭০/-
সিঙ্গেল কেবিন (নন এসি): ৪০০/-
সিঙ্গেল কেবিন (এসি): ৪৫০-৫০০/-
ডাবল কেবিন(নন এসি): ৮০০/-
ডাবল কেবিন (নন এসি): ৯০০/-
ভি আই পি কেবিন(সিঙ্গেল): ১০০০/-
ভি আই পি কেবিন(ডাবল): ২০০০/-

 

বিশেষ দ্রষ্টব্য:- প্রতিটি টিকিট একজন ব্যক্তির জন্য প্রযোজ্য। সাথে অতিরিক্ত যাত্রী থাকলে তাদের জন্য একটি করে ডেক টিকিট সংগ্রহ করতে হবে।

আনন্দময় হোক আপনার ভ্রমণ।