English Version

কেমন হতে চলেছে আগামীর পৃথিবী!! (১ম পর্ব)

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

বিডিটুডেস ডেস্ক: ছোটবেলায় বইয়ে পড়ে এসেছিলাম, বর্তমান যুগ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির যুগ। যতক্ষন সময় আপনি মুদি বাজারের ফর্দ নিয়ে ঘাটাঘাটি করছেন বা যতটা সময় হিন্দি সিরিয়াল দেখে নষ্ট করছেন, তার মধ্যে পৃথিবী কতদূর এগিয়ে গেছে আপনি কি টের পাচ্ছেন? না! না! নিজ অক্ষে ঘুরতে ঘুরতে পৃথিবী কতদূর এগিয়ে গেলো তা নিয়ে কথা বলছি না কিন্তু।কথা হচ্ছে প্রযুক্তির হাত ধরে পৃথিবী আজ কোথায় পৌঁছেছে সে টা নিয়ে। ‎আপনি এখন যেখানে,যে অবস্থায় আছেন ঠিক সেখানে থেকেই চোখ বন্ধ করে ভাবুন তো, এখন তো ২০১৮ সাল, ২০৩০ সালের মধ্যে পৃথিবী কোথায় থাকবে? কি দেখতে পাচ্ছেন?? আন্ধার

আরো পড়ুন: আসুন জেনে কেন – পেঁয়াজ কাটলে চোখ দিয়ে পানি পড়ে? 

থাক, আপনাকে আর কসরত করতে হবে না। কেমন হতে পারে আগামী দশকের প্রযুক্তির চেহারা আর সেটার সাহায্যে কি কি ধরণের পরিবর্তন নেমে আসতে পারে এই গ্রহে, আমার আপনার চেনা জিনিসগুলোতে সেই নিয়েই আমাদের আজকের আলোচনা।

রোবটিক্স (Robotics)- আজকাল রোবট বেশ আলোচনা আর আগ্রহের বিষয়বস্তু হয়ে উঠেছে। কিছুদিন আগেও বেশ আলোচনামুখর একটা বিষয়বস্তু ছিলো হিউম্যান রোবট সোফিয়া। রাজধানী ঢাকার গুলশানে কোনো একটা রেস্টুরেন্ট এ লাইন ফলোয়ার রোবট নাকি যাবতীয় কাজ করছে। খাবার পরিবেশন করছে। রোবট নিয়ে আরো কি সব মজার মজার অদ্ভুত অদ্ভুত সব গবেষণা চলছে শুনলাম।

ফেসবুক পেইজে দেখুন

তো আসুন আপনাদের ও শুনাই সেই সব। World Economic Forum এর জরিপ অনুযায়ী আগামী রোবট ইতোমধ্যে Blue Collar Industry তে কাজ করা শুরু করেছে। খুব দ্রুত তারা White Collar Industry তে ও কাজ শুরু করবে। ধারণা করা যায় যে, আনুমানিক ২০২১ সালের মধ্যে রোবট ফার্মাসিস্ট হিসেবে ও কাজ করবে। ব্যাপারটা একটু খোলাসা করি বলি।
একজন ফার্মাসিস্ট এর ৫/৬ বছরের ট্রেনিং/কাজের অভিজ্ঞতার উপর ভিত্তি করে তিনি এটা নিশ্চিত করেন যে আপনি সঠিক ঔষধ সঠিক মাত্রায় পাচ্ছেন কি না!

কিন্তু এখন গবেষকরা ধারণা করছেন যে, একজন মানু্ষের যে কাজ করতে চার/পাঁচ বছরের জ্ঞান খাটাতে হয়, একটা রোবট নিমিষেই সে কাজ করে দিতে পারে। Houston Medical Centre এর একটা মেডিকেল স্টাডি তে দেখা যায় যে, তাদের ফার্মাসিস্ট প্রতি ১০ হাজার প্রেস্ক্রিপশনে ৫ টা ভুল করে থাকেন। হ্যা এটা কথা সত্য যে, একজন মানুষের জন্য ১০ হাজারে ৫ টা ভুল আহামরি কিছু নয়। কিন্তু এটা অন্য একজন মানুষের জীবনের প্রশ্ন। তাই এইটুকু ঝুঁকিও বা আমরা কেন নিবো যেখানে গবেষণা অনুযায়ী রোবট প্রায় বিনা ভুলে সঠিক চিকিৎসা দিতে সক্ষম হচ্ছে। চলুন দেখে আসি একটা রোবটিক ফার্মাসির চিত্রঃ
এইতো গেলো ফার্মাসিস্ট রোবটের কথা। এবার তবে একটা চমকপ্রদ খবর দেই।

Ingestible Robot, এটা এমন একধরনের রোবট যা কি না মানুষের খাদ্যনালী এবং পেটের ভিতর ঘুরে বেড়াতে পারে। হ্যাঁ, আপনি ঠিকই শুনেছেন। এরকম একটা রোবটই আসতে চলেছে ২০২৪ সালের দিকে। ১৯৬৬ সালে Fantastic Voyge নামের একটা মুভিতে এমন একটা জগত কে দেখানো হয়েছিলো যেখানে মানুষকে একদম মাইক্রোস্কোপিক আকারের করে দেয়া হতো এবং তাদের কাজ ছিলো অসুস্থ মানুষদের ভিতরে প্রবেশ করে তাদের রোগমুক্ত কর। প্রায় ৫০ বছর পর সেই কনসেপ্ট কে বাস্তবায়ন করে MIT ‘র CSAIL (Computer Science & Artificial Intelligence Laboratory) তে এই Ingestible Origami Robot নিয়ে কাজ করে একদল গবেষক। ১৯৮৫ সালে রোবট দিয়ে Stereotatic brain biopsy করা হয়। ঠিক তার পরের বছরই একই প্রযুক্তি ব্যবহার করে নিতম্ব প্রতিস্থাপন, এন্ডোস্কপি এবং অন্যান্য কিছু ছোটখাটো রোগের চিকিৎসা করা হয়।(চলবে…) বিডিটুডেস/আরএ/০৯ জুলাই, ২০১৮

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

6 − four =