English Version

আজকের চাকরির খবর লাইভ খেলা দেখুন

নেইমারকে পেতে রিয়ালের তৃতীয় চেষ্টা সফল হবে!

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন


সময়ের সেরা ফুটবলারদের একজন তিনি। ফুটবল বিশারদদের অনেকেই তাকে স্থান দেন লিওনেল মেসি-ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর কাতারে। বলা হয়ে থাকে, মেসি-রোনালদো যুগের অবসান ঘটার পর ফুটবলবিশ্ব শাসন করবেন এই ব্রাজিলিয়ান তারকা। সেই পথে অনেকটাই এগিয়ে গেছেন নেইমার। স্প্যানিশ ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ হয়তো ১১ বছর আগেই চিনতে পেরেছিলো তখনকার ‘ওয়ান্ডার কিড’ নেইমারকে। এ কারণেই তাকে দলে ভেড়াতে দুইবার চেষ্টা করেছিলো লস ব্লাঙ্কোসরা।

সময়ের পালাবদলে সেই নেইমার এখন আরও পরিণত। ২২২ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে বার্সেলোনা ছেড়ে প্যারিস সেন্ট জার্মেইয়ে (পিএসজি) গিয়ে হয়েছেন ইতিহাসের সবচেয়ে দামি ফুটবলার। রিয়াল মাদ্রিদের অর্জনের পাল্লাটাও হয়েছে ভারী। তবুও নেইমারের প্রতি আগ্রহ কমেনি তাদের। নেইমারকে পেতে আবারও উঠেপড়ে লেগেছে স্প্যানিশ জায়ান্টরা। তাদের তৃতীয় চেষ্টা সফল হবে কি?

নেইমারকে পেতে চায় রিয়াল মাদ্রিদ; তা এখন ওপেন সিক্রেটই। স্প্যানিশ গনমাধ্যমের বরাতে জানা গেছে, নেইমারকে পেতে ২০০ মিলিয়ন ইউরোর চেয়ে বেশি খরচ করতেও রাজি রিয়াল মাদ্রিদ। মার্কার দাবি, নেইমারও রিয়ালের সঙ্গে গোপনে প্রাথমিক চুক্তি সেরেছেন!

এই গুঞ্জনে নতুন মাত্রা যোগ করেছেন দলের সবচেয়ে বড় তারকা রোনালদো। পর্তুগীজ এই অধিনায়কের সঙ্গে চুক্তি বাড়াতে ইচ্ছুক নয় ক্লাব কর্তৃপক্ষ। তার পরিবর্তে নেইমারকেই চায় রিয়াল। সব মিলিয়ে নেইমার ও রিয়াল মাদ্রিদের দলবদলের এই ‘মেগা সিরিয়ালের’ হ্যাপি এন্ডিং হবে কি না, তার উত্তর সময়ের হাতেই ছেড়ে দেওয়া যাক। আগের দুইবারের প্রচেষ্টা ব্যর্থ হওয়াতেই নেইমারকে পেতে এবার আটঘাট বেঁধেই নেমেছে রিয়াল।

সর্বপ্রথম ২০০৭ সালে নেইমারকে যুব দলে টানতে চেয়েছিলো রিয়াল মাদ্রিদ। চুক্তিটাও প্রায় সম্পন্ন হয়ে গিয়েছিলো। শেষপর্যন্ত চুক্তিটি হয়নি। নেইমারের এজেন্ট ওয়াগনার রিবেইরো দলবদলের জন্য ৬০ হাজার ইউরো দাবি করলে তা প্রত্যাখান করে রিয়াল। দুই সপ্তাহ রিয়ালের যুব একাডেমিতে কাটিয়ে ব্রাজিলের ফিরে যান নেইমার। এরপর ২০১৪ সালে দলবদলের মৌসুমে আবারও নাটক হয় নেইমারকে নিয়ে। সেবার তাকে পেতে বার্সেলোনার সঙ্গে নীরব যুদ্ধে অবতীর্ণ হয় রিয়াল মাদ্রিদ। রিয়ালকে প্রত্যাখান করে সান্তোস থেকে বার্সেলোনায় যোগ দেন নেইমার। সেবারও নেইমারকে দলে ভেড়ানোর দোরগোড়া থেকে ফিরেছে রিয়াল।

ন্যু ক্যাম্পে লিওনেল মেসি-আন্দ্রেস ইনিয়েস্তাদের সঙ্গে কাটিয়েছেন চার মৌসুম। বার্সা সমর্থকরা ভালোবেসে তাকে ডাকতেন ‘প্রিন্স নেইমার’। কারণ ন্যু ক্যাম্পের রাজা বলা হয় মেসিকে। সেটাই যেন কাল হয়ে দাঁড়ায় কাতালানদের জন্য। ‘মেসির ছায়ায় আর থাকতে চান না নেইমার’ এমন গুঞ্জনে সরব হয়ে ওঠে ইউরোপীয় ফুটবল। সেই গুঞ্জনকে সত্য প্রমাণ করে গত বছরের আগস্টে বার্সেলোনা ছেড়ে পিএসজিতে যোগ দেন ২৫ বছর বয়সী এই ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড।