English Version

ফ্রিল্যান্সিং হিসেবে ডিজিটাল মার্কেটিং এর বিস্তারিত (১ম পর্ব)

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

 

বিডিটুডেস ডেস্ক: বর্তমান সময়ে ডিজিটাল মার্কেটিং কে বলা যায় একটি কোম্পানি, কোম্পানির পণ্য বা সেবার প্রচার ও প্রসারের জন্য অন্যতম প্রধান হাতিয়ার। এর প্রধান কারণ – যুগের চাহিদা। বর্তমান জুগ ডিজিটাল যুগ। আপনি এখন যে পৃথিবীতে বাস করছেন তার সর্বত্র ছড়িয়ে আছে ডিজিটাল প্রযুক্তির ছোঁয়া। সাধারন মানুষ, বিশেষ করে আমাদের ইয়াং জেনারেশন এর কাছে বিভিন্ন ইলেকট্রনিক ডিভাইস, সোশ্যাল মিডিয়া, অনলাইন কমিউনিকেশন ও শেয়ারিং ইত্যাদির জনপ্রিয়তা দ্রুত গতিতে বাড়ছে।

আরো পড়ুন: ফ্রিল্যান্স এ লিখে টাকা ইনকামের কয়েকটি সাইট

তাই বর্তমান যুগে আপনি যদি অল্প পরিশ্রমে খুব সহজে আপনার পণ্যের প্রচার ও মার্কেটিং করতে চান, তাহলে আপনাকে ডিজিটাল মাধ্যম ব্যবহার করতেই হবে। আর ডিজিটাল মাধ্যম ব্যবহার করে প্রচারণা চালানো মানেই হচ্ছে ডিজিটাল মার্কেটিং। বর্তমান সময়ে ডিজিটাল মার্কেটিং এতটাই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে যে গড়ে উঠেছে বেশ কিছু ডিজিটাল মার্কেটিং এজেন্সি।
আজকের এই পোষ্ট থেকে আমরা জেনে নেব ডিজিটাল মার্কেটিং এর আদ্যোপান্ত। এবং সেই সাথে আপনি কীভাবে ডিজিটাল মার্কেটিং কে পেশা হিসেবে নিতে পারেন তা নিয়ে আলোচনা করবো। প্রথমেই আসুন দেখে নেই ডিজিটাল মার্কেটিং এর বিভাগ বা প্রধান কার্যাবলি কি কিঃ

ডিজিটাল মার্কেটিং বিভাগ সমূহঃ
একটি ডিজিটাল মার্কেটিং এজেন্সি কে অনেক ধরণের কাজের সাথে সম্পৃক্ত থাকতে হয়। তার মধ্যে মূল যে কাজগুলো রয়েছে, তা হলোঃ

ওয়েব এবং অ্যাপ ডিজাইন
সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন (এসইও)
সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং
কনটেন্ট মার্কেটিং
ভিডিও প্রোডাকশন এন্ড মার্কেটিং
পেইড এডভার্টাইজিং ক্যাম্পেইন
ই-মেইল এবং এসএমএস মার্কেটিং
ওয়েব এনালিটিক্স
সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন (এসইও)

আরো পড়ুন: ফ্রিল্যান্সিং কাজের জন্য কিছু সাইট

ডিজিটাল মার্কেটিং এর এর একটা বড় অংশ জুড়ে রিয়েছে এসইও। সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশান (SEO) মূলত আপনার ওয়েবসাইটটিকে গুগল, ইয়াহু বিং বা অন্য কোন সার্চ ইঞ্জিন এর সার্চ ফলাফলের মধ্যে টপ পজিশনে নিয়ে আসবে। আমারা সাধারণত সার্চ করার পর গুগলে প্রথম সারির যে ফলাফল গুলো আসে তাতেই ক্লিক করি। খুব কম মানুষ আছে যারা প্রয়জনিয় বিষয় খুঁজে বের করার জন্য গুগলের পরবর্তী পেইজগুলোতে যায়। তাই আজকের প্রতিযোগিতার বাজারে পণ্যের মার্কেটিংয়ের ক্ষেত্রে এসইও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রয়েছে। এসইওর মাধ্যমে আপনার প্রতিস্থান, সারভিস বা পণ্যকে গুগল সার্চের সবচাইতে উপরে নিয়ে আসতে পারবেন। এর ফলে আপনার পণ্যের বিক্রিও বৃদ্ধি পাবে কারন বর্তমানে মানুষ কোন পণ্য কেনার আগে গুগল থেকে সার্চ দিয়ে সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকে। গুগল তার তথ্য গুলো নিয়মিত আপডেট করে। মনে রাখবেন, এটার অধিকাংশ খরচ কার্যকর মার্কেটিং কৌশলের উপর ভিত্তি করে যা আপনার ব্যবসার জৈব ট্রাফিক নিয়ে আসবেন। তবে আনাড়ি হাতে এসইও করতে গেলে অনেক সময় প্রবলেম হতে পারে। তাই আপনারা একজন এক্সপার্ট এর সাহায্য নিলে ভালো করবেন। (চলবে….)

বিডিটুডেস/আরএ/০১ মে, ২০১৮