English Version

বাক প্রতিবন্ধী এক কিশোরীকে ধর্ষন

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

জি,এম মিঠন, নওগাঁ: নওগাঁয় বাক প্রতিবন্ধী চতুর্থ শ্রেনীতে পড়ুয়া এক কিশোরী (১১) কে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়ার গেছে। ধর্ষনের ঘটনাটি স্থানীয় একটি প্রভাবশালী মহল ধামাচাপা দেয়ার জোর প্রচেষ্টা চালায়। কিশোরী ধর্ষনের সংবাদ পেয়ে পুলিশ গিয়ে ঘটনাস্থল থেকে কিশোরীকে উদ্ধার করে নওগাঁ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেছেন। বর্তমানে কিশোরীর অবস্থা শঙ্কামুক্ত হলেও সুষ্ঠু বিচার দাবী করেছেন কিশোরীর স্বজনরা। ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। আসামী পলাতক থাকায় তাকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, নওগাঁ সদর উপজেলার মধ্য দূর্গাপুর গ্রামে বৃহস্পতিবার সকালে বাক প্রতিবন্ধী এক কিশোরী তার প্রতিবেশীর বাড়ি থেকে নিজ বাড়িতে ফিরছিলেন। এ সময় বাড়ীতে কেউ না থাকার সুযোগে অপর প্রতিবেশী দুই সন্তানের জনক পঙ্কজ কুমার (৩৯) নামে এক ব্যর্ক্তি কিশোরীর মুখ চেপে ধরে জোরপূবক তার বাড়িতে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে। কিশোরী বিষয়টি তার পরিবারকে জানালে প্রকাশ পায়। এরপর স্থানীয় কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তি বিষয়টি ধামাচাপা দিতে কিশোরীর পরিবারকে আড়াই লাখ টাকা দিয়ে মুখ বন্ধ করতে উঠেপড়ে লাগেন বলেও অভিযোগ রয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, ওই কিশোরীকে নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করাতে বাধা এবং থানায় মামলা দায়ের না করার জন্য ব্যাপক চাপ দেন ওই প্রভাবশালী মহল। কিন্তু বিষয়টি থানা পুলিশ এক পর্যায়ে জানতে পেরে ঐ দিনই রাত ৮টার দিকে কিশোরীকে উদ্ধার করে নওগাঁ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে দেয় পুলিশ। ঘটনায় সুষ্ঠু বিচার দাবী করেছেন কিশোরীর স্বজনরা ও স্থানীয়রা।
ওই কিশোরী মা ও স্বজনরা জানিয়েছেন, এরপর থেকে তাদের নিরাপত্তা নিয়ে আতঙ্কে রয়েছেন।  নওগাঁ সদর হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডাঃ আরিফুল কবির জানান, নির্যাতনের শিকার বাক প্রতিবন্ধী এ কিশোরী বর্তমানে শঙ্কামুক্ত রয়েছেন।

নওগাঁ সদর মডেল থানার ওসি আব্দুল হাই জানান, ঘটনাটি জানতে পেরে ওই কিশোরিকে রাতেই উদ্ধার করে নওগাঁ মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি করা হয়েছে। শুক্রবার ওই কিশোরীকে ডাক্তারি পরীক্ষা করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধর্ষণের প্রমাণ পাওয়া গেছে।
ওসি আরো জানান, কিশোরীর বাবা থানায় অভিযোগ দিলে পুলিশ বিষয়টি আমলে নিয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। ঘটনারপর থেকে অভিযুক্ত পঙ্কজ পলাতক রয়েছে। তাকে দ্রুত গ্রেফতারের চেষ্টা চালানো হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন ওসি। বিডিটুডেস/আরএ/১৯ অক্টোবর, ২০১৮

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

fourteen + fourteen =