English Version

কর্ণফুলীতে শীঘ্রই আ.লীগের কমিটি: বাদ পড়ছেন অনেকে!

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

জে.জাহেদ, চট্টগ্রাম: আগামী নির্বাচনে সাংগঠনিক ক্ষমতা বৃদ্ধি ও নানা রাজনৈতিক চিন্তা ভাবনার ফলশ্রুতিতে শীঘ্রই কর্ণফুলী উপজেলা আ.লীগের কমিটি ঘোষণা হতে পারে। এমনটি নিশ্চিত করেছেন দক্ষিণ জেলার অনেক সিনিয়র নেতৃবৃন্দ ও নিভর্রযোগ্য একটি সুত্র। কর্ণফুলী উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন কবে হয়েছিলো তার কোন সঠিক তথ্য নেই কারো কাছে। তবে জানা যায়, ২০১৪ সালের ১৩ অক্টোবর ১৫ সদস্য বিশিষ্ট এডহক কমিটি ঘোষণা করা হয়েছিলো। পরে একই বছরের ২৫শে নভেম্বর তা ৩৫ সদস্যে বর্ধিত করা হয়। এতে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আ.লীগ এর নেতারা সভাপতি হিসেবে আলহাজ্ব সৈয়দ জামাল আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে হায়দার আলী রনিকে নির্বাচিত করেছিলেন। এরপর দীর্ঘ চার বছর অতিবাহিত হলেও নানা কারণে তা পুর্নাঙ্গ কমিটিতে রুপ নেয়নি বলে জানা যায়।

সামনে শীঘ্রই উপজেলা আ.লীগের নতুন কমিটি ঘোষণা করা হতে পারে বলে মাঠে সরব হয়ে ওঠেছে তৃণমূলের আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা। এ বিষয়ে কর্ণফুলী উপজেলা আ.লীগের সভাপতি আলহাজ্ব সৈয়দ জামাল আহমেদ এর সাথে ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও কোন মন্তব্য পাওয়া যায়নি। যদিও তিনি অসুস্থ্য বলে জানা যায়। সূত্রে আরো জানা যায়, উপজেলা আ.লীগের একটি সম্ভাব্য নতুন কমিটির খসড়া স্থানীয় সংসদ সদস্য ও ভূমিপ্রতি মন্ত্রীর সুপারিশে জেলা কমিটির কাছে প্রেরণ করা হয়েছে। ফলে চিন্তা ভাবনা করে শীঘ্রই ঘোষণা হতে পারে কর্ণফুলী উপজেলা আ.লীগের নতুন কমিটি।

তবে ওই কমিটি পূর্নাঙ্গ কমিটি হতে যাচ্ছে বলে ধারণা করা হচ্ছে এবং নতুন কমিটিতে অনেকে বাদ পড়তে যাচ্ছেন উপজেলা আ.লীগের সাবেক পদ-প্রাপ্ত অনেক নেতা। তবে নতুন কমিটিতে সহযোগি সংগঠনের কিছু নেতার নামও স্থান পেতে পারে বলে সূত্র জানায়। এদিকে, উপজেলার অনেকে পদ পেতে আগ্রহ প্রকাশ করেন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। এমনকি অনেক নেতার অনুসারিরা প্রতিদিন ফেসবুকে আ.লীগের কমিটিতে গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পেতে অতীতের নানা ছবিও পোস্ট দিতে দেখা যায়। জানা গেছে, উপজেলা আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে স্থান পেতে আ.লীগ নেতা ও সহযোগি সংগঠনের নেতাদের দৌড়ঝাঁপ শুরু হয়েছে অনেক আগেই। সুতরাং দীর্ঘ ৪৮ মাস পর কর্ণফুলী উপজেলা আ.লীগের মাঝে নতুন করে প্রাণ সঞ্চার শুরু হয়েছে।

বিশ্বস্তসুত্রে খবরে জানা যায়, এবারের নতুন কমিটিতে সাধারণ সম্পাদক পদে চমক না থাকলেও সভাপতি পদে চমক রয়েছে। তবে যারাই আসুক না কেন তাদের নেতৃত্বে কর্ণফুলী উপজেলা আওয়ামী লীগে চাঙ্গাভাব ও আগামী দিনে উপজেলা আ.লীগকে আরও শক্তিশালী করে জাতীয় নির্বাচনে নৌকার প্রার্থীকে বিজয়ী করতে ভূমিকা রাখবে বলে দলের নেতারা মনে করেন। নামপ্রকাশ না করার শর্তে উপজেলা আ.লীগের শীর্ষস্থানীয় এক নেতা জানান, উপজেলা আওয়ামী লীগের বিগত কমিটির বির্তকিত ব্যক্তি ও যাদের এলাকায় জনপ্রিয়তা নেই এবং বির্তকিত ভূমিকায় রয়েছেন তাদের তালিকা থেকে বাদ দেয়া হচ্ছে। অনেকে এ বিষয়ে মুখ খুলতে রাজি নন কমিটি না হওয়া পর্যন্ত। উপজেলা আ.লীগের পূর্নাঙ্গ কমিটি শীঘ্রই আসছে কিনা জানতে চাইলে উপজেলা আওয়ামী লীগের এডহক কমিটির সদস্য শিকলবাহা ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম বলেন, তার কাছে এমন কোন তথ্য নেই। অপর সদস্য আমির আহমদ জানান, লোকেমুখে শুনেছেন কমিটি দেওয়ার প্রক্রিয়া হচ্ছে, তবে তা এখনই কেহ নিশ্চিত করে জানায়নি।’ অপরদিকে জেলা নেতৃবৃন্দ কবে এ কমিটির অনুমোধন দিবেন তা এখনো জানা যায়নি। তবে এ প্রসঙ্গে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আ.লীগের সভাপতি আলহাজ্ব মোসলেম উদ্দিন আহমদ এর সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি বলেন, ‘এখনো এ বিষয়ে কোন সিদ্ধান্ত হয়নি , হলে পরে জানানো হবে’। বিডিটুডেস/আরএ/১৯ অক্টোবর, ২০১৮

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

20 − one =