ঢাকা, বাংলাদেশ, ২৭°সে | আজ |
ইংরেজী ভার্সন English Version

সমস্যা নেই আল আমিনের বোলিংয়ে, তবে…

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন


আগেও সন্দেহের তালিকায় নাম উঠেছিলো। সেবার পরীক্ষা দিয়ে নিজেকে নির্দোষ প্রমাণ করেন আল আমিন হোসেন। কয়েক বছর পর সেই একই সন্দেহের তীর ডানহাতি এই পেসারের দিকে। বিপিএলের পঞ্চম আসরে আল আমিনের বোলিংয়ে অ্যাকশনে সন্দেহ প্রকাশ করে রিপোর্ট করেন আম্পায়ার। এরপর আবার পরীক্ষা। তবে আল আমিনের জন্য স্বস্তির খবর, এবারও তার বোলিংয়ে ত্রুটি পাওয়া যায়নি।

বোলিংয়ের বৈধতা মেলায় খেলতে পারবেন সব ধরণের লিগে। যদিও আগামী দুই বছরের জন্য একটি ‘তবে’ জুড়ে দিয়েছেন বোলিং অ্যাকশন রিভিউ কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস। আগামী দুই বছরের মধ্যে দুইবার সন্দেহের তালিকায় পড়লে আল আমিনকে এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ করা হবে। সেক্ষেত্রে এক বছরের মধ্যে খেলার সুযোগ থাকবে না।

আপাতত স্বস্তির খবরটা নিয়েই খেলায় মন বসাতে পারেন আল আমিন। আল আমিনের দেওয়া পরীক্ষার ভিডিও ফুটেজে দেখা গেছে, ১৫ ডিগ্রি অ্যাঙ্গেলের মধ্যে থেকেই বোলিং করেন তিনি। তাই চলতি বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগ (বিসিএল) বা আসন্ন ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে খেলতে বাধা নেই তার।

বৃহস্পতিবার এ নিয়ে জালাল ইউনুস বলেন, ‘আমরা তার ভিডিও পর্যালোচনা করেছি। সেখানে তার ১৫ ডিগ্রি অ্যাঙ্গেলের মধ্যে থেকে বোলিং করার কথা, তার চেয়ে অনেক কম আছে। সে অনেক উন্নতি করেছে। বোঝা যাচ্ছে সে ভালোই কাজ করেছে। সামনে যে লিগ আছে সেটার সঙ্গে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগও সে খেলতে পারবে।’

তবে বারবার সন্দেহের তালিকায় নাম উঠলে বিপদ ঘনিয়ে আসবে। আগামী দুই বছরের মধ্যে আম্পায়াররা দুইবার রিপোর্ট করলেই এক বছরের নিষেধাজ্ঞা জুটে যাবে তার কপালে। তাই বাংলাদেশের হয়ে ৬ টেস্ট, ১৪ ওয়ানডে ও ২৫ টি-টোয়েন্টি খেলা আল আমিনের জন্য নির্দেশনা দিয়ে রাখছে বোলিং অ্যাকশন রিভিউ কমিটি।

জালাল ইউনুস বলেন, ‘অবশ্যই তার জন্য নির্দেশনা থাকবে। তাকে বলা হয়েছে দুই বছরের মধ্যে দুইবার যদি রিপোর্টেড হয় তাহলে একবছর খেলার সুযোগ থাকবে না। সে নিশ্চিত করেছে ভবিষ্যতে আর সমস্যা হবে না। সে স্বীকার করেছিল তার দুই-একটা ডেলিভারিতে সমস্যা ছিলো। সেগুলো সে কাটিয়ে উঠেছে। আমার মনে হয় না ভবিষ্যতে এ ব্যাপারে কোনো সমস্যায় পড়তে হবে আল আমিনকে।’