English Version

হেয়ার কালারে অ্যালার্জি? বাড়িতেই বানিয়ে নিন প্রাকৃতিক চুলের রং

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

বিডিটুডেস ডেস্ক: লেটেস্ট ট্রেন্ড অনুসরণ করার জন্যই হোক, একঘেয়েমি কাটিয়ে লুক কিছুটা পাল্টানোর জন্যই হোক বা নিছক পাকা চুল ঢাকার খাতিরে, চুল রং করে থাকেন অধিকাংশ মেয়ে। কিন্তু চুলের রঙের মধ্যে যে রাসায়নিক থাকে, তা থেকে অ্যালার্জি হওয়া অস্বাভাবিক নয়। এই অ্যালার্জি এড়ানোর একমাত্র উপায় রাসায়নিকহীন প্রাকৃতিক হেয়ার ডাই ব্যবহার করা। সংবেদনশীল ত্বকের মেয়েদের জন্য আমরা নিয়ে এসেছি এমনই কিছু প্রাকৃতিক রঙের হদিশ যা তৈরি করে নেয়া যাবে বাড়িতেই। চুলের রং হালকা চান বা গাঢ়, সবরকমই পাবেন এই ঘরোয়া রং থেকে।

হালকা শেডের জন্য
আপনার দরকার: ১. দু’ ভাগ পাতিলেবুর রস। ২. একভাগ পানি। ৩. স্প্রে বোতল
পদ্ধতি: পানির সঙ্গে লেবুর রস মিশিয়ে স্প্রে বোতলে ভরে নিন। চুলের যে অংশের রং হালকা করতে চান, সেই অংশে স্প্রে করুন। চুলের ওই অংশটা যেন লেবু-পানির মিশ্রণে সম্পূর্ণ ভিজে থাকে। এরপর অন্তত ঘণ্টাখানেক আপনাকে রোদে থাকতে হবে। যদি রোদে যেতে না চান, তা হলে ব্লো ড্রায়ার হট সেটিংয়ে রেখে চুলের অংশটিতে তাপ দিন। এক ঘণ্টা পর চুলে শ্যাম্পু করে কন্ডিশনার লাগিয়ে নিন। সপ্তাহে একবার করে কয়েক সপ্তাহ করলেই ফল পাবেন।

লালচে চুলের জন্য
আপনার দরকার: ১. এক কাপ বিটের রস। ২. আধ কাপ গাজরের রস। ৩. পুরোনো জামা। ৪. স্প্রে বোতল
পদ্ধতি: পুরোনো জামা পরে নিন যাতে দাগ লাগলেও অসুবিধে না হয়। বিট আর গাজরের রস মিশিয়ে স্প্রে বোতলে ভরে নিন। চুলে স্প্রে করে এক ঘণ্টা রোদে থাকুন অথবা ব্লো ড্রায়ার হট সেটিংয়ে রেখে চুলে তাপ দিন। এক ঘণ্টা পর শ্যাম্পু করে কন্ডিশনার লাগিয়ে নিন। সপ্তাহে এক থেকে দু’বার করতে হবে যতদিন না চুলের রং পালটে যাচ্ছে।

গাঢ় লালচে বাদামি চুলের জন্য
আপনার দরকার: ১. এক টেবিলচামচ চা/কফি। ২. দেড় কাপ পানি
পদ্ধতি: পানিতে চা বা কফি কুড়ি মিনিট ধরে ফুটিয়ে নিন। দেড় কাপ পানি কমে আধ কাপ মতো হলে আঁচ থেকে নামিয়ে ঠাণ্ডা করে ছেঁকে নিন। চুলে শ্যাম্পু করুন, কন্ডিশনার লাগান। একদম শেষে চা বা কফির মিশ্রণটা ধীরে ধীরে ভেজা চুলে ঢেলে মেখে নিন। সপ্তাহে এক থেকে দু’বার করলে ফল পাবেন। বিডিটুডেস /ডি আই/ ৮ এপ্রিল, ২০১৯

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

four + 13 =