English Version

হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসায় ঝুঁকছে সাতক্ষীরার মানুষ

পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

শেখ আমিনুর হোসেন, সাতক্ষীরা: দেশের দক্ষিণাঞ্চলের সীমান্তবর্তী সাতক্ষীরা জেলায় হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা সেবার প্রতি মানুষের আগ্রহ দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের বর্হিঃ বিভাগে হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা নিতে জেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে আসছে বহু মানুষ। প্রতিদিন বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত রোগীরা এ্যালােপেথিক চিকিৎসা নেয়ার পাশাপাশি অনেকে হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা নিতে আসছেন সদর হাসপাতালে। দশ টাকা দিয়ে টিকিট কেটে হোমিওপ্যাথি মেডিকেল অফিসার ডাক্তার পার্থ কুমার দের কাছে চিকিৎসা নিতে আসছেন অনেকে। এ বিষয়ে হোমিওপ্যাথি ডাক্তার পার্থ কুমার দে বলেন, সিভিল সার্জন ডা: মো: রফিকুল ইসলামের আন্তরিকতা ও নির্দেশনায় হোমিওপ্যাথি চিকিৎসাকে মানুষের সুস্থতার জন্য কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে আউটডোরে ১০ টাকা দিয়ে টিকিট কেটে হোমিওপ্যাথি বহিঃ বিভাগে দেখালে প্রেসক্রিপশন করে পরামর্শ ও প্রয়োজনীয় ঔষধ দেয়া হয়। প্রতিদিন অনেক রোগী হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা নিতে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে আসেন।

এখানে হোমিওপ্যাথিকে বিভিন্ন রোগ সারানো কার্যকর ঔষধ হিসেবে রোগীদের কেসহিস্ট্রি নিয়ে ঔষধ দেয়া হয়। ২০০ বছর আগে স্যামুয়েল হ্যানিম্যান নামের এক চিকিৎসক হোমিওপ্যাথি চিকিৎসাপদ্ধতি উদ্ভাবন করেছিলেন ৷ এই চিকিৎসার তত্ত্ব হচ্ছে, কোনো একজন সুস্থ ব্যক্তির দেহে কোনো একটি ‘সাবস্টেন্স’ বা উপাদান প্রয়োগ করা হলে যে প্রতিক্রিয়া হয়, সেই একই প্রতিক্রিয়া দেখানো রোগীকে সুস্থ করতে সেই সাবস্টেন্স ব্যবহার করতে হবে ৷ আর একজন রোগীকে চিকিৎসার ক্ষেত্রে তাঁর শারীরিক লক্ষণগুলোর পাশাপাশি মানসিক এবং আবেগী অবস্থাকেও মূল্যায়ন করা হয়।

হেলথ টিপস পেতে সাবস্ক্রাইব করুন

হোমিওপ্যাথি চিকিৎসায় সাধারণত একজন রোগীকে এবং তাঁর রোগ সম্পর্কে জানতে বেশ সময় ব্যয় করতে হয়। এক্ষেত্রে রোগীর প্রতি বন্ধু সুলভ আচরণের মাধ্যমে রোগীর দুর্বলতা সম্পর্কে জানার চেষ্টা করা হয়। নিবিড় আলোচনার মাধ্যমে রোগীর রোগ নির্ণয় করে ঔষধ দেয়া হয় ৷ আর এ কারণে হোমিওপ্যাথিকে মেডিসিনের বদলে সাইকোথেরাপি হিসেবে বিবেচনা করেন অনেকে ৷ এভাবে আসলে একজন মানুষের ‘সেল্ফ-হিলিং’ ক্ষমতাকে জাগিয়ে তোলার চেষ্টা করা হয় ৷ ঔষধ এখানে গৌণ ব্যাপার ৷ হোমিওপ্যাথি আজ অনেক জনপ্রিয় চিকিৎসায় পরিণত হয়েছে। হোমিওপ্যাথি ডাক্তার পার্থ কুমার দের কাজে সহযোগী হিসেবে ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মী আনোয়ারা খাতুন, সুফিয়া খাতুন প্রতিদিন রোগীদের সেবা দিয়ে যাচ্ছেন বলে জানা যায়। বিডিটুডেস/আরএ/০৬ মার্চ, ২০১৯

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

13 − ten =