Logo
শিরোনাম

১৩ হাজার টন পাম তেল আসবে আজ

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৬ মে ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | ৭৯জন দেখেছেন
Image

চট্টগ্রাম বন্দরে আজ শুক্রবার আসছে ১৩ হাজার টন পাম তেলবাহী জাহাজ ‘এমটি সুমাত্রা পাম’। ২৮ এপ্রিল মধ্যরাত থেকে পাম তেল রফতানিতে ইন্দোনেশিয়ান সরকারের নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হওয়ার আগের দিন জাহাজটি চট্টগ্রাম বন্দরের উদ্দেশ্যে ইন্দোনেশিয়ার লুবুক গেয়াং বন্দর ত্যাগ করে। টিকে গ্রুপ এসব পাম অয়েল আমদানি করেছে।
মেরিন ট্রাফিক ওয়েবসাইটের তথ্য মতে, এমটি সুমাত্রা পাম জাহাজটি গত ২৭ এপ্রিল ইন্দোনেশিয়ার লুবুক গেয়াং বন্দর থেকে যাত্রা করে। ৬ মে চট্টগ্রাম বন্দরে পৌঁছার কথা রয়েছে ইন্দোনেশিয়ান পতাকাবাহী জাহাজটির। জাহাজটির বাংলাদেশে লোকাল এজেন্ট মোহাম্মদী ট্রেডিং কোম্পানি লিমিটেডের জেনারেল ম্যানেজার কাজী আবু নাঈম জানান, এমটি সুমাত্রা পাম জাহাজটি ৬ মে চট্টগ্রাম বন্দরে আসবে।
ইন্দোনেশিয়া বিশ্বের শীর্ষ পাম অয়েল রফতানিকারী দেশ। বাংলাদেশে পাম অয়েল আমদানির ৯০ শতাংশ আমদানি হয়ে থাকে দেশটি থেকে। গত ২৮ এপ্রিল মধ্যরাত থেকে পাম অয়েল রফতানিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করে দেশটি।
বাংলাদেশে ভোজ্যতেল আমদানিকারকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, নিষেধাজ্ঞার কারণে ইন্দোনেশিয়ায় কমপক্ষে ২০ হাজার টন পাম অয়েল আমদানির চালান আটকে গেছে। কিন্তু নিষেধাজ্ঞা জারির আগেই এসব পাম তেল আমদানির এলসি (ঋণপত্র) খোলা হয়।
চট্টগ্রাম কাস্টমসের তথ্য অনুযায়ী, ইন্দোনেশিয়ান সরকারের নিষেধাজ্ঞার আগে এপ্রিল মাসেই প্রায় এক লাখ ২০ হাজার টন পাম অয়েল আমদানি করে দেশের শীর্ষ আমদানিকারকরা।
বাংলাদেশে বছরে প্রায় ১৩ লাখ টন পাম অয়েল আমদানি হয়। এর মধ্যে ৯০ শতাংশ আমদানি হয় ইন্দোনেশিয়া থেকে। বাকি ১০ শতাংশ আসে মালয়েশিয়া থেকে।


আরও খবর



সোনারগাঁয়ে যুবককে কুপিয়ে জখম

প্রকাশিত:বুধবার ০৪ মে ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | ৫৮জন দেখেছেন
Image

উপজেলা প্রতিনিধি, সোনারগাঁ, নারায়ণগঞ্জঃ 

পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ঈদের দিন মঙ্গলবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের মোগরাপাড়া ইউনিয়নের ইলিয়াদী গ্রামে খোরশেদ বাবুল (৪২) কে কুপিয়ে আহত করেছে প্রতিপক্ষের লোকজন।

আহত বাবুল ঢাকার সাভারে একটি বেসরকারি শিল্প প্রতিষ্ঠানে ব্যবস্থাপক হিসেবে কর্মরত। ঈদের ছুটিতে বাড়িতে এসে তিনি এ হামলার শিকার হন। এ ঘটনায় আজ বুধবার সোনারগাঁ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

আহত বাবুলের স্ত্রী সুলতানা রাজিয়া জানান, তার স্বামী খোরশেদ বাবুলের সঙ্গে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে পার্শ্ববর্তি জাইদেরগাও গ্রামের জসিম ও তার ছেলের সঙ্গে দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। এর জের ধরে ঈদের দিন মঙ্গলবার বিকেলে সুযোগ পেয়ে ধারালো অস্ত্র নিয়ে প্রতিপক্ষ জসিম ও তার ছেলে হালিম, ডালিম, বিল্লাল, ফয়সাল, হৃদয়, জসিম, শেখ ফরিদ ও আমির  সহ ৮/৯ জন একত্রিত হয়ে হামলা চালায়। পরে বাবুলের ডাকচিৎকার শুনে লোকজন এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়।

পরে বাবুলকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়া হয়। হামলার ঘটনায় মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সোনারগাঁ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অভিযোগে আসামি করা হয়েছে।

এদিকে এ ঘটনার পর এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। প্রতিপক্ষের লোকজন এখনো এলাকায় অস্ত্র নিয়ে মহড়া দিচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছেন বাদী পক্ষ। এছাড়া বাবুলের স্বজনদের বাড়ি বাড়ি গিয়েও হুমকি দিচ্ছেন ওই সন্ত্রাসীরা।

অপরদিকে অভিযুক্ত জসিম উদ্দিন জানান, বাবুলই প্রথমে তাদের উপর চড়াও হয়ে ওঠে। তারা প্রতিহত করেছেন।

সোনারগাঁ থানার ওসি মোহাম্মদ হাফিজুর রহমান জানান,  এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ নেওয়া হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে ।


আরও খবর



আশার বাণী দেখিয়ে শিশু ধর্ষণ, গ্রেফতার ১

প্রকাশিত:শনিবার ৩০ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১৫ মে ২০২২ | ৮৬জন দেখেছেন
Image

অনুপ সিংহ,নোয়াখালী প্রতিনিধিঃ

নোয়াখালীর চাটখিল উপজেলায় (৭) বছর বয়সী এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে উঠেছে।

শনিবার (৩০এপ্রিল) সকালে এ ঘটনায় শিশুটির মা বাদী হয়ে নারীও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছেন। এর আগে মৌখিক অভিযোগের ভিত্তিত্বে শুক্রবার রাতে অভিযুক্ত আসামিকে উপজেলার পশ্চিম বদলকোট গ্রাম থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

গ্রেফতারকৃত যুবকের নাম মো.সুমন (২৫) সে উপজেলার পশ্চিম বদলকোট গ্রামের শেখ বাড়ির আব্দুল কুদ্দুছের ছেলে।

চাটখিল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হুমায়ন কবির বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, গতকাল শুক্রবার ২৯ এপ্রিল সকালের দিকে নির্যাতিত শিশুটির মা বাড়ির পাশে একটি বাসায় ঝিয়ের কাজ করতে যায়। তখন তাঁর সাত বছর বয়সী মেয়েটি মায়ের সঙ্গে ছিল। একপর্যায়ে দুপুরের দিকে শিশুটি মাকে বলে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেয়। বাড়ি ফেরার পথে শিশুটি নির্জন রাস্তায় দাঁড়িয়ে ছিল। ওই সময় তাকে বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে পাড়ার আত্মীয় সুমন পার্শ্ববতী জঙ্গলে নিয়ে ধর্ষণ করে। বিষয়টি জানাজানি হলে শুক্রবার সন্ধ্যায় ভুক্তভোগী শিশুর মায়ের মৌখিক অভিযোগের ভিত্তিত্বে তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত যুবককে গ্রেফতার করে পুলিশ।

পরিদর্শক তদন্ত আরো জানায়,ভিকটিমকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হচ্ছে। শিশুটির মায়ের দায়ের করা মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আসামিকে নোয়াখালী চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।


আরও খবর



যুক্তরাষ্ট্রের মানবাধিকার রিপোর্ট প্রত্যাখ্যান করলো বাংলাদেশ

প্রকাশিত:সোমবার ১৮ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | ৯৫জন দেখেছেন
Image

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মানবাধিকার প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করেছে বাংলাদেশ- এমনটাই জানিয়েছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম।

তিনি বলেন, এ প্রতিবেদন ও বাস্তবতা যোজন যোজন দূর। মানবাধিকার রিপোর্টের বিস্তারিত নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে ব্যাখ্যা চাইবে বাংলাদেশ।

রবিবার (১৭ এপ্রিল) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের এসব কথা জানান পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম।

বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে বিদেশিদের কোনো হস্তক্ষেপ প্রত্যাশিত নয় বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন,যুক্তরাষ্ট্রের মানবাধিকার রিপোর্ট নিয়ে হতাশ বাংলাদেশে। এ সময় তিনি আরও বলেন, শ্রম অধিকার পরিস্থিতি উন্নয়নে সরকার সর্বাত্মক চেষ্টা করছে; তবে এর কোনো স্বীকৃতি মানবাধিকার প্রতিবেদনে নেই।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, শান্তি ও ন্যায় বিচারের ব্র্যান্ড র‍্যাব। সেখানে কোনো ব্যত্যয় হলে তা সংশোধন করা হবে। একে দুর্বল করে দেওয়ার কোনো চেষ্টা ভালোভাবে নেবে না বাংলাদেশ, এমনটিই জানান শাহরিয়ার আলম।

তিনি বলেন, জিএসপি সুবিধা ফেরত আনার ব্যাপারে বাংলাদেশ কতটুকু এগিয়েছে, এমন প্রশ্নের ব্যাপারে তারা বলেছিলেন ৯৮ শতাংশ কাজ সম্পন্ন হয়েছে; আর ২ শতাংশ বাকি। কিন্তু আমরা যে এত পথ পাড়ি দিয়েছি, এত দূর এসেছি তার কোনো প্রতিফলন নেই এই প্রতিবেদনে।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বলেন, যেসব সূত্র হতে তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছে, সেগুলো বেশ দুর্বল। আমরা নিকট অতীতে দেখেছি, এই সূত্রগুলো যারা পরিচালনা করে থাকেন তাদের সকলের রাজনৈতিক স্বার্থ ও উদ্দেশ্য বেশ পরিষ্কার। বাংলাদেশের কাছে যেসব রাষ্ট্রের প্রতিনিধিত্ব আছে, আমরা আশা করবো তারা বাংলাদেশের কাছ থেকেই সঠিক ইতিহাস জানবেন।

প্রসঙ্গত, মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর সারাবিশ্বের মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে রিপোর্ট প্রকাশ করে মঙ্গলবার (১২ এপ্রিল) রাতে। এতে বাংলাদেশের পরিস্থিতিও তুলে ধরা হয়।

বলা হয়, বাংলাদেশের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী বিচার বহির্ভূত হত্যা ও গুম খুনের সাথে জড়িত থাকলেও জবাবদিহিতার মুখোমুখি হয় না। হয় না সেসবের তদন্তও। উল্টো হয়রানি করা হয় ভুক্তভোগীর পরিবারকে। মত প্রকাশের স্বাধীনতা নিয়েও প্রশ্ন তোলা হয় এই মানবাধিকার রিপোর্টে।


আরও খবর



গাজীপুরের রাস্তায় গার্মেন্টস শ্রমিকদের ঢল

প্রকাশিত:রবিবার ০১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | ৭৭জন দেখেছেন
Image

সদরুল আইন,গাজীপুর জেলা প্রতিনিধিঃ

ঈদের আগে কারখানা ছুটির পর মানুষের ঢল নেমেছে গাজীপুরের রাস্তায়।

 গাড়ির অভাবে আর যানজটে দুর্ভোগে পড়তে হয়েছে লাখ লাখ মানুষকে।

শনিবার থেকে রোববার  দুপুর পর্যন্ত গাজীপুরে ঢাকা-ময়মমনসিংহ মহাসড়ক ও ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে ঘরমুখো মানুষের চাপ বাড়ে।

শেষ পর্যন্ত বাস না পেয়ে যাত্রীরা অতিরিক্ত ভাড়ায় মিনিবাসে, মাইক্রোবাসে, ট্রাকে, মোটরসাইকেলে, পিকআপে করে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রওনা হয়েছেন গন্তব্যের উদ্দেশে।প্রিয়জনের সাথে ঈদের আনন্দ উপভোগ করতে এ যেন হিমালয় আরোহন।

গাজীপুরের কোনাবাড়ী এলাকার একটি পোশাক কারখানার শ্রমিক জাকির হোসেন। ঈদে স্ত্রী হালিমা বেগম আর মেয়ে জুলেখাকে নিয়ে দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলার মুকুন্দপুরে গ্রামের বাড়িতে যাবেন।

 তিনি বলেন, ভোর ৫টা থেকে কালিয়াকৈর উপজেলার চন্দ্রা ত্রিমোড়ে বাসের অপেক্ষায় থাকলেও সকাল সাড়ে ৯টা পর্যন্ত কোনো বাসে উঠতে পারেননি তারা।

দু-একটি বাস পেলেও তিনজনের জন্য তিন হাজার টাকা ভাড়া চাওয়া হয় বলে অভিযোগ জাকিরের। নিরুপায় হয়ে বসে থেকে পরে একটি পিকআপে ৫০০ টাকায় বগুড়া পর্যন্ত যাওয়ার জন্য রওনা দেন তারা।

গাজীপুর থেকে ময়মনসিংহ পর্যন্ত ভাড়া ১০০ থেকে ১৫০ টাকা হলেও দ্বিগুণেরও বেশি নেওয়ার অভিযোগ করেন ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়ার কামরুল ইসলাম।

তিনি বলেন, “যার যেমন খুশি তেমন ভাড়া নিচ্ছে। কাউকে কিছু বলারও সুযোগ নেই।”

তাদের মতই হাজার হাজার ঘরমুখো মানুষকে চন্দ্রা ত্রিমোড়ে যানবাহনের অপেক্ষায় থাকতে দেখা যায় রাত ৯টার দিকে। বাসগুলো ইচ্ছেমতো অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছে বলে অভিযোগ তাদের।

চন্দ্রা এলাকায় দায়িত্ব পালন করেন কোনাবাড়ী হাইওয়ে থানার ওসি ফিরোজ হোসেন।তিনি বলেন, শনিবার থেকে আজ দুপুর পর্যন্ত অধিকাংশ কারখানা ছুটি হলে দুপুরে চন্দ্রা এলাকায় মানুষের ঢল নামে।

 গাড়িগুলো স্বাভাবিক গতিতে চলতে না পারায় দীর্ঘ লাইন পড়ে যায়। চন্দ্রা মোড়ে হাজার হাজার মানুষ বাসে ওঠার জন্য অপেক্ষা করছে। এ কারণেও যান চলাচল কিছুটা বাধাগ্রস্ত হচ্ছে।

অধিকসংখ্যক যাত্রী একসঙ্গে রওনা হওয়ায় গাড়ির অভাব পড়ে বলে জানান গাজীপুর সিটি পুলিশের উপ-কমিশনার আব্দুল্লাহ আল মামুন।

তিনি বলেন, “শনিবার দুপুরে অধিকাংশ পোশাক কারখানা ছুটি হলে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের বিভিন্ন এলাকায় ঘরমুখো মানুষের ঢল নামে। এতে গাড়ির সংকট দেখা দেয়। গাড়ির তুলনায় যাত্রী বেশি হওয়ায় অনেকেই ট্রাক ও পিকআপে করে রওনা হন।

“তিন দিন আগে এসব গাড়ি চলাচলে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হলেও গাড়ির অভাবের কারণে আটকানো হচ্ছে না। আটকালে জট লাগতে পারে।”

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সড়কে পর্যাপ্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

সাভার ও আশুলিয়া শিল্পাঞ্চলেও একই পরিস্থিতি। বেশির ভাগ কারখানা একযোগে বন্ধ হওয়ায় বাসের অভাব পড়ে। ঘরমুখী মানুষ পিকআপে, ট্রাকে ও মোটরসাইকেলে করে বাড়ি ফিরতে শুরু করে। এতে বিভিন্ন জায়গায় দেখা দেয় যানজট।

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে বাইপাইল এলাকায় অপেক্ষা করছিলেন পোশাক শ্রমিক জুলেখা বেগম। তিনি নাটোরে বাড়ি যাওয়ার জন্য পরিবার নিয়ে রওনা হয়েছেন।

জুলেখা বলেন, “যানজটের কারণে এখন বিরক্ত হচ্ছি। আবার মানুষের ঢল বেশি হওয়ায় সুযোগ নিচ্ছে বাস মালিকরা। তারা ইচ্ছামত ভাড়া বাড়াচ্ছে।”

পুলিশ যানজট নিরসনে সচেষ্ট থকলেও ভাড়া বেশি নেওয়ার বিষয়ে কোনো পদক্ষেপ নিতে পারছে না।

তবে শনিবারের তুলনায় আজ এসব সড়কসমুহে যানজট সহনীয় পর্যায়ে রয়েছে।ঈদ মঙ্গলবার হবে এমন খবরে অনেকেই ধীরে সুস্থে বুঝে শুনে তাড়াহুড়ো না করে গ্রামের বাড়িতে রওনা হচ্ছেন।ফলে শনিবারের তুলনায় আজ গাজীপুর থেকে উত্তরবঙ্গ ও মযমনসিংহগামী পরিবহনগুলোতে তেমন চাপ পরিলক্ষিত হয়নি।


আরও খবর



চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী আর্জেন্টিনাকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৯ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | ১০৬জন দেখেছেন
Image

ফুটবল মাঠে বরাবরই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা। হোক সেটি জাতীয় দল কিংবা বয়সভিত্তিক টুর্নামেন্ট। আমেরিকার অন্যতম সেরা দুদল বয়সভিত্তিক টুর্নামেন্টেও একে অপরের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী। 

সোমবার রাতে মন্টাগুয়ে অনূর্ধ্ব-১৭ চ্যাম্পিয়নশিপ ফুটবল টুর্নামেন্টে আর্জেন্টিনাকে ২-১ গোলে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ব্রাজিল।

টুর্নামেন্টের ফাইনালে এদিন ম্যাচের শুরুতেই তৃতীয় মিনিটে আর্জেন্টিনা যুবাদের বিপক্ষে এন্ড্রিকের গোলে এগিয়ে যায় ব্রাজিলের যুবারা। তবে ম্যাচে সমতায় ফিরতে খুব বেশি সময় লাগেনি। ১৩ মিনিটেই ব্রাজিলের জালে বল পাঠিয়ে ম্যাচে ১-১ সমতা আনেন আর্জেন্টিনার অগাস্টিন। 

ম্যাচের প্রথমার্ধের ৩৯ মিনিটে পেনাল্টি পায় ব্রাজিল। দারুণ সুযোগে লিড ২-১ করে নেয় ব্রাজিলের যুবারা। গুইলহেরমে পেনাল্টি থেকে গোল করেন। এর পর পুরো ম্যাচে আর কোনো গোলের দেখা পায়নি কোনো দলই। ফলে জয় পায় ব্রাজিল।

টুর্নামেন্টে এ গ্রুপে ছিল আর্জেন্টিনা। গ্রুপ পর্বে তারা হারিয়ে এসেছে পর্তুগাল, ফ্রান্স ও বেলজিয়ামকে৷ অন্যদিকে 'বি' গ্রুপে থাকা ব্রাজিল পরাজিত করে মেক্সিকো, নেদারল্যান্ডস ও ইংল্যান্ডকে।

এদিকে ম্যাচশেষে শিরোপা উৎসবে মেতেছিল ব্রাজিলের যুবারা। এ সময় আর্জেন্টিনার যুবারা ব্রাজিলের যুবাদের সঙ্গে মারামারিতে লিপ্ত হয়। মারামারির ক্ষেত্রে কিল-ঘুষি লাথি কোনোটাই বাদ ছিল না। শেষ পর্যন্ত মাটিতেই পড়ে যায় ব্রাজিলের এক তরুণ খেলোয়াড়।

পুরো টুর্নামেন্টে দুর্দান্ত খেলেন ব্রাজিলের এন্ড্রিকে। গ্রুপপর্বের তিন ম্যাচ ও ফাইনাল মিলিয়ে মোট চার ম্যাচে ৫ গোল করে টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়েছেন ব্রাজিলের এ বিস্ময় বালক। আর্জেন্টিনা, নেদারল্যান্ডস, ইংল্যান্ডের বিপক্ষে একটি করে এবং মেক্সিকোর বিপক্ষে জোড়া গোল করেছিলেন। 

টুর্নামেন্টে টপ স্কোরারের সঙ্গে টুর্নামেন্টের সেরার পুরস্কারও পেয়েছেন তিনি।



সুত্রঃ যুগান্তর


আরও খবর