Logo
শিরোনাম

আলজাজিরার সাংবাদিককে গুলি করে হত্যা

প্রকাশিত:বুধবার ১১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | ৪২জন দেখেছেন
Image

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরার একজন সাংবাদিককে গুলি করে হত্যা করেছে ইসরায়েলি সেনারা। নিহত ওই সাংবাদিকের নাম শিরীন আবু আকলেহ। ফিলিস্তিনের অধিকৃত পশ্চিমতীরে ইসরায়েলি সেনারা তাকে গুলি করে হত্যা করে।

ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এই তথ্য নিশ্চিত করেছে। বুধবার (১১ মে) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বুধবার জেনিন শহরের কাছে ইসরায়েলি নিরাপত্তা অভিযানের মধ্যে দায়িত্বপালনের সময় ইহুদি এই দেশটির সেনাদের গুলিতে তিনি নিহত হন।

আলজাজিরার নিদা ইব্রাহিম বলেছেন, কোন পরিস্থিতিতে শিরীন আবু আকলেহের মৃত্যু হয়েছে সেটি এখনও স্পষ্ট নয়। কিন্তু এই ঘটনায় সামনে আসা একটি ভিডিওতে আবু আকলেহকে মাথায় গুলি করা হয়েছে বলে দেখা গেছে।


আরও খবর



বিএনপি ঈদে আন্দোলনের ডাক দিয়েছে, এখন বললে মানুষ হাসে-ওবায়দুল কাদের

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৫ মে ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | ৬৩জন দেখেছেন
Image

অনুপ সিংহ,নোয়াখালী প্রতিনিধিঃ

বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন, বিএনপি গত ১৩ বছরে ২৬ ঈদে আন্দোলনের ডাক দিয়েছে। কিন্তু আন্দোলনের মুখ দেখেনি। বিএনপি আন্দোলনের কথা বললে মানুষ হাসে। তের বছরে পারলানা কোন বছর পারবে। তাদের আন্দোলন এখন প্রশ্ন সভায় এই বছর না ওই বছর। আন্দোলন হবে কোন বছর। তারা আন্দোলনের নামে ভুয়া হুমকি-ধুমকি দেয়। মাঠে আন্দোলনের কর্মি টোকাই পায় না।  

বৃহস্পতিবার (৫ এপ্রিল) দুপুর ২টার দিকে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার বড় রাজাপুর গ্রামের নিজ বাড়িতে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরোও বলেন,বর্তমান সরকারের উন্নয়ন দেখে বিএনপি গাত্রদাহ হয়।কারণ বিএনপি দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন,তারা লুটপাটেও চ্যাম্পিয়ন।আর জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা দেশরত্ন প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা নেতৃত্বে দেশ আজ বিশ্বের দরবারে মাথা উঁচু করে দাড়িয়েছে। অন্যান্য দেশ আমাদের দেশকে অনুসরণ করছে।আগামী 

সেতুমন্ত্রী বলেন, জুন মাসে পদ্মা সেতু উদ্বোধন করা হবে।এটা সরকারের জন্য বড় অর্জন।নিজেদের অর্থায়নে আমরা পদ্মাসেতু করেছি।বিএনপি ক্ষমতায় থাকলে লুটপাট করে খেতো।উন্নয়নের ছিড়েফোটাও হতো না।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, নোয়াখালী জেলা আওয়ামীলীগের আহ্বায়ক এ এইচ এম খায়রুল আনম সেলিম,যুগ্ম আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট শিহাব উদ্দিন শাহীন, নোয়াখালীর জেলা প্রশাসক দেওয়ান মাহবুবুর রহমান, নোয়াখালীর পুলিশ সুপার (এসপি) মো.শহীদুল ইসলাম,  বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আব্দুল কাদের মির্জা।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের পর দীর্ঘ প্রায় ৩৩ মাস পর নিজ নির্বচানী এলাকায় নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে এসেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। গত এক বছর নানা ঘটনায় সমালোচনায় পড়তে হয় কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দকে। আলোচনার সমালোচনার কেন্দ্র বিন্দুতে ছিলেন সেতুমন্ত্রীর ছোট ভাই বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা। তাঁর বিরুদ্ধে নানা অনিয়মের অভিযোগ উঠছে সংগঠনের ভেতর থেকেই। বড় ভাই সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ও ভাবীর বিরুদ্ধে কুটিল ভাষায় ব্যাপক বিষেদগার করেন। বিতর্কিত কর্মকান্ডের কারণে বার বার খারাপ সংবাদের শিরোনাম হয় কাদের মির্জা। এতে স্থানীয় ভাবে সংগঠন পড়েছে বেজায় নাজুক অবস্থায়। স্থানীয় রাজনীতিকে কাদের মির্জা বিরোধী অংশের নেতৃত্ব দিচ্ছেন সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদল। তাঁর মূলত খুঁটি হচ্ছে কাদের মির্জার আপন তিন ভাগনে। বাদল ও ভাগনেদের বিরুদ্ধেও কাদের মির্জাও নানা অভিযোগ তুলেন। একপর্যায়ে দুই গ্রুপের এ দ্বন্দ্ব সংঘাতে কাদের মির্জার প্রধান প্রতিপক্ষ হয়ে দাঁড়ায় তারই আপন তিন ভাগনে। তারা হলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের মুখপাত্র মাহবুবুর রশীদ মঞ্জু, ফখরুল ইসলাম রাহাত ও সিরাজিস সালেকিন রিমন। মূলত কাদের মির্জার পারিবারিক ভুল বুঝাবুঝি সূত্র ধরে এ দ্বন্দ্বের সূত্রপাত। এরপর উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতাদের মধ্যেই এই বিরোধের ছড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে জেলা আওয়ামীলীগের রাজনীতে এ অভ্যন্তরীণ বিরোধ ছড়িয়ে যায়। সেই বিরোধের জের ধরে গত কয়েকমাসে উভয় পক্ষের সমর্থকদের মধ্যে একাধিক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এসব সংঘর্ষে একজন সাংবাদিকসহ দুই জন নিহত হয়। আহত হয় প্রায় এক হাজার নেতাকর্মি। পাল্টাপাল্টি ৭২টি মামলা হয়। এতে আসামি হয় উভয় পক্ষের প্রায় সাত হাজার তৃণমূলের নেতাকর্মি। এখনো বাড়ি ছাড়া রয়েছে হাজার হাজার নেতাকর্মি। ঈদুল ফিতর উদযাপন করতে অনেকে বাড়ি আসতে পারেনি।


আরও খবর



নরসিংদীতে অভিযোগকারীর ফোনে ঘটনাস্থলে পুলিশ সুপার

প্রকাশিত:বুধবার ২০ এপ্রিল ২০22 | হালনাগাদ:রবিবার ১৫ মে ২০২২ | ১১৮জন দেখেছেন
Image

জোবায়েল ইসলামঃ নরসিংদীতে জনগণের সর্বোচ্চ সেবা নিশ্চিত করতে কাজ করে যাচ্ছেন নরসিংদী জেলা পুলিশ সুপার জনাব কাজী আশরাফুল আজীম ( পিপিএম)। তিনি নরসিংদী জেলা অপরাধমুক্ত জেলা হিসেবে গড়ে তুলতে দিন-রাত কাজ অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন । 

তিনি পল্লী এলাকা সমূহে পুলিশিং সেবা দ্রæত নিশ্চিত করার লক্ষ্যে  ইতিপূর্বে  ইউনিয়নে  পর্যায়ে বিট পুলিশিং কার্যক্রম চালু করেছেন। যার ফলে ইউনিয়ন পর্যায়ে অপরাধের প্রবণতা কমে আসছে । 

গত বুধবার (২০ এপ্রিল ২০২২খ্রিঃ)  অনন্য এক নজির স্থাপন করেন জেলা পুলিশ সুপার , নরসিংদী মডেল থানাধীন বাসাইল এলাকার এক নারীকে তার স্বামীর বাড়ির লোকজন মেনে না নেওয়া  এবং শারীরিক নির্যাতনের বিষয়ে নরসিংদী জেলা পুলিশ সুপার জনাব কাজী আশরাফুল আজীম ( পিপিএম) কে অবহিত করেন। 

অভিযোগকারীর ফোন পেয়ে নিজেই  উক্ত বিষয়টি জানার সাথে সাথে ই ঘটনা স্থানে হাজির হন নরসিংদী জেলা পুলিশ সুপার জনাব কাজী আশরাফুল আজীম ( পিপিএম) । এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন  সিভিল সার্জন নরসিংদী  ডাঃ মোঃ নুরুল ইসলাম । 

এ সময় পুলিশ সুপার অভিযোগকারীকে ঘটনার বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেন এবং এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের  জন্য নরসিংদী মডেল থানা পুলিশ-কে নির্দেশ প্রদান  করেন


আরও খবর



শ্রীপুরের ধর্ষণ শেষে বিয়ে করে স্ত্রীর স্বীকৃতি না দিয়ে অন্যত্র বিয়ে, থানায় মামলা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৫ মে ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | ৮২জন দেখেছেন
Image

সদরুল আইন, গাজীপুর জেলা প্রতিনিধিঃ

             গাজীপুরের শ্রীপুরে যুব লীগ নেতার বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও স্ত্রীর স্বীকৃতি না দিয়ে গোপনে দ্বিতীয় বিয়ে করায়  থানায় অভিযোগ দায়ের করলেন নারী উদ্যোক্তা প্রথম স্ত্রী সাহিদা আক্তার স্বর্ণা।

সাহিদা আক্তার স্বর্ণা টেলিফোনে এ প্রতিবেদককে আজ (৫ মে)  ধর্ষক শাহিনের বিরুদ্ধে শ্রীপুর মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন বলে জানান।

থানায় দায়ের করা অভিযোগ থেকে জানা যায়, সাহিদা আক্তার স্বর্ণা গাজীপুর জেলার একটি পরিচিত মুখ। তিনি একজন নারী উদ্যোক্তা এবং নারীর অধিকার আন্দোলন ও সামাজিক কর্মকান্ড নিয়ে তিনি দীর্ঘদিন ধরে কাজ করে আসছেন।যে কারনে তিনি এ অঞ্চলের মানুষের কাছে অতি পরিচিত মুখ।

সাহিদা আক্তার স্বর্ণা তার অভিযোগপত্রে বলেছেন, তিনি ফুড আইটেম ও কসমেটিকসের ব্যবসা করেন।যে কারনে গাজীপুরের বিভিন্ন অঞ্চলে তিনি যান এবং এ সংক্রান্ত বিভিন্ন প্রগ্রামে সমাজকর্মি হিসেবে অংশগ্রহন করেন।

গত ৮/৭/২১ ই তারিখে শ্রীপুর থানার নগর হাওলা জৈনাবাজার এলাকার ওয়াহিদ মিলিটারির ছেলে যুব লীগ কর্মি শাহিন আলমের সাথে তার ফেসবুকে কথা হয়।

তিনি পণ্য বিক্রি ও এ ব্যবসার সাথে জড়িত হয়ে ব্যবসায় অর্থায়ন করতে আগ্রহ প্রকাশ করে তার সাথে জৈনাবাজারে তার অফিস কক্ষে দেখা করতে অনুরোধ জানান।

নারী উদ্যোক্তা সাহিদা আক্তার স্বর্ণা তার সাথে পণ্যসহ দেখা করতে জৈনা বাজারের ন্যাশনাল ব্যাংক সংলগ্ন তার অফিসকক্ষে যান এবং পণ্য দেখার এক পর্যায়ে শাহিন তার ইচ্ছের বিরুদ্ধে জোর করে ধর্ষণ করে।সে সময় সাহিদা আক্তার স্বর্ণা তাকে তাৎক্ষণিক বিয়ের জন্য চাপ দেন এবং কাঁন্নাকাটি করতে থাকেন।

এসময় শাহিন তাকে বসিয়ে রেখে ঔষধের দোকান থেকে ঔষধ এনে তাকে খাওয়ান যাতে বাচ্চা কনসেপ্ট না করে এবং কাঁন্নাকাটি করে লোক জড়ো করতে নিষেধ করে বিয়ের আশ্বাস দেন। 

এর কিছুক্ষণ পর শাহীন লাপাত্তা হয়ে যাওয়ায় রাত ১০/১১ টার দিকে সাহিদা আক্তার স্বর্ণা উপায় না দেখে ধর্ষণের ঘটনাটি তার পরিবারের লোকজনকে জানালে তারা যখন আইনগত পদক্ষেপ নিতে উদ্যোগী হন তখন স্থানীয় রাজনৈতিক নেতা মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া,রাজিব,শাহাবুদ্দিন, সোহেল,ফয়সাল,বাপ্পী, এরশাদ ও নজরুল ইসলাম ও মামুনের সহযোগিতায় দুই পরিবার একত্রিত হয়ে মামলা না করার শর্তে বিবাদির রাজনৈতিক পদ পদবি পাওয়ার স্বার্থে ঘরোয়াভাবে শরীয়াত মোতাবেক কাবিন রেজিস্ট্রি আপাতত ব্যতিরেখে বিয়ে করেন।

এরপর শাহিন তাকে  স্ত্রী পরিচয়ে বিভিন্ন জায়গায় বেড়াতে নিয়ে যেত এবং শারীরিকভাবে মেলামেশা করত।শাহিন ও তার বন্ধুদের নিয়মিত যাতায়াত ছিল সাহিদা আক্তার স্বর্ণার মাওনা এলাকায় অবস্থিত ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে। এসময় শাহিন নানা অজুহাতে ৩ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয় বলেও অভিযোগপত্রে উল্লেখ করেছেন সাহিদা আক্তার স্বর্ণা।

বর্তমানে শাহিন, স্ত্রী সাহিদা আক্তার স্বর্ণার সাথে সব ধরনের যোগাযোগ বন্ধ করে দিয়ে তাকে আনুষ্ঠানিকভাবে নিজের বাড়িতে তুলে না নিয়ে পরিবারের সিদ্ধান্তে অন্যত্র বিয়ে করায় নারী উদ্যোক্তা সাহিদা আক্তার স্বর্ণা থানায় এ অভিযোগ দায়ের করে তদন্ত সাপেক্ষে ধর্ষক ও প্রতারক  শাহিনের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন।


আরও খবর



দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা চুয়াডাঙ্গায়, ঢাকায় ৩৬.৪ ডিগ্রি

প্রকাশিত:সোমবার ২৫ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | ৮৬জন দেখেছেন
Image

চুয়াডাঙ্গায় দেশের সর্বোচ্চ ৪১ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে। এছাড়া রাজশাহীতে ৪০ ডিগ্রি, খুলনায় ৩৮.৫ ডিগ্রি এবং ঢাকায় ৩৬.৪ ডিগ্রী সে. সেলসিয়াস তাপমাত্রার রেকর্ড করা হয়েছে। রোববার (২৪ এপ্রিল) আবহাওয়া অধিদপ্তরের ওয়েব সাইটে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে।

চুয়াডাঙ্গা:

জানা গেছে, তীব্র গরম ও রোজার কারণে খুব প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের হচ্ছে না কেউ। জেলার রাস্তাঘাটও অন্যান্য দিনের তুলনায় ফাঁকা দেখা যায়। ডায়রিয়াসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছে মানুষ। রোদের তেজে খুব প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের হচ্ছেন না কেউ। একটু স্বস্তির জন্য গাছের ছায়ায় আশ্রয় নিচ্ছেন অনেকেই। তীব্র গরমে সব চেয়ে বেশি দুর্ভোগে পড়েছেন খেটে খাওয়া নিম্ন আয়ের মানুষগুলো।

চুয়াডাঙ্গা শহরের ভ্যান-চালক আঃ হালিম জানান, গত কয়েকদিন থেকে খুব গরম পড়ছে। ভ্যান নিয়ে বাইরে আসা যাচ্ছে না। শরীর ঘেমে জামা ভিজে যাচ্ছে। রোজার মধ্যে ভ্যান চালাতে খুব কষ্ট হচ্ছে। কিন্তু সামনে ঈদ কিছুই করার নেই। পরিবারের সদস্যদের কথা ভেবে আয় করতে বাইরে আসতে হচ্ছে।

চুয়াডাঙ্গা আঞ্চলিক আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সামাদুল হক জানান, গত কয়েক দিন থেকে চুয়াডাঙ্গা ও এর আশপাশ এলাকার ওপর দিয়ে মাঝারি থেকে তীব্র তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। আজ রোববার সন্ধ্যা ৬টায় জেলার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৪১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা।

রাজশাহী:

রাজশাহীতে কয়েকদিনের ব্যবধানে তাপমাত্রা আবারও ৪০ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে।

অথচ আগের দিন  রাজশাহীর সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৮ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। অর্থাৎ একদিনের ব্যবধানে রাজশাহীতে তাপমাত্রা বেড়েছে ১ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

বাইরে বের হওয়া লোকজন জানান, সকাল থেকেই রোদ তো নয়, যেন সূর্য আকাশ থেকে আগুন ঝড়াচ্ছে। এতে অতিমাত্রা যোগ করেছে পদ্মার বুকে জেগে ওঠা বিশাল বালু চর থেকে ধেয়ে আসা আগুনের মত উত্তপ্ত বাতাস। যাকে স্থানীয়ভাবে বলা হচ্ছে, ‘লু’ হাওয়া।

গত ১৫ এপ্রিল বিকেল ৩টায় রাজশাহীর তাপমাত্রা ৮ বছরের রেকর্ড ভেঙে ৪১ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াসে ওঠে। এর আগে ২০১৪ সালের ২৫ এপ্রিল রাজশাহীতে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছিল ৪১ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

রাজশাহী আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রের সিনিয়র পর্যবেক্ষক কামাল উদ্দিন জানান, গত ৪ এপ্রিলের পর রাজশাহীতে তাপপ্রবাহ চলছে। রবিবার বিকেল ৩টায় রাজশাহীতে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে ৪০ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। দিনের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে ২৫ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

খুলনা:

আজ সর্বোচ্চ ৩৮ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে খুলনায়। রোববার (২৪ এপ্রিল) দুপুরে আঞ্চলিক আবহাওয়া অফিসের সিনিয়র অফিসার মো. আমিরুল আজাদ এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

স্থানীয়রা জানান, তীব্র দাবদাহের কারণে বাইরে যাওয়া যাচ্ছে না। তবে জনশূন্য হয়ে পড়েছে মহানগরীর অধিকাংশ স্থান ও সড়ক। সড়কে যানবাহন ও মানুষের ভিড় থাকলেও আজ তেমনটি নেই।


আরও খবর



প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ : গোয়েন্দা নজরদারি বাড়বে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৯ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ১৪ মে ২০২২ | ৮৯জন দেখেছেন
Image

আগামী ২২ এপ্রিল থেকে সারা দেশে তিন ধাপে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর সহকারী শিক্ষক নিয়োগের লিখিত পরীক্ষা। এই পরীক্ষা সুষ্ঠু ও নির্বিঘে করতে জেলা প্রশাসক (ডিসি) ও বিভাগীয় কমিশনারদের নির্দেশনা দিয়েছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। সম্প্রতি মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের উপসচিব মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম ভূঁইয়া স্বাক্ষরিত চিঠিতে এই নির্দেশনা দেয়া হয়।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সহকারী শিক্ষকের ৩২ হাজার ৫৭৭টি শূন্য পদে নিয়োগের জন্য প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর ২০২০ সালের ২০ অক্টোবর বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। কিন্তু করোনা মহামারীর কারণে পরীক্ষা নেয়া সম্ভব হয়নি। ইতোমধ্যে অবসর নেয়ার কারণে আরো ১০ হাজারেরও বেশি সহকারী শিক্ষকের পদ শূন্য হয়ে পড়েছে। এতে বিদ্যালয়গুলোয় শিক্ষক ঘাটতি দেখা দিয়েছে। এ সমস্যার সমাধানে মন্ত্রণালয় আগের বিজ্ঞপ্তির শূন্য পদ ও বিজ্ঞপ্তির পরের শূন্য পদ মিলিয়ে প্রায় ৪৫ হাজার সহকারী শিক্ষক নিয়োগের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। প্রাথমিকের ইতিহাসে এটিই এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বড় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি। ২০২০ সালের ২৫ অক্টোবর অনলাইনে আবেদন শুরু হয়। আবেদন করেছেন ১৩ লাখ ৯ হাজার ৪৬১ জন প্রার্থী। সে হিসাবে একটি পদের জন্য প্রতিযোগিতা হবে ২৯ প্রার্থীর মধ্যে।

শিক্ষক নিয়োগের এই লিখিত পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে এর আগে গত ১২ এপ্রিল আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা করেছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো: জাকির হোসেনের সভাপতিত্বে মন্ত্রণালয়ের সচিব মো: হাসিবুল ইসলাম, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক আলমগীর মুহাম্মদ মনসুরুল আলম, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব সাবিরুল ইসলাম, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব তোফাজ্জল হোসাইন, এনএসআইয়ের অতিরিক্ত পরিচালক অসিত বরণ সরকার, জননিরাপত্তা বিভাগের উপসচিব শেখ ছালেহ আহাম্মদ উপস্থিত ছিলেন ।

সভায় প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে নিয়োগ পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে দেশের সব ডিআইজি, এসপিদের নিয়ে সভা করা এবং প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা প্রদানের উদ্যোগ গ্রহণ করার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ জানান। তা ছাড়া প্রশ্নপত্র প্রণয়ন স্থানে এবং পরীক্ষা কেন্দ্রগুলোতে মোবাইল নেটওয়ার্কিং সিস্টেম জ্যামারের ব্যবস্থা নেয়ার জন্য বিটিআরসিকে অনুরোধ জানান।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব সাবিরুল ইসলাম জানান যে, রমজান এবং ট্রাফিক পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে পর্যাপ্ত সময় হাতে রেখে ওএমআর শিট ও প্রশ্নপত্রের ট্রাংক এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেটদের তত্ত্বাবধানে সরবরাহ করতে অনুরোধ করেন।

এনএসআইয়ের অতিরিক্ত পরিচালক অসিত বরণ সরকার জানান, সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা সম্পাদনের লক্ষ্যে গোয়েন্দা নজরদারি অব্যাহত থাকবে। তিনি প্রতিটি কেন্দ্রে মেটাল ডিটেকটর স্থাপন এবং মহিলা পরীক্ষার্থীদের কানে পরিহিত কোনো ডিভাইস আছে কি না তা কঠোরভাবে যাচাই করার বিষয়ে গুরুত্বারোপ করেন। তা ছাড়া প্রশ্নপত্র ফাঁস এবং প্রশ্নপত্র ফাঁসের গুজব প্রতিরোধে তাৎক্ষণিকভাবে স্থানীয় প্রশাসন কর্তৃক তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের ওপর গুরুত্বারোপ করেন।
পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে গ্রহণের জন্য আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠকে ১১টি সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। সিদ্ধান্তের মধ্যে রয়েছে, সহকারী শিক্ষক নিয়োগের লিখিত পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে গ্রহণের প্রয়োজনীয় সহযোগিতা প্রদান এবং পরীক্ষাসংক্রান্ত সার্বিক কার্যক্রমে অংশগ্রহণের নিমিত্ত বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসকদেরকে নির্দেশনা প্রদানের জন্য মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।পরীক্ষার দিন প্রতিটি পরীক্ষা কেন্দ্রে একজন করে ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ এবং প্রশ্নপত্র ও অন্যান্য ডকুমেন্ট সংবলিত ট্রাংক ঢাকা হতে গ্রহণ, জেলার ট্রেজারিতে সংরক্ষণ এবং উত্তরপত্র ঢাকায় প্রেরণের জন্য জেলা প্রশাসকরা প্রয়োজনীয়সংখ্যক ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগের ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। কোনো জেলায় পর্যাপ্তসংখ্যক ম্যাজিস্ট্রেট না থাকলে বিভাগীয় কমিশনাররা প্রয়োজনীয়সংখ্যক ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ দিতে পারেন এবং সুপ্ত ম্যাজিস্ট্রেরিয়াল ক্ষমতাসম্পন্ন কর্মকর্তাদের ক্ষমতা পুনরুজ্জীবিত করার জন্য মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবেন।

পরীক্ষার দিন প্রতিটি পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রয়োজনীয়সংখ্যক পুলিশ ফোর্স (মহিলা কেন্দ্রে মহিলা পুলিশসহ) নিয়োগের জন্য জননিরাপত্তা বিভাগ ও পুলিশ অধিদফতর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। এ ছাড়া পরীক্ষার দিন কেন্দ্রগুলোতে টহল প্রদানের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য র্যাব মহাপরিচালক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন। যেকোনো ধরনের ইলেকট্রোনিকস কমিউনিকেটিভ ডিভাইস নিয়ে পরীক্ষার্থীরা যাতে পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রবেশ করতে না পারে সে লক্ষ্যে প্রতিটি পরীক্ষা কেন্দ্রে মেটাল ডিটেক্টর সরবরাহ ও স্থাপন করার জন্য নিমিত্ত পুলিশ সুপারদের নির্দেশনা দেয়ার জন্য জননিরাপত্তা বিভাগ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে সংশ্লিষ্ট এলাকায় মোবাইল নেটওয়াকিং জ্যামার স্থাপন করার নিমিত্ত বিটিআরসি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।




আরও খবর