Logo
শিরোনাম

আল্লামা শাহ্সূফী সৈয়দ মইনুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী ওয়াল্ হোসাইনী

প্রকাশিত:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

বেলায়েতের সম্রাট গাউছে দাওরাঁ হুজুর কেবলা

আমাদের প্রাণপ্রিয় মুর্শেদ কেবলা (মাঃজিঃআঃ) তো মাদারজাত (মাতৃগর্ভ) অলী হিসাবে পৃথিবীতে আগমন করেন। বাল্যকাল থেকেই যাঁর বেলায়তের প্রকাশ ঘটেছিল। একবিংশ শতাব্দীর ত্রাণকর্তা ও দিশারী হিসাবে আমরা তাঁকে পেয়েছি। তাঁর হাজারো কারামত রয়েছে। তিনি “ কারামতের মুখাপেক্ষী নন, বরং কারামত তাঁর মুখাপেক্ষী”। ‘শাজরায়ে কাদেরীয়া গাউছিয়া মাইজভান্ডারীয়া’ অধ্যয়ণ করলে আমরা তার কিছু কারমতের নমুনা খুঁজে পাবো। এছাড়া ‘একটি জীবন, একটি দর্শন’ নামে তার পূর্নাঙ্গ জীবনীগ্রন্থ আমরা তা বিস্তারিতভাবে জানতে পারবো। তরীকতে তাঁর তালিম অত্যন্ত স্বচ্ছ ও নিখুঁত। তাঁর সাহচর্য যারা লাভ করেছেন, তাঁরা হয়েছেন সোনার মানুষ, সঠিক তাপস, তরীকতের নামে সমাজে যে বিদয়াত ও কুসংস্কার ছিল, তার বিরুদ্ধে সারা জীবন তিনি আপোষহীন সংগ্রাম করে যান। দুনিয়ার কোন মোহ-লোভ-লালসা তাঁকে স্পর্শ করতে পারেনি। বাতিল ও অসত্যের সাথে তিনি কোনদিন আপোষ করেননি। তিনি তো হযরত ইমাম হাসান ও ইমাম হোসাইনের রক্তীয় বংশীয় ধারা, নবী বংশের উজ্জল প্রদীপ। ১৯৮৮ ইং সালে ঢাকায় প্রেস কনফারেন্সে ঘোষণা করেন “সুন্নীয়ত ও ঈমানের জন্য রক্ত দিতে হলে সর্বপ্রথম আমি মইনুদ্দীনই রক্ত দিতে প্রস্তুত”।
পরিশেষে আমরা বাংলাদেশ সরকার বিশেষতঃ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে নিয়োজিত উপদেষ্টা মহোদয়ের কাছে সবিনয় অনুরোধ করছি, বাংলার এ কৃতি সন্তানের জীবনাদর্শ ও কর্মকান্ডকে পাঠ্যক্রমের তালিকা ভুক্ত করুন।
আমরা নোবেল পুরস্কার অথরিটীর কাছে আকুল আহবান জানাচ্ছি, চলতি শতকের এ মনীষী ও শান্তির দূতকে আধ্যাত্মিক ও শান্তিতে নোবেল পুরস্কার প্রদানে যথাযথ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করুন। তাতে মানবতার মান বাড়বে। গুণীদের সম্মান সমুন্নত হবে। ইতিহাস আপনাদেরকে স্মরণ করবে।

সারা বিশ্বের মানবতা ও মুক্তির দিশারী, অসাম্প্রদায়িক সমাজ গঠনের শান্তির দূত, জাতি-ধর্ম নির্বিশেষে সবার কল্যাণাকামী, আধাঁরে আলোর পথ প্রদর্শক, এ সময়ের মাইজভান্ডার দরবার শরীফের শিরমণি, নবী (দঃ) এর ত্রিশ তম বংশধর, গাউছে দাওরাঁ, শায়খুল ইসলাম হযরতুলহাজ্ব আল্লামা শাহ্সূফী সৈয়দ মইনুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী ওয়াল্ হোসাইনী মাইজভান্ডারী (কঃ ছিঃ আঃ)। তিনি চলে গেলেন, বাংলাদেশ সহ সারা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে লাখো-লাখো ভক্ত আশেকানদের অশ্রু জলে ভাসিয়ে দিয়ে চলে গেলেন। তিনি গত ১৭ আগষ্ট সিঙ্গাপুরের এক হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন (ইন্নানিল্লাহে…………..রাজিউন)। তাঁর এই প্রয়াণে সুন্নীয়তের ঝান্ডা বাহক অসীম সাহসী নির্লোভ, ত্যাগী একজন মহা-মানবকে আমরা হারালাম।

প্রতি বছর মাইজভান্ডার দরবার শরীফের এ মহান আউলিয়া, গাউছে দাওরাঁ, শতাব্দীর মুজাদ্দিদ, শায়খুল ইসলাম আওলাদে রাসূল (দঃ) হযরত শাহ্সূফী মাওলানা সৈয়দ মইনুদ্দিন আহমদ আল্-হাসানী ওয়াল্ হোসাইনী (মাঃজিঃআঃ) এর মহান ২৭শে মাঘ মোতাবেক ৯ই ফেব্রুয়ারী পবিত্র জন্মদিন এবং প্রতি বছর ১৭ ই আগষ্ট পবিত্র ওফাত দিবসে হাজির হয়ে তাঁর ফয়ুজাত ও বরকত লাভে ধন্য হই এবং সঠিক পথে চলার দিশা গ্রহণ করি। আল্লাহ পাক আমাদেরকে তাঁরই সান্নিধ্যে হাজির হয়ে গাউছুল আজম মাইজভান্ডারী (কঃ) ও গাউছুল আজম বাবাভান্ডারী কেবলা (কঃ) নূরানী নেগাহে করম হাসিল করে ধন্য হওয়ার তৌফিক দান করুন। আমিন!

(সংগৃহীত)


আরও খবর

সূফিবাদের প্রয়োজনীয়তা

বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২

সুফিবাদের উৎপত্তি ও ক্রমবিকাশ

বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২




বেলা ১১টার মধ্যে সবাইকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দিলেন ওবায়দুল কাদের

প্রকাশিত:সোমবার ১৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

আগামী ২৫ জুন বহুল কাঙ্ক্ষিত পদ্মা সেতু উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ওই দিন সেতুর দুই পারে জনসংযোগ করবেন তিনি।

এ উপলক্ষে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, “আমার মনে হয়, স্মরণকালের বৃহত্তম জনসভা হবে, যে জনসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।”

তিনি আরও বলেন, “আজকে এ পদ্মা সেতু যার স্বপ্ন, এই পদ্মা সেতু যার কমিটমেন্ট, এই পদ্মা সেতুর জন্য যিনি পারিবারিকভাবে অপমানিত হয়েছেন, তার সেই স্বপ্নের পদ্মা সেতু। বাঙালির সক্ষমতার পদ্মা সেতু এবং অপমানের প্রতিশোধের এই পদ্মা সেতু।”

রবিবার সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভাস্থল পরিদর্শনে গিয়ে এসব কথা বলেন ওবায়দুল কাদের।

ওবায়দুল কাদের সোয়া ৭টার দিকে মাদারীপুরের শিবচরের কাঁঠালবাড়ির ইউনিয়নের বাংলাবাজার ইলিয়াস আহমেদ চৌধুরী ফেরিঘাট এলাকায় পৌঁছেন। মন্ত্রীর গাড়িবহর নিয়ে মুন্সীগঞ্জ প্রান্ত থেকে পদ্মা সেতু কাজের অগ্রগতি দেখতে দেখতে মাদারীপুর যান তিনি। 

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ ও মাদারীপুর-১ (শিবচর) আসনের এমপি নুর-ই-আলম চৌধুরী, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জনসভার সমন্বয়ক মির্জা আজম এমপি, পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম, ইকবাল হোসেন অপু এমপি, মাদারীপুরের জেলা প্রশাসক ড. রহিমা খাতুন, মাদারীপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মুনির চৌধুরী, পুলিশ সুপার গোলাম মোস্তফা রাসেলসহ স্থানীয় নেতাকর্মীরা। 

সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এ সময় বলেন, “বঙ্গবন্ধুকন্যা এপারে (মাদারীপুর) ভাষণ দেবেন এবং ওপারে (মুন্সিগঞ্জ) সুধী সমাবেশ করবেন। আপনারা সবাই ওই দিন বেলা ১১টার মধ্যে প্রস্তুত থাকবেন।”


আরও খবর



পিটিয়ে শিক্ষককে হত্যার ঘটনায় জিতু গ্রেপ্তার

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

ঢাকার আশুলিয়ায় স্টাম্প দিয়ে পিটিয়ে শিক্ষককে হত্যার ঘটনায় প্রধান অভিযুক্ত সেই শিক্ষার্থী আশরাফুল আহসান জিতুকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব।

বুধবার (২৯ জুন) গাজীপুরের শ্রীপুর থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে এই এলিট বাহিনী।

র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারের সহকারী পরিচালক আ ন ম ইমরান খান গণমাধ্যমকে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, র‌্যাবের বিশেষ এক অভিযানে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

প্রসঙ্গত, গত ২৫ জুন আশুলিয়ার হাজী ইউনুস আলী স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষক উৎপল কুমারকে স্টাম্প দিয়ে বেধড়ক মারধর করে ওই বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির শিক্ষার্থী আশরাফুল আহসান জিতু। পরে এনাম মেডিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২৭ জুন তিনি মারা যান। এক ছাত্রীকে উত্যক্তের অভিযোগে ওই শিক্ষক তাকে বকাঝকা করলে শিক্ষার্থী তাকে পিটিয়ে মারাত্মক জখম করেন।

এ ঘটনায় নিহতের বড় ভাই অসীম কুমার সরকার বাদী হয়ে আশুলিয়া থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলার পরই পালিয়ে যায় জিতু। র‌্যাব বিশেষ অভিযান চালিয়ে বুধবার সন্ধ্যায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করে।

আশুলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এইচএম কামরুজ্জামান শিক্ষক হত্যার প্রধান আসামি শিক্ষার্থী আশরাফুল আহসান জিতুকে গ্রেপ্তারের তথ্য প্রতিদিনের সংবাদকে নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, তাকে গাজীপুরের শ্রীপুর থেকে র‌্যাব গ্রেপ্তার করে।

এদিকে অভিযুক্ত শিক্ষার্থী জিতুর বাবা উজ্জল হোসেনকে বুধার ভোরে কুষ্টিয়ার কুমারখালী থেকে আটক করেছে পুলিশ। আশুলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এইচএম কামরুজ্জামান জানান, ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে তাকে ঢাকার মুখ্য বিচারিক আদালতে পাঠানো হয়। আদালত তার ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন।


আরও খবর



পদ্মায় দুই ফেরির সংঘর্ষে নিহত এক, আহত ১৫

প্রকাশিত:রবিবার ১৯ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

শাহআলম নিতুল : শরীয়তপুরের শিমুলিয়া-মাঝিকান্দি রুটে দুই ফেরির সংঘর্ষে একজন নিহত । এ সময় একজন নিখোঁজ ও আহত  অন্তত ১৫ জন। রবিবার (১৯ জুন) ভোর ৪ টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত পিকআপ ভ্যানচালকের নাম মোহাম্মদ খোকন। তার বাড়ি ঝালকাঠি জেলায়।

ফেরির চালক ও যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, রাত থেকেই পদ্মা নদীতে প্রচণ্ড স্রোত ছিল। এই স্রোতের মধ্যে ফেরি চলাচল করছিল। ভোরের দিকে বেগম রোকেয়া ও সুফিয়া কামাল নামে দুই ফেরি নিয়ন্ত্রণ রাখতে পারেনি। এ সময় তাদের মধ্যে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে দুটি ফেরির সামনের অংশ দুমড়েমুচড়ে যায়। ফেরিতে থাকা একজন গাড়ির চালক আহত হন। আরেক চালক নদীতে পড়ে যান। সংঘর্ষের পর দুটি ফেরিই নিজ নিজ গন্তব্যে পৌঁছে যানবাহন ও যাত্রীদের নামিয়েছে।

পরে বেগম রোকেয়া ফেরির মাস্টার মিন্টু রঞ্জন দাস বলেন, নদীতে অনেক স্রোত ছিল। জাজিরা পয়েন্টের কাছাকাছি মোড়ে পৌঁছালে স্রোতের কারণে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেরি সুফিয়া কামালের সঙ্গে আমার ফেরির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে আমার ফেরিতে থাকা ৮-১০টি গাড়ির ক্ষতি হয় এবং পিকআপ ভ্যানচালক নিহত ও নদীতে পড়ে একজন নিখোঁজ রয়েছে।

সুফিয়া কামাল ফেরির মাস্টার মোহাম্মদ হাসান বলেন, নদীতে প্রচণ্ড স্রোতে টার্নিংয়ে নিয়ন্ত্রণ করা যায়নি।

তবে যাত্রীরা জানিয়েছেন, ফেরি চালকদের অবহেলার কারণেই এ দুর্ঘটনা ঘটেছে।

বর্তমানে এই রুটে ছয়টি ফেরি চলাচল করছে। দুর্ঘটনাকবলিত ফেরিতে অর্ধশতাধিক যান এবং কয়েকশ যাত্রী ছিলো।


আরও খবর



কুমিল্লা স্টেডিয়ামে মোহামেডানের সাথে ৪-২ গোলে জয় পেয়েছে আবাহনী

প্রকাশিত:বুধবার ২২ জুন 20২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

কু‌মিল্লা জেলা প্রতি‌বেদক ঃ

কুমিল্লা শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ স্টেডিয়ামে বুধবার (২২ জুন) বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের ৯৩ তম ম্যাচে অনুষ্ঠিত হয়েছে। চির প্রতিদ্বন্দ্বি দুই দল আবাহনী মোহামেডানের খেলা দেখতে মাঠে আসে কয়েক হাজার দর্শক। 

পূর্ব ও পশ্চিম দিকে গ্যালারিতে ভাগ হয়ে নিজ নিজ দলের হয়ে উৎসাহ দেয় দর্শকরা। খেলায় ঢাকা আবাহনী লিমিটেড ৪-২ গোলে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবকে পরাজিত করেছে।

বুধবার বিকেল চারটায় খেলা শুরুর ৭ মিনিটের মাথায় ঢাকা আবাহনীর হয়ে গোল করেন, ড্যানিয়েল কলিনদ্রেস। ডরিয়েল্টন দুটি গোল করেন ১০ ও ৪৫+৫তম মিনিটে। এবং চতুর্থ গোলটি করেন ইমন বাবু ৪৩তম মিনিটে। 

মোহামেডানের হয়ে গোল করেন সুলেমান দিয়াবেতে ১৮তম মিনিটে। ২য় গোলটি করেন শাহরিয়ার ইমন ৪৫+২তম মিনিটে। খেলার দ্বিতীয়ার্ধে গোল না হওয়ায় ঢাকা  আবাহনী লিমিটেড ৪-২ গোলে বিজয়ী হয়ে মাঠ ছাড়েন। 

উত্তেজনাপূর্ণ ঢাকা আবাহনী লিমিটেড ও মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের খেলায় মাঠে উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লা জেলা ফুটবল এসাসিয়েশনের সভাপতি ও নব নির্বাচিত কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরফানুল হক রিফাত। উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লা জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারন সম্পাদক নাজমুল আহসান ফারুক রোমেন, সহ-সাধারন সম্পাদক খায়রুল আলম সোহাগ, কুমিল্লা জেলা ফুটবল এসাসিয়েশনের সাধারন সম্পাদক বাদল খন্দকার, সদস্য দেলোয়ার হোসেন জাকির ও আল আমিন ভূইয়া। এছাড়াও আবাহনী লিমিটেড ও মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের কর্মকর্তা, বাফুফের কর্মকর্তা বৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



ঢাকা-মাওয়া এক্সপ্রেসওয়েতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৫

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

শাহ আলম ইসলাম নিতুল:  ঢাকার কেরানীগঞ্জের ঢাকা-মাওয়া এক্সপ্রেসওয়ের সার্ভিস রোডে ভেকু বহনকারী লরি ও সিএনজি অটোরিকশার মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে ঘটনাস্থলেই চারজন নিহত হয়েছেন। আহত অবস্থায় আরও দুজনকে মিটফোর্ড হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে একজন মারা যান। আহত অপরজনের অবস্থাও আশঙ্কাজনক।

বৃহস্পতিবার (২ মে) রাত সোয়া ১২টায় দক্ষিণ কেরানীগঞ্জে ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কের তেঘরিয়া এলাকার আর্মি ক্যাম্পের কাছে ভেকু বহনকারী লরিটি আর্মি ক্যাম্পের ভেতর যাওয়ার উদ্দেশ্যে মোড় নিচ্ছিল।

অন্যদিকে একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশা ইকুরিয়া থেকে মাওয়া অভিমুখে যাচ্ছিল। উভয় গাড়ির গতি বেশি থাকায় অটোরিকশাটি লরির নিচে চলে যায়। এ সময় অটোরিকশার চালকসহ ছয়জন যাত্রীর মধ্যে ঘটনাস্থলেই চারজন মারা যান। পরে হাসপাতালে নেওয়ার পর একজন চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

নিহতরা হলেন অটোরিকশার চালক মো. তমাল (১৮), যাত্রী জোনায়েদ হোসেন জিহাদ (২৩), নাহিদ হোসেন ফাহিম (২১), মো. সামাদ (২১) ও মো. জনী (২৮)। আহত ব্যক্তির নাম আহাদ (২২)।

এ বিষয়ে হাইওয়ে পুলিশের নারায়ণগঞ্জ সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার অমৃত সূত্রধর বলেন, দুর্ঘটনাকবলিত অটোরিকশা ও লরিটি আমাদের হেফাজতে রয়েছে। তবে লরির চালক ও হেলপার পালিয়ে গেছেন। এ ঘটনায় দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় মামলা প্রক্রিয়াধীন।


আরও খবর