Logo
শিরোনাম

আরো ৩০ লাখ ডোজ টিকা অনুদান দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র

প্রকাশিত:শনিবার ৩০ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | ১০৫জন দেখেছেন
Image

যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশকে ফাইজারের তৈরি কোভিড-১৯ এর আরো ৩০ লাখ ডোজ টিকা অনুদান দিয়েছে। গতকাল শুক্রবার ঢাকায় যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস জানায়, ফাইজারের তৈরি টিকার এই চালানে রয়েছে নতুন ধরনের পুরোপুরি প্রস্তুত করা টিকা। এই টিকাগুলো বাহুতে প্রয়োগের আগে কোনো মিশ্রণের প্রয়োজনের নেই। এমনকি শীতল-সরবরাহ-ব্যবস্থা ন্যূনতম হলেও নতুন এই টিকাটি দীর্ঘ সময়ের জন্য সংরক্ষণ করা যেতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস আরো জানায়, নতুন শুরু হওয়া বুস্টার কার্যক্রমে সহায়তা দিতে নতুন এই টিকাগুলো একেবারে সঠিক সময়ে এসে পৌঁছেছে। আরো ৩০ লাখ ডোজ কোভিড টিকা আসার ফলে বাংলাদেশে যুক্তরাষ্ট্রের কোভিড টিকা অনুদান ৬ কোটি ৪০ লাখ ডোজ ছাড়িয়েছে। এই সংখ্যা আগামীতে আরো বাড়বে।

উল্লেখ্য, গত ৪ এপ্রিল ওয়াশিংটন ডিসিতে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিনকেন বলেন, কোভিড মোকাবিলায় বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্র নিবিড়ভাবে কাজ করছে। টিকাবিষয়ক আন্তর্জাতিক উদ্যোগ কোভ্যাক্সের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশে টিকা পাঠাচ্ছে।

টিকা অনুদানের পাশাপাশি জাতীয় পর্যায়ে কোভিড-১৯ টিকা কার্যক্রমে সহায়তা দিতেও যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের সঙ্গে নিবিড়ভাবে কাজ করে যাচ্ছে। গত ফেব্রুয়ারি নাগাদ যুক্তরাষ্ট্র সাত হাজারেরও বেশি স্বাস্থ্যকর্মীকে যথাযথ টিকাদান ব্যবস্থাপনা বিষয়ে প্রশিক্ষণ দিয়েছে। এ ছাড়া শীতলীকৃত মজুদ ও পরিবহন ব্যবস্থা গ্রহণে সহায়তা এবং শিক্ষার্থী ও সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠীকে টিকাদানের লক্ষ্যভিত্তিক কার্যক্রম পরিচালনায়ও যুক্তরাষ্ট্র সহায়তা করেছে।


আরও খবর



যুক্তরাষ্ট্রে বন্দুক হামলায় আহত ৪, হামলাকারী নিহত

প্রকাশিত:শনিবার ২৩ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | ৯৫জন দেখেছেন
Image

যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটনে এক বন্দুকধারীর হামলায় চারজন আহত হয়েছেন। পরে হামলাকারী নিজেও আত্মঘাতী হন বলে জানিয়েছে দেশটির পুলিশ। একটি স্কুলের সামনে স্থানীয় সময় শুক্রবার (২২ এপ্রিল) এ হামলার ঘটনা ঘটে।

হামলার খবরে দ্রুত হাজির হন নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা। ঘিরে ফেলে পুরো এলাকা। লকডাউন করে রাখা হয় ইউনিভার্সিটি অব ডিস্ট্রিক্ট অব কলাম্বিয়ার আশপাশের এলাকা। হামলাকারীর সন্ধানে বাড়ি বাড়ি চালানো হয় তল্লাশি। বেশ কয়েক ঘণ্টা পর্যন্ত জারি ছিল সতর্কতাও।

ওয়াশিংটন পুলিশ জানিয়েছে, ভিডিও ফুটেজ দেখে একজনকে চিহ্নিত করা গেছে। প্রাথমিকভাবে সন্দেহভাজন ওই ব্যক্তির নাম র্যামন্ড স্পেনসার এবং তার বয়স ২৩। হামলাকারীর মোটিভ ছিল সম্প্রদায়ের লোকজনদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটানো। তবে এখনো তদন্ত চলছে বলেও জানিয়েছে তারা। হামলাকারী একজনই ছিলেন বলেও ধারণা তাদের।

খবর অনুযায়ী, প্রত্যক্ষদর্শীদের তথ্য অনুযায়ী তল্লাশি শুরু করে পুলিশ। এরপর একটি পাশের অ্যাপার্টমেন্টে অভিযান চালিয়ে হামলাকারীর অবস্থান শনাক্ত করে তারা। পুলিশের দাবি সেখানেই ওই হামলাকারী আত্মঘাতী হন। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ আগ্নেয়াস্ত্রসহ রাইফেল উদ্ধার করে যেটি স্নাইপার টাইপ সেটআপ করা ছিল।



সূত্র: রয়টার্স, দ্যা নিউ ইয়র্ক টাইমস।


আরও খবর



লাখ লিটার ভোজ্যতেলের অবৈধ মজুদ

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৩ মে ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | ৩৯জন দেখেছেন
Image

বাজারে ভোজ্যতেলের সংকট এবং অধিক মূল্য থাকলেও গোডাউনগুলোতে মিলেছে লাখ লাখ লিটার তেলের অবৈধ মজুদ। পাইকারী ব্যবসায়ীরা অবৈধভাবে এসব তেল মজুদ করে রেখে বাজারে কৃত্তিম সংকট তৈরি করছেন।

খুলনা নগরীর স্যার ইকবাল রোডস্থ বড় বাজারের এলাকার সিটি ব্যাংক গলিতে অবস্থিত সোনালী এন্টার প্রাইজ, সাহা ট্রেডার্স ও রণজিৎ এন্ড সন্স নামক তিনটি প্রতিষ্ঠানের ৮টি গোডাউনে জেলা প্রশাসন ও র‌্যাবের যৌথ ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে অবৈধ মজুদের সত্যতা মেলে।

এসব গোডাউনে পাওয়া যায় ১ হাজার ১২৯ ব্যারেল সয়াবিন ও সুপার পামওয়েল। যার পরিমাণ ২ লাখ ৩০ হাজার লিটার। এ অভিযাগে প্রতিষ্ঠান তিনটিকে ১ লাখ ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেন আদালতের নেতৃত্বে থাকা খুলনা জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও জেলা প্রশাসনের মিডিয়া সেলের মুখপাত্র দেবাশীষ বসাক।

অপরদিকে, ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের অভিযানে অতিরিক্ত মূল্যে সয়াবিন তেল বিক্রির অভিযোগে তিনটি খুচরা ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে আরও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা যায়, ভোজ্যতেলের অবৈধ মজুদ রাখার গোপন খবরের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার বড় বাজারের সোনালী এন্টারপ্রাইজ, সাহা ট্রেডার্স ও রণজিৎ এন্ড সন্স নামক তিনটি প্রতিষ্ঠানের ৮টি গোডাউনে অভিযান চালানো হয়। এ সময় সোনালী এন্টারপ্রাইজের ৩টি গোডাউনে ১৪৪ ব্যারেল সয়াবিন ও ১৭১ ব্যারেল সুপার পামওয়েল, সাহা ট্রেডার্সে ১৬৭ ব্যারেল সয়াবিন ও ৩৩৯ ব্যারেল সুপার পামওয়েল এবং রণজিৎ এন্ড সন্স নামক প্রতিষ্ঠানে ৩০৪ ব্যারেল তেল পাওয়া যায়। এ অভিযোগে সোনালী এন্টার প্রাইজের মালিক প্রদীপ সাহাকে ৩০ হাজার টাকা, সাহা ট্রেডার্সের মালিক দিলীপ কুমার সাহাকে ৯০ হাজার টাকা এবং রণজিৎ এন্ড সন্স নামক প্রতিষ্ঠানের মালিক অজিত বিশ্বাসকে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দেবাশীষ বসাক বলেন, কৃষি বিপণন আইন-২০১৮ অনুযায়ী কোন প্রতিষ্ঠানে সর্বোচ্চ ৩০ মেট্টিক টন এবং ৩০ দিনের বেশি মজুদ রাখা যাবে না। কিন্তু উল্লিখিত প্রতিষ্ঠান ৩টি এ আইন লঙ্ঘন করে অতিরিক্ত তেল মজুদ রেখেছিল। এ কারণে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, জনস্বার্থে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হচ্ছে। কেউ যাতে ভোজ্যতেল মজুদ করে বাজারে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করতে না পারে সেদিকে নজর রাখা হচ্ছে।

র‌্যাব-৬ খুলনার সদর কোম্পানি কমান্ডার পুলিশ সুপার আল আসাদ মো. মাহফুজুল ইসলাম জানান, গোডাউনগুলোতে অতিরিক্ত তেল পাওয়া গেছে। তাদের এ বিষয়ে সর্তক ও জরিমানা করা হয়েছে। জনস্বার্থে অবৈধ মজুদদারদের বিরুদ্ধে র‌্যাবের এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

তবে প্রতিষ্ঠান মালিকরা দাবি করেন, চলমান ব্যবসার প্রয়োজনে তেল মজুদ করা হয়েছে। দাম বৃদ্ধির জন্য করা হয়নি। বর্তমানে লোকসান দিয়ে পামওয়েল বিক্রি করতে হচ্ছে।

অপরদিকে, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়াধীন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের খুলনা জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক শিকদার শাহীনুর আলমের নেতৃত্বে তদারকিমূলক অভিযান পরিচালিত হয়। অভিযানে খুলনা মহানগরের সোনাডাঙ্গা থানাধীন বিভিন্ন এলাকায় বোতলজাত সয়াবিন তেল নির্ধারিত মূল্যের অধিক মূল্যে বিক্রির দায়ে মা টেলিকমকে ১০ হাজার টাকা, মায়ের দোকানকে ৫ হাজার টাকা এবং নয়ন স্টোরকে ৩৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। একই সাথে উদ্ধারকৃত তেল নিধারিত দামে জনসাধারণের কাছে বিক্রয়ের আদেশ দেয়া হয়।

ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের খুলনা জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক শিকদার শাহীনুর আলম বলেন, এ অভিযানে সকলকে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন, ২০০৯ অনুসারে ভোক্তা অধিকার বিরোধী কার্যাবলী হতে বিরত থাকার অনুরোধ জানানো হয়। এছাড়া ব্যবসায়ীদের ক্রয়/বিক্রয় রশিদ সংরক্ষণ, মূল্য তালিকা প্রদর্শন করতে অনুরোধ জানানো হয় এবং সচেতন করতে লিফলেট বিতরণ করা হয়।


আরও খবর

পচছে আমদানি পেঁয়াজ

সোমবার ১৬ মে ২০২২




টাঙ্গাইলে কেয়ার ক্লাব’র উদ্যোগে ছিন্নমূল পরিবারের মাঝে ঈদ-সামগ্রী বিতরণ

প্রকাশিত:শনিবার ৩০ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | ১০৮জন দেখেছেন
Image

মোঃ সিরাজ আল মাসুদ, টাঙ্গাইলঃ

টাঙ্গাইলে পুলিশ লাইন্স উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রচেষ্টায় গড়ে তোলা সেচ্ছাসেবী সংগঠন “কেয়ার ক্লাব” এর উদ্যোগে অসহায়, দুস্থ ও ছিন্নমূল পরিবারের মাঝে ঈদ-সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। 

গতকাল শনিবার টাঙ্গাইল সদর উপজেলা মগরা ইউনিয়নের আয়নাপুর এলাকায় ৫০জন পরিবারের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ করা হয়। এর আগেও কেয়ার ক্লাব’র আয়োজনে গত শুক্রবার (২২এপ্রিল) টাঙ্গাইল শহরের পশ্চিম আকুর টাকুর এলাকায় মারকাযুল কুরআন আল ইসলামিয়া মাদ্রাসায় ৫০জন এতিমদের ইফতার ও রান্না করা খাবার বিতরণ করা হয়। এরপর বৃহস্পতিবার (২৮এপ্রিল) সদর উপজেলা গালা ইউনিয়নের রসুলপুর এলাকায় ৫০জন হতদরিদ্রদের মাঝে বস্ত্র বিতরণ করা হয়। এতে সেচ্ছাসেবী সংগঠন “কেয়ার ক্লাব” এর প্রতিষ্ঠতা সভাপতি সিনহা ইসলাম অর্না, সাধারণ সম্পাদক মো. নাজমুল হাসান, সাংগঠনিক সম্পাদক সাদিয়া অফরিন, উৎস  (মেন্টর), সুহি (মেন্টর), সদস্য সুরভী, তোয়া, ফাতেমা, হৃদয়, জয়, রাহাত ও সাদনান অংশ নেয়।

সেচ্ছাসেবী সংগঠন “কেয়ার ক্লাব” এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি সিনহা ইসলাম অর্না বলেন, পুলিশ লাইন্স আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রচেষ্টায় গড়ে তোলা কেয়ার ক্লাবের সার্বিক সহযোগিতায় রমজান মাসে আমাদের তিনটি প্রোগ্রাম ছিলো তিনটি প্রোগ্রামের মধ্যে এতিমদের ইফতার বিতরণ। তাছারাও গরীব দুখিদের মাঝে বস্ত্র ও ঈদ সামগ্রী বিতরণ। 

অর্না আরোও বলেন, সমাজের অসহায় ও দরিদ্র মানুষের প্রতি আরোও বেশী করে সহযােগিতার হাত বাড়িয়ে দিতে সমাজের সামর্থবানদের প্রতি আহবান জানান।

ঈদ সামগ্রী পেয়ে হারান আলী বলেন, এই ছোট ছোট বাচ্চারা নিজের প্রচেষ্টায় যে আমাদের গরীবদের প্রতি মানবতা দেখিয়েছেন তা কোন দিন ভোলার নয়। আমারা এই ঈদ সামগ্রী পেয়ে অনেক খুশি। তাদের অনেক দিন বাচিয়ে রাখুক এই দোয়া করি।


আরও খবর



বিএনপি শুধু ভোটের সময় মুসলমান : তথ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:বুধবার ২০ এপ্রিল ২০22 | হালনাগাদ:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | ১১৪জন দেখেছেন
Image

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, ‘বিএনপি ভোটের সময় কড়া মুসলমান হয়ে যায়, ভোট চলে গেলে ইসলামের জন্য, আলেম-ওলামাদের জন্য কাজের কথা ভুলে যায়।’

এরশাদ সাহেব ইসলামকে রাষ্ট্রধর্ম করেছেন, বেগম খালেদা জিয়া আলেম-ওলামাদের মাথায় হাত বুলিয়ে ভোট নিয়েছেন, কিন্তু ইসলামের খেদমতে তারা কাজ করেননি উল্লেখ করে তিনি বলেন, শুধু ভোটের সময় যারা কড়া মুসলমান হয়, তাদের বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে।

মন্ত্রী আজ সন্ধ্যায় রাজধানীতে জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ ইউনাইটেড ইসলামী পার্টির ইফতার ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন। ইউনাইটেড ইসলামী পার্টির চেয়ারম্যান মাওলানা মো: ইসমাইল হোসাইনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় ধর্ম প্রতিমন্ত্রী মো: ফরিদুল হক খান বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন।

গত সাড়ে তেরো বছর আওয়ামী লীগ দেশ পরিচালনার আগে অনেক সরকার এসেছে, কিন্তু ইসলামের খেদমতে অন্য কেউ এতো কাজ করেনি উল্লেখ করে ড. হাছান বলেন, ‘ইসলামী আরবী বিশ্ববিদ্যালয়ের দাবি ছিল শতবর্ষ পুরনো। বিএনপি জামাতকে নিয়ে, এরশাদ সাহেব মাওলানা মান্নানকে নিয়ে ক্ষমতায় ছিলেন। ভোটের সময় তারা ইসলামের কথা খুব বক্তৃতা করেছেন, কিন্তু কেউ সেই দাবি পূরণ করেনি। বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনাই ইসলামী আরবী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেছেন।

একইভাবে কওমি মাদ্রাসাকে স্বীকৃতি দেয়া হবে এটি কেউ কল্পনা করতে পারেননি, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেই স্বীকৃতি দিয়েছেন এবং স্বীকৃতি দিলেও চাকুরি হবে না এমন মন্তব্যকারীদের বিস্মিত করে শুধু চাকুরিই নয়, সরকারি চাকুরি দিয়েছেন', উল্লেখ করেন মন্ত্রী।

দেশে প্রায় এক লাখ মসজিদ ভিত্তিক মক্তব প্রতিষ্ঠা, মক্তবের শিক্ষককে মাসে পাঁচ হাজার দুইশত টাকা ভাতা দেয়া, পাশাপাশি বিশ হাজার দারুল আরকাম ইবতেদায়ী মাদ্রাসাকে বারো হাজার টাকা করে মাসিক ভাতা দেয়া শেখ হাসিনা নিজ উদ্যোগে চালু করেছেন, জানান তিনি।

সম্প্রচারমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেন, 'বহু ইসলামী রাষ্ট্র আছে, কিন্তু একমাত্র বাংলাদেশেই বঙ্গবন্ধু কন্যার নেতৃত্বে সারাদেশে একসাথে প্রতি জেলা ও উপজেলায় ছয়শ' মসজিদ নির্মিত হচ্ছে। এ মসজিদগুলো বাইরে থেকে দেখলে চোখ জুড়িয়ে যায়, ভেতরে ঢুকলে মন জুড়িয়ে যায়। ঢাকার বায়তুল মুকাররম মসজিদে কোনো গম্বুজ ছিলো না। জননেত্রী শেখ হাসিনা প্রথমবার ক্ষমতায় এসে এর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করলেন এবং মাঝখানে বিএনপি ও তত্ত্বাবধায়ক কোনো সরকারই এই কাজ সমাপ্ত করতে পারে নি, আবার ক্ষমতায় এসে পরম করুণাময়ের ইচ্ছায় শেখ হাসিনাই এটি সমাপ্ত করলেন।'

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী মো: ফরিদুল হক খান বলেন, দুনিয়াতে হিসাব নিকাশ করে জীবন পরিচালনার মধ্যেই পরলোকের জীবনের শান্তি নিহিত।

সাবেক এমপি আলহাজ্ব মো: সিরাজুল ইসলাম মোল্লা, হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ ট্রাস্টের চেয়ারম্যান কাজী মো: মামুনুর রশীদ, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের পরিচালনা পর্ষদ সদস্য ড. মুফতি মাওলানা কাফিল উদ্দিন সরকার সালেহী, ইউনাইটেড ইসলামী পার্টির মহাসচিব শাইখুল হাদিস মাওলানা মুফতি শাহাদাত হোসাইন প্রমুখ সভায় বক্তব্য রাখেন।


আরও খবর



কু‌মিল্লা সি‌টি নি‌র্বাচ‌নে স্বতন্ত্র বিএনপি’র সাক্কু - কায়সার , আজ আওয়ামীলী‌গের প্রার্থী ঘোষণা

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৩ মে ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | ৩৩জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদক 

কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনে বিএনপি অংশ গ্রহন করবে না দলের এমন সিদ্ধান্তের বাহিরে গিয়ে মেয়র প্রার্থী হিসেবে জেলা নির্বাচন কার্যালয় থেকে মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ করেছেন ‌বিএন‌পির দু প্রার্থী। দুজ‌নেই স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন অংশ নেয়ার ঘোষণা  জানিয়েছেন গণমাধ‌্যমে।

জেলা নির্বাচন কার্যালয় থে‌কে জানা যায়, স্বতন্ত প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন পত্র কিনেছেন কুমিল্লা দক্ষিন জেলা বিএনপির যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক ও বর্তমান সিটি মেয়র মনিরুল হক সাক্কু ও মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি নিজাম উদ্দিন কায়সার। 

মনিরুল হক সাক্কু বলেন, দল নির্বাচন করবে না কিন্তু আমার দলের নেতাকর্মী ও শুভাকাংঙ্খিদের অনুরোধে মনোনয়ন ফরম কিনেছি। নগরবাসীকে দীর্ঘ ১৩ বছর সেবা দিয়েছি। নেতাকর্মীসহ আমার অনেক ভক্ত সমর্থক রয়েছে তাদের সাথে আলোচনা করে মনোনয়ন পত্র জমা দিব।

নিজাম উদ্দিন কায়সার বলেন, কিছু আওয়ামী নামধারী বিএনপির নেতা আছে। তাদের বলে জাতীয়তাবাদী আওয়ামীলীগ। তাদের নির্যাতনে দলের নেতাকর্মীরা অতিষ্ঠ। নির্যাতিত নেতাকর্মীদের চাপের মুখে আমি প্রার্থী হয়েছি।

কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক আমিন উর রশিদ ইয়াছিন বলেন, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে দলের কে মনোনয়ন পত্র কিনেছেন বিষয়টি আমার জানা নেই। কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপি অংশ নেবে না। দলের সিদ্ধান্তের বাহিরে কেউ নির্বাচনে গেলে দলের নীতিনির্ধারকরা ব্যবস্থা নেবেন।

২০১১ সালের ৬ জুলাই কুমিল্লা পৌরসভা ও সদর দক্ষিণ পৌরসভার মোট ২৭টি ওয়ার্ড নিয়ে সিটি করপোরেশন গঠিত হয়। ২০১২ সালের ৫ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত প্রথম নির্বাচনে বিএনপি থেকে পদত্যাগ করে নাগরিক কমিটির ব্যানারে নৌকার প্রার্থী অধ্যক্ষ আফজল খানকে হারিয়ে প্রথম মেয়র নির্বাচিত হন কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক মো. মনিরুল হক সাক্কু। পরে ২০১৭ সালের ৩০ মার্চ বিএনপির মনোনয়নে সাক্কু নৌকার প্রার্থী আঞ্জুম সুলতানা সীমাকে হারিয়ে ২য় বারের ন্যায় কুসিকের মেয়র নির্বাচিত হন।বৃহস্প‌তিবার পর্যন্ত কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে রিটার্নিং কার্যালয় থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন ৫ জন। সর্বশেষ মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন জাতীয় পার্টির মোঃ মামুনুর রশিদ। এখনো পর্যন্ত ২৭ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে মনোনয়ন সংগ্রহ করেছেন ১৮৩ জন। এর আগে মেয়র পদে স্বতন্ত্র হিসেবে মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ করেছেন বিএনপি নেতা মনিরুল হক সাক্কু, স্বেচ্ছাসেবক দল সভাপতি নিজাম উদ্দিন কায়সার, নাগরিক ফোরামের কামরুল হাসান বাবুল ও ইসলামি শাসনতন্ত্র আন্দোলনের মোঃ রাশেদুল ইসলাম। আগামীকাল সকা‌ল সা‌ড়ে ১০টায়  ম‌নোনয়ন পত্র সংগ্রহ কর‌বেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মনোনীত হাতপাখা প্রতিকের মেয়র প্রার্থী মাওলানা রাশেদুল ইসলাম ।                 এ‌দি‌কে আওয়ামীলী‌গের মেয়র হ‌তে চান এম‌পি সীমাসহ ১৪জন।গত ১১মে সর্ব‌শেষ  ঢাকার ধানমন্ডিতে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয় ঢাকার ধানম‌ন্ডি থেকে আওয়ামীলী‌গের দলীয় মনোনয়নের আবেদন ফরম সংগ্রহ করেছেন সংর‌ক্ষিত ম‌হিলা আস‌নের সংসদ সদস‌্য ও কু‌মিল্লা মহানগর আওয়ামীলী‌গের সহ সভাপ‌তি আঞ্জুম সুলতানা সীমা,মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আরফানুল হক রিফাতসহ ১৪জন প্রার্থী। শুক্রবার বি‌কে‌লে আওয়ামীলী‌গের ম‌নোনয়ন বো‌র্ডের সভা শে‌ষে আওয়ামীলী‌গের প্রার্থীর নাম ঘোষণা করা হ‌বে। অনলাই‌নের জন‌্য।


আরও খবর