Logo
শিরোনাম

আটা এবং ময়দা বিক্রি হচ্ছে বাড়তি দামে

প্রকাশিত:বুধবার ০৩ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ |
Image

বাজার ভোগাচ্ছে আটা ও ময়দা। এই পণ্য দুটির দাম আন্তর্জাতিক বাজারে কমেছে। কিন্তু কমছে না দেশের খুচরা বাজারে। প্রতি কেজি আটা এবং ময়দা বিক্রি হচ্ছে বাড়তি দামেই। কবে নাগাদ দেশের খুচরা বাজারে আটা-ময়দার দাম কমবে তা জানেন না কেউই। ব্যবসায়ীদের অভিমত, আন্তর্জাতিক বাজারের এই সুফল পেতে আরও কিছু সময় প্রয়োজন। কারণ আন্তর্জাতিক বাজারে দাম কমা গম এখনও দেশে এসে পৌঁছায়নি।

এদিকে আন্তর্জাতিক বাজারের হালনাগাদ তথ্যে জানা গেছে, আন্তর্জাতিক বাজারে গমের দাম কমেছে প্রায় ২৫ শতাংশ। দেশের পাইকারি বাজারেও আটার দাম কমেছে প্রায় ২০ শতাংশ। বিশ্ববাজারে শুক্রবার (২৯ জুলাই) প্রতি টন গম বিক্রি হয়েছে ৩৪২ ডলারে। যা গত মে মাসে বেড়ে উঠেছিল ৪৩৮ ডলারে। ইতোমধ্যে বিশ্ববাজারে গমের দাম কমেছে ৩ থেকে ৪ শতাংশ। দেশের পাইকারি পর্যায়ে কমেছে আটা-ময়দার দামও। বাজারে ৫০ কেজির প্রতি বস্তা আটার দাম ২ হাজার ১ শ টাকা থেকে কমে হয়েছে ১ হাজার ৭ শ টাকা। বস্তাপ্রতি ময়দার দামও কমেছে প্রায় ২০০ টাকা। এর কোনও প্রভাব নেই দেশের খুচরা বাজারে।

অপরদিকে যুদ্ধচলাকালীন খাদ্যশস্য রফতানির জন্য কৃষ্ণ সাগরের বন্দরগুলো খুলে দিতে জাতিসংঘ-সমর্থিত একটি চুক্তি সই করেছে রাশিয়া ও ইউক্রেন। এই যুদ্ধের প্রভাবে সারা বিশ্বে অর্থনৈতিক মন্দা ও দুর্ভিক্ষের পদধ্বনির মধ্যেই খাদ্যশস্য রফতানির জন্য কৃষ্ণসাগরের বন্দরগুলো খুলে দিতে সম্মত হয়েছে দুই দেশ। গত ২২ জুলাই চুক্তিটি সই করেছে রাশিয়া ও ইউক্রেন। ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপি এ খবর জানিয়েছে। এর ফলে খাদ্যশস্য নিয়ে সৃষ্ট জটিলতা কেটে যাচ্ছে বলে ধারণা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

জানা গেছে, খাদ্যশস্য রফতানিতে রাশিয়া ও ইউক্রেন চুক্তি সইয়ের পর দেশের বাজারেও গম ও আটা-ময়দার দাম আর বাড়েনি। বিক্রেতারা বলছেন, খুচরা পর্যায়েও দ্রুত দাম কমতে শুরু করবে। এদিকে টিসিবি’র হিসাব বলছে, এক বছরে আটা-ময়দার দাম বেড়েছে ৫০ থেকে ৫৬ ভাগ।

জানা গেছে, এই মুহূর্তে ইউক্রেনে দুই কোটি টন গম জমা আছে। রাশিয়ায় আরও বেশি পরিমাণ গম জমা আছে। যুদ্ধের কারণে এখন রাশিয়া ও ইউক্রেন কেউই তা রফতানি করতে পারছে না।

শুক্রবার (২৯ জুলাই) রাজধানীর বিভিন্ন বাজারে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এখনও খোলা আটা বিক্রি হচ্ছে ৪৪ থেকে ৪৬ টাকায় এবং খোলা ময়দা বিক্রি হচ্ছে ৫৪ থেকে ৫৬ টাকায়। যদিও বাজারভেদে দাম কমছে খুব সামান্যই। তবে এ সময়েই আন্তর্জাতিক বাজারে গমের দাম কমেছে প্রায় ২৫ শতাংশ। দেশের পাইকারি বাজারেও আটার দাম কমেছে প্রায় ২০ শতাংশ।

ব্যবসায়ীদের দাবি, বিশ্ববাজারের কম দামের গম এখনও বাজারে আসেনি। বর্তমানে যে গম দিয়ে এখন আটা-ময়দা করা হচ্ছে সেগুলো আগের কেনা। পাশাপাশি ডলারের দাম বাড়ার কারণে বিপদে আছেন ব্যবসায়ীরা। এর উপর পরিবহন খরচও কমেনি। যা একটি বড় কারণ বলে মনে করেন ব্যবসায়ীরা। ভারত থেকে গম আসছে না। গম আনতে হচ্ছে অস্ট্রেলিয়া ও কানাডা থেকে। এ দুটি দেশ থেকে গম আসতে বেশ সময়ের প্রয়োজন। এছাড়া কৃষ্ণ সাগরের গমের কোনও শিপমেন্ট এখনও এসে পৌঁছায়নি।

জানা গেছে, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের প্রভাবে গমের আমদানি কমেছে অনেক। ২০২১-২২ অর্থবছরে আমদানি হয়েছে মাত্র ৪০ লাখ টন গম। যদিও ২০২০-২১ অর্থবছরে দেশে গম আমদানির পরিমাণ ছিল ৫৪ লাখ ৪৩ হাজার টন। ২০১৯-২০ অর্থবছর গম আমদানি হয়েছিল ৬৪ লাখ ৩৪ হাজার টন। খাদ্য মন্ত্রণালয় সূত্র জানিয়েছে, গত ২০ জুলাই পর্যন্ত সরকারের গুদামে গম মজুতের পরিমাণ এক লাখ ৬৪ হাজার মেট্রিক টন। বিশ্বে গম আমদানিকারক দেশের তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান পঞ্চম।

এ প্রসঙ্গে সিটি গ্রুপের পরিচালক জানিয়েছেন, রাশিয়া ও ইউক্রেনের মধ্যে যুদ্ধ শুরুর ফলে আমরা গম আমদানির জন্য বিকল্প দেশের সন্ধান করি, এবং বেশি জাহাজভাড়া পরিশোধের মধ্য দিয়ে ভিন্ন দেশ থেকে গমও ভুট্টা আমদানি করে বাজারে আটা ময়দার সরবরাহ স্বাভাবিক রাখার চেষ্টা করছি। এখন রাশিয়া-ইউক্রেন থেকে গম আমদানি করার সুযোগ ফিরে আসার ফলে আমাদের মধ্যেও অনেকটা স্বস্তি কাজ করছে। আশা করছি, আমদানি শুরু হলেই দেশের বাজারেও দাম কমবে।



আরও খবর

লিটারে ১৪ টাকা কমল সয়াবিন তেলের দাম

মঙ্গলবার ০৪ অক্টোবর ২০২২




ফুলবাড়িতে শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে ব্রিফিং প্যারেড অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:শুক্রবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ |
Image

উত্তম কুমার মোহন্ত, ফুলবাড়ী,কুড়িগ্রাম:

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে,সনাতন ধর্মাবলম্বীদের শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে ফুলবাড়ী থানা পুলিশের উদ্যেগে ব্রিফিং প্যারেড অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার ৩০(সেপ্টেম্বর) সকাল এগারোটায় ফুলবাড়ী জছিমিয়া মল্ডেল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে পুলিশ কর্মকর্তা কর্মচারী আনসার ও গ্রামপুলিশ সদস্য গণ এ ব্রিফিংয়ে অংশ গ্রহণ করেন।

শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে আইনশৃঙ্খলা ও দিক নির্দেশনা মূলক ব্রিফিং প্যারেড অনুষ্ঠানটি ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) ফজলুর রহমান এর সভাপতিত্বে,প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জনাব সুশান্ত চন্দ্র রায়,অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম এন্ড অপস) কুড়িগ্রাম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,জনাব সুমন দাস,উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফুলবাড়ী কুড়িগ্রাম,জনাব,সুমন রেজা সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (সার্কেল) নাগেশ্বরী, ফুলবাড়ী কুড়িগ্রাম।


এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন,জনাব সারত্তয়ার পারভেজ পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) ফুলবাড়ী থানা,জনাব ফরহাদ আলম চৌধুরী, উপজেলা আনসার ভিডিপি কর্মকর্তা, জনাব ভারত চন্দ্র রায়, উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক,ফুলবাড়ী কুড়িগ্রাম

উক্ত ব্রিফিং প্যারেড উপস্থিত পুলিশ কর্মকর্তা কর্মচারী আনসার সদস্য,গ্রাম পুলিশ সদস্য গানের উদ্দেশ্যে প্রধান অতিথি, বিশেষ অতিথি ও সভাপতি মহোদয় সনাতন ধর্মাবলম্বীদের আসন্ন শারদীয় দূর্গা পূজা উদযাপন যাতে সুষ্ঠু সুন্দর ও নির্বিঘ্নে সম্পন্ন করতে অর্পিত দায়িত্ব সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ দিক নির্দেশনা মূলক বক্তব্য প্রদান করেন। 


আরও খবর



জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে মানবাধিকার লঙ্ঘন

প্রকাশিত:বুধবার ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ |
Image

জলবায়ু পরিবর্তন-স্বাস্থ্যঝুঁকিসহ জীবনযাত্রাকে দুর্বিষহ করে তুলছে। জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে মানবাধিকার লঙ্ঘন, বেকারত্ব, উৎপাদনশীলতা হ্রাস, বাল্যবিবাহ, শিশুশ্রম ও স্বাস্থ্যঝুঁকি দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে বলে দাবি করছেন পরিবেশবিদরা।

বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক শরীফ জামিল বলেন, প্রকৃতিনির্ভর ব্যবস্থাপনা সঠিকভাবে ব্যবহার না হওয়ায় জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনা ঘটছে। এ অধিকার যাদের লঙ্ঘন হচ্ছে তাদের কথাগুলো নীতি-নির্ধারকদের কাছে যাচ্ছে না। আমাদের দেশ পানি দুষ্প্রাপ্যের দেশ। শুকনো মৌসুমে মাত্র ২০ ভাগ পানি আসে।

শরীফ জামিল বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনে যাদের অবদান বেশি তাদের সমস্যা সমাধানে বেশি এগিয়ে আসতে হবে। ভৌগোলিক অবস্থানের কারণে আমাদের বেশি ক্ষতি হচ্ছে। এজন্য আমাদের সচেতন হতে হবে। দেশ রক্ষা করা মানুষের মানবাধিকার। কিন্তু এটি রক্ষা করা হচ্ছে না।

 দেশের উন্নয়ন কার্যক্রমে স্বচ্ছতা না থাকা এবং ক্ষতিগ্রস্ত মানুষ পর্যন্ত উন্নয়ন না পৌঁছানোর কারণে এ জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব আরো বেশি ভোগান্তি সৃষ্টি করছে। এ পরিবর্তনের কারণে মানুষের জীবনযাত্রা ও জীবিকার পরিবর্তন আসছে। দুর্যোগে অধিকমাত্রায় বেশি বঞ্চনার শিকার হন নারীরা। দুর্যোগকালে নারীদের প্রাত্যহিক কাজের পাশাপাশি স্বামী বাইরের কাজেও সহায়তা করতে হয়।

বাংলাদেশে জলবায়ু পরিবর্তন ও এর প্রভাবে মানবাধিকার লঙ্ঘনের গবেষণার ফলাফল বাংলাদেশে সফররত ইউএনএইচসিআরের জলবায়ু ও মানবাধিকার দূত ড. ইয়ান ফ্রাইকে এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণের আহ্বান জানান। বাংলাদেশে তিনটি অঞ্চল মোংলা, রাজশাহী ও শরীয়তপুর এ জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব নিয়ে গবেষণা করা হয়।

গবেষণায় দেখা গেছে, আকস্মিক দুর্যোগ, লবণাক্ততার কারণে এসব অঞ্চলের ২০০টি পরিবার ৯ কোটি ২৪ লাখ ৯৮ হাজার প্রত্যক্ষ আর্থিক ক্ষতির শিকার হয়েছেন। এছাড়া তারা স্বাস্থ্য সংকট, বাস্তুচ্যুতি, সামাজিক ও যৌন হয়রানি, পানিসংকট, স্কুল থেকে ঝরে পড়া, শিশুশ্রম, বাল্যবিবাহ, সহিংসতা, মানসিক বিপর্যয়সহ নানা সংকটের মুখোমুখি হচ্ছে।


আরও খবর

শিগগিরই বাড়ছে বিদ্যুতের দাম

মঙ্গলবার ০৪ অক্টোবর ২০২২




দেশে করোনা বাড়ছে

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ |
Image

দেশে করোনার প্রকোপ আবারো বাড়তে শুরু করেছে। এ অবস্থায় বেসরকারি পর্যায়ে করোনা পরীক্ষার খরচ কমানোর সুপারিশসহ পাঁচ দফা সুপারিশ করেছে কোভিড-১৯-সংক্রান্ত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটি। 

 শনিবার রাতের সভাটি ছিল কারিগরি কমিটির ৫৯তম সভায় অধ্যাপক মোহাম্মদ সহিদুল্লা বলেন। কয়েক দিন ধরে কোভিড–১৯ সংক্রমণ বাড়তির দিকে। এ নিয়ে আলোচনার পর পাঁচ দফা সুপারিশ করেন কারিগরি কমিটির সদস্যরা। এর মধ্যে আছে, সব ক্ষেত্রে শতভাগ সঠিকভাবে মাস্ক পরা ও হাত ধোয়া বা সেনিটাইজার ব্যবহার নিশ্চিত করাসহ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণের জন্য জনসাধারণকে উৎসাহিত করা। এর পাশাপাশি প্রথম, দ্বিতীয় এবং বুস্টার ডোজের করোনার টিকা যারা গ্রহণ করেননি, তাদের টিকা গ্রহণে উদ্বুদ্ধ করারও সুপারিশ করা হয়।

এছাড়া বদ্ধস্থানে সভা করা থেকে বিরত থাকা ও দাপ্তরিক সভাগুলো যথাসম্ভব ভার্চ্যুয়ালি করার সুপারিশ করে কমিটি। অপরিহার্য সামাজিক অনুষ্ঠান বা সভাগুলোতে মাস্ক পরার সুপারিশও করা হয়। আর বেসরকারি পর্যায়ে কোভিড–১৯ পরীক্ষার ব্যয় কমানোর পদক্ষেপ গ্রহণে সরকারের প্রতি আহ্বান জানায় কমিটি।

কোভিড-১৯–সংক্রান্ত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির সভাপতি অধ্যাপক মোহাম্মদ সহিদুল্লা আরও বলেন, ‘আমরা এই সুপারিশগুলো সরকারের কাছে পৌঁছে দেব। 


আরও খবর

শিগগিরই বাড়ছে বিদ্যুতের দাম

মঙ্গলবার ০৪ অক্টোবর ২০২২




চাকরির নামে ৫ শতাধিক নারী পুরুষকে বিদেশে পাচার

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৪ অক্টোবর ২০২২ |
Image

বিদেশে উচ্চ বেতনে চাকরির প্রলোভনে তরুণ-তরুণীদের কম্বোডিয়ায় পাচার করে একটি প্রতিষ্ঠানের কাছে বিক্রি করে দেয় মানবপাচাকারী চক্র। এরপর তাদের ব্যবহার করা হতো সাইবার ক্রাইমে। এভাবে অন্তত পাঁচ শতাধিক নারী-পুরুষকে বিদেশে পাচার করেছে চক্রটি। 

উচ্চ বেতনে কম্পিউটার অপারেটর হিসেবে চাকরি দেওয়ার প্রলোভনে তরুণ-তরুণীদের কাছ থেকে ৪-৫ লাখ টাকা নিত চক্রটি। ওই বিদেশি প্রতিষ্ঠান তাদের দিয়ে সাইবার প্রতারণার মাধ্যমে বিপুল পরিমাণে অর্থ হাতিয়ে নিত।

চক্রের মূলহোতা নাজমুল ইসলাম (৩০), নূর ইসলাম সাজ্জাদ (২৫) ও মো. সিরাজুল ইসলাম পঞ্চায়েত (৫৭)। এ সময় তাদের কাছ থেকে তিনটি পাসপোর্ট, চারটি মোবাইলফোন, মানবপাচার সংক্রান্ত ২৫০ পাতার বিভিন্ন কাগজপত্র ও নগদ পাঁচ হাজার ১৬ টাকা জব্দ করা হয়।

আরিফ মহিউদ্দিন বলেন, চক্রের মূলহোতা নাজমুল ইসলাম কম্বোডিয়া প্রবাসী। তিনি বাংলাদেশ থেকে বিভিন্ন দালালের মাধ্যমে উচ্চ বেতনে কম্পিউটার অপারেটর হিসেবে চাকরি দেওয়ার নাম করে তরুণ-তরুণীদের এবং তাদের অভিভাবকদের প্রলুব্ধ করেন। কম্বোডিয়ায় পাঠানোর খরচ বাবদ তাদের কাছ থেকে ৪-৫ লাখ টাকা নিত। আগ্রহীদের প্রথমে কম্পিউটার বিষয়ে পরীক্ষা নেওয়া হতো। এ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলে কম্বোডিয়া প্রবাসী আলীম ও শরিফুলের সহায়তায় তাদের জন্য কম্বোডিয়ান ট্যুরিস্ট ই-ভিসা দিয়ে কম্বোডিয়ায় পাঠাত।

এরপর তাদের প্রশিক্ষণের কথা বলে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছদ্মনামে অ্যাকাউন্ট পরিচালনা করে প্রতারণা, ভুয়া ক্লোন ওয়েবসাইট ব্যবহার করে ক্রেডিট কার্ড থেকে টাকা আত্মসাৎ করা, ভুয়া নম্বর থেকে ফোন দিয়ে বা চ্যাটিং করে স্বল্প সুদে ঋণ দেওয়ার নাম করে কৌশলে অর্থ হাতিয়ে নেওয়া, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভয়েস কল ও ভিডিও কল রেকর্ডিং করে পরবর্তী সময়ে ব্ল্যাকমেইল করে অর্থ আত্মসাৎ করার কৌশল শিখিয়ে তাদের প্রতারণার কাজে ব্যবহার করা হতো। মানবপাচারকারীদের ভাষায় সাইবার প্রতারণার বিষয়টি স্ক্যামার হিসেবে পরিচিত।

কম্পিউটার ব্যবহার করে ভুক্তভোগীদের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পুরুষদের সঙ্গে ছদ্মনামীয় নারী অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে এবং নারীদের সঙ্গে ছদ্মনামীয় পুরুষ অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে তোলার জন্য বাধ্য করা হয়। ভাষাগত বাধা দূর করার জন্য গুগল ট্রান্সলেটের সাহায্য নেওয়া হয়। বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে তোলার পর ভিডিও কল দিয়ে আপত্তিকর অঙ্গভঙ্গি ও কথাবার্তা রেকর্ড করা হয়। সে রেকর্ড সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে অর্থ আত্মসাৎ করা হয়। আবার কখনো উপহার পাঠানো, দেখা করার জন্য যাতায়াত খরচ ইত্যাদি প্রলোভন দেখিয়ে আদায় করাত অর্থ। এসব কাজে টিকটক, বিটকয়েন ও ফেক ওয়েবসাইটের সহায়তা নেওয়া হয়।


আরও খবর

শিগগিরই বাড়ছে বিদ্যুতের দাম

মঙ্গলবার ০৪ অক্টোবর ২০২২




ইরানে বিক্ষোভে নিহত ৩১

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ |
Image

ইরানে নৈতিকতা পুলিশের হেফাজতে তরুণী মাশা আমিনির মৃত্যুর প্রতিবাদে বিক্ষোভের ষষ্ঠ দিনেও উত্তাল ইরান। বিক্ষোভ নিয়ন্ত্রণে দেশজুড়ে ইন্টারনেট সেবা বন্ধ রেখেছে দেশটির সরকার। ক্রমবর্ধমান বিক্ষোভে এখনো পর্যন্ত অন্তত ৩১ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে দাবি করেছে ইরানের মানবাধিকার সংগঠন ইরান হিউম্যান রাইটস। বার্তা সংস্থা এএফপির এক প্রতিবেদন থেকে এই তথ্য জানা গেছে।

এএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইরানের মানবাধিকার সংগঠন ইরান হিউম্যান রাইটসের (আইএইচআর) পরিচালক মোহাম্মদ আমিরি–মোগাদ্দাম স্থানীয় সময় আজ বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে বলেছেন, ‘ইরানের জনগণ তাদের মৌলিক অধিকার এবং মানবিক মর্যাদার দাবি আদায়ে রাস্তায় নেমে এসেছে এবং সরকার তাদের শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদের জবাব দিচ্ছে বুলেট দিয়ে।’

আইএইচআর জানিয়েছে, তাঁরা দেশের অন্তত ৩০টি শহর, একাধিক গ্রামীণ এলাকায় বিক্ষোভ–প্রতিবাদ ছড়িয়ে পড়েছে। একই সঙ্গে বিক্ষোভ দমনে সাধারণ মানুষের পাশাপাশি নাগরিক অধিকারকর্মীদের ব্যাপক হারে গ্রেপ্তার করছে।

আইএইচআর জানিয়েছে, ইরানের নৈতিকতা পুলিশের হেফাজতে মাশা আমিনির মৃত্যুর পর তাঁর জন্মস্থান কুর্দিস্তান থেকেই বিক্ষোভের সূত্রপাত হয়। কিন্তু এখন তা কেবল কুর্দিস্তানে সীমাবদ্ধ নেই, ছড়িয়ে পড়েছে সারা দেশে। প্রতিষ্ঠানটি আরও জানিয়েছে, নিহতদের মধ্যে গত বুধবার রাতেই ১১ জন মারা যান। দেশের উত্তরাঞ্চলের মাজান্দারান প্রদেশের আমল শহরে তাদের মৃত্যু হয়। একই দিনে একই প্রদেশের বাবল শহরে মারা যান আরও ৬ জন।

উল্লেখ্য, গত সপ্তাহে ইরানের নৈতিকতা পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হওয়ার পর তেহরানে মারা যাওয়া ২২ বছরের তরুণী মাশা আমিনির মৃত্যুর পরে দেশটিতে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। দেশটির কর্মকর্তারা জানিয়েছিলেন, গত সপ্তাহের মঙ্গলবার গ্রেপ্তার হওয়ার পর মাশা আমিনি ‘হৃদ্রোগে’ আক্রান্ত হয়ে কোমায় চলে যান এবং পরে গত শুক্রবার মারা যান। তবে মাশা আমিনির পরিবার বলেছে, তাঁর আগে থেকে হৃদ্রোগ ছিল না।


আরও খবর

চিকিৎসাবিজ্ঞানের নোবেল ঘোষণা

মঙ্গলবার ০৪ অক্টোবর ২০২২