Logo
শিরোনাম

বাংলাদেশ ডেনিম এক্সপো শুরু ১০ মে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২১ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

করোনার কারণে দুই বছর বিরতির পর আগামী ১০ মে শুরু হচ্ছে দুই দিনব্যাপী বাংলাদেশ ডেনিম এক্সপো। এবারের এক্সপোতে চারটি সেমিনার এবং দুটি প্যানেল আলোচনা অনুষ্ঠিত হবে। বুধবার (২০ এপ্রিল) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এক্সপোর এবারের ১২তম সংস্করণ করোনা-পরবর্তী নতুন বিশ্বে ডেনিম ব্যবসার চ্যালেঞ্জ ও সুযোগের ওপর আলোকপাত করবে। এতে ৭৯টি দেশি ও বিদেশি ডেনিম ফেব্রিক্স, গার্মেন্টস, সুতা, মেশিন এবং এক্সেসরিজ কোম্পানি প্রদর্শক হিসেবে অংশগ্রহণ করবে। তৈরি পোশাক রপ্তানিতে বাংলাদেশ বিশ্বে ২য় বৃহত্তম হলেও বর্তমানে ইউরোপ ও যুক্তরাষ্ট্রে বৃহত্তম ডেনিম রপ্তানিকারক দেশ।

বাংলাদেশ ডেনিম এক্সপোর প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী মোস্তাফিজ উদ্দিন বলেন, ‘দুই বছর আগে যখন বাংলাদেশে ডেনিম এক্সপো অনুষ্ঠিত হয়েছিল, তখনকার সময় থেকে বর্তমান সময় আমাদের সবার জন্য সম্পূর্ণ ভিন্ন। এ কথা অনস্বীকার্য যে, করোনা মহামারি ডেনিম সাপ্লাই চেইনকে বড় ধরনের ধাক্কা দিয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘করোনা মহামারি আমাদের শিখিয়েছে টেকসই ব্যবসার গুরুত্ব সর্বাগ্রে রাখতে। তৈরি পোশাকের ক্রেতারাও আগের যে কোনো সময়ের চেয়ে এখন টেকসই ব্যবসার ব্যাপারে বেশি সচেতন। বাংলাদেশ ডেনিম এক্সপোর এবারের সংস্করণের সারা বিশ্ব থেকে ডেনিম অংশীদাররা একই ছাদের নিচে সমবেত হয়ে আগামী দিনে টেকসই ডেনিম ব্যবসা নিশ্চিতকরণে তাদের মতামত দেবেন, যা বাংলাদেশের ডেনিম শিল্পের বিকাশে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে আমি বিশ্বাস করি।’



সুত্রঃ ইত্তেফাক


আরও খবর

ছোট ও মাঝারি গরুর দাম বেশি

শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২




সোনারগাঁয়ের নদ নদীর দূষণ ঠেকাতে

বিভিন্ন পরিবেশবাদী সংগঠনের গণগোসল

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৪ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

 সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার আশপাশের নদ নদী দখল ও কারখানার বজ্র মিশ্রিত পানি ফেলে পরিবেশ দূষণ করার অভিযোগ এনে গতকাল শুক্রবার একটি পরিবেশবাদী সংগঠন ব্রহ্মপুত্র নদে গন গোসল ও প্রতিবাদ সভার আয়োজন করে। 

উপজেলার সনমান্দী ইউনিয়নের ব্রহ্মপুত্র নদের অলিপুরা সেতুর নিচে পরিবেশ রক্ষা ও উন্নয়ন সোসাইটির উদ্যোগে প্রতিবাদ সভা শেষে গন গোসলে অংশ নেন স্থানীয় সনমান্দী জনকল্যাণ পরিষদ, মারুবদী যুব কল্যাণ সংঘ এবং মেঘনা নদী ও ব্রহ্মপুত্র নদের পাড়ে বসবাসরত নারী পুরুষ ও জনপ্রতিনিধিরা।

প্রতিবাদ সভায় পরিবেশ রক্ষা ও উন্নয়ন সোসাইটির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হোসাইনের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন, সোনারগাঁ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শামসুল ইসলাম ভুইয়া, সনমান্দী জনকল্যাণ সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা ফয়সাল আহাম্মেদ, মারুবদী যুব কল্যাণ সংঘের সাংগঠনিক সম্পাদক মীমরাজ হোসেন, সনমান্দী ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের সাবেক সদস্য রুহুল আমিন,  অলিপুরা সেতু রাবার ড্যাম সমিতির সাধারণ সম্পাদক নিয়ন সুমন প্রমূখ। 

বক্তারা বলেন, সোনারগাঁ উপজেলার পাশ দিয়ে প্রবাহিত মেঘনা নদী ও ব্রহ্মপুত্র নদ দখল করে বিভিন্ন শিল্প কারখানার মালিকরা কারখানা স্থাপন করেছে এবং ওই কারখানার বিষাক্ত বর্জ্য মিশ্রিত পানি নদ নদীতে ফেলার কারনে এলাকার পরিবেশ ও জীব বৈচিত্র্যের মারাত্মক ক্ষতি হচ্ছে।


আরও খবর



১০টি সরকারি বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার পদক্ষেপ

প্রকাশিত:সোমবার ২০ জুন ২০22 | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

সরকার রাজধানীর আশপাশের এলাকাগুলোতে ১০টি সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার পদক্ষেপ নিয়েছে। ঢাকার স্কুলে শিক্ষার্থীর চাপ কমাতে এ পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

একাদশ জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশনে প্রশ্নোত্তর পর্বে সরকারি দলের সংসদ সদস্য এম আব্দুল লতিফের প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী সংসদকে এ তথ্য জানান।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে প্রশ্নোত্তর টেবিলে উত্থাপিত হয়।

দীপু মনি জানান, ঢাকার স্কুলে শিক্ষার্থীর চাপ কমাতে সরকার রাজধানীর আশপাশের এলাকাগুলোতে ১০টি সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। এই বিদ্যালয়গুলো হবে- কেরানীগঞ্জ, পূর্বাচল, জালকুড়ি, নবীনগর, ধামরাই, হেমায়েতপুর, জোয়ার সাহারা, সাঁতারকুল, আশুলিয়া ও চিটাগাং রোডে।

সরকারি দলের সংসদ সদস্য মনজুর হোসেনের প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি জানান, দেশের এমপিওভুক্ত (মান্থলি পেমেন্ট অর্ডার) মাদ্রাসার সংখ্যা ৭ হাজার ৯৫৫টি। মাদ্রাসাগুলোতে প্রায় ৩৯ লাখ ১৫ হাজার ১৩৩ জন শিক্ষার্থী আছে।

সরকারি দলের সংসদ সদস্য মামুনুর রশীদের প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তকরণ একটি চলমান প্রক্রিয়া। চলমান নীতিমালার আলোকে যোগ্যতার ভিত্তিতে এমপিওবিহীন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে পর্যায়ক্রমে এমপিওভুক্ত করা হয়ে থাকে। সে অনুযায়ী যেসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত নয় সেসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে এমপিওভুক্ত করার বিষয়টি বিবেচনা করা হবে।

জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য শামীম হায়দার পাটোয়ারীর প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী জানান, আগামী ২৩ জুন ‘শিক্ষা আইন ২০২২’ এর খসড়া চূড়ান্ত করে নীতিগত অনুমোদনের জন্য মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে পাঠানো হবে।

সরকারি দলের সংসদ সদস্য মোরশেদ আলমের প্রশ্নের জবাবে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন বলেন, করোনা মহামারির কারণে প্রাথমিক পর্যায়ে সমাপনী পরীক্ষা আপাতত বন্ধ থাকায় পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের বৃত্তি দেওয়া কার্যক্রম বন্ধ আছে। তবে সুবিধাভোগী শিক্ষার্থীদের মধ্যে উপবৃত্তি কার্যক্রম চলমান আছে।

সরকারি দলের সংসদ সদস্য মামুনুর রশীদের প্রশ্নের জবাবে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন জানান, বর্তমানে দেশে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মধ্যে ৫ হাজার ৬২৬টি জরাজীর্ণ ভবন আছে। এসব জরাজীর্ণ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভবনগুলোতে অবকাঠামোগত উন্নয়েনর লক্ষ্যে সরকার পদক্ষেপ নিয়েছে।


আরও খবর



এবারের বন্যায় ৯২ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

দেশে বন্যায় ৯২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে সিলেটেই মারা গেছেন ৫৫ জন এবং ৩১ জন ময়মনসিংহ বিভাগে। গত ১৭ মে থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত এই ৯২ জনের মৃত্যু হয়।

বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, ১৭ মে থেকে ২৮ জুন দুপুর পর্যন্ত মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে ৯২ জন হয়েছে। বন্যাকবলিত এলাকায় দুর্ঘটনা এবং বিভিন্ন রোগে এদের মৃত্যু হয়।

এছাড়া বন্যার কারণে নানা রোগে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে নয় হাজার ৪৯৬ জনে দাঁড়িয়েছে। আর ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন ছয় হাজার ১৫২ জন। এতে একজনের মৃত্যু হয়েছে। আরটিআই (চোখের রোগ) রোগে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৮১ জন। এক্ষেত্রে কারও মৃত্যুর খবর নেই।

অন্যদিকে, বজ্রপাতে ১৫ জন আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ১৪ জনের। সাপের দংশনের শিকার হয়েছেন ১২ জন। এতে দুজনের মৃত্যু হয়েছে। পানিতে ডুবে মৃত্যু হয়েছে ৬৬ জনের।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ১৭ মে থেকে ২৯ জুন পর্যন্ত বন্যায় রংপুর বিভাগে পাঁচ, ময়মনসিংহ বিভাগে ৩১ ও সিলেট বিভাগে ৫৫ এবং ঢাকা বিভাগে একজনের মৃত্যু হয়।

জেলাভিত্তিক মৃত্যুর সংখ্যায় শীর্ষে রয়েছে সুনামগঞ্জ। ১৭ মে থেকে ৩০ জুনের মধ্যে এখানে ২৭ জন মারা যান। সিলেট জেলায় মৃত্যু হয়েছে ১৮ জনের। হবিগঞ্জ ও মৌলভীবাজারে মারা গেছেন পাঁচজন করে।

নেত্রকোনায় ১০ এবং জামালপুরে নয়জনের মৃত্যু হয়েছে। আর ময়মনসিংহে মৃত্যু হয়েছে পাঁচজনের। এছাড়া শেরপুরে মারা গেছেন সাতজন। আর কুড়িগ্রামে চার ও লালমনিরহাটে একজন মারা গেছেন। টাঙ্গাইলে মৃত্যুবরণ করেছেন একজন।


আরও খবর



একদিনে টোল আদায় তিন কোটি ছাড়াল

প্রকাশিত:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

পদ্মা সেতুতে একদিনে ৩ কোটি ১৬ লাখ টাকারও বেশি টোল আদায় হয়েছে। শুক্রবার (১ জুলাই) এই টোল আদায় করা হয়। ২৬ জুন পদ্মা সেতুতে যান চলাচল চালুর পর এটাই টোল আদায়ের রেকর্ড। এদিন সেতু দিয়ে যানবাহন পারাপার করেছে ২৬ হাজার ৩৯৮টি।

এর আগে ২৬ জুন চালুর পর ১ দিনে ৬১ হাজারের বেশি যানবাহন চলাচল করেছিল। আর টোল আদায় হয়েছিল প্রায় পৌনে তিন কোটি টাকা। তবে ওই দিন পার হওয়া যানবাহনের ৭৫ শতাংশ ছিল মোটরসাইকেল। ২৭ জুন থেকে সেতু দিয়ে মোটরসাইকেল পারাপার বন্ধ করে দেওয়া হয়।

এদিকে পদ্মা সেতুর দুই প্রান্তে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মহাসড়কে শুক্রবার থেকে টোল আদায় শুরু হয়েছে। সড়ক ও জনপথ সূত্র জানায়, প্রথম দিনে ৬৯ লাখ ৮১ হাজার ৮৮০ টাকা টোল আদায় হয়েছে। এর মধ্যে যানবাহন পারাপার করেছে মোট ৪১ হাজার ৭১৪টি।

এর মধ্য ধলেশ্বরী সেতুর কাছের টোল প্লাজা দিয়ে যানবাহন পারাপার হয়েছে ২৬ হাজার ৬৪। টোল আদায় হয়েছে ৪৫ লাখ ৭৭ হাজার ২৪০ টাকা। আর ভাঙা দিয়ে যানবাহন পারাপার করেছে ১৫ হাজার ৬৫০টি। টোল আদায় করা হয়েছে ২৪ লাখ ৪ হাজার ৬৪০ টাকা।

পদ্মা সেতুর মাওয়া প্রান্ত দিয়ে যানবাহন পারাপার হয়েছে ১৩ হাজার ৮০১টি। টোল আদায় হয়েছে ১ কোটি ৬৫ লাখ ৪২ হাজার ১০০ টাকা। জাজিরা দিয়ে যানবাহন পারাপার হয়েছে ১২ হাজার ৫৯৭টি। টোল আদায় করা হয়েছে ১ কোটি ৫১ লাখ ১১ হাজার ১০০ টাকা।


আরও খবর



গবাদি পশু পালন করে বেকারত্ব জয়

প্রকাশিত:সোমবার ১৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

সিরাজগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি :   গবাদি পশু মোটাতাজাকরণের মাধ্যমে সিরাজগঞ্জের অনেক নারী-পুরুষ বেকারত্বের অভিশাপ থেকে মুক্তি পেয়েছেন। সারা বছরই এই প্রকল্প চালু থাকলেও কোরবানিকে সামনে রেখে সিরাজগঞ্জের গবাদি খামারিরা এখন ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন গরু মোটাতাজাকরণে। কোরবানি ঈদে বেশি লাভের আশায় গ্রামের অনেকেই গবাদি পশু পালন করে বাড়তি টাকা আয় করে থাকেন।

জেলার ৯টি উপজেলাতেই কমবেশি গবাদি পশু মোটাতাজা করণের খামার রয়েছে। স্থায়ী খামারি ছাড়াও মৌসুমি খামারিরাও লাভের আশায় এ কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। পুরুষের পাশাপাশি অনেক নারীও বাড়তি আয়ের জন্য পশু লালন পালন করছেন।

সরকারি হিসাবে এবছর জেলায় প্রায় ১ লাখ গবাদি পশু মোটাতাজাকরণ হচ্ছে বলে স্থানীয় প্রাণী সম্পদ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে। বেসরকারি হিসাবে এ সংখ্যা আরো বেশি বলে জানা গেছে। দেশি জাতের পাশাপাশি ভারতীয় ও নেপালি জাতের গরু পালন করছেন খামারিরা। সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার কালিয়া গ্রামের খামারি রফিক জানান, তিনি এ বছরই প্রথম খামার করেছেন। তিনি ২০টি ষাঁড় দিয়ে খামার শুরু করেন। ইতিমধ্যেই ১০টি ষাঁড় বিক্রি করেছেন ১৩ লাখ টাকায়। বাকি ১০টি ষাঁড় ১৮ হতে ২০ লাখ টাকায় বিক্রি করতে পারবেন বলে আশা করছেন তিনি। তিনি জানান, খামারের গরুগুলোকে ভুসি, ধানের কুড়া, ঘাস ও খড় খাওয়ানো হয়। দেশি জাতের গরু পালন করলে আরো বেশি লাভ হতো বলে আশা করেন তিনি।

এছাড়া চর মিরপুর এলাকার নজরুল  পাইকপাড়া গ্রামের  ছালাম গরু মোটাতাজা করছেন বলে জানান। নজরুল জানান, তিনি প্রতি বছরই দুটি করে গরু মোটাতাজা করে ভাল আয় করেন। স্থানীয় আব্দুস ছালাম এবার তিনটি গরু মোটাতাজা করছেন। এতে তার এ পর্যন্ত ১ লাখ ৩০ হাজার টাকার মতো খরচ হয়েছে। তিনি আশা করছেন, যদি ভারতীয় গরু না আসে তিনটি গরু ৩ লাখ টাকায় বিক্রি করতে পারবেন।

মাত্র কয়েক মাস এ ব্যবসায় ভালো লাভ হওয়ায় এলাকার অনেকেই এখন এই ব্যবসার দিকে আসছেন। এতে তাদের বেকার সমস্যারও সমাধান হচ্ছে বলেও জানান।

এ ব্যাপারে জেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা গৌরাঙ্গ কুমার তালুকদার জানান, জেলায় এবছর প্রায় ১ লাখ গবাদি পশু মোটাতাজা করা হচ্ছে তিনি জানান, এই জেলায় গবাদি পশু মোটাতাজাকরণের ক্ষেত্রে কোনো ক্ষতিকারক ওষুধ বা ইনজেকশন দেয়া হয় না। তারপরও জেলা প্রাণী সম্পদ অফিস থেকে নিয়মিত তদারকি করা হয়।


আরও খবর