Logo
শিরোনাম

বাংলাদেশের ফুটবল আরও এগিয়ে যাবে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৯ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ |
Image

ইয়াশফি রহমান : কাতার বিশ্বকাপের পর্দা উঠবে আগামী নভেম্বরের ২১ তারিখে। জমজমাট এই আসর উপলক্ষে বিশ্ব ভ্রমণে রয়েছে ট্রফি। সেই ধারাবাহিকতায় ট্রফি এবার বাংলাদেশে এসেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ‘ফিফা বিশ্বকাপ ট্রফি’ বরণ উপলক্ষ্যে বুধবার (৮ জুন) জাতীয় সংসদ ভবনের লবিতে আগত প্রতিনিধিদলের সঙ্গে সাক্ষাৎ ও কুশল বিনিময় করেন।

ফিফা ট্রফির বাংলাদেশ ভ্রমণের ফলে দেশের ক্রীড়াপ্রেমীরা বিশেষ করে তরুণ প্রজন্ম উৎসাহিত হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এক সংক্ষিপ্ত বক্তৃতায় তিনি তার পরিবারের সদস্যদের খেলাধুলায় বিশেষ করে ফুটবলের সঙ্গে সম্পৃক্ততা স্মৃতিচারণ করেন।

শেখ হাসিনা জানান, তার পিতামহ, পিতা সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, ভাইয়েরা অত্যন্ত ক্রীড়ামোদী ও ক্রীড়াবিদ ছিলেন। তার সন্তান এমনকি নাতি-নাতনিরাও ক্রীড়ামোদী ও ক্রীড়াবিদ।

প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে বিশ্বকাপ ট্রফির আগমনে ফিফা, কোকাকোলা ও বাফুফে কর্তৃপক্ষকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান প্রধানমন্ত্রী। শেখ হাসিনা বলেন, ‘ফুটবল বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় খেলা। আমরা আমাদের ছেলে-মেয়েদের খেলাধুলায় সম্পৃক্ত করতে নিরলস কাজ করে যাচ্ছি।’

সবশেষে ফিফা ও কোকাকোলার পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীকে উপহার হস্তান্তর করা হয়।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল, মন্ত্রিপরিষদ সচিব (সিনিয়র সচিব) খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম, যুব ও ক্রীড়া সচিব মেজবাহ উদ্দিন, বাফুফে সভাপতি কাজী মো. সালাউদ্দীন, বাফুফে সাধারণ সম্পাদক, মো. আবু নাইম সোহাগসহ ফিফা, কোকাকোলা ও বাফুফের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

এর আগে বিকালে বিশ্বকাপ ট্রফির প্রতিনিধিরাসহ বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) একটি প্রতিনিধিদল বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের সঙ্গে দেখা করেন এবং ফিফা বিশ্বকাপ ট্রফিটি প্রদর্শন করেন।

কাতার বিশ্বকাপ সামনে রেখে গত ১২ মে দুবাই থেকে কোকাকোলার আয়োজনে ফিফা বিশ্বকাপ ট্রফির বিশ্বভ্রমণ শুরু হয়। ৫৬টি দেশ ঘোরার পথে ফিফা বিশ্বকাপের অন্যতম পৃষ্ঠপোষক কোকাকোলার উদ্যোগে বাংলাদেশের যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় এবং বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সহায়তায় বাংলাদেশে এসেছে ট্রফিটি।


আরও খবর

এশিয়া কাপের দল ঘোষণা ভারতের

মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২




সাবরিনা-আরিফের ১১ বছরের কারাদণ্ড

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৯ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২ |
Image

করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষার নামে প্রতারণা ও জাল সনদ দেয়ার অভিযোগের মামলায় জেকেজি হেলথ কেয়ারের শীর্ষ কর্মকর্তা ডা. সাবরিনা আরিফ চৌধুরী ও তার স্বামী আরিফুল চৌধুরীসহ আট আসামির প্রত্যেককে ১১ বছর করে কারাদণ্ডের রায় হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৯ জুলাই) দুপুরে ঢাকার অতিরিক্ত মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট তোফাজ্জল হোসেনের আদালতে এ রায় ঘোষণা করেন।

গত ২৯ জুন ঢাকার অতিরিক্ত মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট তোফাজ্জল হোসেন রাষ্ট্র ও আসামিপক্ষের যুক্তি উপস্থাপন শেষে রায় ঘোষণার জন্য এ দিন ধার্য করেন।

এর আগে গত ১১ মে ঢাকার অতিরিক্ত মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট তোফাজ্জল হোসেনের আদালতে আত্মপক্ষ সমর্থনে আসামিরা নিজেদের নির্দোষ দাবি করে ন্যায়বিচার প্রত্যাশা করেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, করোনা মহামারির সময় নমুনা সংগ্রহ করে তা পরীক্ষা না করেই জেকেজি হেলথকেয়ার ২৭ হাজার মানুষকে ভুয়া রিপোর্ট দেয়। এ অভিযোগের প্রেক্ষিতে ২০২০ সালের ২৩ জুন অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তারসহ প্রতিষ্ঠানটি সিলগালা করে দেয়া হয়।

এরপর ২০২০ সালের ৫ আগস্ট ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে সাবরিনা ও আরিফসহ আটজনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করেন ডিবি পুলিশের পরিদর্শক লিয়াকত আলী। চার্জশিটভুক্ত অন্য আসামিরা হলেন- আবু সাঈদ চৌধুরী, হুমায়ূন কবির হিমু, তানজিলা পাটোয়ারী, বিপ্লব দাস, শফিকুল ইসলাম রোমিও এবং জেবুন্নেসা।


আরও খবর



গরমে অতিষ্ঠ জনজীবন, বেড়েছে জ্বর আক্রান্ত রোগী

প্রকাশিত:বুধবার ১৩ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৮ আগস্ট ২০২২ |
Image

মুজাহিদ সরকার কিশোরগঞ্জ ঃ

গত কয়েক দিনের তীব্র গরমে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে বিভিন্ন জেলার পাশাপাশি কিশোরগঞ্জের হাওরের জনজীবন। প্রখর রোদের পাশাপাশি ভ্যাপসা গরমে স্বস্তি মিলেছে না কোথাও। ফলে বিপাকে পড়েছেন খেটে খাওয়া মানুষ। 

১২ ই জুলাই ঢাকা,কিশোরগঞ্জে এলাকায় তাপমাত্রার পরিমাণ ছিল সকাল ১২ টা থেকে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত ২৮ থেকে ২৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। 

এদিকে অতি গরমে স্বাভাবিকভাবে মাছ ধরতে পারছেন না হাওরের জেলেরা। এছাড়া কয়েক দিনের ভ্যাপসা গরমে জ্বর, ঠান্ডা, ডায়রিয়াসহ গরমজনিত নানা রোগে আক্রান্ত রোগীও বেড়েছে। জ্বরে আক্রান্ত হয়ে ওষুধের দোকানে বিড় জমাচ্ছে সাধারণ মানুষ। 

হাওরের বিভিন্ন এলাকায় খুজ নিয়ে জানা গেছে, সকালের দিকে মানুষ কিছুটা স্বস্তিতে থাকলেও দুপুরের প্রখর রোদে অতিষ্ঠ হয়ে পড়ছেন। একটু প্রশান্তির আশায় মানুষকে গাছের ছায়ায় কিংবা শীতল কোনো স্থানে বসে থাকতে দেখা গেছে। গরমে অনেকেই পুকুর কিংবা নদীতে নেমে কিছুটা স্বস্তি অনুভব করছেন।

ইটনা মৃগা ইউনিয়নের আনন্দ বাজারের ২ বছরের শিশু নিয়ে চিকিৎসা নিতে আসা আলী হোসেন বলেন, আমার মেয়ের গত ৩ দিন ধরেই ছেড়ে ছেড়ে জ্বর আসে। সব প্রকারের ওষুধ খাওয়ানোর পরও কিছুতেই জ্বর কমছে না। 

ইটনা সদরের ওষুধ ব্যবসায়ী বিজয় রায় জানান, আমাদের দোকানে কিছুদিন ধরে বেশি রোগীই জ্বরের ওষুধের জন্য আসিতেছে। জ্বরের ওষুধের চাহিদা বেশি। 

আনন্দ বাজারের ওষুধ ব্যবসায়ী আলমগীর ফরিদ বলেন, গত কিছুদিন ধরেই অতি গরমে জ্বর আক্রান্ত রোগীও সংখ্যা বেড়েছে। আমরা রোগীদের বয়স অনুযায়ী জ্বর ছাড়ার ওষুধ দিচ্ছি এবং ঠান্ডা জাতীয় খাবার খাওয়ার পরামর্শ দিচ্ছি। 

ইটনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ডাঃ অতিশ দাস রাজিব বলেন, কিছুদিন ধরেই হাসপাতালে জ্বর আক্রান্ত রোগী সেবা নিতে আসিতেছে। তিনি আরও বলেন, এটা অতি গরমের জন্য হচ্ছে। গরমে বাহিরে গেলে মাস্ক, ছাতা এবং বেশি বেশি ঠান্ডা জাতীয় কমল পানিও খাওয়ার পরামর্শ দেন। জ্বরে বাচ্চা-বড় মানুষ মোটামুটি সবাই আক্রান্ত হচ্ছে। এটা মৌসুমী রোগ ওষুধ খেলে ভালো হয়ে উঠবে।


আরও খবর



বিএনপি আওয়ামীলীগের রাজনীতি মানে খাম্বা ও বালিশ কাহিনী

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৯ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২ |
Image

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর সিনিয়র নায়েবে আমীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মাদ ফয়জুল করীম (শায়খে চরমোনাই) বলেছেন, বর্তমান সরকার ও বিগত দিনের সরকারের সমালোচনা করে বলেন, বিগত দিনের সরকারের আমলে শুনতাম খাম্বা কাহিনী আর বর্তমান সরকারের আমলে শুনি পর্দা ও বালিশ কাহিনী। এভাবে দুর্নীতি করে ক্ষমতাসীন ও তাদের মদদে ১৫ লক্ষ কোটি টাকা বিদেশে পাচার করে দেশকে দেউলিয়া করতে চাচ্ছে। তাই যে কোন মূল্যে এই পাচার কারীদের হঠাতে হবে।

তিনি বলেন, পাকিস্তাানের বর্তমান ক্ষমতাসীনরা যেভাবে বিদেশি শক্তির মদদে ক্ষমতায় বসেছে বিএনপি সেই ভাবেই বিদেশী শক্তির মদদে ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হতে চায়, তাই তারা জনগণের কাছে না গিয়ে বিদেশিদের কাছে ঘুরছে।


মুফতী সৈয়দ ফয়জুল করীম বলেন, যে ইসি স্থানীয় ছোট ছোট নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে করতে সক্ষম হয় নাই সে ইসির কাছে জাতীয় নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে করার কোন ক্ষমতা নাই।  ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ইসির বৈঠককে শুধুমাত্র সময় অপচয় হিসেবে মনে করে। দেশের জনগণের প্রতি দায়বদ্ধ থাকার কারণেই গণমুখী সংগঠন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ইসির লোক দেখানো সংলাপে অংশগ্রহণ করে নাই। দেশের মানুষের আগ্রহের জায়গা হল নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে। বিগত দিনের অভিজ্ঞতা থেকে আমরা মনে করি দলীয় সরকারের অধীনে নিরপেক্ষ নির্বাচনের পরিবেশ আমাদের দেশে নেই।

আজ ২৯ শে জুলাই (শুক্রবার) বিকাল ৩টায় গুলিস্থানস্থ কাজী বশির মিলনায়তনে ইসলামী যুব আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সভাপতি মাওলানা মুহাম্মাদ নেছার উদ্দিন এর সভাপতিত্বে আয়োজিত প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী জমায়েতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপর্যুক্ত কথা বলেন।

শায়খে চরমোনাই আরো বলেন, দেশ প্রতিনিয়তই চরম সংকটের দিকে ধাবিত হচ্ছে। অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক ও সাংবিধানিক সংকট প্রকট আকার ধারণ করছে। মেগা মেগা উন্নয়নের নামে মেগা লুটপাটের কারণে দেশের অর্থনীতি আজ সংকটাপন্য। তিনি বলেন, দেশের অর্থ লুটপাট, অপচয় ও বিদেশে অর্থ পাচারে দেশের অর্থনীতি মারাত্মক সংকটে। 

তিনি বলেন, বর্তমানে বিদ্যুৎ সাশ্রয়ের নামে দেশের মানুষের ভোগান্তি আজ চরম পর্যায়ে পৌঁছেছে। তাই আমরা মনে করি শুধু সাশ্রয় নয়; বিদ্যুতের টেকসই উৎপাদন বৃদ্ধি করা অত্যন্ত জরুরি। সরকার বিভিন্ন ক্ষেত্রে তথ্য নিয়ে লুকোচুরি খেলে অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি দেখাচ্ছে, যার ফলে আজ দেশের এই চরম দুর্দশা।


শায়খে চরমোনাই রাজনীতিক দলগুলোকে আহবান জানিয়ে বলেন, আসুন আমরা সকলে ঐক্যবদ্ধভাবে নুরুলহুদা কমিশনের শাস্তির দাবিতে আন্দোলন গড়ে তুলি তাহলেই কোন সিইসি ঐরকম লজ্জা জনক নির্বাচন দিতে সাহস পাবে না।

অনির্বাচিত অবৈধ সরকারের বিরুদ্ধে কোন সার্থক আন্দোলন তৈরি করতে ব্যর্থ বিএনপিকে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমির, পীর সাহেব চরমোনাইর নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তোলার আহবান জানান।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর মহাসচিব অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা ইউনুছ আহমদ বলেন, নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ জাতীয় সরকার ছাড়া অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন আশা করা যায় না। সরকার দুর্নীতি করতে করতে দেশকে তলাবিহীন ঝুড়িতে পরিণত করেছে তাই তারা নিরপেক্ষ নির্বাচন দিতে ভয় পায়। জাতীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিকে আরো জোরদার করে তুলতে যুবসমাজকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

সভাপতির বক্তব্যে মাওলানা নেছার উদ্দিন বলেন, জীবন বাজি রেখে লুটেরাদের উৎখাত করে দেশ গঠনের গুরুত্বপূর্ণ ভ‚মিকা ইসলামী যুব আন্দোলনকে পালন করতে হবে। তাই নিজেদেরকে দক্ষ হিসেবে গড়ে তোলার কোন বিকল্প নেই।

সভাপতি তার বক্তব্যে অনতিবিলম্বে সকল কারাবন্দী আলেমদের মুক্তি দাবি করেন।স

ইসলামী যুব আন্দোলনের সেক্রেটারি জেনারেল আতিকুর রহমান মুজাহিদ এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী জমায়েতে অন্যান্যদের মধ্যে আরও বক্তব্য রাখেন- ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর প্রেসিডিয়াম সদস্য অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান, যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা গাজী আতাউর রহমান, যুগ্ম মহাসচিব ইঞ্জিনিয়ার আশরাফুল আলম, সহকারি মহাসচিব মাওলানা মুহাম্মাদ ইমতিয়াজ আলম, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক কে এম আতিকুর রহমান, কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক মাওলানা আহম্মাদ আব্দুল কাইয়ুম, কেন্দ্রীয় দপ্তর সম্পাদক মাওলানা লোকমান হোসেন জাফরী, ইসলামী ছাত্র আন্দোলন বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় সভাপতি নূরুল করীম আকরাম, ইসলামী যুব আন্দোলনের জয়েন্ট সেক্রেটারি এ আর খান, সাংগঠনিক সম্পাদক মুফতি মনসুর আহমদ সাকি প্রমুখ।


আরও খবর



মজুরি বৃদ্ধির দাবিতে চা শ্রমিকদের কর্মবিরতি, অচলাবস্থার হুশিয়ারি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২ |
Image

আহমেদ ফারুক মিল্লাত ঃ

চা শ্রমিকদের মজুরি ১২০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৩০০ টাকা করার দাবিতে প্রতিদিন দুই ঘন্টা করে কর্মবিরতি পালন করছেন চা শ্রমিকরা। বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়নের ডাকে মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে ১০টা পর্যন্ত এ কর্মসুচি পালন করেন হবিগঞ্জের ২৪টি বাগানসহ দেশের সকল চা বাগানের শ্রমিকরা। বৃহস্পতিবার পর্যন্ত প্রতিদিন ২ ঘন্টা করে এ কর্মবিরতি পালন করা হবে।

এসময় চা শ্রমিক নেতারা বলেন, প্রতিনিয়ত নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম বেড়ে চলেছে। অথচ বাংলাদেশের চা শ্রমিককরা ১২০ টাকা মজুরিতে কাজ করছেন। ২০২১ সালের ডিসেম্বরে শ্রমিকদের সংগঠন বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়ন ও বাগান মালিকদের সংগঠন বাংলাদেশ চা সংসদ নেতৃবৃন্দের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। কিন্তু চুক্তির ১৯ মাস অতিবাহিত হলেও সেই প্রতিশ্রুতির বাস্তবায়ন করেনি মালিক পক্ষ। তাই তারা আন্দোলনে নেমেছেন। তিন দিনের মধ্যে তাদের দাবি না মানা হলে বাগানে অচলাবস্থা সৃষ্টি ও রাস্তায় নামার হুমকি দেন চা শ্রমিক নেতারা।

তারা বলেন, বৃহস্পতিবার পর্যন্ত তাদের এই কর্মসুচি চলবে। এর মধ্যে দাবি মানা না হলে বাগান সম্পূর্ণ বন্ধ করে রাস্তায় নামার হুশিয়ারি দেন তারা।


আরও খবর



পেট্রল পাম্প সপ্তাহে একদিন বন্ধ থাকবে

প্রকাশিত:সোমবার ১৮ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২ |
Image

সপ্তাহে একদিন করে পেট্রল পাম্প বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছেন জ্বালানি, বিদ্যুৎ ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ।

তিনি বলেছেন, বিদ্যুৎ সংকট সমাধানে আগামীকাল মঙ্গলবার থেকে এলাকাভিত্তিক দুই ঘণ্টা করে লোডশেডিং হবে। একই সঙ্গে সাময়িক লোডশেডিংয়ের সময় সপ্তাহে একদিন পেট্রল পাম্প বন্ধ থাকবে।

সোমবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, পরীক্ষামূলকভাবে সাময়িক সময়ের জন্য এই লোডশেডিং হবে। আগেই সবাইকে জানিয়ে দেওয়া হবে।

প্রতিমন্ত্রী জানান, এছাড়া অফিসের সময় কমানো যায় কিনা, সে বিষয়টিও পর্যালোচনা করা হচ্ছে।

সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ উপদেষ্টা তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সচিব আহমেদ কায়কাউস, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব তোফাজ্জল হোসেন।


আরও খবর

আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস

মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২