Logo
শিরোনাম
রাজধানীর সেতু ভবনে আগুন কমপ্লিট শাটডাউন : ঢাকাসহ সারা দেশে বিজিবি মোতায়েন জয়পুরহাটের পাঁচবিবিতে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ইট বোঝায় ট্রাক খাদে কুষ্টিয়ায় আন্দোলনকারী ও ছাত্রলীগের মধ্যে সংঘর্ষ -কয়েকটি মোটর সাইকেলে আগুন পুঠিয়ায় আ’লীগের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা লালমনিরহাটে অনুষ্ঠিত হয়েছে তিস্তা সমাবেশ বেনাপোল স্থল বন্দর দিয়ে মিথ্যা ঘোষণায় আমদানি করা হয়েছে ১৮ কোটি টাকার সালফিউরিক এসিড কুমারখালীতে মহাসড়ক অবরোধ করে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ, আহত-২ শরণখোলায় নার্সের চিকিৎসার অবহেলায় এক রোগীর মৃত্যুর অভিযোগ শেরপুরে কোটাবিরোধী শিক্ষার্থী-ছাত্রলীগের সংঘর্ষ, সাংবাদিকসহ আহত-২০

বিদেশ যেতে করোনা পরীক্ষা আর কতদিন !

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২০ জুলাই ২০24 |

Image

রোকসানা মনোয়ার ঃ

বাংলাদেশে প্রবেশে করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষার নেগেটিভ সনদ দেখানোর নিয়ম বাতিল করার বিষয়ে খুব শিগগিরই বৈঠকে বসতে যাচ্ছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও সিভিল এভিয়েশন। সূত্র জানিয়েছে, এতদিন বাংলাদেশে ঢুকতে ও বের হতে করোনার আরটিপিসিআর নেগেটিভ সনদ প্রয়োজন হতো। যেহেতু এখন করোনা অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে চলে এসেছে তাই সনদ দেখানোর নিয়ম বাতিলের সিদ্ধান্ত নিতে পারে সরকার।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশনা ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার গাইডলাইন না থাকায় এখন পর্যন্ত যেকোনো দেশ থেকে যাতায়াতের ক্ষেত্রে কোভিড-১৯ আরটিপিসিআর টেস্ট সনদ যাত্রীদের কাছে থাকতে হয়। তবে কয়েকটি দেশ ইতোমধ্যে করোনা টেস্ট ছাড়াই বাংলাদেশে বিমান চলাচল শুরু করেছে। তাই এখন আরটিপিসিআর টেস্ট তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্তের দিকে হাঁটছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও সিভিল এভিয়েশন।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, যেসব দেশে করোনা শনাক্ত কম বা করোনা নিয়ন্ত্রণে আছে সেসব দেশের সঙ্গে বিনা আরটিপিসিআর টেস্টে যাতায়াত শুরু করতে পারে বাংলাদেশ। তবে যেসব দেশে করোনা এখনো নিয়ন্ত্রণে নেই তাদের সঙ্গে চলাচলে আরটিপিসিআর টেস্ট নিয়ম বহাল রাখতে হবে।

ইউরোপ-আমেরিকা, জার্মানি ও ইতালিসহ বিশ্বের বেশির ভাগ দেশে এখনো ঢুকতে বাধ্যতামূলক কোভিড টেস্ট করতে হয়। এমনকি এসব দেশের নাগরিকদের ভ্রমণে সাবধানতা ও নিষেধাজ্ঞা জারি করা আছে। কোন কোন দেশে নাগরিকরা ভ্রমণ করতে পারবেন তারও একটি তালিকা দেওয়া আছে অনেক দেশে। করোনার যে পরিস্থিতি তাতে এই সব দেশের চেয়ে বাংলাদেশে ভয়াবহতা অনেক কম। বিশ্বে এখনো প্রতিদিন ২০ থেকে ২২ লাখ মানুষ করোনা আক্রান্ত হচ্ছে। আর বাংলাদেশে করোনা শনাক্তের সংখ্যা কমছে।

থাইল্যান্ডে এখন পর্যটন ভিসা উন্মুক্ত করা হয়েছে। কিন্তু এই দেশটিতে ৪৮ ঘণ্টার কোভিড টেস্ট রিপোর্ট নিয়ে যাওয়ার পর আবার টেস্ট করতে হয়। এরপর পাঁচ দিনের মাথায় আবারও টেস্ট করতে হয়। ভারত বাংলাদেশের সঙ্গে করোনা টেস্টের বিষয়টি তুলে নিয়েছে। মালদ্বীপে প্রাপ্তবয়স্ক যারা করোনা টিকার ডোজ সম্পন্ন করেছে তাদের জন্য উন্মুক্ত করেছে।

সাম্প্রতিক সময়ে কোভিড-১৯ জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটি টিকা নিয়ে বিদেশ থেকে আসা যাত্রীদের করোনা টেস্ট ছাড়াই বাংলাদেশে প্রবেশের অনুমতি দেওয়ার সুপারিশ করেছে। সুপারিশে আরও বলা হয়েছে, যারা বাংলাদেশের বাইরে যেতে চান তাদেরও করোনার আরটিপিসিআর টেস্ট বাধ্যতামূলক করার দরকার নেই।

সুপারিশে আরও বলা হয়েছে, যাদের দুই ডোজ ভ্যাকসিন নেওয়া আছে তাদের দেশে আসার ক্ষেত্রে আরটিপিসিআর টেস্টে না রাখলেও চলবে। তবে যারা দুই ডোজ ভ্যাকসিন নেননি তাদের ৭২ ঘণ্টার মধ্যে করোনার আরটিপিসিআর টেস্ট অবশ্যই করাতে হবে। আর যেসব দেশে করোনা টেস্ট তুলে দেওয়া হয়েছে তাদের দেশে যাওয়ার ক্ষেত্রে আরটিপিসিআর টেস্ট তুলে দিতে পারে বাংলাদেশ। তবে যেসব দেশে এখনো আরটিপিসিআর টেস্ট বাধ্যতামূলক সেসব দেশে ঢুকতে ও সেসব দেশ থেকে আসতে আরটি পিসিআর টেস্ট নিয়ম রাখা যেতে পারে।

রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা এএসএম আলমগীর বলেন, 'পৃথিবীতে আমরা আকাশপথে যে যাতায়াত করি ৪৮ বা ৭২ ঘণ্টার করোনা নেগেটিভ রিপোর্ট নিয়ে, এগুলোর কোনো বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই। একটা নিয়মের মধ্যে থাকা দরকার তাই এগুলো করা হয়। কিন্তু রিপোর্ট নেগেটিভ আসার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে যে আপনি আক্রান্ত হবেন না এমন কোনো নিশ্চয়তা কেউ দিতে পারবেন না।'

তিনি বলেন, অনেক দেশ করোনা আরটিপিসিআর টেস্ট তুলে নিয়েছে। কিন্তু এর সঙ্গে এমন কিছু নিয়ম যুক্ত করে দিয়েছে যা আরও ঝামেলা বাড়িয়েছে। সে সব দেশে সংশ্লিষ্ট বিভাগে গিয়ে প্রতিদিন দেখা করতে হয়। চার দিন পাঁচ দিন পর টেস্ট করতে হয়। এসব ঝামেলার চেয়ে আরটিপিসিআর টেস্টের নিয়ম থাকাই ভালো। এতে ঝামেলা কম।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশের বিষয়টি কিছুটা ভিন্ন। এখানে করোনার সংক্রমণ কমছে। এমনকি ইউরোপ-আমেরিকার চেয়েও অনেক ভালো আছে। যেহেতু এখানে সংক্রমণ কমতির দিকে আছে আরও কিছুদিন পর এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে পারে কর্তৃপক্ষ। এখন সংক্রমণ আটের নিচে। এটি এক বা দুই শতাংশে নেমে গেলে বাইরে থেকে আসা যাত্রীদের বিষয়ে ও বাইরে যেতে ইচ্ছুক যাত্রীদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে পারে সরকার।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আহমেদুল কবীর বলেন, 'আকাশপথে ও বিভিন্ন সীমান্ত দিয়ে যারা বাংলাদেশে আসছেন তাদের এখনো করোনার আরটিপিসিআর নেগিটিভ সার্টিফিকেট লাগছে। এটা এখনই উইথড্রো করার সুযোগ আমাদের হাতে নেই। কারণ সংক্রমণ কিন্তু এখনো হাতের নাগালে আসেনি। তাই আমরা একটু দেরি করতে চাইছি। করোনার সংক্রমণ পাঁচের নিচে বেশ কয়েকদিন ধরেই আছে। করোনা টেস্ট উইথড্রো করার সিদ্ধান্ত নেওয়া যেতে পারে।'

তিনি আরও বলেন, ইউরোপ-আমেরিকা বা উন্নত অনেক রাষ্ট্রের চাইতে আমরা অনেক ভালো আছি। তাদের দেশে এখনো মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যাচ্ছেন। আক্রান্তের সংখ্যাও অনেক বেশি। সেই অনুপাতে আমাদের দেশে সংক্রমণ ও মৃতু্য অনেক কম। তাই আমরাও চিন্তা করছি বিদেশে যাতায়াতে করোনার আরটিপিসিআর টেস্ট বন্ধ করার কথা। কিন্তু সেটি এখনই নয়। আরও কিছু দিন পর। আগামী সপ্তাহে সবার সঙ্গে আমরা বৈঠক করব। বৈঠকের পর সিদ্ধান্ত।'

সিভিল এভিয়েশন চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মো. মোফিদুর রহমান বলেন, 'আমরা চাইলেই সবার সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ কোভিড নেগেটিভ রিপোর্ট ছাড়া শুরু করতে পারি না। এজন্য অনেক কিছু বোঝার ও দেখার আছে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার গাইডলাইনও আমাদের ফলো করতে হবে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সঙ্গে আমাদের বৈঠক করতে হবে। তাদের ওপর সব কিছু নির্ভর করে।'

তিনি আরও বলেন, 'আমাদের দেশে এখন যারা আসতে চান তাদের মধ্যে দশ বছরের নিচের বাচ্চাদের কোভিড নেগেটিভ রিপোর্ট লাগে না। কিন্তু আমাদের দেশ থেকে আমেরিকা গেলে দুই বছরের ওপরের বাচ্চাদেরও কোভিড নেগেটিভ রিপোর্ট দেখাতে হয়। তাই কোন দেশ কীভাবে চায় সেটাও দেখার বিষয় আছে। আমরা যে দেশ যেভাবে চায়, তাদের সঙ্গে সেভাবেই কাজ করব। ইচ্ছা করলেই আমাদের মতো করে সব কিছু চালানো যাবে না।'

সিভিল এভিয়েশন চেয়ারম্যান আরও বলেন, 'আমরা চাইলে এখন ফ্লাইটও বাড়াতে পারি। কিন্তু তা এখন করছি না স্বাস্থ্য বিধির কারণে। এমনিতেই আমাদের মধ্যপ্রাচ্য ফ্লাইটের কারণে অনেক যাত্রী হচ্ছে। স্বাস্থ্যবিধি পরিপূর্ণরূপে মানার জন্য আমরা ফ্লাইট বাড়াচ্ছি না। যেহেতু মধ্যপ্রাচ্য থেকে আমাদের রেমিট্যান্স আসে তাই আমরা তাদের সঙ্গে আকাশপথ একটু বেশি উন্মুক্ত রেখেছি।'

জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ডা. আবুল জামিল ফয়সাল বলেন, 'বিশ্বের বিভিন্ন দেশ তাদের দেশে আগমনের ক্ষেত্রে যে ব্যবস্থা গ্রহণ করছে তা খুবই ভালো। এভাবে আর কতদিন। তাছাড়া সবাই কম-বেশি করোনার ভ্যাকসিন নিয়ে নিয়েছেন। তাদের সঙ্গে আমাদেরও তাল মিলিয়ে চলতে হবে। না হলে আমরা অনেকখানি পিছিয়ে যাব। তাই বিশ্বের সবাই যা করবে আমাদেরও তাই করতে হবে।'

তিনি আরও বলেন, 'যেভাবে সংক্রমণ কমছে ও মৃতু্য কমে গিয়েছে তাতে আমরা ভালো দিকে যাচ্ছি। আমাদের সংক্রমণের হার পাঁচের নিচে আশা করছি কয়েকদিনের মধ্যেই চলে আসবে। তাই সবার সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ আরও স্মুথ করতে হবে। তবে খেয়াল রাখতে হবে যে দেশে করোনার প্রকোপ বেশি তাদের সঙ্গে আমাদের সতর্কভাবে যোগাযোগ রক্ষা করতে হবে।


আরও খবর

রাজধানীর সেতু ভবনে আগুন

বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪




বিচারপতির নাম ভাঙিয়ে ঘুষ, হাইকোর্টের দুই কর্মচারী গ্রেপ্তার

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১১ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২০ জুলাই ২০24 |

Image

বিডি টুডেস ডেস্ক:


বিচারপতির নাম ভাঙিয়ে ৯ লাখ টাকা ঘুষ নেওয়ায় হাইকোর্টের দুই কর্মচারী গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।



 গ্রেপ্তারকৃতরা হলো মো. রশিদ (৩৮) ও মো. হাফিজ (৩৪)।বুধবার (১০ জুলাই) তাদেরকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।



বিচারপতি মো.আতোয়ার রহমানের নির্দেশক্রমে বেঞ্চ অফিসার সুজিত কুমার বিশ্বাস বাদী হয়ে শাহবাগ থানায় মামলা দায়ের করেন।


মামলার বিবরণী থেকে জানা যায়, বুধবার বিকেল ৫টায় ২৭ ভবন ২৭ নম্বর আদালতের বিচারপতি মো. আতোয়ার রহমান ও বিচারপতি মো. আলী রেজার সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চের এমএলএসএস মো. আব্দুর রশিদ (৩৮) ও রেজিস্টার জেনারেলের অফিসের এমএলএসএস মো. হাফিজ (৩৪) মামলার বিবাদীর থেকে ৯ লাখ ২০ হাজার টাকা ঘুষ নেয়।


বিষয়টি বিচারপতির নজরে আসার পর রাত সাড়ে ৯টায় তাদের সুপ্রিম কোর্ট অ্যান্ড স্পেশাল কোর্ট সিকিউরিটি বিভাগ পুলিশের সহায়তায় শাহবাগ থানায় হস্তান্তর করা হয়।



আরও খবর



দশমিনায় পল্লীবিদুৎ অফিসের লোকমানের বিরুদ্ধে গ্রাহক ভোগান্তির অভিযোগ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৫ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২০ জুলাই ২০24 |

Image

মোঃ নাঈম হোসাইন দশমিনা,পটুয়াখালী  প্রতিনিধি :

পটুয়াখালীর দশমিনা সাব জোনাল পল্লী বিদুৎ অফিসের জুনিয়র ইঞ্জিনিয়র মো.লোকমান এর বিরুদ্ধে গ্রাহকদের সাথে খারাব আচারন ও গ্রাহক ভোগান্তির অভিযোগ উঠেছে। গতকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় অফিসে একাধিক গ্রাহক সেবা নিতে গেলে তাদের সাথে খারাব আচারন ও পরে আসেন বলে ভোগান্তির এ অভিযোগ উঠে।

জানা যায়, জুনিয়র ইঞ্জিনিয়র মো. লোকমান হোসেন দশমিনা সাব জোনাল পল্লী বিদুৎ অফিসে যোগদান এরপর থেকেই সেবা নিতে আশা গ্রাহকের সাথে খারাব আচারন ও ভোগান্তির দিয়ে আসছেন। তার কাছে গ্রাহক কথা বলতে গেলে তিনি ব্যস্ত কাজ করি। আজকে হবেনা কালকে আসেন।

নাম না প্রকাশ করাশর্তে একাধিক দশমিনা সাব জোনাল অফিসে কর্মরতজন জনান, তার ব্যবহারে যেমন আমরা অতিষ্ঠ তেমনি সাধারন গ্রাহকরা ভোগান্তির শিকার হচ্ছে। কারনে অকারনে গ্রাকদের সাথে খারাব আচারন ও তাদেরকে ভোগান্তিতে ফেলছেন তিনি। সাধারন গ্রাহক দুর দুরান্ত থেকে সেবা নিতে আসেন এ অফিসে। এমন আচারনে আমারা ও গ্রাহক খুশি হচ্ছিনা।

এবিষয়ে দশমিনা সাব জোনাল পল্লী বিদুৎ অফিসের জুনিয়র ইঞ্জিনিয়র মো. লোকমান জানান, 01754547984 এ নাম্বারে একাধিকবার কল দিলে রিসিভ না করার কারনে তার কোন বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি। 

এবিষয়ে দশমিনা সাব জোনাল পল্লী বিদুৎ অফিসের এজিএমকম আবুল কালাম আজাদ বলেন, এভাবে কোন বক্তব্য দেয়া সম্ভব না। আপনি উর্ধতন কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করুন।


আরও খবর



ইউক্রেনে যাচ্ছে ইসরায়েলের সমরাস্ত্র

প্রকাশিত:বুধবার ০৩ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪ |

Image

৩০ বছরেরও বেশি সময় আগে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে ৮টি প্যাট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা সিস্টেম কিনেছিল ইসরাইল। এই সিস্টেমগুলোর সবই এম ৯০১ পিএসি-২ ব্যাটারি মডেলের। গত এপ্রিল মাসে ইসরাইলের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় ঘোষণা দেয়, পুরোনো হয়ে যাওয়ায় এই সমরাস্ত্রগুলো আর ব্যবহার করবে না দেশটির সেনাবাহিনী। এগুলোর স্থানে আনা হবে নতুন আধুনিক ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা। প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের ঘোষণার পর এই প্যাট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা সিস্টেমগুলো ইউক্রেনের প্রতিরক্ষা বাহিনীকে প্রদানের জন্য অনুরোধ জানায় কিয়েভ। এই ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্র, ইসরাইল ও ইউক্রেনের মধ্যে সম্প্রতি কয়েক দফা আলোচনাও হয়েছে। সম্প্রতি যুক্তরাজ্যভিত্তিক দৈনিক ফিন্যান্সিয়াল টাইমস এ নিয়ে প্রতিবেদনও প্রকাশ করেছে। এতে বলা হয়েছে, পুরোনো এই ৮টি ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা সিস্টেম প্রথমে যুক্তরাষ্ট্রে পাঠাবে ইসরাইল, তারপর সেখান থেকে সেগুলো ইউক্রেনে পাঠানো হবে।


সোমবার জাতিসংঘের সর্বোচ্চ ক্ষমতাধর সংস্থা নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকে এ ব্যাপারে হুঁশিয়ার করেন ভাসিলি নেবেনজিয়া। তিনি বলেন, ইউক্রেনে যে কেউ যত শক্তিশালী অস্ত্রেই পাঠাক না কেন তা ধ্বংস হবে। গত দুই বছরে ইউক্রেনে অনেক শক্তিশালী অস্ত্র পাঠিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র ও তার পশ্চিমা মিত্ররা। সেগুলোর প্রায় সবই ধ্বংস হয়েছে।


ভাসিলি নেবেনজিয়া আরও বলেন, আর একটি কথা আমি বলব। যুক্তরাষ্ট্র ও পশ্চিমা বিশ্বের বাইরে কোনো নতুন রাষ্ট্র যদি ইউক্রেনকে অস্ত্র সহায়তা দেয়, সে ক্ষেত্রে তার পরিণতি গুরুতর হবে।

 

২০২২ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে ইউক্রেনে বিশেষ সামরিক অভিযান শুরু করে রুশ সেনাবাহিনী। সেই অভিযান এখনও চলছে। এই অভিযানের শুরু থেকে ইউক্রেনকে সামরিক ও আর্থিক সহায়তা দিয়ে আসছে যুক্তরাষ্ট্র ও তার পশ্চিমা মিত্ররা। পাশাপাশি অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা জারিসহ রাশিয়ার বিরুদ্ধে বিভিন্ন শাস্তিমূলক পদক্ষেপও নিয়েছে পশ্চিমা বিশ্ব। তবে যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে ঘনিষ্ঠ মিত্র ইসরাইল এই ইস্যুতে এ পর্যন্ত প্রকাশ্যে কোনো পক্ষ অবলম্বনের ঘোষণা দেয়নি। রাশিয়ার বিরুদ্ধে কোনো শাস্তিমূলক পদক্ষেপও গ্রহণ করেনি।

এ পর্যন্ত ইউক্রেনে কয়েক দফা সহায়তা পাঠিয়েছে ইসরাইল, তবে সেসব সহায়তার সবই ছিল খাদ্য, চিকিৎসা ও অন্যান্য মানবিক ত্রাণ। গত বছর ইসরাইলের কাছে আয়রন ডোম ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা চেয়েছিলেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলদিমির জেলেনস্কি, তবে সেই অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করেছিলেন ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু।


আরও খবর



রাজনীতি নয়, মেধার মূল্যায়ন চাই - প্রীতি কবি

প্রকাশিত:সোমবার ১৫ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২০ জুলাই ২০24 |

Image
ডেক্স রিপোর্ট - বিডি টুডেস::

সাম্প্রতিক চলমান কোটা আন্দোলন ও রাষ্ট্র সংষ্কার এর যে দাবি উঠেছে তা নিরপেক্ষ ভাবে জাতিকে মেধাবিকাশের সুযোগ দানে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। এই আন্দোলন সফল হলে এবং চাকুরীতে কোটা প্রথা চিরতরে বিলুপ্ত হলে এই অদম্য জাতি স্বস্তির নিঃশ্বাস নিতে পারবে। 

প্রীতি কবি ও গণমাধ্যম বিশ্লেষক ওমায়ের আহমেদ শাওন বলেন, একটি দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হলে শিক্ষার প্রসার ও নৈতিকতা ছড়িয়ে দেওয়া জরুরী। পারস্পরিক মূল্যবোধ এবং সৃজনশীলতার মাধ্যমে একটি দেশের টেকসই উন্নয়ন সম্ভব। 
একটি স্বাধীন দেশে স্বাধীনতা বহির্ভূক্ত কর্মকান্ড চলতে দেওয়া উচিত নয়। স্বাধীনতা ও মহান মুক্তিযুদ্ধের নাম ভাঙিয়ে চেতনা ব্যবসা জনগণ বরদাস্ত করবে না। বিভিন্ন অজুহাতে, মেধাবীদের যোগ্য স্থান না দিয়ে কোটার সুযোগ জাতিকে প্রকৃত ভাবে মেধাশুন্য করে ফেলবে। তাই সচেতন ও বিবেকবান মানুষজন কোটা আন্দোলনে একাত্মতা পোষণ করবে।

তিনি আরও বলেন, অযোগ্য ও দূর্ণীতিগ্রস্ত ব্যক্তিরাই কেবলমাত্র চাকুরীতে কোটা চায়। কোটা বলবৎ রাখার রাজনীতি ছাত্রসমাজ আর দেখতে চায় না। 

সম অধিকার নিশ্চিত করার জন্য আমরা যে বাংলাদেশ পেয়েছি, সেখানে কোটা প্রথা রুখতেই হবে। দলমত নির্বিশেষে এসব অন্যায়ের বিরুদ্ধে স্বোচ্চার হওয়া সময়ের দাবী। 

"কোটা প্রথা নিপাত যাক 
গণতন্ত্র মুক্তি পাক।"

আরও খবর

রাজধানীর সেতু ভবনে আগুন

বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪




এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের দুঃসংবাদ দিলেন শিক্ষামন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৭ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ |

Image



বিডি টুডেস বাংলা:



অবসরের ছয় মাসের মধ্যে এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের অবসরভাতা দেয়া সম্ভব নয় বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী।



 তিনি জানান, বেসরকারি শিক্ষকদের অবসরভাতা ও কল্যাণভাতা পাওয়ার ক্ষেত্রে বিলম্ব সমাধানে সরকার আন্তরিক রয়েছে।



গতকাল বুধবার (২৬ জুন) জাতীয় সংসদে স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য মোসা. তাহমিনা বেগমের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এ তথ্য জানান।



স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য মোসা. তাহমিনা বেগমের প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী জানান, এ খাতে পর্যাপ্ত অর্থ সংস্থান না থাকায় মূলত বেশি সময় লাগছে এবং সমস্যা তৈরি হচ্ছে।


অনিষ্পন্ন আবেদনের সংখ্যা বিবেচনায় ২০২৪-২৫ অর্থ-বছরের বাজেটে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও কর্মচারী অবসর সুবিধা বোর্ডের অনুকূলে ৩০১ কোটি ৭৫ লাখ টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে।


তাই এখন বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এমপিওভুক্ত মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকসহ সব শিক্ষকদের অবসর গ্রহণের ৬ মাসের মধ্যে অবসরভাতা দেয়া সম্ভব নয়।


এদিকে, ঝিনাইদহ-২ আসন থেকে নির্বাচিত স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য নাসের শাহরিয়ার জাহেদীর প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী জানান, বর্তমানে দেশে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সংখ্যা ১৮ হাজার ৯৬৮টি। এর মধ্যে ৫ হাজার ১৮৪টি বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের পদ শূন্য রয়েছে।


আরেক স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য মোহাম্মদ হুছামুদ্দীন চৌধুরীর প্রশ্নের জবাবে নওফেল বলেন, মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তরের আওতাধীন এমপিওভুক্ত মাদরাসা ৮ হাজার ৩১৪টি, মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড অনুমোদিত মাদরাসা ১৬ হাজার ১৭৯টি, স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসা ৬ হাজার ৮৮৯টি, দাখিল ও আলিম মাদরাসা ৯ হাজার ২৯০টি, এমপিওভুক্ত দাখিল মাদরাসা ৮ হাজার ২২৯টি এবং এমপিওভুক্ত আলিম মাদরাসা ৮৫টি।


আরও খবর