Logo
শিরোনাম

বন্যাদুর্গত এলাকায় জরুরি টেলিসেবা স্থাপনে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট

প্রকাশিত:রবিবার ১৯ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

সিলেট ও সুনামগঞ্জসহ কিছু এলাকায় দুর্যোগকালীন জরুরি টেলিযোগাযোগ সেবা স্থাপনে ব্যবহৃত হতে যাচ্ছে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১। শনিবার (১৮ জুন) দিবাগত রাতে বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কোম্পানি লিমিটেডের (বিএসসিএল) চেয়ারম্যান শাহজাহান মাহমুদ এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান, দুর্যোগকালীন জরুরি টেলিযোগাযোগ সেবায় এবারই প্রথম বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ সেবা দিতে যাচ্ছে, যা এই স্যাটেলাইটের অন্যতম প্রধান উদ্দেশ্য। যদিও টেলিভিশন ও ব্যাংকিংসহ বিভিন্ন সেবায় স্যাটেলাইট সেবা দিয়ে যাচ্ছে। সিলেট ও সুনামগঞ্জের বন্য পরিস্থিতি ভয়াবহ, ১২২ বছরের ইতিহাসে এমন বন্যা হয়নি সেখানে বলে জানিয়েছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী এনামুর রহমান।

বন্যাদুর্গত সিলেট ও সুনামগঞ্জ এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ, বন্ধ হয়ে গেছে মোবাইল নেটওয়ার্ক ও ইন্টারনেট সেবাও। বন্যা পরিস্থিতি মোকাবিলায় ও পানিবন্দি মানুষকে উদ্ধারে সিলেট ও সুনামগঞ্জ জেলায় শুক্রবার থেকে সেনাবাহিনী মোতায়েন করেছে সরকার।

বিএসসিএল জানায়, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের মন্ত্রী ও সচিবের নির্দেশে ও সরাসরি তত্ত্বাবধানে বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কোম্পানি লিমিটেড এরই মধ্যে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে ১২ সেট ভিস্যাট যন্ত্রপাতি দিয়েছে, যার মাধ্যমে জরুরি টেলিযোগাযোগ সেবা স্থাপন করা হবে। এ ছাড়াও বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কোম্পানি লিমিটেড সিলেট বিভাগের বিভাগীয় কমিশনারের দপ্তরকেও আরও ২৩ সেট ভিস্যাট যন্ত্রপাতি দেওয়ার কাজ এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে, যার মাধ্যমে আরো ২৩টি বন্যা উপদ্রুত এলাকায় জরুরি টেলিযোগাযোগ সেবা স্থাপন করা হবে। ‌

বিএসসিএল চেয়ারম্যান শাহজাহান মাহমুদ জানান, বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কোম্পানি বন্যা উপদ্রুত এলাকায় নিয়োজিত সামরিক ও বেসামরিক প্রশাসনের প্রয়োজন অনুযায়ী আরও ভিস্যাট যন্ত্রপাতি সরবরাহ করতে সক্ষম, যার মাধ্যমে বন্যাকবলিত আরো এলাকায় জরুরি টেলিযোগাযোগ সেবা স্থাপন করা যাবে। মোবাইল কোম্পানিগুলোর প্রয়োজন অনুযায়ী মোবাইল নেটওয়ার্ক পুনরুজ্জীবিত করার কাজেও বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ ব্যবহার করা যেতে পারে।

ভিস্যাট এর মাধ্যমে দুর্যোগকালীন সময়ে নিরবিচ্ছিন্ন টেলিযোগাযোগ সেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে বিএসসিএল ইতোমধ্যে একটি মনিটরিং সেল গঠন করেছে, যেটি মাঠ প্রশাসনের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রেখে নিরবিচ্ছিন্ন সেবা নিশ্চিত করবে।

শাহজাহান মাহমুদ জানান, বন্যাকবলিত নীলফামারীতেও কাল ভিস্যাট পাঠানো হবে।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার জানিয়েছেন, আমাদের টেলিকম অপারেটরগুলো তিনটি করে টোল ফ্রি নম্বর চালু করেছে বানভাসী মানুষদের জন্য।

প্রয়োজনে কল করুন :

গ্রামীণফোন- 01769177266, 01769177267, 01769177268

রবি- 01852788000, 01852798800, 01852804477

বাংলালিংক- 01987781144, 01993781144, 01995781144

টেলিটক- 01513918096, 01513918097, 01513918098


আরও খবর



শেরপুরে ফের পাহাড়ি ঢল, দু‌র্ভো‌গে মানুষ

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

শেরপুর জেলা প্রতিনিধি ঃ

বৃহস্পতিবার রাত থে‌কে ভারী বর্ষণ  ও উজান থে‌কে নে‌মে আসা পাহাড়ি ঢলের পানিতে দ্বিতীয় দফায় শেরপুরের নদ-নদীর পা‌নি বৃ‌দ্ধি পে‌য়ে‌ছে। এ‌তে ঝিনাইগাতী উপজেলার মহারশী ও সোমেশ্বরী নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে উপজেলা সদরের বিভিন্ন অফিস, সদর, ধানাশাইল, গৌরীপুর, হাতিবান্দা ও মালিঝিকান্দাসহ ৫ ইউনিয়নের ২০ গ্রামের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। এসব এলাকার রামেরকুড়া, দিঘীর পাড়, চতলের বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে উপজেলা সদর এবং আশপাশের বিভিন্ন এলাকায় পানি প্রবাহিত হচ্ছে। 

পানির তো‌ড়ে শুক্রবার রামেরকূড়া গ্রামের বাঁধের সাথে একটি বাড়ি ও মুরগীর খামার ভেসে গেছে। সেই সাথে ওই গ্রামের বেশ কয়েকটি বাড়ির মানুষ পানি বন্দি হয়ে পড়ায় স্থানীয় ফায়ার সার্ভিস বিভাগ উদ্ধারের চেষ্টা করছে। প্রবল পানির স্রোত থাকায় নিজ বা‌ড়ি ছে‌ড়ে অন‌্যত্র চ‌লে গে‌ছে।

এদিকে, চেল্লাখালী ও ভোগাই নদীর পা‌নি বে‌ড়ে‌ছে। এ‌তে নিম্নাঞ্চ‌লের বেশ ক‌য়েক‌টি গ্রাম প্লা‌বিত হ‌য়ে‌ছে।

ঝিনাইগাতী বাকাকুড়া গ্রা‌মের বা‌সিন্দা রমজান আলী ব‌লেন, রাই‌তে এল্লা মেঘ আই‌লো, সহা‌লেই দে‌হি আমার বা‌ড়ি উডা‌নে পা‌নি, প‌রে চুলার ম‌ধ্যে আগুন দিবার পাই‌নি। তাই বিস্কুট খাই‌য়ে আ‌ছি।

একই গ্রা‌মের বা‌সিন্দা আফজাল ব‌লেন, ঢলডা সহা‌লেই আই‌ছে। প‌রে খা‌লি বাড়‌তেই আ‌ছে, মেলা মানুষ ঘর থ‌নে বাই‌রে আবার পাইতা‌ছে না।

রামেরকূড়া গ্রামের বা‌সিন্দ‌া ফ‌কির মিয়া ব‌লেন, হডাত কই‌রি ঢল আই‌লো, আই‌য়ে বাধটা ভা‌ঙ্গি‌য়ে গেল গা। সা‌থে সা‌থে ওইহা‌নে এডা ঘর আ‌ছিল, মুরগীর খামার আ‌ছিল, সব  পা‌নির সা‌থে গে‌ছে গা। 

ঝিনাইগাতী উপ‌জেলা নির্বাহী অ‌ফিসার ফারুক আল মাসুদ ব‌লেন, বৃ‌ষ্টি ও উজা‌নের পানির কার‌ণে কিছু জায়গায় নিম্নাঞ্চল প্লা‌বিত হয়ে‌ছে। উপ‌জেলা প্রশাসন থে‌কে ক্ষ‌তিগ্রস্থ‌দের সহ‌যো‌গিতা করা হচ্ছে। পাশাপা‌শি স্থায়ী বাঁধ নির্মা‌ণে উর্ধ্বতন কর্তৃপ‌ক্ষকে জানা‌নো হ‌য়ে‌ছে। আশা ক‌রি, খুব দ্রুতই স্থায়ী বাঁধ নির্মাণ হ‌বে। আর পা‌নি ক‌মে যাওয়ার পর সংস্কার কাজ শুরু হ‌বে ইনশাআল্লাহ।

জেলা পা‌নি উন্নয়ন বো‌র্ডের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মো: শাহজাহান ব‌লেন, গত রাতে জেলা সদরে ৮৫‌ মি‌লি‌মিটার ও না‌লিতাবাড়ী উপ‌জেলায় ১১৫ মি‌লি‌মিটার বৃ‌ষ্টির রেকর্ড করা হ‌য়ে‌ছে। এছাড়া সকা‌লে না‌লিতাবাড়ীর চেল্লাখা‌লি নদীর পা‌নি বিপদসীমার ১৭৬ সে‌ন্টি‌মিটার ওপর দি‌য়ে প্রবা‌হিত হ‌য়ে‌ছে। আমরা এ বিষ‌য়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ‌কে জা‌নি‌য়ে‌ছি। তা‌রা সব সময় নি‌র্দেশনা দি‌চ্ছেন। আশা ক‌রি, খুব দ্রুত সম‌য়ের ম‌ধ্যেই পা‌নি স্বাভা‌বিক হ‌বে, পাশাপা‌শি ঢ‌লে যে ক্ষ‌তি হ‌বে তা বরাদ্দ সা‌পে‌ক্ষে ব‌্যবস্থা নেওয়া হ‌বে।


আরও খবর



ভারতর কাছে ১০ লাখ টন গম চাইলো বাংলাদেশ

প্রকাশিত:শনিবার ১১ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

বাংলাদেশ সরকার দ্রুত ১০ লাখ টন গম রপ্তানির অনুমতি দিতে ভারতকে অনুরোধ জানিয়েছে। সেই সঙ্গে ভারতীয় সরকারকে জানানো হয়েছে, ভারত গম রপ্তানি নিষিদ্ধ করার আগেই বাংলাদেশি আমদানিকারকদের ঋণপত্র (এলসি) করা আছে।

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে লেখা এক চিঠিতে নয়াদিল্লিতে বাংলাদেশ হাইকমিশন এসব কথা জানায়। এর একটি কপি ভারতীয় মন্ত্রণালয়টির হাতে আছে।

প্রতিবছর ভারত থেকে ৬৭ লাখ টন গম আমদানি করে বাংলাদেশ। এর মধ্যে ১২ থেকে ১৩ লাখ টন আন্তর্জাতিক দরপত্রের মাধ্যমে আমদানি করা হয়। আর ৫০ লাখ টনেরও বেশি দেশের বেসরকারি বাণিজ্যের মাধ্যমে করা হয়ে থাকে।

সূত্র : দ্য ইকোনমিক টাইমস


আরও খবর

ছোট ও মাঝারি গরুর দাম বেশি

শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২




প্রথম দিনে পদ্মা সেতুর টোল দুই কোটি ৯ লাখ

প্রকাশিত:সোমবার ২৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

পদ্মা সেতু থেকে প্রথম দিনেই ২ কোটি টাকার বেশি টোল আদায় করা হয়েছে। রোববার (২৬ জুন) সকাল ছয়টা থেকে সোমবার (২৭ জুন) সকাল ছয়টা পর্যন্ত পদ্মা সেতু দিয়ে ৫১ হাজার ৩১৬টি যানবাহন পারাপার হয়েছে, যা থেকে টোল আদায় হয়েছে প্রায় দুই কোটি ৯ লাখ ৪০ হাজার ৩০০ টাকা।

সোমবার (২৭ জুন) সকালে বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষ পদ্মা সেতুর টোল আদায়ের এই তথ্য জানিয়েছে।

সেতু কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, সেতুর মাওয়া টোল প্লাজা দিয়ে যানবাহন পার হয়েছে প্রায় ২৬ হাজার ৫৮৯ টি। সেখানে টোল আদায় হয়েছে ১ কোটি ৮ লাখ ৯৫ হাজার ৯০০ টাকা। আর সেতুর জাজিরা টোলপ্লাজা দিয়ে যানবাহন পার হয়েছে প্রায় ২৪ হাজার ৭২৭টি। সেখানে থেকে টোল আদায় হয়েছে ১ কোটি ৪ লাখ ৪ হাজার ৪০০ টাকা। সেতুতে গত ২৪ ঘণ্টায় বেশি পারাপার হয়েছে মোটরসাইকেল।

তবে পদ্মা সেতুর সম্ভাব্যতা সমীক্ষা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০২২ সালে পদ্মা সেতু চালুর পর প্রতিদিন সেতু দিয়ে প্রায় ২৪ হাজার যানবাহন চলাচল করবে। এর মধ্যে ট্রাক পারাপার হবে ১০ হাজার ২৪৪টি। বাস ও হালকা যানবাহন পারাপার হবে সাড়ে ১৩ হাজারের বেশি। সমীক্ষা অনুযায়ী যানবাহনের এই সংখ্যা ২০২৫ সালের দিকে বেড়ে যাবে, তখন সেতু দিয়ে যানবাহন চলাচলের সংখ্যা দাঁড়াবে দৈনিক ৪১ হাজার।

এদিকে, সোমবার (২৭ জুন) থেকে পদ্মা সেতুতে অনির্দিষ্টকালের জন্য মোটরসাইকেল চলাচল নিষিদ্ধ করা হয়েছে। রোববার রাতে এ সংক্রান্ত একটি নোটিশ জারি করে সেতু বিভাগ।


আরও খবর



ডিসিদের কাছে আসন সীমানা পুনর্বিন্যাসের তথ্য চেয়েছে ইসি

প্রকাশিত:বুধবার ০৮ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ৩০০ সংসদীয় আসনের সীমানা পুনর্বিন্যাসের প্রস্তুতি নিচ্ছে নির্বাচন কমিশন। এ জন্য গত পাঁচ বছরে যেসব প্রশাসনিক এলাকার নতুন বিন্যাস হয়েছে, সেসব তথ্য সংগ্রহ করে আগামী ২০ জুনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে জেলা প্রশাসকদের চিঠি দিয়েছে ইসি।

মঙ্গলবার (৮ জুন) ইসির উপসচিব মো. আব্দুল হালিম খান স্বাক্ষরিত ওই চিঠিতে বলা হয়, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রাক্কালে ৩০০ সংসদীয় আসনের সীমানা নির্ধারণের জন্য সর্বশেষ ৩০ এপ্রিল ২০১৮ তারিখে প্রকাশিত নির্বাচনী এলাকার সীমানা নির্ধারণের গেজেটের পর যে সমস্ত প্রশাসনিক এলাকা সৃজন, বিয়োজন ও সংকোচন করা হয়েছে তার তথ্য প্রয়োজন। জরুরি ভিত্তিতে ইসি সচিবালয়ে তা পাঠাতে হবে।

তিনি বলেন, ইসির সীমানা পুনর্বিন্যাস সংক্রান্ত কমিটির সিদ্ধান্তের আলোকেই আমরা প্রাথমিক একটা প্রস্তুতি নিয়ে রাখছি। এটা রুটিন ওয়ার্ক। নতুন ইউপি, উপজেলাসহ আসনভিত্তিক তথ্য সংগ্রহ করে রাখা হচ্ছে।

সীমানা পুনর্বিন্যাসের খসড়ায় ইসি অনুমোদন দিলে প্রাথমিক তালিকা প্রকাশ এবং এর উপর দাবি-আপত্তি-সুপারিশ চাওয়া হবে। শুনানির মাধ্যমে দাবি-আপত্তি নিষ্পত্তি করে ৩০০ নির্বাচনী এলাকার নতুন সীমানা চূড়ান্ত হবে এবং তারপর গ্রেজেট প্রকাশ করবে নির্বাচন কমিশন।


আরও খবর



কুসিক নির্বাচনে এমপি বাহারের প্রচারণা না চালানোর নির্দেশনা হাইকোর্টের রুল

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৯ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

 কুমিল্লা জেলা প্রতিনিধি ঃ

কুমিল্লা সিটি করপোরেশন (কুসিক) নির্বাচন নিয়ে সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিনের প্রচারণা না চালানোর নির্দেশনা কেন অবৈধ ও বে-আইনি এবং অসাংবিধানিক ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। 

এ সংক্রান আবেদনের বিষয়ে প্রাথমিক শুনানি নিয়ে বুধবার (৮ জুন) হাইকোর্টের বিচারপতি জাফর আহমেদ ও কাজি জিনাত হকের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ  এ আদেশ দেন।

 এদিকে একই দিন নির্বাচন কমিশন স্থানীয় সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহারকে নির্বাচনী এলাকা ত্যাগ করতে অনুরোধ জানিয়েছে । নির্বাচন কমিশনের উপ সচিব (নির্বাচন পরিচালনা-২) মো: আতিয়ার রহমান স্বাক্ষরিত এ নির্দেশ সম্বলিত চিঠি এমপি বাহারকে দেওয়া হয়। 

গত ১৬ মে নির্বাচন কমিশন কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচন উপলক্ষে পরবর্তীকালে নির্বাচনপূর্ব সময়ে আচরণবিধি ভঙ্গের যেন কোনও ঘটনা না ঘটে, বা আচরণবিধি ভঙ্গের উপক্রম না হয়, অথবা আচরণবিধি প্রতিপালন নিশ্চিত হয়, তার জন্য আচরণ বিধিমালার সংশ্লিষ্ট বিধি অবহিত করে জাতীয় সংসদের ২৫৪ কুমিল্লা-৬ আসনের সংসদ সদস্যকে চিঠি প্রদান করে নির্বাচন কমিশন।

এ চিঠির প্রেক্ষিতে এমপি বাহারের পক্ষে আদালতে রীট আবেদন করেন সিনিয়র আইনজীবী সাঈদ আহমেদ রাজা।

সাঈদ আহেমেদ রাজা বলেন, যেহেতু সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন সরকারি কোনো কর্মকর্তা নন। তিনি নির্বাচনে ভোট দিতে পারেন। তিনি দল করতে পারেন। তাহলে কেন তিনি তার দলের পক্ষে নির্বাচনী কার্যক্রম চালাতে পারবেন না। সংবিধান তাকে যে কারো পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণা চালাতে অধিকার দিয়েছে।

তিনি জানান, আদালত কেন ঐ চিঠি অসাংবিধানিক ঘোষণা করা হবে না এই মর্মে কারন দর্শাতে বলেছে নির্বাচন কমিশনকে। 

৮ জুন এমপি বাহারকে দেওয়া নির্বাচন কমিশনের উপ সচিব আতিয়ার রহমান স্বাক্ষরিত চিঠিতে বলা হয় ‘উপর্যুক্ত বিষয়ে আদিষ্ট হয়ে আপনার সদয় অবগতির জন্য জানাচ্ছি যে, আগামী ১৫ জুন ২০২২ তারিখ কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এ নির্বাচন সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ এবং শান্তিপূর্ণ করার জন্য নির্বাচন কমিশন এবং নির্বাচন সংশ্লিষ্ট সকল কর্মকর্তা আন্তরিকভাবে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।                                                                                             সিটি কর্পোরেশন (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা, ২০১৬ এর ২২ বিধি অনুযায়ী সরকারি সুবিধাভোগী অতি গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি নির্বাচনি এলাকায় প্রচারণায় বা নির্বাচনী কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করতে পারেন না। সিটি কর্পোরেশন (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা, ২০১৬ এর ২২ বিধিতে রয়েছে ‘সরকারি সুবিধাভোগী অতি গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি ও সরকারি কর্মকর্তা বা কর্মচারীর নির্বাচনি প্রচারণা এবং সরকারি সুযোগ-সুবিধা সংক্রান্ত বাধা-নিষেধ। (১) সরকারি সুবিধাভোগী অতি গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি ও সরকারি কর্মকর্তা বা কর্মচারী নির্বাচন-পূর্ব নির্বাচনি প্রচারণায় বা নির্বাচনি কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করিতে পারিবেন না; তবে শর্ত থাকে যে, উক্তরূপ ব্যক্তি সংশ্লিষ্ট নির্বাচনি এলাকার ভোটার হইলে তিনি কেবল তাঁহার ভোটপ্রদানের জন্য ভোটকেন্দ্রে যাইতে পারিবেন। (২) নির্বাচন-পূর্ব সময়ে কোন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী বা তাহার পক্ষে অন্য কোন ব্যক্তি, সংস্থা বা প্রতিষ্ঠান নির্বাচনি কাজে সরকারি প্রচারযন্ত্র, সরকারিযান বাহন, অন্য কোন সরকারি সুযোগ-সুবিধাভোগ এবং সরকারি কর্মকর্তা বা কর্মচারীগণকে ব্যবহার করিতে পারিবেন না।"

নির্বাচন কমিশনের চিঠিতে এমপি বাহারকে উদ্দেশ্য করে বলা হয়- উল্লিখিত অবস্থার প্রেক্ষিতে, যেহেতু আপনি বিধি বহির্ভূতভাবে কৌশলে নির্বাচনি প্রচারণায় অংশগ্রহণ করছেন, তাই আপনাকে ২৫৪ কুমিল্লা-৬ নির্বাচনি এলাকা ত্যাগের নির্দেশনা দেয়ার জন্য মাননীয় নির্বাচন কমিশন সিদ্ধান্ত প্রদান করেছেন।  এমতাবস্থায়, অনতিবিলম্বে আপনাকে উল্লিখিত নির্বাচনি এলাকা ত্যাগ করে আচরণ বিধি প্রতিপালন বিষয়ে নির্বাচন কমিশনকে সহযোগিতা করার জন্য বিনীতভাবে অনুরোধ করছি।

আদালতে রীট আবেদন করেন সিনিয়র আইনজীবী সাঈদ আহমেদ রাজা বলেন, নতুন করে এলাকা ত্যাগের কথা উল্লেখ করে সংসদ সদস্য হাজী বাহারকে যে চিঠি দিয়েছে নির্বাচন কমিশন তার ব্যাপারে নতুন করে রীট করতে হবে। নতুন নির্দেশনা চাইতে হবে। 

এদিকে আচরণবিধি লংঘনের কারনে গত ১৬ মে নির্বাচন কমিশন কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচন উপলক্ষে পরবর্তীকালে নির্বাচনপূর্ব সময়ে আচরণবিধি ভঙ্গের যেন কোনও ঘটনা না ঘটে, বা আচরণবিধি ভঙ্গের উপক্রম না হয়, অথবা আচরণবিধি প্রতিপালন নিশ্চিত হয়, তার জন্য আচরণ বিধিমালার সংশ্লিষ্ট বিধি অবহিত করে জাতীয় সংসদের ২৫৪ কুমিল্লা-৬ আসনের সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহারকে চিঠি প্রদান করে নির্বাচন কমিশন। সে চিঠির প্রেক্ষিতে হাইকোর্টে রীট করেন তিনি। রীটের আইনজীবী সাঈদ আহেমেদ রাজা বলেন, যেহেতু সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন সরকারি কোনো কর্মকর্তা নন। তিনি নির্বাচনে ভোট দিতে পারেন। তিনি দল করতে পারেন। তাহলে কেন তিনি তার দলের পক্ষে নির্বাচনী কার্যক্রম চালাতে পারবেন না। সংবিধান তাকে যে কারো পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণা চালাতে অধিকার দিয়েছে।

সিনিয়র আইনজীবী সাঈদ আহমেদ রাজা বলেন, আদালত কেন ঐ চিঠি অসাংবিধানিক ঘোষণা করা হবে না এই মর্মে কারন দর্শাতে বলেছে নির্বাচন কমিশনকে।

এবার কুসিক নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী হলেন আরফানুল হক রিফাত। আ ক ম বাহাউদ্দিন কুমিল্লা-৬ আসনের সরকারদলীয় সংসদ সদস্য।  

গত ৬ জুন আ ক ম বাহাউদ্দিনের বিরুদ্ধে আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ এনে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে চিঠি দিয়েছিলেন কুমিল্লা সিটি নির্বাচনে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী মো. মনিরুল হক সাক্কু। রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. শাহেদুন্নবী চৌধুরীর কাছে এই চিঠি দেওয়া হয়।  

চিঠিতে বাহাউদ্দিনের বিরুদ্ধে নির্বাচনী এলাকায় অবস্থান, দলীয় কার্যালয় ও বিভিন্ন হল ব্যবহার করে মহানগর, আদর্শ সদর উপজেলাসহ বিভিন্ন উপজেলার নেতাকর্মীদের নিয়ে সভা, প্রচার-প্রচারণার অভিযোগ করা হয়। একই সঙ্গে অভিযোগ আনা হয় বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, মসজিদ ও মাদরাসার প্রতিনিধিদের সঙ্গে নির্বাচনী কার্যক্রম চালানোর অভিযোগ করা হয়েছে।


আরও খবর