Logo
শিরোনাম

বরিশালে গাছের সঙ্গে বাসের ধাক্কা, নিহত ১১

প্রকাশিত:রবিবার ২৯ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

বরিশালের উজিরপুরে যাত্রীবাহী বাসের চালক নিয়ন্ত্রণ হারালে বাসটি সড়কের পাশের গাছের সঙ্গে ধাক্কা খায়। এতে বাসের ১১ আরোহী নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ২০ জন।

রবিবার (২৯ মে) ভোর সাড়ে ৫টার দিকে বরিশাল-ঢাকা মহাসড়কের বামরাইলে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

উজিরপুর থানার ওসি আলী আর্শাদ বলেন, যমুনা লাইন পরিবহনের বাসটি ঢাকা থেকে যাত্রী নিয়ে পিরোজপুরের ভান্ডারিয়ার দিকে যাচ্ছিল। পথে বরিশালের উজিরপুর উপজেলার বামরাইলে চালক নিয়ন্ত্রণ হারালে গাড়িটি গাছে ধাক্কা খায়। এতে ঘটনাস্থলেই শিশুসহ ১১ জন নিহত হন। আহত অন্তত ২০ জনকে উদ্ধার করে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তবে তাদের কারো নাম-পরিচয় জানা যায়নি। গাড়িটি উদ্ধারে ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট কাজ করছে।

বরিশাল ফায়ার সার্ভিসের ইউনিট লিডার জাহাঙ্গীর বলেন, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের গৌরনদী ও উজিরপুরের দুটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ধার কার্যক্রম পরিচালনা করছে। গাড়িটি গাছের মধ্যে ঢুকে গেছে। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা গাড়িটি কেটে যাত্রীদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠাচ্ছে।

উজিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা প্রণব রায় বলেন, দুর্ঘটনায় নিহত ১১ জনের মরদেহ তাদের হাসপাতালে রাখা আছে।


আরও খবর



‘পদ্মা সেতু’ তাদের গান

প্রকাশিত:সোমবার ১৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

আগামী ২৫ জুন উদ্বোধন হতে যাচ্ছে দেশের সবচেয়ে বড়-পদ্মা সেতু। অনেক স্বপ্ন ও গৌরবের সেতুটি অবশেষে চালু হচ্ছে নানা চড়াই-উতরাই পেরিয়ে। যেখানে মিশে আছে দেশের ১৮ কোটি মানুষের আবেগ ও ভালোবাসা। আর তাই তো এই সেতুকে ঘিরে চলছে নানান আয়োজন। তৈরি হচ্ছে নতুন গানও।

তেমনই একটি গান ‘পদ্মা সেতু’। যাতে কণ্ঠ দিয়েছেন দেশের ৬ জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী আঁখি আলমগীর, কিশোর, রাজীব, সাব্বির জামান, কোনাল ও ঝিলিক। ‘পদ্মা সেতুর বিজয়গাথা ইতিহাসে বিস্ময়/শেখ হাসিনা দেখিয়ে দিলেন/কেমন করে এগিয়ে যেতে হয়’-এমন কথায় গানটি লিখেছেন মোকাম আলী খান, সুর-সংগীত করেছেন মিল্টন খন্দকার।

মাইটিভির অডিও স্টুডিওতে গানটির রেকর্ডিং হয়। এরপর ভিডিও করা হয়েছে পদ্মা সেতু এলাকায়। ভিডিওতে হাজির হয়েছেন গানের শিল্পীদের সবাই।

গানটি নিয়ে আঁখি আলমগীর বলেন, ‘পদ্মা সেতু একটি স্বপ্নের নাম। স্বপ্ন এখন বাস্তব হয়ে ধরা দিয়েছে। এই সেতুর সঙ্গে জড়িয়ে আছে সবার আবেগ-অনুভূতি। গর্বের এই সেতু নিয়ে গানটি করে ভালো লেগেছে।’

কোনাল বলেন, ‘পদ্মা সেতুর মাধ্যমে বাংলাদেশ বিশ্ববাসীকে নতুন একটা মেসেজ দিয়েছে। জানান দিয়েছে চাইলে আমরাও অনেক কিছু করতে পারি। এই সেতুর সঙ্গে আমাদের অনেক স্বপ্ন, গৌরব ও ভালোবাসা মিশে আছে। সেতু নিয়ে গানটি গাইতে পেরে আমি আনন্দিত।’

ভিডিওটির নির্দেশনা দিয়েছেন মাহবুবা ফেরদৌস। গান-ভিডিওটি হয়েছে বিটিভির উদ্যোগে। এটি প্রচারও হবে রাষ্ট্রীয় এই টেলিভিশন চ্যানেলে।



আরও খবর

শিশুদের সিনেমায় মিথিলা

শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২




১৫ দিনের শিশুকে বিক্রি করলেন মা !

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৯ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

সদ্যোজাত সন্তানকে অর্থের বিনিময়ে বিক্রি দিলেন এক মা! এ ঘটনা অবশ্য নতুন নয়। ভারতে অনেকেই সন্তান বড় করার খরচ সামলাতে পারেন না। আর্থিক সামর্থ্য না থাকায় এর আগেও কোলের সন্তানকে অন্যের হাতে তুলে দিয়েছেন অনেকে। তবে এই ঘটনা যেন সব কিছুকে ছাপিয়ে গেছে। কেনাকাটার শখ ছিল মা-বাবার। সন্তানও তারা সে ভাবে চাইছিলেন না। তাই তড়িঘড়ি ১৫ দিনের সন্তানকে বিক্রি করে দেন সাড়ে পাঁচ লক্ষ টাকার বিনিময়। সেই টাকা পকেটে নিয়ে চলে যান বাজারে! কিনে ফেলেন মোটরবাইক— আরও অনেক খুচরো বাড়ির জিনিস।

মধ্যপ্রদেশের ইনদওরের বাসিন্দা ২৩ বছরের শাইনা বাঈ সপ্তাহ দুয়েক আগে জন্ম দিয়েছেন শিশুটির। মহিলার সঙ্গী সন্তানের কোনও দায়িত্ব নিতে অস্বীকার করেন। মহিলার সঙ্গী পেশায় দিনমজুর। ভাড়া বাড়িতেই বাস তাদের। বাড়ির মালিক প্রথম শিশু বিক্রির বিষয়টি খেয়াল করেন। বাড়িওয়ালার কথা অনুযায়ী, অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার পর থেকেই শাইনা ও তার সঙ্গীর মধ্যে মনোমালিন্য চলছিল। শিশুর জন্মের পরে সেই অশান্তি আরও চরমে ওঠে। তার পরেই এই সন্তান বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন কি না, তা এখনও জানা যায়নি। ইনদওর থেকে ৪০ কিলোমিটার দূরে এক নিঃসন্তান দম্পতির কাছে নবজাতককে বিক্রি করে দেন তারা। এক সন্ধ্যায় শিশুটিকে সঙ্গে নিয়ে তারা বেরিয়েছিলেন। যখন তারা ফিরে এসেছিলেন তখন শিশুটি তাদের সঙ্গে ছিল না। পরিবর্তে মোটর সাইকেল, টিভি, ফ্রিজ এবং ওয়াশিং মেশিন নিয়ে ফিরেছিলেন তারা!

এ সব দেখে সন্দেহ দানা বাঁধে প্রতিবেশীদের মনে। তারাই খবর দেন থানায়। পুলিশ এসে জিজ্ঞাসাবাদ করলে পুলিশি জেরার মুখে ভেঙে পড়েন শাইনা। সন্তান বিক্রির টাকা দিয়েই এত সব জিনিস কিনেছেন বলে জানান শাইনা এবং তার সঙ্গী। সূত্র: আনন্দবাজার


আরও খবর



ভালো ঘুমের জন্য যা প্রয়োজন

প্রকাশিত:সোমবার ২০ জুন ২০22 | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ |
Image

আমাদের দৈহিক মানসিক সুস্থতার জন্য ঘুম অপরিহার্য। পর্যাপ্ত আরামদায়ক ঘুম আমাদেরকে সক্রিয় সতেজ করে তোলে। সাধারণভাবে স্বাস্থ্যকর ঘুম বলতে প্রতি রাতে একটি নির্দিষ্ট সময় ঘুমকে বুঝানো হয়। একে অনেকে ঘুমের পরিমাণ হিসাবে ধরে নেয়। যদিও ঘুমের পরিমাণ অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। একটি ভালো ঘুমের জন্য এর পরিমাণ যেমন গুরুত্বপূর্ণ, তেমনি গুরুত্বপূর্ণ হলো গুণগত মান। নিয়মিত আরামদায়ক সামঞ্জস্যপূর্ণ ঘুম আমাদের সামগ্রিক সুস্বাস্থ্য বজায় রাখার জন্য প্রয়োজন। বিষয়ে বিস্তারিত লিখেছেন রাজধানীর ইনজিনিয়াস পালমো ফিটের স্লিপ কনস্যালট্যান্ট ডা. ফাতেমা ইয়াসমিন

ঘুমের পরিমাণ কী?

ঘুমের পরিমাণ বলতে বোঝায় আপনি প্রতি রাতে কত ঘণ্টা ঘুমান। বয়সভেদে মানুষের ঘুমের সময় তারতম্য হয়।

* বয়স : ঘুমের চাহিদা (২৪ ঘণ্টায়)

* নবজাতক (- মাস) : ১৪-১৭ ঘণ্টা

* শিশু (-১২ মাস) : ১২-১৬ ঘণ্টা

* বাচ্চা (- বছর) : ১১-১৪ ঘণ্টা

* প্রি-স্কুল (- বছর) : ১০-১৩ ঘণ্টা

* স্কুল বয়সের শিশু (-১২ বছর) : -১২ ঘণ্টা

* কিশোর (১৩-১৮ বছর) : -১০ ঘণ্টা

* প্রাপ্তবয়স্ক (১৮-৬৪ বছর) : প্রতি রাতে - ঘণ্টা

* প্রাপ্তবয়স্ক (৬৫+ বছর) : প্রতি রাতে - ঘণ্টা

এটি একটি সাধারণ নির্দেশিকা করা হয়েছে। এমন অনেক লোক রয়েছে যাদের তাদের বয়সের জন্য প্রস্তাবিত পরিমাণের চেয়ে বেশি বা কম ঘুমের প্রয়োজন। এমনকি কিছু নিয়মের ব্যতিক্রমগুলো বিবেচনা করেও এমন অনেক লোক রয়েছে যারা নিয়মিত তাদের প্রয়োজনীয় পরিমাণ ঘুমায় না। পরিসংখ্যানে দেখা যায়, ৫০ থেকে ৭০ মিলিয়ন আমেরিকানরা কোনো না কোনো ধরনের ঘুমের রোগে ভুগছেন এবং প্রায় ৩৫ শতাংশ আমেরিকান প্রাপ্তবয়স্করা প্রতি রাতে প্রয়োজনীয় সাত ঘণ্টার চেয়ে কম ঘুমায়। অপর্যাপ্ত ঘুমে সড়ক দুর্ঘটনা, কর্মক্ষেত্রে দুর্ঘটনা এবং জটিল রোগের ঝুঁকিগুলোও দেখা যায়। অপর্যাপ্ত ঘুমের প্রভাব আমাদের মস্তিষ্কের উপর সরাসরি পড়ে। হার্ভার্ড মেডিকেলের গবেষণায় দেখা গেছে যারা পাঁচ ঘণ্টা ঘুমান তাদের মৃত্যুর ঝুঁকি শতকরা ১৫ ভাগ বৃদ্ধি পায়। অপর্যাপ্ত ঘুমের কারণে আমাদের শরীরে কর্টিসল নামক একটি হরমোনের পরিমাণ বেড়ে যায়। যার প্রভাব পড়ে আমাদের উচ্চ রক্তচাপ রক্তের উচ্চ মাত্রার গ্লুকোজের উপর। অপর্যাপ্ত ঘুমের প্রভাবে মেজাজ খিটখিটে হয়ে যায় এবং দ্রুত মুড পরিবর্তন হয়।

ঘুমের গুণগত মান কী

ঘুমের গুণমান বলতে বোঝায় আপনি কতটা ভালো ঘুমান।

সঠিক মানের ঘুমের জন্য রয়েছে ৫টি উপকরণ :

* ঘুমিয়ে পড়ার সময় : আপনি কত দ্রুত এবং কত সহজেই ঘুমিয়ে পড়তে পারেন। সাধারণত বেশিরভাগ মানুষ বিছানায় যাওয়ার ২০-২৫ মিনিটের মধ্যে ঘুমিয়ে পড়তে সক্ষম হয়।

* ঘুমের ধারাবাহিকতা বজায় : একবার ঘুমিয়ে পড়লে একটানা আপনার ঘুমিয়ে থাকার ক্ষমতা। ভালো মানের ঘুম হয় ক্রমাগত, রাতে বারবার ঘুম ভেঙে যায় না।

* ঘুমের কার্যকারিতা : ঘুমের কার্যকারিতা মানে আপনি কতটা সময় ঘুমিয়েছেন বনাম আপনি কতটা সময় ঘুমানোর জন্য বিছানায় কাটিয়েছেন। সঠিক মানের ঘুমের জন্য ঘুমের কার্যকারিতা মোট সময়ের অন্তত ৮৫ শতাংশ মানদণ্ড হিসাবে ধরা হয়।

* ঘুমের সময় : ঘুমের সময় বলতে বোঝায় যখন প্রতিদিন একটি নির্দিষ্ট সময় ঘুমানো। আমাদের শরীরের অভ্যন্তরীণ ঘড়ি নির্দেশ করে প্রতিদিন একই সময়ে ঘুমানো এবং জেগে ওঠা।

* ঘুমের তৃপ্তি : ঘুম থেকে উঠে ফ্রেশ লাগা সারা দিন উদ্যমী থাকা। এভাবে ঘুমের পরিতৃপ্তি পরিমাপ করা হয়।

খারাপ মানের ঘুমের ক্ষতি কী?

খারাপ মানের ঘুমের স্বল্পমেয়াদি এবং দীর্ঘমেয়াদি উভয় ক্ষেত্রেই গুরুতর স্বাস্থ্য ঘাটতি দেখা যায়। যেমন-কর্মক্ষমতা কমে যাওয়া, ভুলে যাওয়া প্রবণতা, মনোযোগ কমে যাওয়া, মানসিক চাপ বৃদ্ধি, বিষণ্নতা এবং উদ্বেগ দেখা দেয়। সকালে ঘুম থেকে উঠতে সমস্যা হচ্ছে অথবা খিটখিটে মেজাজ নিয়ে ঘুম থেকে ওঠা, সারা দিন ক্লান্তি ভাব থাকা, দিনের বেলা ঘুমানো, দিনে অনেক বেশি ঘুমানো। ছাড়া ওজন বৃদ্ধি এবং স্থূলতা, ডায়াবেটিস এবং উচ্চ রক্তচাপ, উচ্চ কলস্টেরল, হৃদরোগ এবং স্ট্রোক হয়।

রাতের আরামদায়ক ঘুমের পাশাপাশি স্বাস্থ্যকর ঘুমের কিছু চিহ্ন আছে। যেমন-

* সকালে ঘুম থেকে উঠেই সতেজ অনুভূতি

* সারা দিন সতেজ থাকা

* ভালো মেজাজে থাকা

* পরিষ্কার-মাথা অনুভব করা

কীভাবে ঘুমের পরিমাণ এবং গুণগত মান উন্নত করা যায়

ভালো স্বাস্থ্যকর ঘুম পেতে আপনি যে পদক্ষেপগুলো নিতে পারেন তার মধ্যে রয়েছে-

* ঘুমের সমস্যা নির্ণয় করা : আপনি যদি মনে করেন যে আপনার ঘুমের সমস্যা আছে যা আপনার ঘুমকে প্রভাবিত করছে, তাহলে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব আপনার ডাক্তারের সঙ্গে আলোচনা করা উচিত।

* জীবনযাত্রায় পরিবর্তন করুন : যদিও আপনার জীবনের কিছু অংশ অন্যদের তুলনায় পরিবর্তন করা কঠিন হতে পারে, আপনি কিছু পদক্ষেপ নিতে পারেন যা সম্ভবত আপনার ক্ষমতার মধ্যে রয়েছে এবং আপনার ঘুমকে ব্যাপকভাবে উন্নত করতে পারে। যেমন-নিয়মিত ব্যায়াম করা, ধূমপান, অ্যালকোহল এবং ক্যাফেইন বাদ দিন।

* ঘুমের পরিবেশ নিশ্চিত করুন : বেশিরভাগ লোক তাদের ঘুমের পরিবেশের গুরুত্বকে অবমূল্যায়ন করেন। যদিও প্রত্যেকেরই নিজস্ব পছন্দ রয়েছে, মানুষ সাধারণত অন্ধকার, শান্ত, আরামদায়ক পরিবেশে ঘুমাতে পছন্দ করে।

* ফোন ট্যাব বন্ধ : গবেষণায় দেখা গেছে শোওয়ার সময় ফোনের ব্যবহার ঘুমের ব্যাঘাত হয়। বিছানায় ফোন এবং অন্যান্য ডিভাইস ব্যবহার করায়, ঘুমের সময়ের গতি হারাতে পারেন এবং আপনার প্রকৃত শোওয়ার সময় উল্লেখযোগ্যভাবে দেরি হতে পারে।

স্বাস্থ্যকর ঘুমের অভ্যাস কীভাবে প্রয়োগ করবেন তা আপনি নিশ্চিত না হলে, আপনার ডাক্তারের সঙ্গে পরামর্শ করুন।

 


আরও খবর

রসুনের গুণেই মেদ ঝরবে

শনিবার ১১ জুন ২০২২




মানিকগঞ্জ সদরে হালনাগাদ তালিকার ভোটার নিবন্ধন শুরু

প্রকাশিত:রবিবার ১২ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

মানিকগঞ্জ জেলা  প্রতিনিধি

মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার ভোটার তালিকা হালনাগাদ ২০২২ এর ভোটার নিবন্ধন কার্যক্রম শুরু হয়েছে। 

আজ রোববার সকালে সদর উপজেলার জাগীর ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ আবদুল লতিফ। এসময় জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো: হাবিবুর রহমান, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: ইকবাল হোসেন, সদর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো: সাহিদ হোসেন ও জাগীর ইউপি চেয়ারম্যান মো: জাকির হোসেন বক্তব্য রাখেন। 

গত ২০ মে জেলায় ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রমে তথ্য সংগ্রহ শুরু হয়ে ৯ জুন পর্যন্ত চলে। এতে সদর উপজেলায় হালনাগাদ কার্যক্রমে মোট নতুন ১৮হাজার ৯৫৬  জনের তথ্য সংগ্রহ করা হয়। আজ থেকে তাদের ছবি তুলে ভোটার নিবন্ধন কার্যক্রম শুরু করা হয়। এই কার্যক্রম আগামী ১৪ আগষ্ট পর্যন্ত চলবে ।

হালনাগাদ তালিকায় ছবি তুলে ভোটার হওয়ায় আনন্দ ও গর্ব প্রকাশ করেছে নতুন ভোটাররা। 


আরও খবর



বিপৎসীমার ৬১ সেন্টিমিটার ওপরে যমুনার পানি, ৬ হাজার ৯২ হেক্টর ফসল পানির নিচে

প্রকাশিত:বুধবার ২২ জুন 20২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ |
Image

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি : বৃষ্টি ও উজানের ঢলে সিরাজগঞ্জে যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে।
এতে জেলার অভ্যন্তরীণ নদ-নদী ও খাল-বিলের পানি বাড়ছে। ফলে জেলার বন্যা
পরিস্থিতি অবনতি হচ্ছে।

বুধবার (২২ জুন) সকাল ১০ টায় সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ড গেজ রিডার
হাসানুর রহমান জানান, গত ২৪ ঘন্টায় কাজীপুর মেঘাই ঘাট পয়েন্টে ৫
সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়ে বিপৎসীমার ৬১ সেন্টিমিটার ওপরে এবং  শহরের
হার্ডপয়েন্ট এলাকায় যমুনার পানি ১ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়ে বিপৎসীমার ৫০
সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা যায়, যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধিতে জেলার
করতোয়া, ইছামতি, ফুলঝোড়, বড়াল, হুড়াসগড় ও চলনবিলের পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। এ
সকল অভ্যন্তরীণ নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় জেলার সার্বিক বন্যা
পরিস্থিতির আরও অবনতি হয়েছে।

ইতোমধ্যেই জেলার সিরাজগঞ্জ সদর, কাজিপুর, বেলকুচি, চৌহালী ও শাহজাদপুর
উপজেলার চরাঞ্চল ও নিম্নাঞ্চলের প্রায় ২০টি ইউনিয়নের শতাধিক গ্রাম বন্যা
কবলিত হয়ে পড়েছে। এ সকল এলাকার বসতবাড়ি, রাস্তাঘাট, হাটবাজার,
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় বিপাকে পড়েছেন বন্যা কবলিতরা।

পানি বৃদ্ধির কারণে জেলার ৫টি উপজেলার এ সকল এলাকার ৬ হাজার ৯২ হেক্টর
জমির আউস ধান, পাট, তিল, কাউন, বাদামসহ উঠতি ফসল নষ্ট হওয়ায় ক্ষতিগ্রস্ত
হয়েছে কৃষকেরা।

এদিকে, কাজ না থাকায় বেকার হয়ে পড়েছেন বন্যা কবলিত এলাকার শ্রমজীবীরা।
পরিবার-পরিজন নিয়ে অনাহারে দিন কাটাচ্ছেন অনেকেই। বন্যা কবলিত এলাকায়
এখনো শুরু হয়নি সরকারি বা বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের ত্রাণ বিতরণ।

জেলা ত্রাণ কর্মকর্তা আকতারুজ্জামান জানান, বন্যার্তদের জন্য  ৯১১
মেট্রিক টন চাল, নগদ ২০ লাখ টাকা এবং ৪ হাজার প্যাকেট শুকনো খাবার বরাদ্দ
পাওয়া গেছে। এগুলো বিতরণের জন্য স্ব-স্ব এলাকার উপজেলা নির্বাহী
কর্মকর্তাদের কাছ ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা চাওয়া হয়েছে। তালিকা অনুযায়ী
বিতরণ করা হবে বলে তিনি জানান।

সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী শফিকুল ইসলাম জানান,
যমুনা পানি ২৪ ঘন্টা বৃদ্ধি অব্যাহত থাকবে। এরপর পানি কমবে। এখনো বন্যার
আশংকাজনক পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়নি। এদিকে, যমুনায় পানি বৃদ্ধির ফলে জেলার চৌহালী, কাজীপুর, এনায়েতপুর ও
শাহজাদপুরের চরাঞ্চলে দেখা দিয়েছে তীব্র নদী ভাঙন। ভাঙন এলাকায় জিও ব্যাগ
ফেলে ভাঙন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। তবে বন্যায়

ভাঙন রোধসহ সকল পরিস্থিতি মোকাবেলায় প্রস্তুত রয়েছে তারা।

আরও খবর