Logo
শিরোনাম

ছোট ও মাঝারি গরুর দাম বেশি

প্রকাশিত:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ |
Image

কোরবানি ঈদকে সামনে রেখে পশুর হাট জমে উঠছে। ইতোমধ্যেই জেলার হাটগুলোতে পশু আসতে শুরু করেছে। জেলার কালিয়া কান্দাপাড়া, তালগাছী, রতনকান্দি, কামারখন্দ, এনায়েতপুর, সলঙ্গা, জনতার হাট, গ্যাস লাইন, শমেশপুর সহ বড় বড় হাটগুলোতে ঢাকা-চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে পাইকার আসতে শুরু করেছে।

করোনাকালীন গত দুই বছরের তুলনায় এবছর গবাদি পশুর দাম ভালো পাবেন বলে আশা করছেন খামারিরা। তবে এখনো স্থানীয় কোরবানিদাতারা পশু কিনতে নামেননি। তারা হাটে আসতে শুরু করলে দাম আরো কিছুটা বাড়তে পারে বলে খামারিরা আশা প্রকাশ করেন।

কয়েকজন খামারি জানান, দেশের বাইরে থেকে গবাদি পশু না এলে এবছর তারা ভালো লাভের আশা করছেন। গত কয়েক দিনে বিভিন্ন হাট ও ক্রেতা বিক্রেতা সূত্রে জানা গেছে, বড় গরুর তুলনায় ছোট ও মাঝারি গরুর দাম তুলনামূলক বেশি। বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) কালিয়া কান্দাপাড়া হাটে গরু কিনতে আসা ফরিদুল ইসলাম জানান, ৭০ হাজার টাকায় গরু কেনা হয়েছে। এবারে গরুর দাম একটু বেশি। তার দাবি, বাইরের গরু না আসায় গরুর ভালো চাহিদা রয়েছে। তবে বড় আকারের তুলনায় মাঝারি ও ছোট সাইজের গরুর দাম বেশি।

জেলা পশু সম্পদ অফিস সূত্র জানায়, এবছর জেলায় কোরবানির জন্য পশুর চাহিদা রয়েছে ২ লাখ ৫০ হাজার। সে তুলনায় প্রস্তুত রাখা হয়েছে ৩ লাখ ৯১ হাজার পশু। সেক্ষেত্রে জেলার চাহিদা মিটানোর পর বাকি পশু রাজধানীসহ বিভিন্ন জেলায় বিক্রির জন্য পাঠানো হবে।

সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার পাইকপাড়া গ্রামের খামারি বলেন, এবছর তিনি ১২টি গরু মোটাতাজা করেছেন। ইতোমধ্যে হাটেও তুলেছিলেন কয়েকটি, কিন্তু পছন্দমতো দাম না হওয়ায় বিক্রি করেননি। তিনি বলেন, কোরবানির এখনও ৯/১০ দিন বাকি আছে। স্থানীয়রা পশু কেনা শুরু করেনি। তারা হাটে এলে আরো ভালো দাম পাওয়া যাবে।

কালিয়া গ্রামের খামারি ছামাদ জানান, খাবারের দাম বেশি হওয়ায় তার গবাদি পশু মোটাতাজা করতে খরচ বেশি পড়েছে। সরকারিভাবে যদি খামারিদের মধ্যে ন্যায্যমূল্যে খাবার সরবরাহ করা হতো তাহলে তারা আরো লাভবান হতে পারতেন।

জেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ গৌরাঙ্গ কুমার তালুকদার জানান, সিরাজগঞ্জের গো-খামারিরা পশু পালনে সচেতন। এক্ষেত্রে কোনো প্রকার ওষুধ ব্যবহার না করে তারা প্রাকৃতিক উপায়ে পশু মোটাতাজা করছেন। এ ব্যাপারে প্রাণী সম্পদ অফিস থেকে খামারিদের প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে। নিয়মিত মনিটরিং করা হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, সরকারি উদ্যোগে বিভিন্ন ব্যবস্থা নেওয়ায় খামারিরা এখন অনেক সচেতন এবং প্রাকৃতিক পদ্ধতিতেই পশু মোটাতাজা করে লাভবান হচ্ছেন।


আরও খবর

আকাশ ছুঁলো কাঁচা মরিচের দাম

শনিবার ০৬ আগস্ট ২০২২




ফের পেছালো পরীমণির সাক্ষ্যগ্রহণের তারিখ

প্রকাশিত:সোমবার ০১ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২ |
Image

মাতৃত্বজনিত কারণে আদালতে হাজির হতে না পারায় পরীমণির মালমায় ব্যবসায়ী নাসির উদ্দিন মাহমুদসহ তিন আসামির সাক্ষ্যগ্রহণ পেছানো হয়েছে।

সোমবার (১ আগস্ট) ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৯ এর বিচারক মোহাম্মদ হেমায়েত উদ্দিন আগামী ২৯ নভেম্বর সাক্ষ্যগ্রহণের পরবর্তী তারিখ ধার্য করেন।

পরীমণির আইনজীবী নীলাঞ্জনা রিফাত (সুরভী) গণমাধ্যমকে জানান, মাতৃত্বজনিত কারণে পরীমণি আদালতে হাজির হতে পারেননি। তাই সাক্ষ্যগ্রহণ পেছানোর আবেদন করলে আদালত ২৯ নভেম্বর পরবর্তী তারিখ ধার্য করেন।

২০২১ সালের ১৪ জুন সাভার থানায় ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগে ব্যবসায়ী নাসির উদ্দিনসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন পরীমণি। ওইদিনই নাসির উদ্দিনসহ পাঁচজনকে আটক করে ডিবি পুলিশ। পরে গত ৬ সেপ্টেম্বর নাসির উদ্দিন মাহমুদ, তুহিন সিদ্দিকী অমি এবং শহিদুল আলমকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট দাখিল করেন তদন্ত কর্মকর্তা।

এরপর চলতি বছরের ১৮ মে একই আদালত আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের মাধ্যমে বিচার শুরুর আদেশ দেন।


আরও খবর

বিয়ে করছেন রিচা-ফজল

মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২

গুঞ্জন উড়িয়ে দিলেন আলিয়া!

বুধবার ০৩ আগস্ট ২০২২




ফুলবাড়িতে অবৈধভাবে সার মজুদ রাখার অপরাধে

ভ্রাম্যমান আদালত কর্তৃক নগদ অর্থ জরিমানা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৪ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ |
Image

উত্তম কুমার মোহন্ত, ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম) 

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে,কৃত্রিম সংকট তৈরির লক্ষ্যে অবৈধভাবে সার মজুদ রাখার অপরাধে এক সার ব্যবসায়ীর গুদামঘর ও বসতবাড়িতে তল্লাশি করে ২৯৯ বস্তা রাসায়নিক সার উদ্ধার করে দাম বৃদ্ধির হওয়ার আগের দামে জনগনের মাঝে বিক্রি করেছে ভ্রাম্যমান আদালত,এবংওই ব্যবসায়ীর নগদ ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করে

৩ (আগষ্ট)বুধবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জনাব সুমন দাস এর নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযানকালে বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে ফুলবাড়ী সদর ইউনিয়নের চন্দ্রখানা পুলের পাড় বাজারে আকাশ ফার্টিলাইজারের  সত্বাধিকারী মিজানুর রহমান এর গুদামঘর ও বসত বাড়িতে অভিযান চালিয়ে গুদামঘর থেকে অবৈধ ভাবে আমদানি করা ৫০ বস্তা টিএসসি ৫২ বস্তা ডিএপি, বিএডিসির কাগজ পত্র বিহীন ৫৫ বস্তা ডিএপি ও ৫২বস্তা এমওপি সার উদ্ধার করে। পরে বসতবাড়িতে অভিমান চালিয়ে শয়নকক্ষ থেকে দাম বৃদ্ধির আগের দামে কেনা ৯০ বস্তা ইউরিয়া সার উদ্ধার করে উদ্ধারকৃত সারের আনুমানিক মূল্য ২ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা।ভ্রাম্যমাণ আদালত চলা কালে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা নিলুফা ইয়াসমিন,উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা ও পুলিশ সদস্য গণ।

এ প্রসঙ্গে ফুলবাড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জনাব সুমন দাস জানান উদ্ধারকৃত সার গুলো দাম বৃদ্ধির পূর্বমুল্যে জনগণের নিকট বিক্রিকরা হয়েছে।এছাড়া ওই দোকানে মেয়াদ উত্তীর্ণ সার ও কীটনাশক ঔষধ রাখার অপরাধে ২০০৯ সালের ভোক্তা অধিকার আইনের ৫১ধারায় ওই ব্যবসায়ীর নগদ ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। 


আরও খবর



বঙ্গবন্ধু রেল জাদুঘরের যাত্রা শুরু

প্রকাশিত:রবিবার ৩১ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২ |
Image

রোকসানা মনোয়ার :  জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ, অধিকার আদায়ে আন্দোলন, সংগ্রাম এবং তার অসামান্য কর্মজীবন প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে দেশে প্রথমবারের মতো প্রতিষ্ঠা হলো ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ভ্রাম্যমাণ রেল জাদুঘর।

বাংলাদেশ রেলওয়ের উদ্যোগে একটি মিটারগেজ ও একটি ব্রডগেজ রেল কোচের ভেতরে গড়ে তোলা ভ্রাম্যমাণ জাদুঘরটি গত ২৭ এপ্রিল উদ্বোধন করেন বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। যা এখন চালুর অপেক্ষায়। সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, এরই মধ্যে ঢাকা থেকে জয়দেবপুর পর্যন্ত রেল জাদুঘরটি ট্রায়াল সম্পন্ন করা হয়েছে। আগামীকাল ১ আগস্ট থেকে এটি আনুষ্ঠানিকভাবে চালু হচ্ছে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী এবং স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষ্যে রেলের বগিতে ভ্রাম্যমাণ জাদুঘরটি নির্মাণ করেছে রেলপথ মন্ত্রণালয়। একটি মিটারগেজ ও একটি ব্রডগেজ কোচে একই জাদুঘর গড়ে তোলা হয়েছে। জাদুঘর দুইটিতে বঙ্গবন্ধুর জীবনের ওপর নির্মিত তথ্যবহুল ও মনোমুগ্ধকর বারোটি চিত্র ও দুর্লভ আলোকচিত্রের সমন্বয়ে সাজানো হয়েছে।

কোচের একপাশের দেয়ালের ছয়টি ভাগে রাখা হয়েছে কিংবদন্তির প্রথম প্রহর, ধ্রুব তারার প্রথম কিরণ, নক্ষত্র হওয়ার পথে, বাংলার মাটি ও ভাষার বঙ্গবন্ধু, ধূমকেতু থেকে নক্ষত্র, মুক্তির স্বপ্নের সূচনা শিরোনামে বঙ্গবন্ধুর জীবনচরিত। এখানে তুলে ধরা হয়েছে বঙ্গবন্ধুর শৈশব থেকে পর্যায়ক্রমে তার ছাত্রজীবন, রাজনীতিতে হাতেখড়ি, মানুষের অধিকার আদায়ের সংগ্রামে নিজের জীবনকে উৎসর্গ করার মাধ্যমে গণমানুষের প্রাণের নেতা হয়ে ওঠার ইতিহাস।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ভ্রাম্যমাণ রেল জাদুঘরে আরও রয়েছে, বায়ান্নর ভাষা আন্দোলনের অন্যতম সংগঠক, অধিকার আদায়ের সংগ্রামে অবর্ননীয় নির্যাতন, চুয়ান্নর যুক্তফ্রন্ট, মিথ্যা মামলা ও কারাভোগ, স্বাধীন বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা হিসেবে তৎকালীন পাকিস্তান সরকারের বিরুদ্ধে আপসহীন সংগ্রামের ইতিহাস। আরেক পাশের দেয়ালে থাকা ছয় ভাগে রয়েছে, দুর্বার পথচলা, নিপীড়িতদের কান্ডারি, এক নতুন স্বাধীন বাংলাদেশের স্বপ্ন, মুক্তি, সংগ্রাম ও স্বাধীনতার কথা, স্বপ্নগড়ার দিনগুলো, যে আলো নেভেনি আজও এমন শিরোনামে শিল্প প্রদর্শনী। এতে বাঙালি জাতির মুক্তির সনদ ৬৬ এর ঐতিহাসিক ছয় দফা, ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থান ও জাতির গৌরবোজ্জ্বল, একাত্তরে মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে কাঙ্ক্ষিত স্বাধীনতা অজনের প্রধান নায়ক হিসেবে বঙ্গবন্ধুর অবদান দর্শকদের চোখের সামনে জীবন্ত হয়ে উঠবে। দেখার সঙ্গে সঙ্গে যেন দর্শকরা ভালোভাবে শুনতে পারেন সেজন্য রাখা হয়েছে হেডফোনের ব্যবস্থা। কোচের এক প্রান্তে রাখা একটি বড় এলইডিতে রাখা হয়েছে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন দেশে দেওয়া বঙ্গবন্ধুর বক্তব্য ও সাত মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ।

শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত জাদুঘরটিতে আরও রাখা হয়েছে জয়বাংলা স্লোগানের আদলে তৈরি করা একটি বুক শেলফ। সেখানে প্রায় একশ বই রয়েছে। বইগুলোর মধ্যে শিশুদের জন্য বঙ্গবন্ধুর রচিত বিভিন্ন শিশুতোষ বই। ‘যাদু মনি’ সম্বোধন করে মেয়ে হাসুকে নিয়ে লেখা বঙ্গবন্ধুর চিঠিসহ মোট ছয়টি চিঠি রাখা হয়েছে। যা বঙ্গবন্ধুকে আরও গভীরভাবে বুঝতে সাহায্য করবে দর্শনার্থীদের। দর্শকদের নজর কাড়ার জন্য ভেতরেই তৈরি করা হয়েছে কৃত্রিম ফুলের বাগান। আরও রয়েছে জাতির পিতার ব্যবহৃত পোশাক ও জিনিষপত্রের প্রতিকৃতি। রয়েছে বঙ্গবন্ধুর সমাধিস্থল, স্মৃতিসৌধ, তার হাতে লেখা চিঠি। জাদুঘরটি রয়েছে একটি ডিসপ্লে, যেখানে বঙ্গবন্ধুর জীবনের নানা সময়ের ভিডিও চিত্র প্রদর্শিত হচ্ছে। এর পেছনে বেজে চলে ‘তুমি ইতিহাস জুড়ে সর্বশ্রেষ্ঠ মহানায়ক এই বাংলার তুমি শোষকের যম শোষিতের দম স্রষ্টা স্বাধীনতার।

রেলওয়ে কর্মকর্তা মো. মঞ্জুর উল আলম চৌধুরীর লেখা গানটি জাদুঘরে থিম সং হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে। আর কোচ দুটির বাইরের অংশে বায়ান্নর ভাষা আন্দোলন থেকে একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধ পর্যন্ত ধারাবাহিক সংগ্রামের ওপর শিল্পীর আঁকা রঙিন ম্যুরাল চিত্র। গত ২৭ এপ্রিল বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই ভ্রাম্যমাণ রেল জাদুঘরের উদ্বোধন করেন। এখন আসছে ১ আগস্ট থেকে সাধারণ জনগণের জন্য খুলে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।



আরও খবর

আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস

মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২




শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বিদ্যুৎ সাশ্রয়ে আট নির্দেশনা

প্রকাশিত:বুধবার ০৩ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২ |
Image

জ্বালানি ও বিদ্যুৎ সাশ্রয়ে সকল শিক্ষা বোর্ডের আওতাধীন সব স্তরের শিক্ষা প্রতিষ্টানকে ৮টি নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার (২ আগস্ট) এসব নির্দেশনা দিয়ে শিক্ষা বোর্ডের ওয়েবসাইটে বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়েছে।

৮ নির্দেশনা হলো—

১. শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ যন্ত্রের তাপমাত্রা ২৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের উপরে রাখা।

২. স-শরীরে উপস্থিতি পরিহার করে যতদূর সম্ভব সভা/অনুষ্ঠান অনলাইনে/ভার্চুয়ালি করা।

৩. গাড়ির জ্বালানি সংক্রান্ত মাসিক প্রাপ্যতা বিদ্যমান সীমা হতে ২০ শতাংশ হ্রাস করা।

৪. এ (কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা) বিভাগ এবং অধীনস্থ অধিদপ্তর/দপ্তর/সংস্থা/শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহকে ২৫ শতাংশ বিদ্যুৎ ব্যবহার কমানো।

৫. বিদ্যুতের অপচয় রোধে বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী সরঞ্জাম ব্যবহার করা।

৬. দিনের বেলায় জানালার পর্দা সরিয়ে রেখে সূর্যের আলোর সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করা।

৭. পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত এ বিভাগের অধীন সব দপ্তর/সংস্থা/শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আলোকসজ্জা বন্ধ রাখা।

৮. জ্বালানি সাশ্রয়ী একটি প্রতিবেদন প্রতি মাসের ১ম সপ্তাহে এ বিভাগে পাঠানো।

জ্বালানি ও বিদ্যুৎ সাশ্রয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সংশ্লিষ্ট নির্দেশনাগুলো যথাযথভাবে পালনের জন্য মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের আওতাধীন সব স্তরের অধ্যক্ষ, সুপার, শিক্ষক, কর্মচারী ও পরিচালনা কমিটিকে অনুরোধ করা হয়েছে।


আরও খবর

আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস

মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২




সোনারগাঁয়ে বিয়ের দাবিতে অনশন করা এক নারীকে পিটিয়ে হত্যা

প্রকাশিত:সোমবার ১৮ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ |
Image

সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ)  প্রতিনিধিঃ

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে বিয়ের দাবিতে বাড়িতে অবস্থান নেওয়া স্বামী পরিত্যক্তা এক নারীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে পরকীয়া প্রেমিক ও তার স্বজনদের বিরুদ্ধে। গতকাল সোমবার দুপুরে উপজেলার সাদিপুর ইউনিয়নের হিনানপুর দেওয়ান বাড়ি গ্রামের মনিরের বাড়িতে ওই নারীকে পিটিয়ে মারাক্তকভাবে আহত করার পর ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে সে মারা যায়। নিহতের নাম রোকসানা আক্তার (৩৮)। পরে লাশ ঢামেকে রেখেই পরকীয়া প্রেমিক মনির হোসেন, তার স্ত্রী ও ছেলে রানা মোবাইল ফোন বন্ধ করে আত্মগোপনে চলে যায়। নিহত ওই নারীর লাশ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফাঁড়ি ইনচার্জ বাচ্চু মিয়া। এ ঘটনায় সোনারগাঁ থানায় হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। এর আগে পিটিয়ে আহত করার ঘটনায় নিহতের মা শাফিয়া বেগম বাদি হয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

তালতলা ফাঁড়ি পুলিশের উপ-পরিদর্শক(এসআই) মো. রাজু আহম্মেদ জানান, উপজেলার সাদিপুর ইউনিয়নের হিনানপুর দেওয়ান বাড়ি গ্রামের মৃত রাজু মিয়ার ছেলে মনির হোসেনের সঙ্গে বাইশটেকি গ্রামে মৃত মনু মিয়ার মেয়ে স্বামী পরিত্যক্তা রোকসানা আক্তারের পরকিয়া প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। দীর্ঘদিন ধরে এ পরকিয়া সম্পর্কে বিয়ের প্রলোভনে একাধিকবার উভয়ের মধ্যে শারিরিক সম্পর্ক গড়ে উঠে। এবিষয়টি উভয়ের পরিবারসহ এলাকার লোকজন অবগত রয়েছেন। গতকাল সোমবার ভোরে প্রেমিক মনিরের বাড়িতে বিয়ের দাবিতে অবস্থান নেয় রোকসানা । এসময় মনিরের বাড়ির লোকজন তাকে একাধিকবার বাড়ির বাইরে টেনে হেচড়ে বের করে দেয়। রোকসানার তার অবস্থানে অনড় থাকায় দুপরে মনির হোসেন, তার ভাই গোলজার, খোকন ওরফে খোকা, ছেলে রানা, মনিরের স্ত্রীসহ ৭-৮জনের একটি দল লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে মারাক্তকভাবে রক্তাক্ত করে আহত করে। মূমূর্ষ অবস্থায় রোকসানাকে মনির হোসেন, তার ছেলে রানা ও মনিরের স্ত্রী ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে নিয়ে যায়। পথে রোকসানার মৃত্যু হয়। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর জরুরি বিভাগের চিকিৎসক রোকসানাকে মৃত ঘোষনা করে। এ খবর পেয়ে মনির হোসেন ও তার পরিবারের লোকজন লাশ রেখেই মোবাইল বন্ধ করে হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যায়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দক্ষিণ বাইশটেকি গ্রামের একাধিক নারী পুরুষ জানিয়েছেন, মনির হোসেনের বাড়ির লোকজনের একাধিক বিয়ের রেওয়াজ রয়েছে। সকাল থেকে অবস্থান নেওয়া ওই নারীকে মনির হোসেন ও তার বাড়ির লোকজন একাধিকবার পিটিয়েছে। মূমূর্ষ অবস্থায় ঢাকা নিয়ে গেছে। পরে জানতে পারলাম সে মারা গেছে।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফাঁড়ি ইনচার্জ বাচ্চু মিয়া জানান, রোকসানা নামের এক নারীর লাশ মর্গে রাখা হয়েছে। যারা এ নারীকে হাসাপাতালে নিয়ে এসেছে তারা মৃত্যুর সংবাদ পাওয়ার পর হাসপাতাল থেকে পালিয়ে গেছে।

সোনারগাঁও থানার ওসি মোহাম্মদ হাফিজুর রহমান  জানান, এক নারীকে পিটিয়ে আহত করার ঘটনায় একটি অভিযোগ গ্রহন করা হয়েছে। ওই নারীর মৃত্যু হওয়ার কারনে মামলাটি হত্যা মামলায় রূপান্তর হবে। হত্যার খবর শুনেছি। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।


আরও খবর