Logo
শিরোনাম
মেঘনা নদীতে গোসল করার সময় নিখোঁজ ছাত্রের মরদেহ উদ্ধার রাজবাড়ীতে ট্রাকের সাথে সংঘর্ষে মোটর সাইকেল আরোহীর মৃত্যু রাজবাড়ীতে আবৃত্তি ও কথামালায় প্রকাশনা উৎসব নওগাঁয় মোটরসাইকেলের ধাক্কায় স্কুল ছাত্র নিহত-মা ও ছোট বোন আহত মোরেলগঞ্জে শ্রমীকদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করলেন এমপি মিলন লালমনিরহাটে বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে মারাগেছে স্কুলছাত্র নওগাঁয় বোরো ধান চাষের শুরুতেই বিদ্যুতের লোড শেডিং, দুঃশ্চিন্তায় কৃষকরা নওগাঁয় ৩৫ কোটি টাকা মূল্যের কষ্টিপাথরের মূর্তি উদ্ধার করেছে পুলিশ কুড়িগ্রামের শীতকাতর অসহায় মানুষের পাশে কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেত্রকোনায় বিশ্ব জলাভূমি দিবস উপলক্ষে মানববন্ধন
বহুল পরিচিত পাঁচ তরিকার বিবরণ

চিশতিয়া তরিকা

প্রকাশিত:Friday ০৭ October ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

মাজহারুল ইসলাম মাসুম , সিনিয়র সাংবাদিক, লেখক ও গবেষক :

চিশতিয়া তরিকার প্রতিষ্ঠাতা ইমাম সুলতানুল হিন্দ খাজায়ে খাজেগান গরীবে নেওয়াজ হযরত খাজা মঈন উদ্দীন হাসান চিশতী সানজরী রহ.। কাদেরিয়া ও চিশতিয়া এই উভয় তরিকারই উদ্ভব ঘটিয়াছে হযরত আলী রা. হইতে। চিশতিয়া তরিকার শাজারা অনুযায়ী রাসূলুল্লাহ সা. হইতে শুরু করিয়া হযরত আলী রা. হইতে হযরত খাজা মঈন উদ্দীন চিশতী রহ. খেলাফত প্রাপ্তির সপ্তদশ খলিফা।

হযরত খাজা মঈন উদ্দীন চিশতী রহ. শরিয়তের সকল বিধি নিষেধ পালনের প্রতি সর্বদা সজাগ থাকিতেন। প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষ কোন ভাবেই শরিয়তের কোন ব্যত্যয় তিনি সহ্য করিতেন না। তিনি ভক্ত-অনুসারীদিগকে শরিয়তে পাবন্দ থাকিবার জন্য কঠোর নির্দেশ দিতেন। এমন কি চিশতিয়া তরিকার অনুসারীগণ যেন কখনও শরিয়তের বরখেলাপ না করিতে পারে, সেই জন্য আহলে চিশতের পরিপালনীয় একটি অজিফা রচনা করিয়া হযরত খাজা কুতুব উদ্দীন বখতিয়ার কাকী রহ.কে প্রদান করিয়াছিলেন; যাহা হযরত কাকী রহ.-এর স্ব-রচিত দলিলুল আরেফীনগ্রন্থের অষ্টম অধ্যায়ে বিধৃত হইয়াছে।

আহলে চিশতের জন্য প্রদত্ত এই অজিফা দান কালে তিনি বলেন, “বুজুর্গানে দ্বীন হইতে আমি যে অজিফা লাভ করিয়াছি, তাহা পালনে সুদৃঢ় রহিয়াছি। মনে রাখিও, রাসূল সা. বলিয়াছেন: তারিকুল বিরদি মালউন অর্থাৎ অজিফা ত্যাগকারী অভিশপ্ত।

একই ভাবে তিনি তাহাদিগকে সূফী দর্শনের গূঢ় রহস্য পূর্ণ বিষয় গুলি সম্পর্কেও দীক্ষা প্রদান করিতেন। চিশতিয়া তরিকায় নিজকে জানিবার বা দেহ তত্ত্বের তালিম গ্রহণের বিশেষ গুরুত্ব রহিয়াছে। এই তালিমের চূড়ান্ত পর্য্যায়ে উন্নীত না হওয়া পর্য্যন্ত কেহ এই তরিকায় কামালিয়ত অর্জন করিতে পারে না বা তাহার পক্ষে সূফী-দরবেশ পর্য্যায়ে পৌঁছানো সম্ভব হয় না। দেহ তত্ত্বের প্রধান সাধনা হইল আনাসির-এ-খামসা বা পঞ্চভূত (পঞ্চ উপাদান)। এই সাধনার গুরু হযরত মুহাম্মদ সা.। তাঁহার নিকট হইতে হযরত আলী রা., হযরত আলী রা. হইতে হযরত হাসান বসরী রহ. এই তালিম লাভ করেন। সিনা-ব-সিনা চলিয়া আসা এই তালিম হযরত ওসমান হারুনী রহ.ও লাভ করেন। এই তালিম গুলি লিপিবদ্ধ ছিল না। হযরত খাজা মঈন উদ্দীন চিশতী রহ. তালিম গুলি সু-শৃঙ্খল ভাবে সাজাইয়া গুছাইয়া লিপিবদ্ধ করেন।

চিশতিয়া তরিকা মতে আব, আতশ, খাক, বাদ ও নূর যথাক্রমে পানি, আগুন, মাটি, বায়ু এবং নূরকে আনাসির-এ-খামসা বা পঞ্চ উপাদান নামে অভিহিত করা হয়। সমুদয় সৃষ্টি জগতের মূল উৎস এই পঞ্চ উপাদান। সমুদয় জড় বস্তু ও প্রাণী দেহে আনাসিরে আরবায়াবা চার উপাদান যেমন পানি, আগুন, মাটি ও বায়ুর সংমিশ্রণ ঘটিয়াছে। আর চার উপাদানের মূলে রহিয়াছে নূর বা এক জ্যোতির্ম্ময় সত্তা। প্রত্যেক উপাদানে রহিয়াছে পাঁচটি গুণ বা সিফাত।

উহা আবার তিন শ্রেণীতে বিভক্ত। যথা:

১. আহাদিয়াত : এই স্তরে মহিমান্বিত আল্লাহ আপনাতেই বিদ্যমান এবং অতি সূক্ষ্মাতি সূক্ষ্ম দরিয়া রূপে রহিয়াছেন। এই পর্য্যায়ে তিনি একক ও অদ্বৈত।

২. ওয়াহিদাত : এই স্তরে তিনি তাঁহার ইরাদা বা আকাক্সক্ষা বা এশক (প্রেম) হইতে নূরে মুহাম্মদী সা. সৃষ্টি করেন।

৩. ওয়াহেদিয়াত : এই স্তরে নূরে মুহাম্মদী সা. হইতে তিনি নিজেকে বিশ্ব চরাচর সৃষ্টির সঙ্গে আহমদরূপে প্রকাশ করেন। এই কারণেই কুরআনের পূর্বে সকল ধর্ম্ম গ্রন্থে হযরত মুহাম্মদ সা.কে আহমদউল্লেখ করা হইয়াছে।

হযরত সুরেশ্বরী রহ. তাঁহার রচিত আধ্যাত্মিক ঊর্দু গ্রন্থ সিররেহক্ক জামেনূর”- লেখকের ভূমিকায় লিখেছেন আহাদএবং আহমাদএর মধ্যে মীমএর পার্থক্য কেবল হামদ্ ও নাতের জন্য।
জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের কাব্য পংক্তিতে সেই সুরই ধ্বনিত হইয়াছে এই ভাবে

আহমদের ঐ মীমের পর্দা উঠিয়ে দেখ মন
আহাদ সেথায় বিরাজ করে হেরে গুণীজন ॥

যে চিনতে পারে রয় না ঘরে হয় সে উদাসী
সে সকল ত্যাজি ভজে শুধু নবীজীর চরণ ॥

এই তালিমকে মান আরাফা নাফসাহুএর তালিমও বলা হয়। এই তালিম রপ্ত না করা পর্যন্ত কেহই প্রকৃত সূফী বা চিশতিয়া তরিকার পীর হইবার যোগ্য নহে।

চিশতিয়া তরিকায় সামা প্রচলিত রহিয়াছে। মাঝে মাঝে এই তরিকা পন্থীগণ সামার অনুষ্ঠান করেন। ইহাতে তাহারা জজবার হালতে পৌঁছেন। সামার দ্বারা আল্লাহর প্রেম বর্ধিত হয়। তাই চিশতিয়া তরিকার মাশায়েখগণ সামাকে রুহানী গেজা বা আত্মার খোরাকবলেন।

একই ভাবে চিশতিয়া তরিকায়ও কালেমা তাইয়্যেবা লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহযথা : লাম, আলিফ, আলিফ, লাম, হা, আলিফ, লাম, আলিফ, আলিফ, লাম, লাম, হা নোক্তা বিহীন এই বারোটি বর্ণের খাস তালিমের বিধান রহিয়াছে। এই তরিকার প্রধান দুইটি উপ তরিকা হইল: প্রধান খলিফা সুলতানুল মাশায়েখ হযরত নিজাম উদ্দিন রা.-এর নামানুসারে নিজামিয়াও অন্যতম খলিফা হযরত মখদুম আলী কালিয়ারী রা.-এর নামানুসারে সাবেরিয়াপৃথিবীতে অদ্যাবধি রহিয়াছে।


আরও খবর



বান্দরবানে জঙ্গি আস্তানায় অভিযান, ৫ জঙ্গি আটক

প্রকাশিত:Wednesday ১৮ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Thursday ০২ February 2০২3 |
Image

রোকসানা মনোয়ার :বান্দরবানের পাহাড়ে নতুন জঙ্গি সংগঠন ‘জামাতুল আনসার ফিল হিন্দাল শারক্বীয়া’র আস্তানায় একাধিক অভিযান চালালেও শীর্ষ নেতাদের গ্রেপ্তার করা যায়নি। সেখানে নানারকম প্রশিক্ষণ চললেও তাদের লক্ষ্য সম্পর্কে স্পষ্ট কোনো তথ্য পায়নি র‌্যাব । তবে, বান্দরবান ক্যাম্পের অভিযানে আটক পাঁচজনের কাছে মিলেছে নিখোঁজ ৫৫ ব্যক্তির তথ্য।

গেল বৃহস্পতিবার বান্দরবানের থানচি ও রোয়াংছড়ি উপজেলার দুর্গম পাহাড়ি অঞ্চলে র্যাবের অভিযানে গ্রেপ্তার জামাতুল আনসার ফিল হিন্দাল শারক্বীয়ার ৫ সদস্যকে ছয় দিনের রিমান্ড দেয় রাঙ্গামাটি আদালত।এই রিমান্ডে তারা ঐ নব্য জঙ্গি সংগঠন সম্পর্কে নানা তথ্য দিয়েছে বলে জানায় র‌্যাব।

তারা জানিয়েছে, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর চোখ ফাকিঁ দিয়ে নতুনভাবে জঙ্গীবাদকে সংগঠিত করতে চেয়েছিল নতুন এই সংগঠনটি। তবে তাদের লক্ষ্য সম্পর্কে স্পষ্ট তথ্য পায়নি র‌্যাব ।

এদিকে এখন পর্যন্ত র্যা বের হাতে দেশব্যপী নিখোঁজ তালিকার ৫৫ জনের মধ্যে ৭ জন গ্রেফতার আছে, মারা গেছে ২ জন। কেএনএফের প্রশিক্ষণদাতা ১৪ জন এবং নতুন জঙ্গী সংগঠনটির মোট ৩৫ জনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। তবে এখনো ধরা পড়েনি কোন সর্বোচ্চ নেতা।

পার্বত্য জেলা বান্দরবানের রুমা, রোয়াংছড়ি, থানচি এবং রাঙামাটির বিলাইছড়ি সীমান্তবর্তী পাহাড়ের গহীন অরণ্যে অর্থের বিনিময়ে এই জঙ্গীদের প্রশিক্ষণ দেয়া ‘কুকি-চিন ন্যাশনাল ফ্রন্ট’ (কেএনএফ)-এর সর্বোচ্চ পর্যায়ের নেতাদেরও এখনো ধরা যায়নি।


আরও খবর



টেকনাফ-সেন্টমার্টিন রুটে আবার চালু

প্রকাশিত:Friday ১৩ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

আজ থেকে আবারো শুরু হলো টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌপথে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল । 

বৃহস্পতিবার রাতে বিষয়টি নিশ্চিত করে টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কামরুজ্জামান জানান, শুক্রবার সকাল থেকে এ নৌপথে আবারো জাহাজ চলাচলের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। প্রথম দিন পর্যটকবাহী জাহাজ এম ভি পারিজাত ও এম ভি রাজহংস যাত্রা করবে। এদিকে কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের এডিএম আবু সুফিয়ান জানান, প্রথম দিন দুটি জাহাজ চলাচল করলেও পর্যায়ক্রমে অন্য সাতটি জাহাজও চলবে। গত বছরের মার্চ হতে টেকনাফ সেন্টমার্টিন রুটে জাহাজ চলাচল বন্ধ ছিল।


আরও খবর



শীতে কাবু উত্তরের জনপথ, ঘনকুয়াশায় বিপাকে কর্মজীবি মানুষজন

প্রকাশিত:Thursday ১৯ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

নিজস্ব প্রতিনিধি :

হিমেল হাওয়া আর ঘনকুয়াশার  দরুন কাবু উত্তরের জনপথ, খড়কুটোর আগুনে শরীর গরম রাখার চেষ্টা কর্মজীবি ও পেশাজীবি মানুষজন। বিকেল থেকে শুরু করে সকাল ৮ টা পর্যন্ত ঘনকুয়াশা ও হিমেল হাওয়ায় অনেকে অতী প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের হচ্ছেনা। রাতের বেলা ফুটপাতে গরম কাপড় কিনতে ভীর জমাচ্ছেন অনেকে।  টানা ৭দিনপর লালমনিরহাটের আকাশে দেখা দিয়েছে নিরুত্তাপ সূর্যের আলো।   গত কয়েকদিনের চেয়ে মাত্র ৩ পয়েন্ট তাপামাত্রা বৃদ্ধি পেয়ে আজ ৮ডিগ্রী সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে। বৃষ্টির সম্ভাবনা না থাকেলও আরও কয়েকনি থাকতে পারে মেঘলা আকাশ সহ এমন কনকনে শতি। কর্মজীবি, রিক্সাওয়ালারা জানান,সড়কে লোকজন না থাকায় তারা যাত্রী না পাওয়ায় বিপাকে পরেছেন। হাসাপাতল গুলোতে শিশুসেহ নানান বয়সী রোগিদের উপচে পরা ভীর লক্ষ্যকরা গেছে। চিকিৎসক শঙ্কট থাকায় হিমসিম খাচ্ছে ডাক্তাররা ।   

কথায় আছে,মাঘের শীতে কাবু হয়েছে পড়েছে উত্তরের জনপদ পঞ্চগড়সহ পার্শবর্তী কয়েকটি জেলার জনজীবন। টানা চার দিন ধরে বয়ে যাওয়া মৃদু শৈত্যপ্রবাহে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন এসব এলাকার নিম্নআয়ের মানুষেরা। আজ লালমনিরহাটে ৮ ডিগ্রী সেলসিয়াস তাপামাত্রা রেকর্ড করা হলেও পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় সর্ব নিম্ন ৬ দশমিক ৮ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়। এনিয়ে টানা ৭ দিন সবনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে। তবে আগের তুলনায় গতকাল কুয়াশার দাপট ছিলো কিছুটা কম। এদিকে আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে চলমান মৃদু শৈত্য প্রবাহ থাকবে আরও দুই-একদিন।

লালমনিরহাট,কুড়িগ্রাম,তেতুলিয়া উপজেলায় কয়েক দিন থেকে উত্তরের হিমেল বাতাস ও ঘন কুয়াশায় শীতের দাপট বেড়েই চলছে। মাঘের ৫ম দিনেও  কনকনে শীত অনুভূত হচ্ছে। সন্ধ্যা নামার সাথে সাথে উত্তর দিকে থেকে হিমেল হাওয়া বইতে শুরু করে। পাশাপাশি রাত গভীর হওয়ার সাথে সাথে ঘন কুয়াশায় আচ্ছাদিত হয়ে পড়ে পুরো জেলা। তা পর দিন সকাল পর্যন্ত কনকনে শীত ও কুয়াশায় মোড়ানো থাকে। তবে দিনের বেলা সূর্যের আলো পরিলক্ষিত হলেও তেমন সূর্যের উত্তাপ থাকে না। এ মাঘের শীতে মানুষ কাজকর্ম তেমন একটা করতে পারে না। শীতের কারণে সময়মতো কাজে যেতে পারছে না। অন্যদিকে দিন দিন জেলার আধুনিক সদর হাসপাতালসহ বাকি চার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে শীতজনিত রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। বেড়েছে রোগীর চাপ, হিমশিম খেতে হচ্ছে হাসপাতালে কর্তৃপক্ষ।

তবে আবহাওয়া অফিস বলছে, উত্তর দিক থেকে বয়ে আসা হিম বাতাস ও ঘন কুয়াশার কারণে দিনদিন শীতের তাপমাত্রা ওঠানামা করছে এবং শীতের প্রকোপ বৃদ্ধি পাচ্ছে। প্রতি বছর এ জেলায় মৌসুমের প্রথম দিকে শীতের আগমন ঘটে এবং অন্যান্য জেলায় তুলানায় শেষে বিদাই নেয়। পৌষ-মাঘ দুই মাস শীতকাল, ডিসেম্বর মাসের মাঝামাঝি থেকে ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি। মূলত নভেম্বর মাসের ২য় সপ্তাহ থেকে শীতের আগমন ঘটলেও পঞ্চগড়ে অক্টোবর মাসের শেষের দিকেই শীত শুরু হয় যায়।

এদিকে লালমনিরহাট ২৫০ শয্যার অধুনিক সদর হাসপাতালসহ জেলার ৪টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দিনদিন শীতজনিত রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে । প্রতিদিন জ্বর, সর্দি, নিউমোনিয়া, ডায়রিয়াসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছে শিশু ও বয়স্করা। তবে এ রোগে বয়স্কদের চেয়ে শিশুরা আক্রান্ত হচ্ছে। হাসপাতাল ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলোতে চিকিৎসা দিতে হিমশিম খাচ্ছেন চিকিৎসকরা।

অন্যদিকে  লালমনিরহাট জেলায় তেমন কোনো ভারী শিল্প কলকারখানা না থাকায় বেশির ভাগ মানুষ কৃষক,পাথরশ্রমিক হিসাবে কাজ করেন। জেলার মোট জনসংখ্যার একটি বড় অংশ গরিব। যদিও জেলা প্রশাসন বলছে, জেলার ৫ উপজেলার ৪৫টি ইউনিয়নে এ পর্যন্ত সাড়ে ৩৮ হাজার শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে এবং তা অব্যাহত রয়েছে। 

জেলা গণতন্ত্রী পার্টি ধরলা চরাঞ্চলের কিছু সংখ্যক সহ পৌর এলাকায় প্রায় ২শত কম্বল বিতরণ করেছেন। জেলা প্রমাসক মোহাম্মদ উল্ল্যা সহ   তাছাড়াও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান  ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট মতিয়ার রহমান , উপজেলা চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান সুজন ,হাতিবান্ধা উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা মাহমুদুল হাসান সোহাগকেও শীতার্ত মানুষের মাঝে শীত বস্ত্র বিতরণ করতে দেখা গেছে।  

হিমালয়ের পাদদেশে হওয়ায় লালসনিরহাটে প্রতি বছর শীত মৌসুমে বেশি শীত অনুভূত হয়। লালমনিরহাট  জেলা প্রশাসন,পুলিশ বিভাগ ও উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে গরিব, অসহায় ও শীতার্ত মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ শুরু হয়েছে এবং তা অব্যাহত রয়েছে। আমরা চেষ্টা করছি যারা প্রকৃত গরিব, অসহায় ও শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করার।

মৃদু শৈত্য প্রবাহ থাকবে আরও ২/৩দিন।  লালমনিরহাট পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম জানান,আইন শৃঙ্খলা ঠিক রেখে মানবিক কারণে এ জেলার শীতার্ত মানুষদের মাঝে  সাধ্যমতো শীত বস্ত্র বিতরণ চলছে।   

এদিকে আবহাওয়া অফিস সূত্র জানায় দেশের কয়েকটি জেলায় মৃদু চলমান শৈত্য প্রবাহ আরও দুই-একদিন থাকবে।আরও বলেন,লালমনিরহাট ‘দিনাজপুর, পঞ্চগড়, কুড়িগ্রাম, চুয়াডাঙ্গা এবং মৌলভীবাজারে মৃদু/মাঝারি শৈত্য প্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। এই জেলাগুলোতে আরও এক থেকে দুইদিন মৃদু শৈত্য প্রবাহ থাকার সম্ভাবনা রয়েছে।’

আবহাওয়ার তথ্য জানিয়ে আবহাওয়া অফিসের এক কর্মকর্তা বলেন, ‘সারাদেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকবে। একই সঙ্গে মধ্যরাত থেকে ভোর পর্যন্ত নদী অববাহিকা এবং উত্তরাঞ্চলে কুয়াশা থাকার সম্ভাবনা রয়েছে। বড় কোনো পূর্বাভাস আপাতত নেই।’

অন্যদিকে জেলায শীতজনিত রোগে আকান্ত হয়ে কমপক্ষে ১৩ জন শিশু ও ৫ জন বয়স্ক রোগী মারাযাওয়ার খবর পাওয়া গেছে। 

হাওয়া অধিদফতরের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, লালমনিরহাট ,কুড়িগ্রাম এবং পঞ্চগড়ে মৃদু ও মাঝারি শৈত্য প্রবাহ বয়ে যাচ্ছে, যা অব্যাহত থাকবে। এ শৈত্য প্রবাহ রংপুর বিভাগের অন্যান্য এলাকায় এবং রাজশাহী ও খুলনা বিভাগের কিছু কিছু এলাকায় বিস্তার লাভ করবে। সারাদেশে রাতের তাপমাত্রা ১ থেকে ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস কমতে পারে এবং দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে।তবে আপাতত বৃষ্টির কোন শঙ্কা নেই ।


আরও খবর



রাণীনগরে সাবেক এমপির স্ত্রীর দখলে রাখা জমি ফেরতের দাবিতে মানব বন্ধন

প্রকাশিত:Sunday ০৮ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Wednesday ০১ February ২০২৩ |
Image

কাজী আনিছুর রহমান,রাণীনগর (নওগাঁ) :


নওগাঁ-৬,(রাণীনগর-আত্রাই) আসনের সাবেক এমপি মরহুম ইসরাফিল আলমের স্ত্রী সুলতানা পারভিন বিউটির দখলে থাকা জমি ফেরৎ পেতে এবং মামলা হামলা থেকে মুক্তি পেতে মানব বন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে ভুক্তভোগীরা। রোববার দুপুরে উপজেলার কাশিমপুর এলাকায় নওগাঁÑআত্রাই সড়কে এই মানব বন্ধন করা হয়।

বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানব বন্ধনে ভুক্তভোগীরা বলেন, গত ২০১৫ সালে ইসরাফিল আলম এমপি কাশিমপুর মৌজায় প্রায় ৪০বিঘা জমি জবর দখল করে প্রাচীর দিয়ে “পল্লী শ্রী সম্বনিত কৃষি প্রদর্শনী খামার” গড়ে তোলেন। ওই সময় এলাকার গরীব অসহায়দের টাকা না দিয়ে জমি জোরপূর্বক দখলে নেয়। এছাড়া জমির মালিকরা জমি ছাড়তে না চাওয়ায় এলাকার সাদেকুল ইসলামসহ কয়েকজনকে কে “মিথ্যে”মামলায় হয়রানি ও নির্যাতন করে। এছাড়া জমি হারানোর শোকে বেশ কয়েকজন মারা গেছেন বলে দাবি করা হয়। এবিষয়ে বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করেও কোন প্রতিকার পাচ্ছেননা দাবি করে উল্লেখিত জবর দখলে রাখা জমি ফেরত পেতে এবং “মিথ্যা” মামলা,হত্যার হুমকিসহ সকল হয়রানী বন্ধে, প্রশাসনের ন্যায় বিচার এবং হকদারের নিকট জমি ফেরতের দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানব বন্ধন করে ভুক্তভোগীরা। কাশিমপুর ইউনিয়নের ভুক্তভোগী পরিবারের আয়োজনে এবং ভুক্তভোগী সাদেকুল ইসলামের নেতৃত্বে অনুষ্ঠিত মানব বন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন,মারিয়া বিবি,সুফিয়া বিবি,এবাদুল হক,আজিজার রহমান ও আব্দুস ছাত্তারসহ ভুক্তভোগী পরিবারের সদস্যরা।

এব্যাপারে মরহুম এমপি ইসরাফিল আলমের স্ত্রী সুলতানা পারভিন বিউটি বলেন,গড়ে তোলা খামারে সাদেকুলের জমি নিয়ে একটু ঝামেলা ছিল। গত ২জানুয়ারী একজন মন্ত্রীর উপস্থিতীতে বৈঠকে তা নিরসন হয়েছে। এর পরেও সে কেন এমন ঝামেলা করছে বুঝতে পারছিনা 


আরও খবর



সোনারগাঁওয়ে ৫১ তম জাতীয় স্কুল ও মাদ্রাসা খেলাধুলার পুরস্কার বিতরন

প্রকাশিত:Monday ১৬ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Thursday ০২ February 2০২3 |
Image

শাহাদাৎ হোসেন সায়মন (সোনারগাঁও প্রতিনিধি) :

সোনারগাঁও উপজেলার মেঘনা শিল্প নগরী স্কুল এন্ড কলেজ মাঠে বাংলাদেশের ৫১ তম জাতীয় স্কুল মাদ্রাসা খেলাধুলার পুরস্কার বিতরনী অনুষ্টান অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত অনুষ্টানে এডঃ সামসুল ইসলাম ভূইয়ার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জাতীয়  সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ রেজাওয়ান উল ইসলাম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহমুদা আক্তার, সোনারগাঁও উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি পিরোজপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাসুদুর রহমান মাসুম, জেলা পরিষদ সদস্য আবু নাইম ইকবাল, নোওয়াগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শামসুল ইসলাম সামসু। এছাড়াও আরো উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদের বিভিন্ন কর্মকর্তাগন বিভিন্ন স্কুল মাদ্রাসার শিক্ষকগণ এবং ছাত্রছাত্রীবৃন্দসহ প্রিন্ট ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকগন উপস্থিত ছিলেন। এসময় খেলাধুলায় বিজয়ীদের হাতে উপস্থিত অতিথিবৃন্দ পুরষ্কার তুলে দেন।

সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা বলেন, মাদক সন্ত্রাস ইভটিজিং জঙ্গিবাদ থেকে নিজেদের সন্তান এবং নিজেদেরকে বাঁচিয়ে সুশিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে সুস্থ দেহের জীবন-যাপন করা প্রতিটি শিক্ষার্থীর উচিত লেখাপড়ার পাশাপাশি ক্রীড়া সংস্কৃতিতে মনযোগী হওয়া।  নিজের প্রতিভাকে কাজে লাগিয়ে নিজেকে পৃথিবীতে শ্রেষ্ঠ মানুষ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে হবে।

চেয়াম্যান মাসুদুর রহমান মাসুম বলেন, তোমারা ফেইজবুক কম ব্যবহার করবে তাহলে তোমার লেখাপড়া এগিয়ে নিয়ে যেতে পাড়বে।তোমাদের তোমার মা বাবার আশা তোমরা সুশিক্ষিত হও। তোমাদের খেলাধুলার জন্য যা কিছু দরকার আমি যতদিন আছি তোমাদের পাশে থাকবো।


আরও খবর