Logo
শিরোনাম

ড. ইউনূসের মামলার কার্যক্রম দুই মাস স্থগিত

প্রকাশিত:সোমবার ১৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

শ্রম আইন লঙ্ঘনের অভিযোগে গ্রামীণ টেলিকমের চেয়ারম্যান ও নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. মুহাম্মদ ইউনূসসহ দুজনের বিরুদ্ধে করা মামলার কার্যক্রম বিচারিক (নিম্ন) আদালতে দুই মাসের জন্য স্থগিত থাকবে বলে আদেশ দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।

পাশাপাশি এই সময়ের মধ্যে তার বিরুদ্ধে করা মামলাটি কেন বাতিল হবে না, এই মর্মে জারি করা রুল নিষ্পত্তি করতে হাইকোর্টকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

সোমবার আগের আদেশ সংশোধন করে আপিল বিভাগের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি মো. নুরুজ্জামান ননীর নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

এর আগে, ২০২১ সালের ১২ ডিসেম্বর শ্রম আইন লঙ্ঘনের মামলায় ড. ইউনূসের বিরুদ্ধে মামলার কার্যক্রম স্থগিত করেন হাইকোর্ট। একই আদেশে বিচারপতি মো. হাবিবুল গণি ও বিচারপতি মো. রিয়াজ উদ্দিন খানের হাইকোর্ট বেঞ্চ গ্রামীণ টেলিকমের পরিচালক নুরজাহান বেগমের বিরুদ্ধে মামলার কার্যক্রমও স্থগিত করেন।

পরে হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত চেয়ে আপিল আবেদন জানান রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীরা। ওই আবেদনের শুনারি নিয়ে ড. ইউনূসের বিরুদ্ধে মামলার কার্যক্রম স্থগিত করে আজ আদেশ দেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে মামলাটি কেন বাতিল ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন আদালত।

২০২১ সালের ৯ সেপ্টেম্বর শ্রম আইন লঙ্ঘনের অভিযোগে গ্রামীণ টেলিকমের চেয়ারম্যান ড. মুহাম্মদ ইউনূসসহ চারজনের বিরুদ্ধে ঢাকার তৃতীয় শ্রম আদালতে মামলা করেন কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান অধিদপ্তরের শ্রম পরিদর্শক আরিফুজ্জামান। পরে মামলার বিবাদীদের হাজির হওয়ার জন্য সমন জারি করেন আদালত।

এ মামলার অন্য আসামিরা হলেন- গ্রামীণ টেলিকমের এমডি আশরাফুল হাসান, পরিচালক নুর জাহান বেগম ও শাহজাহান। পরে এই তিন আসামিও পৃথকভাবে মামলার আবেদন করেন।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা ড. ইউনূসের গ্রামীণ টেলিকম পরিদর্শনে যান। সেখানে গিয়ে তারা শ্রম আইনের কিছু লঙ্ঘন দেখতে পান। এর মধ্যে ১০১ জন শ্রমিক-কর্মচারীকে স্থায়ী করার কথা থাকলেও তাদের স্থায়ী করা হয়নি।

এছাড়া শ্রমিকদের অংশগ্রহণ ও কল্যাণ তহবিল গঠন করা হয়নি। কোম্পানির লভ্যাংশের পাঁচ শতাংশ শ্রমিকদের দেওয়ার কথা থাকলেও সেটিও মানা হয়নি। এসব অভিযোগের ভিত্তিতে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি আইনে এ মামলা করা হয়।


আরও খবর



একটি হুইল চেয়ার পাওয়ার আকুতি শারীরিক ও মানসিক প্রতিবন্ধী রাবিয়া খাতুনের পরিবারের

প্রকাশিত:সোমবার ১৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image
আরিফুল ইসলাম আরিফ: কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়নের কাশিপুর গ্রামের দিনমজুর হযরত আলীর মেয়ে  রাবিয়া খাতুন (১৮) । জন্ম থেকে শারীরিক ও মানসিক প্রতিবন্ধী, হযরত আলীর নিজের জমি না থাকায় অন্যের দেয়া ৬ শতাংশ জমির উপর কোনভবেই ছোট ছোট টিনের ঘর তুলে স্ত্রী সন্তানদের নিয়ে কোনমতেই দিন কাটাচ্ছে।

দিনমজুর হওয়ায় যেদিন কাজ জোটে সেদিন খাবার জোটে, যেদিন কাজ না জোটে সেদিন অনাহারে থাকতে হয় পরিবারের সকলকে। স্ত্রী রনজিনা বেগম স্বামীর কষ্ট দেখে মাঝে মাঝে অন্যের বাড়িতে কাজ করে কোনভাবেই সংসার চালাচ্ছে।

এরই মধ্যেই তাদের সংসারের জন্ম নেয় শারীরিক ও মানসিক প্রতিবন্ধী রাবিয়া খাতুন। ছোটকালে রাবিয়া খাতুন কে কোলে নেওয়া ও বিভিন্ন জায়গায় আনা-নেয়া করা সহজ হলেও বয়স বাড়ার সাথে সাথে রাবিয়া খাতুন কে বহন করা পরিবারের লোকজনের পক্ষে কষ্টকর হয়ে পড়েছে। শারীরিক ও মানসিক প্রতিবন্ধী রাবিয়া খাতুন কে একটি হুইল চেয়ার কিনে দেয়ার টাকা না থাকায় অনেক কষ্টে ঘর বাহির করতে হয় রাবিয়ার মা রনজিনা বেগমকে। বিছানায় শুয়ে থাকতে থাকতে রাবিয়ার পিঠে ঘা পড়ে গেছে।

তাইতো রাবিয়ার চলাফেরা ও বাইরের পৃথিবী দেখার জন্য সমাজের বিত্তবান ও হৃদয়বানদের কাছে একটি হুইল চেয়ারের আবেদন জানিয়েছেন রাবিয়ার পরিবার ও এলাকাবাসী।

প্রতিবন্ধী রাবেয়া খাতুনের  মা রনজিনা বেগম জানান, আমার স্বামী দিনমজুর দিন আনি দিন খাই হুইল চেয়ার কেনার কোন সামর্থ্য আমাদের নাই কোন দয়ালু ব্যক্তি যদি আমার মেয়েটাকে একটা হুইলচেয়ার দিত তাহলে আমরা তাকে অনেক দোয়া করতাম।

এলাকাবাসী আজিজুল হক ও সামিনা বেগম জানান, এই প্রতিবন্ধী মেয়েটাকে ঘর বাহির করতে পরিবারটির অনেক কষ্ট হয় আগে ছোট ছিল সহজেই ঘর বাহির করতে পারত, এখন একটু বড় হওয়ায় ঘর বাহির করতে পরিবারটির খুব কষ্ট হয়। এদের একটি হুইল চেয়ার কেনার সামর্থ নেই কেউ একটি হুইল চেয়ার দান করলে পরিবারটি খুবই উপকৃত হতো।

কাশিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান মানিক জানান, এই অসহায় শারীরিক ও মানসিক প্রতিবন্ধী মেয়েটির জন্য একটি হুইল চেয়ার অত্যন্ত প্রয়োজন, ইউনিয়ন পরিষদ থেকে হুইলচেয়ার দেয়ার কোন বাজেট নেই সমাজের কোন বিত্তবান ও হৃদয়বান মানুষ যদি এই প্রতিবন্ধী মেয়েটিকে একটি হুইল চেয়ার দিও তাহলে মেয়েটির বাইরের দুনিয়ায় আলো-বাতাস দেখতো।






আরও খবর



ইউরোপীয় ইউনিয়ন ভেঙে পড়তে পারে

প্রকাশিত:সোমবার ২০ জুন ২০22 | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

রাশিয়ার জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের উপ-প্রধান ও সাবেক প্রেসিডেন্ট দিমিত্রি মেদভেদেভ বলেছেন, ইউক্রেন ইউরোপীয় ইউনিয়ন বা ইইউতে যোগ দেওয়ার আগেই এই ইউনিয়ন ভেঙে পড়তে পারে। তিনি রবিবার (১৯ জুন) মস্কোয় প্রকাশিত এক বিবৃতিতে এ হুশিয়ারি উচ্চারণ করেন।

মেদভেদেভ বলেন, ইইউ সবেমাত্র ইউক্রেনকে তার সদস্যপ্রার্থী হওয়ার প্রস্তাব দিয়েছে। তবে এই প্রক্রিয়া সম্পন্ন হতে অনেক সময় লাগবে এবং ততদিন ইউরোপীয় ইউনিয়নের অস্তিত্ব থাকে কিনা, না নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহের অবকাশ রয়েছে।

ইউরোপীয় কমিশন গত শুক্রবার ইউক্রেনকে ইইউর সদস্যপ্রার্থী হওয়ার প্রস্তাব দিয়েছে। আগামী সপ্তাহে কমিশনের বৈঠকে প্রস্তাবটি চূড়ান্ত হওয়ার কথা রয়েছে। ইইউর সদস্য হওয়ার জন্য যে দীর্ঘ প্রক্রিয়া রয়েছে, এটি তার সূচনা মাত্র।

ইউক্রেনের ইইউ বা ন্যাটোর সদস্যভুক্ত হওয়া ঠেকানোর জন্যই মূলত রাশিয়া গত ২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে ইউক্রেনে বিশেষ সামরিক অভিযান শুরু করেছে। কিন্তু ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভোলোদিমির জেলোনেস্কি উল্টো গত ২৮ ফেব্রুয়ারি অর্থাৎ রাশিয়ার সামরিক অভিযান শুরু হওয়ার চার দিনের মাথায় ইইউতে তার দেশের অন্তর্ভুক্তির আনুষ্ঠানিক আবেদন জানান।

২৭ সদস্যবিশিষ্ট ইউরোপীয় ইউনিয়নের শীর্ষ নেতারা গত ১০ মার্চ ফ্রান্সে অনুষ্ঠিত সম্মেলন থেকে কিয়েভের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক বজায় রাখার ঘোষণা দেন। একইসঙ্গে তারা বলেন, স্বল্প সময়ের মধ্যে ইইউতে ইউক্রেনের অন্তর্ভুক্তি সম্ভব নয়।


সূত্র : পার্সটুডে


আরও খবর



দুর্নীতির অভিযোগ মাথায় নিয়ে

পদত্যাগ করেছেন বীমা নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

ঘুষ নেওয়া ও অবৈধভাবে শেয়ার ব্যবসার সঙ্গে জড়িত থাকাসহ দুর্নীতির অভিযোগ মাথায় নিয়ে পদত্যাগ করেছেন বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের (আইডিআরএ) চেয়ারম্যান ড. এম মোশাররফ হোসেন।

মঙ্গলবার (১৪ জুন) অর্থমন্ত্রীর কাছে তিনি পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন বলে বুধবার (১৫ জুন) মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে।

ড. মোশাররফ হোসেন ২০২০ সালের সেপ্টেম্বরে আইডিআর-এর চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন। দুই বছর পার হতে না হতেই দুর্নীতির অভিযোগে পদ ছাড়তে বাধ্য হলেন তিনি।

একাধিক লাইফ বীমা কোম্পানিতে মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা এবং অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেছেন ড. এম মোশাররফ হোসেন। তিনি একাধিক আর্থিক প্রতিষ্ঠানের স্বাধীন পরিচালক ও বোর্ড অডিট কমিটির চেয়ারম্যানের দায়িত্বও পালন করেছেন। বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমবিএ) সহ-সভাপতির দায়িত্বও পালন করেছেন এম মোশাররফ হোসেন।

বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স একাডেমি থেকে ডিপ্লোমাসহ বিমা বিষয়ে এমবিএ ডিগ্রি করেছেন মোশাররফ হোসেন। পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলাদেশের বিমা শিল্প ও বিনিয়োগ বিষয়ে গবেষণা কার্য সম্পাদন করে ২০০৬ সালে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন।


আরও খবর

ছোট ও মাঝারি গরুর দাম বেশি

শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২




নারায়ণগঞ্জে স্বামী-স্ত্রী হত্যার দায়ে ৬ জনের ফাঁসি

প্রকাশিত:সোমবার ০৬ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

নারায়ণগঞ্জে স্বামী-স্ত্রীকে হত্যার দায়ে ছয়জনকে ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত।

সোমবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক নাজমুল হক শ্যামল এ রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন সুমন, লোকমান, শফিক, সুমন-২, আরিফ ও জামাল। তাদের মধ্যে সুমন, লোকমান ও শফিক পলাতক রয়েছেন।

মামলা সূত্র জানা গেছে, ২০০৯ সালের ১১ আগস্ট রাতে রাস্তা থেকে খাদিজা নামের এক নারী ও তার স্বামী আবদুর রহমানকে তুলে নিয়ে যান আসামিরা। স্বামীকে বেঁধে তারা খাদিজাকে দলবদ্ধ ধর্ষণ করেন। পরে দুজনকে হত্যা করে রাস্তার পাশের ডোবায় ফেলে দেন। ১৬ আগস্ট দুজনের লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় ধর্ষিতার বাবা মামলা করেন। আদালতে ১২ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আজ এ রায়  ঘোষণা দেয়া হয়।


আরও খবর



কু‌মিল্লায় ভাইয়ের ছুরিকাঘাতে অপর ভাইয়ের মৃত্যু

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

কুমিল্লা জেলা প্রতিনিধি ঃ 

কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলায় বড় ভাইয়ের ছুরিকাঘাতে আঘাতে ছোট ভাই মো.জাহাঙ্গীর আলম (৩২)র ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয়েছে।                            বৃহস্পতিবার দুপুর আড়াইটার  দিকে পৌর এলাকার উত্তর ভিংলাবাড়ি হাশেম ব্যাপারী বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।                   নিহত জাহাঙ্গীর আলম কোম্পানীগঞ্জ সাফল্য সমবায় সমিতি নামে একটি এনজিওতে চাকরি করতেন এবং  উত্তর ভিংলাবাড়ি এলাকার মৃত আবুল হাশেম ব্যাপারী ছেলে। এ ঘটনার পর থেকে  বড় ভাই আলমগীর হোসেন পলাতক রয়েছে। 

প্রতিবেশী মো. জালাল উদ্দিন ও প্রত্যাক্ষদর্শী মো. রুবেল জানান, নিহত জাহাঙ্গীর আলমের বাবা আবুল হাশেম ব্যাপারী কোম্পানীগঞ্জ বাজারে পেয়াজের ব্যবসা করতেন। তিনি জীবিত থাকা অবস্থায় পাশ্ববর্তী ব্যবসায়ী আবদুর রহিম নামে এক ব্যক্তির কাছে সাড়ে ৫ লক্ষ টাকা পাওনা ছিলেন।  গত ৮ মাস আগে আবুল হাশেম ব্যাপারী মারা যাওয়ার পূর্বে পাওনা সাড়ে ৫ লক্ষ টাকা দুই ভাইয়ের মধ্যে সমান ভাবে ভাগ করে পরিশোধ করতে বলে যান আবদুর রহিমকে ওই সময়ে এবং নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে পাওনা টাকা পরিশোধ করবেন বলেও আবদুর রহিম সবাইকে আশ্বাস দেন। পরে বড় ভাই আলমগীর হোসেন টাকা পরিশোধের নির্দিষ্ট সময়ের পূর্বে গত সপ্তাহে দেনাদার আবদুর রহিমের কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা অগ্রীম নিয়ে আসেন। এ খবর পেয়ে ছোট ভাই জাহাঙ্গীর আলম বড় ভাই আলমগীর হোসেনের কাছ পাওনা আদায়ের ৫০ হাজার টাকা থেকে ২০ হাজার টাকা তাকে দিতে চাপ দেন। ওই ২০ হাজার টাকা নিয়ে গত দুইদিন ধরে দুই ভাইয়ের মধ্যে বিভিন্ন সময়ে কথা কাটাকাটি ও তর্ক চলে আসছিলো।   

 পরে বৃহস্পতিবার দুপুরে বড় ভাইয়ের কাছে ফের ২০হাজার টাকা দিতে চাপ প্রয়োগ করেন করেন ছোট ভাই জাহাঙ্গীর আলম। আলমগীর হোসেন টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে এনিয়ে দুই ভাইয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে বড় ভাই আলমগীর হোসেন ঘর থেকে ছুরি এনে ছোট ভাই জাহাঙ্গীর আলমের পেটের নিচে বা পাশে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যান। এতে ঘটনাস্থলেই জাহাঙ্গীর আলম মারা যান। পরে প্রতিবেশীরা দেবিদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন।  

 স্থানীয় শা‌হিন আলম জানায়, ঘাতক বড় ভাই আলমগীর উচ্ছঙ্খল স্বভাবের এবং এলাকার কাউকে সে পরোয়া করে না। এ কারণে এলাকার কেউ তাকে পছন্দ করে না। সে এর আগেও বিভিন্ন অপরাধ কর্মকা‌ন্ডে জড়িত ছিলেন। অপরদিকে নিহত জাহাঙ্গীর দুইদিন পর সিলেটের চলমান বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ কার্যক্রমে যাওয়ার কথা ছিলো। কিন্তু সে আর যেতে পারল না।  এ বিষয়ে দেবিদ্বার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কমল কৃষ্ণ ধর বলেন, ‘ঘটনাটি প্রকাশ্য দিবালোকে ঘটেছে। খবর শুনে ঘটনাস্থলে গিয়ে সুরতহাল রিপোর্ট শেষে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে  প্রেরণের প্রস্তুতি চলছে। ঘটনার পর থেকে ঘাতক আলমগীর হোসেন পলাতক রয়েছে। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে’।


আরও খবর