Logo
শিরোনাম

এবার চলচ্চিত্রে ধোনী

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৩ মে ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | ৩৮জন দেখেছেন
Image

ভারতীয় ক্রিকেট দলের সর্বকালের সেরা ক্রিকেটারদের একজন মহেন্দ্র সিং ধোনি। ভারতকে ওয়ানডে এবং টি-২০ ক্রিকেট বিশ্বকাপ জেতানো এই অধিনায়ককে নিয়ে নির্মিত হয়েছে সিনেমাও। ২০১৬ সালে মুক্তি পাওয়া তার বায়োপিক ‘এম এস ধোনি: দ্য আনটোল্ড স্টোরি’ বক্স অফিসে বিপুল সাফল্যও পেয়েছিল।

এবার অন্যভাবে চলচ্চিত্রে নাম লেখাচ্ছেন ধোনি। তামিল সিনেমা প্রযোজনা করবেন তিনি, সর্বভারতীয় একটি ইংরেজি দৈনিক বুধবার এই খবর প্রকাশ করেছে। খবর আনন্দবাজারের। ওই সিনেমায় মুখ্য নারী চরিত্রে অভিনেত্রী হিসাবে ধোনি সই করিয়েছেন নয়নতারাকে। দক্ষিণী অভিনেত্রীদের মধ্যে তিনি অন্যতম। আইপিএল শেষ হলেই সিনেমার ব্যাপারে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা করবেন ধোনি।

‘অথর্ব’ নামের এক পৌরাণিক ওয়েব সিরিজেও নাম ভূমিকায় দেখা যাবে বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক ধোনিকে। রমেশ তামিলমানি রচিত ওই ওয়েব সিরিজও প্রযোজনা করবে ধোনি এন্টারটেনমেন্ট।

সম্প্রতি একটি ভিডিও প্রকাশ্যে এসেছে। তাতে দেখা যাচ্ছে, পুরাকালের এক যোদ্ধার চেহারায় ‘দৈত্য-দানব’দের সঙ্গে লড়াই করছেন ধোনি। তার এই নতুন ভূমিকায় অবতীর্ণ হওয়ার নেপথ্যে রয়েছেন ক্রিকেটার-পত্নী সাক্ষী।

অন্যদিকে, খুব শিগগিরই বলিউডের বড় পর্দায় অভিষেক হবে নয়নতারার। শাহরুখ খানের বিপরীতে অভিনয় করবেন তিনি। ধোনি প্রযোজিত আসন্ন তামিল সিনেমাটি নিয়েও উৎসাহ তুঙ্গে।


আরও খবর



নারায়ণগঞ্জ জেলা কারাগারে বন্দিদের দুর্দশা

প্রকাশিত:শুক্রবার ২২ এপ্রিল 20২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১৫ মে ২০২২ | ৯২জন দেখেছেন
Image

মোঃআবু কাওছার মিঠু ঃ

দাবিকৃত টাকা দিতে না পারলে নারায়ণগঞ্জ জেলা কারাগারের কয়েদিদের উপর অমানষিক ভোগান্তি ও হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আদালত থেকে বন্দিদের জেলখানায় প্রেরণ করা পর থেকেই তাদের পড়তে হয় নানা অনিয়মে। বিনামূল্যের খাবার দেওয়া হয় না। তাও আবার নিম্নমানের খাবার। টাকা ছাড়া কোয়ারেন্টাইন ওয়ার্ডে থাকতে দেওয়া হয় না। টাকা ছাড়া ঘুমানোর জন্য সিট দেওয়া হয় না। স্বজনদের সঙ্গে মোবাইলে কথা বলতে হয় অতিরিক্ত টাকা খরচ করে। নারায়ণগঞ্জ জেলা কারাগারে এসকল অনিয়মই যেন এখন নিয়ম।

শীর্ষ সন্ত্রাসী আরমান নারায়ণগঞ্জ জেলে আসার পর থেকেই এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। সন্ত্রাসী আরমান নারায়ণগঞ্জ জেলার ও জেলসুপারের সঙ্গে সিন্ডিকেট করে কারাগারের সকল অনিয়মই এখন নিয়মে পরিণত হয়েছে। কারা কেন্টিনের ব্যবসা, সিট বাণিজ্য, ওয়ার্ড বাণিজ্য ও মোবাইল ফোন বাণিজ্যে তারা মেতে উঠেছে। তাদের সহযোগিতা করছে কয়েদি পিচ্ছি সুজন, জহিরুল ইসলাম, ছোট সাহাবাজ, সেলিম, সিদ্ধিরগঞ্জের আলোচিত খোকন হত্যা মামলার আসমি হালিম ও রমজান নিয়ন্ত্রণ করে দুটি ওয়ার্ড। কারাগার কেন্টিনে খাদ্য দ্রব্যের দাম বেশি আদায় করা হচ্ছে। এসকল অতিরিক্ত টাকার জোগান দিতে কয়েদিদের পরিবারের সদস্যদের হিমশিম খেতে হচ্ছে। কেউ কেউ আবারো অপরাধমূলক কর্মকান্ডে জড়িয়ে পড়ছে।

কয়েদি ,,,,,,,বলেন, কয়েদিদের সপ্তাহে ১দিন ১০টাকার বিনিময়ে ১০ মিনিট মোবাইল ফোনে স্বজনদের সঙ্গে কথা বলার সুযোগ রয়েছে। কিন্তু তা দেওয়া হচ্ছে না। তবে যেকোন সময় ৩ মিনিট ১০০ টাকা হারে মোবাইলে কথা বলার সুযোগ দেওয়া হচ্ছে। এভাবে চক্রটি কয়েদিদের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে বলেও অভিযোগ রয়েছে।

করোনা পরিস্থিতিতে কারাগারে নতুন বন্দি প্রবেশ করলে ১৫ দিন কোয়ারেন্টাইন ওয়ার্ডে থাকার কথা। কিন্তু টাকা আদায় করে তাদেরকে ওয়ার্ডে বদলি করা হচ্ছে। আবার ২/৩ হাজার টাকা আদায় করে নতুন বন্দিদের দ্বিতীয় দিনেই বিভিন্ন ওয়ার্ডে বদলি করা হচ্ছে।

সন্ত্রাসী আরমানের ইশারায় চলছে এখন নারায়ণগঞ্জ জেলা কারাগার। প্রতিবাদ করলেই হামলা কিংবা অন্য কারাগারে পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে। নির্ভিগ্নে আরমান ঘুরে বেড়ান জেলা কারাগার। আদায়কৃত টাকা রাতে ভাগ বাটোয়ারা হয়। অবৈধভাবে তার সঙ্গে সব সময় থাকে মোবাইল ফোন।

কারা বিধি অনুযায়ী জেলের নিরাপত্বার বিঘ্ন ঘটে এরকম হাজতীদের ২৪ ঘণ্টা বন্দি থাকার কথা। কিন্তু সন্ত্রাসী আরমান রাত ৮টা পর্যন্ত পুরো কারাগার চষে বেড়ায়। প্রত্যেক বন্দিকে দৈনিক ১৪৫ গ্রাম ডাল দেয়ার কথা থাকলেও দেওয়া হয় সর্বোচ্চ ৪০ গ্রাম। এছাড়াও সকল খাদ্যদ্রব্যই চড়া দামে কিনতে হয়।

বন্দিদের জামিন হলেই নারায়ণগঞ্জ ডেপুটি জেলার সোহরাবকে দিতে হয় ৫ থেকে ২০ হাজার টাকা। টাকা না দিলেই তার উপর চালানো শারিরীক নির্যাতন। তিনি ব্যক্তিগত দামি গাড়ি ব্যবহার করেন।

নারায়ণগঞ্জ কারাগার থেকে সদ্য জামিনপ্রাপ্ত আসামী মোঃ মাসুদ মিয়া বলেন, কারাগারের ভিতরে টাকা ছাড়া কোন কাজ হয় না। টাকা না দিলেই কয়েদিদের চরম ভোগান্তিতে পড়তে হয়। খাবারের মান নিন্ম মানের দাম বেশি।

এব্যাপারে নারায়ণণগঞ্জ কারাগারের জেলার মাহবুবুর রহমান বলেন, এসকল অভিযোগ মিথ্যা। তিনি নিজেকে নির্দোষ দাবী করে বলেন, নারায়ণগঞ্জ কারাগার সরকারি সঠিক নিয়মে পরিচালনা করা হচ্ছে। এখানে কোন অনিয়ম নেই।


আরও খবর

ঢাকায় ফিরছে মানুষ

বুধবার ০৪ মে ২০২২




মন খারাপের দিনে নিজেকে সাজাবেন যেভাবে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২১ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | ১৫৪জন দেখেছেন
Image

অফিসে কাজের খুব চাপ, কাছের মানুষটি বুঝতে পারছে না আজকাল, পারিবারিক টানাপোড়েন অথবা অকারণ মন খারাপের দিনে নিজেকে লুকিযে রাখবনে না, মেলে ধরুন নিজেকে নতুন ভাবে আত্মবিশ্বাসের সাথে।

জীবনের পথচলায় গভীর আর বিশাল সমস্যা বা ছোটখাটো বিষয়ে মন খারপ হতে পারে। সে সময়ে কিংবা অসময়ে। তখন চেষ্টা করবেন শিশুদের সঙ্গে সময় কাটাতে। কারণ, শিশুর সারল্য বড়দের মন খারাপ ভাব অনেকটাই কমিয়ে দেয়। যদি কোনো শিশুর সঙ্গে সময় কাটাতে না পারেন, তাহলে পরিচিত কারও সঙ্গে মোবাইলে কথা বলতে পারেন যেকোনো বিষয়ে। এক্ষেত্রে মা-বাবা, ভাই-বোন বা স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের বন্ধুকে বেছে নিতে পারেন। দেখবেন কথা বলার পর মন খারাপটা কেটে গেছে। 

বেশি বেশি মন খারাপ করলে কর্মক্ষেত্র থেকে এক-দুই দিন ছুটি নিয়ে বাসায় থাকুন। এ সময়টাতে রান্না করতে পারেন, বারান্দাতে থাকা বাগানের পরিচর্চা করতে পারেন আর পারেন বই পড়তে, সিনেমা দেখতে। সবচেয়ে ভালো হয় নিজেকে সাজাতে পারলে। কারণ মেয়েদের সাজলে মন ভালো হয়ে যায়। পছন্দমতো রঙের পোশাক পরতে পারেন। এক্ষেত্রে বেছে নিতে পারেন উজ্জ্বল প্রিন্টের পোশাক। গায়ে কোনো হালকা ফুলেল সুগন্ধ মাখুন। ঠোঁট রাঙিয়ে নিন মিষ্টি গোলাপি লিপ গ্লস আর লিপস্টিকে। তারপর দেখবেন, মন খারাপও আপনাকে ছেড়ে দূরে না পালিয়ে পারছে না!

মন খারাপের দিনে উজ্জ্বল প্রিন্টের নতুন পোশাকটি যেন হয় ‘এলিগ্যান্ট’ ও ‘কিউট’। প্রিন্টেড পোশাকের মেটিরিয়াল হিসেবে আপনি কী বেছে নিচ্ছেন, তার উপরেও মন ভালো হওয়ার অনেক কিছু নির্ভর করে। চেষ্টা করুন শিফন, জর্জেট বা সিল্কের মতো ফ্লোয়ি কোনো কাপড়ের পোশাক পরতে, যাতে আপনাকে দেখতে সুন্দর লাগে। যাদের কোমরের কাছটা সরু, তারা সঙ্গে সরু বেল্ট পরুন। কানে পরতে পারেন ওভারসাইজড হুপ দুল। পায়ে পছন্দের হিল পরতে ভুলবেন না, আর হাতে সুন্দর নকশার হাতঘড়ি থাকলে মন খারাপ দৌড়ে পালাবে।  



আরও খবর



কাবুলে মসজিদে বিস্ফোরণ, নিহত ৬৬

প্রকাশিত:শনিবার ৩০ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | ১০৭জন দেখেছেন
Image

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের খলিফা সাহিব মসজিদে শুক্রবারের বোমা বিস্ফোরণে নিহতের সংখ্যা বেড়ে পৌঁছেছে ৬৬ জনে এবং আহতের হালনাগাদ সংখ্যা ৭৮ জন। দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে বলে শনিবার এক প্রতিবেদেনে জানিয়েছে রয়টার্স। মসজিদটির ইমাম সৈয়দ ফাজল আগাও নিশ্চিত করেছেন বোমা হামলায় অর্ধশতাধিক ব্যক্তি নিহতের তথ্য। পাশাপাশি তিনি দাবি করেছেন, হামলাটি ছিল আত্মঘাতী। -রয়টার্স

রমজান মাসের শেষ শুক্রবার উপলক্ষে শুক্রবার জুমার নামাজের পর জিকির চলছিল রাজধানী কাবুলের দক্ষিণাংশে অবস্থিত খলিফা সাহিব মসজিদে। এ সময় দুপুর ২ টার দিকে আকস্মিকভাবে মসজিদের ভেতরে শক্তিশালী বোমার বিস্ফোরণ ঘটে। সৈয়দ ফাজল আগা বলেন, আমাদের বিশ্বাস, হামলাটি ছিল আত্মঘাতী এবং হামলাকারী সাধারণ মুসলিমের বেশে জুমার নামাজের সময় থেকেই মসজিদে উপস্থিত ছিল। নামাজ শেষে জিকির অনুষ্ঠান শুরু হওয়ার পর সে নিজের দেহে থাকা বোমার বিস্ফোরণ ঘটায়।

তিনি আরও জানান, সৌভাগ্যক্রমে তিনি বেঁচে গেলেও বোমার আঘাতে তার ভাতিজা ঘটনাস্থলেই মারা গেছেন। ‘(বিস্ফোণের পর) কালো ধোঁয়ায় ঢেকে গিয়েছিল চারদিক, সব জায়গায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে ছিল মৃতদেহ। আমি নিজে বেঁচে গেছি, কিন্তু হারিয়েছি আমার সন্তানসম ভাতিজাকে।’ হামলার সময় মসজিদে উপস্থিত এক ব্যক্তির জানিয়েছেন, বিস্ফোরণের তেজে মসজিদের ছাদ ও দেওয়ালের কিছু অংশ উড়ে গেছে। তার নিজের হাত ও পা পুড়ে গেছে বলেও জানার ওই ব্যক্তি। খলিফা সাহিব মসজিদটির নিকটবর্তী একটি ভবনের বাসিন্দা মোহাম্মদ সাবির জানান, বিস্ফোরণের পর বেশ মসজিদের ভেতর থেকে বেশ কয়েকজন আহত মানুষকে অ্যাম্বুলেন্সে তুলতে দেখেছেন তিনি। রয়টার্সকে সাবির বলেন, প্রচণ্ড শব্দ হয়েছিল বিস্ফোরণের সময়। আমি আশঙ্কা করছিলাম, আমার কানের পর্দা ফেটে গেছে। খলিফা সাহিব মসজিদে হামলার দায় এখনও কোনো ব্যক্তি বা গোষ্ঠী স্বীকার করেনি, তবে আফগানিস্তানের নিরাপত্তা কর্মকর্তাদের বিশ্বাস, আন্তর্জাতিক জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের (আইএস) আফগানিস্তান শাখা ইসলামিক স্টেট-খোরাসান (আইএস-কে) এই হামলার জন্য দায়ী।

গত কয়েক সপ্তাহে আফগানিস্তানের অঞ্চলে কয়েক দফা বোমা হামলা হয়েছে। এসব হামলায় শতাধিক বেসামরিক আফগান নিহত হয়েছেন, আহত হয়েছেন আরও বহু। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই এসব হামলা ঘটেছে আফগানিস্তানের ধর্মীয় সংখ্যালঘু শিয়া মুসলিমদের মসজিদে। তবে হামলাকারীদের কবল থেকে দেশটির সংখ্যাগুরু সুন্নি সম্প্রদায়ের লোকজনও যে মুক্ত নন, তার সর্বশেষ উদাহারণ কাবুলের খলিফা সাহিব মসজিদ। এর আগে গত ২৩ এপ্রিল আফগানিস্তানের উত্তরাঞ্চলীয় শহর কুন্দুজের একটি সুন্নি মসজিদে বোমা হামলা হয়েছিল, তাতে নিহত হয়েছিলেন ৩৩ জন। আফগানিস্তানের ক্ষমতাসীন তালেবান সরকারের অন্যতম মুখপাত্র জাবিহুল্লাহ মুজাহিদ এই হামলার কঠোর নিন্দা জানিয়ে বলেছেন, অবিলম্বে হামলাকারীকে শনাক্ত ও বিচারের আওতায় আনা হবে। হামলার নিন্দা জানিয়েছে জাতিসংঘও। জাতিসংঘের মহাসচিবের বিশেষ প্রতিনিথি মেট নুডডেন এক বার্তায় বলেন, ‘ঘৃণ্য এই ঘটনার নিন্দা জানানোর জন্য কোনো শব্দই যথেষ্ট নয়।


আরও খবর



ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে যানবাহনের চাপ বেড়েছে

প্রকাশিত:শনিবার ৩০ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | ৮৬জন দেখেছেন
Image

মোঃ সিরাজ আল মাসুদ, টাঙ্গাইলঃ

ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে যানবাহনের চাপ বেড়ে গেলেও কোথাও যানজট নেই। শুক্রবার (২৯ এপ্রিল) বেলা সাড়ে ১১টায় মহাসড়কের টাঙ্গাইল অংশের বিভিন্ন স্থানে এমন চিত্র দেখা গেছে।

ঈদকে কেন্দ্র করে রাজধানী ছাড়ছে ঘরমুখো মানুষ। এ কারণে উত্তরের মহাসড়কে যানবাহনের চাপ কয়েকগুণ বেড়ে গেছে। তবে চাপ থাকলেও কোথাও যানজটের খবর পাওয়া যায়নি। তবে গতরাতে উত্তরবঙ্গমুখী লেনে যানবাহনের চাপে সড়কে ধীরগতি ছিল। কয়েক ঘণ্টা ধীরগতির পর সড়ক আবার স্বাভাবিক হয়। ফলে ভোর থেকেই মহাসড়কে যানবাহন স্বাভাবিক গতিতেই চলাচল করছে। ফলে ভোগান্তি ছাড়াই স্বস্তিতে মানুষ গন্তব্যে পৌঁছাতে পারছেন।এদিকে, বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিমপাড় গোলচত্বর থেকে সায়দাবাদ পর্যন্ত গাড়ির দীর্ঘ সারি রয়েছে। এ কারণে  সেখানে গাড়ির কিছুটা ধীরগতি লক্ষ্য করা গেছে।

টাঙ্গাইলের এলেঙ্গা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ আতাউর রহমান বলেন, মহাসড়কে এখনও যানবাহন স্বাভাবিক গতিতেই চলাচল করছে। তবে যানবাহনের বাড়তি চাপ রয়েছে। যানজট নিরসনে পর্যাপ্ত পুলিশ সদস্য মহাসড়কে কাজ করছে। ঈদের চাঁদরাত পর্যন্ত যানজট নিরসনে আমরা কাজ করবো।


আরও খবর



গাজীপুরে সড়ক দূর্ঘটনায় যুবকের মৃত্যুকে ঘিরে বিক্ষুব্ধ জনতার মহাসড়ক অবরোধ

প্রকাশিত:রবিবার ২৪ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১৫ মে ২০২২ | ৮৮জন দেখেছেন
Image

সদরুল আইন,গাজীপুর জেলা প্রতিনিধিঃ

গাজীপুর মহানগরীর বোর্ডবাজার এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় অজ্ঞাত এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। 

এ ঘটনায় স্থানীয়রা বিক্ষুব্ধ হয়ে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক প্রায় ২০মিনিট অবরোধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শণ করে।

শনিবার (২৩ এপ্রিল) রাত ৮টা ৫০ মিনিটে এ ঘটনা ঘটে। গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের সহকারী কমিশনার (গাছা) আহসান হক এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, রাস্তা পারাপারের সময় ঢাকামুখি লেনে আজমেরি গ্লোরি পরিবহনের একটি বাসের চাপায় ঘটনাস্থলেই মারা যান এক যুবক। আনুমানিক ৩২ বছর বয়সী ওই যুবকের পরিচয় পাওয়া যায়নি। 

এ ঘটনার প্রতিবাদে স্থানীয়রা ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের উভয়পাশের রাস্তা বন্ধ করে দিয়ে বিক্ষোভ করে। এসময় প্রায় ২০ মিনিট যানবাহন চলাচল বন্ধ ছিলো।

তিনি আরও বলেন, বিক্ষুব্ধ জনতা বিআরটি প্রকল্পের নির্মাণ কাজে জড়িতদের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করেছে। মহাসড়কের মাঝখানে রোড ডিভাইডার না থাকায় কয়েকমাস আগেও একই স্থানে এক স্কুল শিক্ষক সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যান। 

আমরা বিআরটিএ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলেছি। তাদেরকে দ্রুত সড়কে ডিভাইডার স্থাপনের অনুরোধ করা হয়েছে।

গাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইসমাইল হোসেন বলেন, দুর্ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে থানায় আনা হয়। ঘাতক বাসটিকে আটকের চেষ্টা চলছে। নিহত যুবকের পরিচয় শনাক্তের পর আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।


আরও খবর