Logo
শিরোনাম
বাউল ছালমা হলেন বরিশাল বিভাগের শ্রেষ্ঠ "জয়িতা" পাংশায় মাদক সহ ৯ মামলার আসামী গ্রেফতার ১৬৩ টাকায় তেল বিক্রির ব্যত্যয় ঘটলে ব্যবস্থা নেয়া হবে: ভোক্তার মহাপরিচালক দুর্গাপুরে বালুবাহী হ্যান্ডট্রলির চাপায় প্রাণ গেল শিক্ষার্থীর নওগাঁ জেলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি আবু বক্কর, সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত নওগাঁয় প্রাইভেটকার তল্লাসি, ৭২ কেজি গাঁজা সহ যুবক আটক রূপগঞ্জে প্রাইভেটকার চাপায় গৃহবধু নিহত রাঙ্গামাটির বড়ইছড়ি নির্মাণ শ্রমিক বোঝাই ট্রাক খাদে নিহত-২, আহত-২০ মুসলিমদেরকে সঠিক পথ থেকে বিচ্যুত করার জন্য বিভিন্ন ষড়যন্ত্র চলছে নওগাঁয় কম্পিউটার ব্যবসার অন্তরালে অশ্লিল ভিডিও বিক্রি করায় ৩ যুবক আটক

ফের স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করবেন ছলিম উদ্দিন তরফদার

প্রকাশিত:সোমবার ২৭ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪ |

Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, সিনিয়র রিপোর্টার :

জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নওগাঁ-৩ (মহাদেবপুর-বদলগাছী) আসনের এমপি সড়ক পরিবহণ ও সেতু মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য আলহাজ্ব মোঃ ছলিম উদ্দিন তরফদার সেলিম এমপি আবারও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ভোট করবেন। সোমবার ২৭ নভেম্বর বিকেলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন এমপি'র জ্যেষ্ঠপুত্র সাকলাইন মাহমুদ রকি।

রকি সংবাকর্মীদের জানান, আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রত্যেক প্রার্থীর বিপরীতে একজন করে ড্যামি প্রার্থী স্বতন্ত্র হিসেবে ভোটে অংশ নেয়ার জন্য দলের হাইকমান্ড এর নির্দেশ এর পরিপ্রেক্ষিতে এমপি ছলিম উদ্দিন তরফদার এবারও ভোট যুদ্ধে অবতীর্ণ হবেন। 

গত রবিবার এই আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে নতুন মুখ সাবেক সিনিয়র সচিব সৌরেন্দ্রনাথ চক্রবর্ত্তী সৌরেনের নাম ঘোষণা করায় তিনি এ সিদ্ধান্ত নেয়। 

নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের তদানিন্তন সাংগঠনিক সম্পাদক ও চেরাগপুর ইউপির সাবেক একাধীক বার নির্বাচিত চেয়ারম্যান ছলিম উদ্দিন তরফদার সেলিম ২০১৪ সালে আগের বার নির্বাচিত সদ্য প্রয়াত এমপি ড. আকরাম হোসেন চৌধুরীর বিরুদ্ধে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে কলস প্রতিক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে বিজয়ী হোন। পরে তাকে আবার দলে ফিরিয়ে নেয়া হয়। ২০১৮ সালে তাকে দলীয় মনোনয়ন দেয়া হলে নৌকা প্রতিক নিয়ে বিপুল ভোটে বিজয়ী হোন ছলিম উদ্দিন তরফদার সেলিম। এসময় তিনি এলাকার ব্যাপক উন্নয়ন করে দলের ও সাধারণ মানুষের ভালবাসা অর্জন করেন। বর্তমানে তিনি মহাদেবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি। দলের ৯০ টি ওয়ার্ডের নেতাকর্মী তার প্রতি আস্থাশিল। হাইকমান্ডের নির্দেশে তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হলে দল মত নির্বিশেষে সকলের কাছে গ্রহণযোগ্য হিসেবে আবারো বিপুল ভোটে জয়লাভ করবেন বলে আশা করছেন। এজন্য তিনি সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের কাছে ভোটের সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রাখা, নিরপেক্ষ নির্বাচনের যাবতীয় ব্যবস্থা গ্রহণ ও যে কেউ যেন অযথা হয়রানির শিকার না হন সেই ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ জানান।


আরও খবর

সোমবারের মধ্যে গাজায় যুদ্ধবিরতি হতে পারে

মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




রাঙ্গাবালীতে উপজেলা চেয়ারম্যান পদে লড়তে চান বাশেদ সরদার

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪ |

Image

পটুয়াখালী প্রতিনিধি :

আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলা চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হয়ে লড়তে চান সবুজ ছায়া আবাসন গ্রæপের চেয়ারম্যান মো. বাশেদ সরদার। তিনি আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় বন ও পরিবেশ বিষয়ক উপকমিটির সদস্য। 

ঢাকা থেকে লঞ্চযোগে বৃহস্পতিবার বেলা ১১ টায় নিজ এলাকা রাঙ্গাবালীর ফেলাবুনিয়া লঞ্চঘাট পৌঁছালে বাশেদ সরদারকে অভ্যর্থনা জানান তার কর্মী-সমর্থকরা।  পরে ফেলাবুনিয়া বাজারে আয়োজিত এক পথসভায় উপজেলা চেয়ারম্যান পদোপ্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন তিনি। 

পথসভা শেষে নিজ বাসভবনে মতবিনিময় সভায় বাশেদ সরদার বলেন, ‘নদী ও সাগর বেষ্টিত এলাকা রাঙ্গাবালী। এখনও নানা সমস্যায় জর্জরিত এই এলাকাটি। আমি এই এলাকার মানুষকে সাথে নিয়ে এগিয়ে  যেতে চাই। জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ডিজিটাল থেকে স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মানের পথে এগিয়ে যাচ্ছে দেশ । আওয়ামী লীগ সরকারের স্মার্ট বাংলাদেশের ভিশন, এর সঙ্গে তাল মিলিয়ে রাঙ্গাবালীকেও এগিয়ে নিয়ে যেতে চাই ।’

জনগণ তাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করলে তাদের চাহিদা অনুযায়ী কাজ করার অঙ্গীকার জানিয়ে তিনি আরও বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা দিয়েছেন, এই নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন থাকবে না। সেক্ষেত্রে আরও একটি সম্ভাবনার দুয়ার খুলে গেছে। যোগ্য প্রার্থী সুযোগ পাবে। জনগণও তাদের যোগ্য প্রার্থী বেছে নিতে পারবে। সেক্ষেত্রে আমি আশাবাদী।


আরও খবর

বাউল ছালমা হলেন বরিশাল বিভাগের শ্রেষ্ঠ "জয়িতা"

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

পাংশায় মাদক সহ ৯ মামলার আসামী গ্রেফতার

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




একুশে ফেব্রুয়ারি ঘিরে নিরাপত্তা ঝুঁকি নেই

প্রকাশিত:সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ |

Image

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ও শহীদ দিবসকে ঘিরে কোনো ধরনের নিরাপত্তা ঝুঁকি নেই বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার হাবিবুর রহমান।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, এই মুহূর্তে আমাদের কাছে কোনো নিরাপত্তা ঝুঁকি নেই। তারপরও পুলিশের পক্ষ থেকে সব ধরনের নিরাপত্তা হুমকি বিশ্লেষণ করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, আমাদের সার্বক্ষণিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা বইমেলায় রয়েছে। সেখানে একটা কন্ট্রোল রুম স্থাপন করে ক্যামেরার মাধ্যমে সব ধরনের সিকিউরিটি ইকুইপমেন্ট এবং সিকিউরিটি ইউনিট কাজ করছে।

 তিনি আরো বলেন, আইন-শৃঙ্খলা ভঙ্গের মতো কোনো পরিস্থিতি তৈরি হলে পুলিশ সবসময় প্রস্তুত রয়েছে। একুশে ফেব্রুয়ারি যেহেতু গভীর রাত এবং ঢাকা শহরের মানুষ এদিকে আসবেন তাই যানজট নিয়ন্ত্রণের জন্য একটি ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। কিছুকিছু জায়গায় যান চলাচল নিয়ন্ত্রিত থাকবে। কোনো কোনো জায়গা দিয়ে গাড়ি একদিকে ঢুকতে পারবে। সাধারণত পলাশীর মোড় দিয়ে শহীদ মিনারে আসার রাস্তাটা রাখা হয়েছে। বের হওয়ার রাস্তাটাও নির্দিষ্ট করে দেয়া হয়েছে। বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানিয়ে দেয়া হয়েছে।

পুলিশ কমিশনার হাবিবুর রহমান বলেন, যারা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আসবেন তাদের প্রতি আমাদের অনুরোধ, সবাই পরস্পরের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে এখানে আসবেন এবং শৃঙ্খলা মেনে চলবেন। সব নাগরিকের কাছ থেকে পুলিশ সহনশীল আচরণ প্রত্যাশা করে।


আরও খবর

গ্যাস লিকেজ থেকে বিস্ফোরণ, দগ্ধ সাত

বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




একজন শুভ্রদেব ও একুশে পদক প্রাপ্তি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪ |

Image

মনির চৌধুরী সঙ্গীত শিল্পী :

আমার সাথে শ্রদ্ধেয় শুভ্র দার পরিচয় সেই ১৯৯৫/৯৬ সাল থেকে (জেরিন আসগর) জেরিনা আপার বাসায় গান করা থেকে। তারপর টুটু আপার বাসায় সেই সময় শুভ্রদা অনেকবার আমার অনেক গান শুনেছেন। সেই পরিচয়ে শুভ্র দার বিয়ের মেয়ে দেখা অনুষ্ঠান হোটেল পূর্বাণীতে, সেখানে দাদা আমাকে ডাকেন গান গেতে। আমি যদি ভুল নাকরে থাকি, সেই অনুষ্ঠানে প্রয়াত প্রণব ঘোষ দাদা পুরো অনুষ্ঠান সঞ্চালনার দায়িত্বে ছিলেন। গান করেছি আমি, ক্লোজআপ ওয়ান তারকা বাঁধন ও পারভেজ। আমরা এই ৩ জনই গান করেছি। ওই অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের সঙ্গীত জগতের সব তারকারা উপস্থিত ছিলেন। তারপর দাদা আমাকে অনেক প্রগামে গান করার সুযোগ করে দিয়েছেন এবং এখনো দিচ্ছেন। যেটা নিয়ে আমি এতো ভুমিকা করেছি কেন সেটা এখনই পরিস্কার হবে। 

আমি যেহেতু গান করি সেহেতু আমি অনেক প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের পিছনে বা প্রতিষ্ঠান প্রধানের পিছনে মাসের পর মাস, কারো পিছনে ১ বছর ঘুরেছি আমার এ্যালবাম করার জন্য। আমি কারো নাম নিচ্ছি না। কিন্তু কেউই আমার গান রেকর্ড করেনি ও এ্যালবামও প্রকাশ  করেনি। বলাই বাহুল্য আমার কাছে তখন টাকা ছিল না যে আমি এ্যালবাম বের করবো। এখানে আমি বলবো আমার গানের শুরু আমার ইমিডিয়েট ভাই মাজহারুল ইসলামের (বর্তমানে র্প্রিন্সিপাল) হাত ধরে। তিনি আমাকে স্কুলে থাকা অবস্থায় হামদ- নাত শিখিয়ে দিয়ে প্রথম প্রতিযোগীতায় প্রথম হওয়ার পরএই আমার যাত্রা শুরু হলো। ২০০৩ সালে ধানমন্ডি সুরধুনীতে আমার আসা হলো হাসান জামাল আংকেল এর মাধ্যমে। উনি বাংলাদেশ বেতারে ডিডিজি ছিলেন। এই আংকেল আমাকে সুরধুনীতে ডা: খালেদা আন্টি সাথে পরিচয় করিয়ে দেন। ২০০৫ সালে এটিএন তারকা রিয়ালিটি শোতে শুভ্র দা চেয়েছিলেন আমি ওই রিয়ালিটি শো তো অংশগ্রহণ করি, কিন্তু র্দূভাগ্য আমার ঐ শোতো অংশ নেয়া হয় নাই যে কোন কারনে। ২০০৬ খালেদা আন্টি ঠিক করলেন আমার একক সঙ্গীত অনুষ্ঠান করবেন। আমি আন্টিকে না বলেছিলাম কিন্তু উনি আমার অনুষ্ঠান করবেনই। কারন একটা অনুষ্ঠান করতে অনেক ঝামেলা পোহাতে হয় এজন্য না করেছিলাম। অনুষ্ঠানের তারিখ ঠিক হলো। আমি তখন শুভ্র দাকে বললাম দাদা আমার অনুষ্ঠানে আসবেন। দাদা সহ অনেক শিল্পীকে জাতীয় যাদুঘরের প্রধান মিলনায়তনে দাওয়াত দিয়েছিলাম। অনেকি এসেছিলেন সেখানে। দাদা অনুষ্ঠানে আসলেন এবং বক্তব্য রাখার সময় বললেন, সুরধনী আজকে যে শিল্পীকে নিয়ে অনুষ্ঠান করছেন আমি সুরধুনীর সবাইকে আমার অন্তর থেকে ধন্যবাদ জানাই। এবং দাদা এও বলেছিলেন, আমরা বলি এ স্টার ও স্টার আজকে আমি বলবো সত্যিকারের স্টার মনির চৌধুরী। সত্যিকারের স্টার ও ই যাকে নিয়ে সুরধুনী এতো বিশাল আয়োজন করেছে। আমি দাদার আমার মতো অধম ও বেগুন মানুষকে নিয়ে একথা আমি কোন দিনও ভুলবো না। আমাদের শিল্পী সমাজে আমার দেখা ২/৪  সেলিব্রিটি শিল্পী ছাড়া কাউকে দেখা যায়না নতুন কোন গানের মানুষকে সামনে তুলে ধরতে সাহায্য ও সহায়তা  করতে কোন কারন ছাড়া। আমি বলতে চাই, আপনার প্রতিভা আছে কিন্তু এই প্রতিভাটাকে সবার সামনে তুলে ধরার প্রয়াস কোন সেলিব্রিটি শিল্পী দেখায় কোন রকম সম্পর্ক ছাড়া এটা বিরল। যেটা দাদা আমার বেলায় দেখিয়েছেন। আমি ছোট বেলা থেকে শুনে আসছি, যে মানুষকে সম্মান করে মহান আল্লাহ নাকি তাকে সম্মানিত করেন। ওই একক অনুষ্ঠানের পর দাদাকে ধরে ডা: খালেদা আন্টি ও সুরধুনীর সবাই এটিএন এর চেয়ারম্যান জনাব মাহফুজুর রহমানকে দিয়ে আমার একক মৌলিক গানের এ্যালবাম "প্রিয়া তোমায় ভুলিনি" শিরোনামে সিডি ও ভিসিডি বের করার ব্যবস্থা করেন। সবকটি গান লিখেছেন শেখ রেজা শানু, সুর করেছেন শ্রদ্ধেয় মান্নান মোহাম্মদ।  

আমি প্রথমেই একটু বেশি ভুমিকা টেনেছি সঙ্গত  কারনে। আমি তো সারাজীবন দাদার অবদানের কথা বলবোই। আমার জানা মতে আরো অনেককে শিল্পী হওয়ার পথে সহায়তা করেছেন দাদা। জীবনে যিনি মানুষের মঙ্গল চান, যিনি পরোপকারী তিনি তো সম্মানিত হবেন এটাই স্বাভাবিক। আজ অবধিও দাদা আমার খোঁজ খবর রাখেন। করোনা মহামারীর সময়ও দাদা আমার খোঁজ খবর নিয়েছেন। অনেকেই দাদার একুশে পদক পাওয়া নিয়ে নেতিবাচক মনোভাব ব্যক্ত করেছেন আমি দেখছি, কিন্তু আমি বলবো শুভ্র দা মানবিক মূল্যবোধ সম্পন্ন একজন শিল্পী। তাঁকে মহান আল্লাহ পাক সম্মানিত করেছেন। আপনার আমার হিংসা করে কোন লাভ নেই। আল্লাহ যাকে সম্মান দেন তাঁকে কেউ অসম্মান করা ঠিক না।

এবার আসি দাদার জনপ্রিয়তা নিয়ে কথা।

দাদা ৮০ দশক ও ৯০ দশকে যে গান উপহার দিয়েছেন এগুলো আমার বিবেচনায় সেরা। ইয়াং ছেলে মেয়ের কাছে দাদা কতো জনপ্রিয় তা শুধু আমরা জানি যারা সে সময় স্কুল ও কলেজে পড়েছি। কৃষ্ণ চুড়ায় ছায়ে ছায়ে, নীল চাঁদোয়া, আমি হেমিলনের সেই বাঁশিওয়ালা। এরকম অগণিত গান জনপ্রিয়। আহা! কি ক্রেজ দাদার। গীতিকার ও সুরকার হিসেবেও সফল দাদা। আন্তজার্তিক অঙ্গনে দাদার যে অবদান সেটা একটা ভিন্ন মাত্রা যোগ করেছে দাদার ক্যারিয়ারে। আমি তো উনার কোন অযোগ্যতা দেখিনা। কতো অযোগ্য লোক একুশে পদক পেয়েছে দেখলাম, তাদের বেলায় তো কারো কোন প্রতিবাদ দেখলাম না। ঔ সময় ভোলায় অভিজিৎ দা আমাকে বলতেন "ভোলার শুভ্র দেব" এটা আমার কানে এখনো বাজে।


আরও খবর

ভাষার মাসের প্রথম দিনে নওগাঁয় বর্ণমালা মিছিল

বৃহস্পতিবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




মস্তিষ্ক-হৃৎপিণ্ড-রক্তে জটিলতা বাড়ায় করোনা টিকা

প্রকাশিত:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪ |

Image

করোনা টিকা ফাইজার-মডার্না ও অ্যাস্ট্রাজেনেকার ডোজের প্রভাবে মস্তিষ্ক, হৃৎপিণ্ড ও রক্তে জটিলতা বৃদ্ধির ঝুঁকি বাড়ে বলে জানা গেছে এক গবেষণায়। বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ বহুজাতিক সংস্থা গ্লোবাল ভ্যাকসিন ডেটা নেটওয়ার্কের তত্ত্বাবধানে পরিচালিত হয়েছে গবেষণাটি।

গবেষণা কাজের অংশ হিসেবে বিশ্বের ১৩টি দেশের ৯ কোটি ৯০ লাখ মানুষের তথ্য সংগ্রহ ও বিশ্লেষণ করেছে ডেটা নেটওয়ার্ক। গত সপ্তাহে গবেষণা প্রবন্ধটি প্রকাশ করেছে আন্তর্জাতিক বিজ্ঞান সাময়িকী ভ্যাকসিন। প্রবন্ধে গবেষকরা বলেছেন, এই ৯ কোটি ৯০ লাখ মানুষের মধ্যে যারা এমআরএনএ টিকা ফাইজার এন বায়োএনটেক কিংবা মডার্না টিকার দ্বিতীয় ও তৃতীয় ডোজ সম্পূর্ণ করেছেন, তাদের একাংশ ইতোমধ্যে মায়োকার্ডিটি নামে হৃৎপিণ্ডের সমস্যায় আক্রান্ত হয়েছেন। এই সমস্যায় আক্রান্তরা হার্টের মাংসপেশির সার্বক্ষণিক প্রদাহে ভোগেন।

আর অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৃতীয় ডোজ যারা সম্পূর্ণ করেছেন, তাদের একাংশ আক্রান্ত হয়েছেন পেরিকার্ডিটিতে। এই সমস্যায় আক্রান্ত হলে হৃদপিণ্ডের কার্ডিয়াক মাংসপেশিতে প্রদাহ হয়। গ্লোবাল ভ্যাকসিন ডেটা নেটওয়ার্কের গবেষকদের মতে, ফাইজার এবং মডার্নার দ্বিতীয় ডোজ মায়োকার্ডিটির ঝুঁকি ২ দশমিক ৯ গুণ এবং অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৃতীয় ডোজ পেরিকার্ডিটির ঝুঁকি ৬ দশমিক ন গুণ বৃদ্ধি করে।

মায়োকার্ডিটি ও পেরিকার্ডিটি উভয়ই বেশ বিরল শারীরিক জটিলতা।

এছাড়া অ্যাস্ট্রাজেনেকা ও অন্যান্য ভাইরাল-ভেক্টর করোনা টিকা এবং এমআরএনএ টিকা ফাইজার-মডার্নার ডোজে রক্ত জমাট বেঁধে যাওয়া, গুলিয়ান-ব্যারে সিন্ড্রোম এবং মায়েলিটিসের মতো শারীরিক সমস্যার ঝুঁকি বাড়ে ২ দশমিক ৫ গুণ। গুলিয়ান ব্যারে সিন্ড্রোমে আক্রান্ত রোগীরা স্নায়বিক সমস্যায় ভোগেন আর মায়েলিটিসে আক্রান্তরো ভোগেন মস্তিষ্ক ও মেরুদণ্ডের প্রদাহে।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে বিশ্বের প্রথম করোনায় আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। করোনায় প্রথম মৃত্যুর ঘটনাটিও ঘটেছিল চীনে।

তারপর অত্যন্ত দ্রুতগতিতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটি। পরিস্থিতি সামাল দিতে ২০২০ সালের ২০ জানুয়ারি বিশ্বজুড়ে জরুরি অবস্থা জারি করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

কিন্তু তাতেও অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় অবশেষে ওই বছরের ১১ মার্চ করোনাকে মহামারি হিসেবে ঘোষণা করে ডব্লিউএইচও।

মহামারি শুরু হওয়ার অবিশ্বাস্য দ্রুততার সঙ্গে ২০২০ সালের আগস্টে প্রথম করোনা টিকা স্পুটনিক ৫ বাজারে আনে রাশিয়া। তবে জরুরি অবস্থায় এই টিকার ব্যবহার বিষয়ক ছাড়পত্রের জন্য বিশ্ব স্বাস্থ্য সস্থার কাছে আবেদন করেনি মস্কো। ডব্লিউএইচওর ছাড়পত্র পাওয়া প্রথম করোনা টিকার নাম ফাইজার এন বায়োএনটিক। ২০২০ সালের নভেম্বরে এই টিকাটি বাজারে আসে।

এরপর একে একে বাজারে আসে মডার্না, অ্যাস্ট্রাজেনেকা, জনসন অ্যান্ড জনসনসহ বিভিন্ন করোনা টিকা।

টিকা আবিষ্কারের পর থেকে এ পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে বিভিন্ন মোট ১ হাজার ৩৫০ কোটি ডোজ ব্যবহার করা হয়েছে বলে গবেষনা প্রতিবেদনে জানিয়েছে গ্লোবাল ভ্যাকসিন নেটওয়ার্ক।

ডব্লিউএইচওর অন্যতম গবেষণা অংশীদার নিউজিল্যান্ডভিত্তিক সংস্থা জিভিডিভি জানিয়েছে, করোনা টিকার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হিসেবে এ পর্যন্ত ১৩ ধরনের শারীরিক জটিলতা ও সমস্যা তারা রেকর্ড করেছেন। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে টিকা নেওয়ার পর এসব সমস্যায় রোগীরা আক্রান্ত হয়েছেন বলে উল্লেখ করেছেন জিভিডিভির গবেষণকারা।

গ্লোবাল ভ্যাকসিন ডেটা নেটওয়ার্কের যে বিজ্ঞানী দলটি এ গবেষণা পরিচালনা করেছে, সেই দলের অন্যতম সদস্য এবং ডেনমার্কের স্টাটেন্স সিরাম ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক ক্রিস্টিনা ফেকসোভা এক বিবৃতিতে নিজেদের গবেষনা প্রবন্ধ সম্পর্কে বলেন, ব্যাপারটি এমন নয় যে আমরা করোনা টিকার ডোজকে ক্ষতিকর বলে প্রচার করছি। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের কোটি কোটি মানুষ বিভিন্ন করোনা টিকার ডোজ নিয়েছেন এবং তাদের অধিকাংশই হয়তো কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া অনুভব করেননি।

কিন্তু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় ভুগেছেন বা ভুগছেন এমন মানুষের সংখ্যা কম হলেও তারা গুরুত্বপূর্ণ। কারণ তাদের এসব সমস্যা টিকা প্রস্তুতকারী কোম্পানিগুলোকে এই বার্তা দেয় যে, করোনা টিকাগুলো আরও নিরাপদ ও নিখুঁত হওয়া প্রয়োজন।

সূত্র : ব্লুমবার্গ. দ্য নিউইয়র্ক পোস্ট


আরও খবর

চোখ রাঙাচ্ছে এডিস মশা

বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




পরিচ্ছন্নতা অভিযানে নেমেছেন একঝাঁক তরুন

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ |

Image

সিনিয়র রিপোর্টার :

পরিচ্ছন্ন বাংলাদেশের স্বপ্নকে পাথেয় করে ''শুরুটা এখানেই শেষ করার দায়িত্ব আপনার'' এই প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে নিয়ে পথচলা শুরু করেছে 'বিডি ক্লিন' রাণীনগর। পরিচ্ছন্নতা শুরু হোক আমার থেকে এমন উদ্যোগকে বুকে ধারণ করে সাবেক ছাত্র নেতা ও আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আসাদুজ্জামান আসাদ উপজেলার একঝাঁক তরুনকে সঙ্গে নিয়ে গঠন করেছেন বিডি ক্লিন রাণীনগর নামের একটি দল। 

যে দলের মাধ্যমে গত ২ফেব্রুয়ারী থেকে রাণীনগর উপজেলার প্রধান প্রধান স্থান গুলো পরিস্কার পরিচ্ছন্ন করার কাজ অব্যাহত রাখা হয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় শুক্রবার উপজেলার বটতলী মোড়ে ময়লা-আবর্জনায় ভরে যাওয়া পানি চলাচলের একমাত্র সরকারি খালটি পরিস্কার করা হয়। পরিচ্ছন্নতা অভিযান শুরু করার আগে দলের সদস্যদের শপথ বাক্য পাঠ করানো হয়। এরপর তরুনরা শুরু করে খাল পরিস্কারের কাজ। সরকারি ওই খালটি ছাড়াও বটতলী এলাকার আরো কয়েকটি ময়লা আর আবর্জনায় ভরে থাকা ডোবাও পরিস্কার করা হয়। এছাড়া সাবেক ছাত্রনেতা হাসানুজ্জামান হাসান সহ আরো অনেকেই পরিচ্ছন্নতা অভিযানে অংশ গ্রহণ করেন। 

এসময় সাবেক ছাত্র নেতা আসাদুজ্জামান আসাদ বলেন এই শহর আমার, এই দেশ আমার পরিচ্ছন্ন রাখার দায়িত্বও আমার এমন উপলব্ধি থেকেই একঝাঁক শিক্ষিত তরুনদের সঙ্গে নিয়ে শুরু করেছি আমাদের এই অভিযান। আমরা ধারাবাহিক ভাবে আমাদের এই উপজেলাকে একটি পরিস্কার ও পরিচ্ছন্ন এলাকা হিসেবে গড়ে তুলতে সবাইকে উজ্জীবিত করতেই মূলত এমন উদ্যোগ গ্রহণ করেছি। আমি আশাবাদি সকলের কাছ থেকে যেভাবে সাড়া পাচ্ছি সেই সহযোগিতার দুয়ার খোলা থাকলে আমরা একদিন আমাদের উপজেলাকে একটি পরিস্কার ও পরিচ্ছন্ন নগরী হিসেবে গড়ে তুলতে সক্ষম হবো এবং নিজেদের চারপাশটি অন্তত পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে সবাইকে উদ্বুদ্ধ করতে শতভাগ সফল হবো। আগামীতেও এই দলটি শুধু পরিচ্ছন্নতাই নয় বিভিন্ন সামাজিক ও সমাজের প্রতিটি মানুষের জন্য ভালো কর্ম সাধনের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখবে।


আরও খবর

বাউল ছালমা হলেন বরিশাল বিভাগের শ্রেষ্ঠ "জয়িতা"

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

পাংশায় মাদক সহ ৯ মামলার আসামী গ্রেফতার

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪