Logo
শিরোনাম

গুগলে রাবি'র শিক্ষার্থী শাকিল আহমেদ

প্রকাশিত:বুধবার ২৫ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

প্রথমবারের মতো টেক জায়ান্ট গুগলে নিয়োগ পেলেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থী শাকিল আহমেদ।

প্রতিষ্ঠানটির আয়ারল্যান্ডের ডাবলিনে অফিসে নিয়োগ পেয়েছেন তিনি। বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক সুব্রত প্রামাণিক বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেছেন, গতকালই গুগল ডাবলিন থেকে তাকে নিয়োগের বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে । তবে যোগদানের তারিখটা এখনো জানা যায়নি।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, শাকিল রাবি'র কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ২৩তম ব্যাচ ২০১৪-১৫ সেশনের শিক্ষার্থী। চাঁদপুরের মতলব উপজেলার জমিলা খাতুন উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক ও সরকারি বিজ্ঞান কলেজ ঢাকা থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করেন তিনি।

স্নাতক শেষ করে ২০১৯ সালে ইনোসিস সল্যুশনস নামের একটি সফটওয়্যার কোম্পানির সিনিয়র ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কাজ করছেন। গুগলে তিনি এসআরই বিভাগে সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে নিয়োগের জন্য নির্বাচিত হয়েছেন।

এ বিষয়ে বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক ড. শামীম আহমদ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে করা এক পোস্টে লিখেছেন, "আমাদের ছাত্রছাত্রীরা বিশ্বের সেরা সেরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে গবেষণা করেছে এবং করছে। দেশী-বিদেশী বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে আইটি এক্সপার্ট, সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কর্মরত রয়েছে। উদ্যোক্তা হিসেবেও আমাদের অনেক অনেক ছাত্রদের সাফল্যের গল্প আজ দেশ ও বিদেশে সমানভাবে সমাদৃত। কিন্তু তারপরেও একটা অপূর্ণতা ছিলই।

মাত্র দুইবছর পূর্বে আমাদের বিভাগ থেকে আন্ডারগ্রাজুয়েট শেষ করে শাকিল সেই অপূর্ণ স্বপ্ন পূরণ করেছে। বিভাগ থেকে তো বটেই, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এই প্রথমবারের মতো ওয়ার্ল্ড টেক জায়ান্ট গুগলে সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে শাকিল নিয়োগ পেয়েছে।

শুধুমাত্র সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে দেখতে চান না জানিয়ে তিনি আরও লিখেছেন, " আমার ব্যাক্তিগতভাবে অনেক দিনের স্বপ্ন ছিল, আমার ছাত্রছাত্রীরা গুললে সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হিসাবে কাজ করবে। একটা স্বপ্ন পুরণ আবার আরেকটা স্বপ্নের জন্ম দেয়। এখন আমি তোমাদেরকে “শুধুমাত্র” সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হিসাবে দেখতে চাই না।”

তিনি আরও বলেন, শাকিল আমাদের বিভাগ থেকে সম্প্রতি পাশ করা শিক্ষার্থী হিসেবে আমাদের শিক্ষার্থীদের জন্য খুবই অনুপ্রেরণাদায়ক। আমাদের শিক্ষার্থীরা আইবিএম, জেনারেল মোটর্সের মতো প্রতিষ্ঠানে কাজ করছে। কিন্তু গুগলে এটাই প্রথম। এধরণের অর্জনগুলো বর্তমান শিক্ষার্থীদের এগিয়ে যেতে অনুপ্রেরণা যোগাবে।


আরও খবর



পাহাড়ি ঢলে রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়ি, জুরাছড়ি, বরকলের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

সুবলং চ্যানেলে তীব্র স্রোতের কারণে কাপ্তাই হ্রদে লঞ্চ চলাচল বন্ধ

প্রকাশিত:সোমবার ২০ জুন ২০22 | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

 উচিংছা রাখাইন,রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি 

অতি ভারী বষর্ণে রাঙ্গামাটি সীমান্তের ওপারের উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে সুবলং চ্যানেলে পানির তীব্র স্রোতের কারনে দূর্ঘটনার আশঙ্কায় সোমবার (২০ জুন) সকাল থেকে রাঙ্গামাটির অন্তত ছয়টি নৌ-রুটে যাত্রীবাহি লঞ্চ চলাচল বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়েছে লঞ্চ মালিকদের সংগঠন বাংলাদেশ অভ্যন্তরীন নৌ চলাচল যাত্রী পরিবহণ সংস্থা রাঙ্গামাটি জোন কর্তৃপক্ষ।

রবিবার (১৯ জুন) দিবাগত রাতে সংগঠনটির পক্ষ থেকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-চলাচল ও যাত্রী পরিবহন সংস্থার রাঙ্গামাটি জোন চেয়ারম্যান মো. মঈনুদ্দীন সেলিম ও যাত্রীবাহি লঞ্চের মালিক গিয়াস উদ্দিন আদর। তবে পরিস্থিতি উত্তরণ হলে মঙ্গলবার (২১ জুন) এ পথে নৌযান চলাচল স্বাভাবিক হওয়ার কথা রয়েছে। পরিস্থিতি সাপেক্ষ এ বিষয়ে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানান তারা।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-চলাচল ও যাত্রী পরিবহন সংস্থার রাঙ্গামাটি জোন চেয়ারম্যান মো. মঈনুদ্দীন সেলিম জানান, রাঙ্গামাটিতে গত কয়েকদিনে টানা বৃষ্টির কারণে কাপ্তাই হ্রদের পানি বেড়ে যাওয়ার পাশাপাশি উজান থেকে নেমে আসা পানির ঢলে সুবলং চ্যানেলে তীব্র স্রোতে স্বাভাবিক লঞ্চ চলাচল বিঘ্নিত হচ্ছে। তাই ভারি বর্ষণ ও স্রোতের কারণে সোমবার (২০ জুন) থেকে রাঙ্গামাটির সব রুটে লঞ্চ চলাচল বন্ধ থাকবে। প্রচন্ড স্রোতের কারণে লঞ্চ দুর্ঘটনার সম্ভাবনার ঝুঁকি থাকায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার স্রোতের পরিস্থিতি দেখে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

এদিকে, রাঙ্গামাটিতে সীমান্ত থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে বাঘাইছড়ি, জুরাছড়ি, বরকল এর নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। ৪ দিনের বৃষ্টিপাত কিছুটা কমে আসলেও পাহাড়ি ঢল নেমে আসছে। উপজেলাগুলোতে জরুরি ভিত্তিতে আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়েছে। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে আশ্রিতদের শুকনো খাবার বিতরণ করা হয়েছে। 

অন্যদিকে, রাঙ্গামাটিতে পাহাড় ধ্বসের আশংকায় প্রাথমিক ভাবে রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে শহরে ২৮টি ঝুঁকিপুর্ণ এলাকা চিহ্নিত করে রাঙ্গামাটি শহরের ১০টি আশ্রয় কেন্দ্রে প্রায় ১ হাজারের বেশি মানুষ সরিয়ে আনা হয়েছে। প্রবল বর্ষণে রাঙ্গামাটি চট্টগ্রাম সড়কের বিভিন্ন অংশে পাহাড় ধস ও রাস্তায় ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। রাঙ্গামাটি-চট্টগ্রাম সড়ক স্বাভাবিক রাখতে সড়ক ও জনপদ বিভাগের কাজ করে যাচ্ছে।


আরও খবর



সালাত ইসলাম ধর্মের মূল ভিত্তি

প্রকাশিত:বুধবার ১৫ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

ইসলাম ধর্ম পাঁচটি ভিত্তির ওপর স্থাপিত। তার মধ্যে নামাজ বা সালাত শীর্ষে। সালাত এমন এক ইবাদত যার মাধ্যমে বান্দা ও তার প্রভুর সরাসরি যোগাযোগ স্থাপিত হয়। যে বান্দা অত্যন্ত বিনয়, নম্রতা, ভক্তি ও আন্তরিকতার সঙ্গে পবিত্র অবস্থায় সালাত আদায় করে সেই তার মহান প্রভুর সান্নিধ্যে উপনীত হওয়ার সৌভাগ্য অর্জন করতে পারে।

একজন বান্দার জন্য এর চেয়ে বড় পাওয়া আর কী হতে পারে? পবিত্র কোরআনে আল্লাহ বলেন, ‘হে মুমিনগণ! তোমরা ধৈর্য ও সালাতের মাধ্যমে আল্লাহর সাহায্য প্রার্থনা করো। নিশ্চয়ই আল্লাহ ধৈর্যশীলদের সঙ্গে রয়েছেন’ (সুরা বাকারা-১৫৩)।  আল্লাহ আরও বলেন, ‘আমার স্মরণের জন্য সালাত আদায় করো’ (সুরা ত্বাহা-১৪)। রসুল (সা.) বলেন, ‘তোমাদের কারও ঘরের দরজার সামনে যদি কোনো নদী থাকে আর তাতে তোমরা যদি প্রতিদিন পাঁচবার গোসল করো, এরপর তার শরীরে কি কোনো ময়লা থাকতে পারে? সাহাবিগণ উত্তরে বললেন, না তার শরীরে কোনো ময়লা থাকতে পারে না। নবী করিম (সা.) বললেন, ঠিক তেমনি যে পাঁচ ওয়াক্ত সালাত পবিত্রতার সঙ্গে আদায় করল, আল্লাহ রব্বুল আলামিন তার সমস্ত পাপ ঠিক তেমনি করে মোচন করে দেন’ (সহিহ মুসলিম) সুবহানাল্লাহ।

পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ সঠিকভাবে আদায় করতে পারলে এর চেয়ে বড় সৌভাগ্যের আর কী হতে পারে? সালাত একজন মুসলমানের জীবনের সবচেয়ে বড় নেয়ামত। হাদিসে এসেছে, ‘পরকালের হিসাব নিকাশ গ্রহণের সময় সর্বপ্রথম আল্লাহতায়ালা সালাতের হিসাব-নিকাশ গ্রহণ করবেন।’ (তাজিমু কাদরিস সালাত)।

‘বেহেশতের চাবিকাঠি হলো সালাত’ (তিরমিজি শরিফ)। তাই ধর্মীয় অনুশাসন মেনে আল্লাহ রব্বুল আলামিনের নৈকট্য লাভ করতে হলে সালাতকে মনেপ্রাণে হৃদয়ে আঁকড়ে ধরতে হবে এবং বিনয় ও ভক্তি সহকারে আল্লাহর প্রতি সালাতের মাধ্যমে আনুগত্য প্রদর্শন করতে হবে।

নামাজ আদায়ের শর্তসমূহ : পবিত্রতা অর্জন করা. নামাজ আদায়ের প্রথম শর্ত শরীর ও পরিধেয় কাপড় পবিত্র হওয়া। পাশাপাশি প্রয়োজন অন্তরের পবিত্রতা। কারণ অন্তর পবিত্র না হলে মূল পবিত্রতার প্রাণশক্তি নষ্ট হয়।

আল্লাহ বলেন, ‘হে মুমিনগণ, তোমরা পবিত্র বস্তুসামগ্রী আহার করো। যেগুলো তোমাদের আমি রিজিক হিসেবে দান করেছি এবং শুকরিয়া আদায় করো আল্লাহর যদি তোমরা তাঁর বান্দা হও’ (সুরা বাকারা-১৭২)। ছতর বা লজ্জা স্থান ঢেকে রাখা। সালাতের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত কিংবা সালাতের পরও লজ্জা স্থান ঢেকে রাখা ফরজ। একেই ইসলামী পরিভাষায় পর্দা বলা হয়। পর্দা নারী-পুরুষ সবার জন্য ফরজ।

অন্তরে বিনয়ী হওয়া : নামাজ আদায়ের আগে মনকে দুনিয়ার যাবতীয় বিষয় থেকে মুক্ত করে পুরোপুরি বিনয় ও ভক্তির সঙ্গে উত্তমভাবে শরীরের অঙ্গসমূহের পূর্ণাঙ্গ নিয়োজিতকরণের মাধ্যমে সালাত আদায় করতে হবে। মনে রাখতে হবে, আল্লাহর আনুগত্য লাভের উদ্দেশ্যই সালাত আদায় করছি যা আমার জন্য পরকালের সম্বল হিসেবে গণ্য হবে। সালাতের উদ্দেশ্যে মনকে প্রফুল্ল রাখতে হবে : সালাত আদায় করতে হবে খুশি মনে। আল্লাহ আমাকে দেখছেন এ কথাটি মনে রাখতে হবে।

সুতরাং বিনম্রচিত্তে প্রফুল্ল মন নিয়ে সালাত আদায় করতে হবে অত্যন্ত ভক্তি ও শ্রদ্ধার সঙ্গে। পবিত্র কোরআনে আল্লাহ বলেন, ‘হে মুমিনগণ! তোমরা নিজেদের এবং তোমার পরিবার পরিজনকে সেই আগুন থেকে রক্ষা করো, যার ইন্ধন হবে মানুষ ও পাথর। যাতে নিয়োজিত রয়েছে কঠোর স্বভাব, পাষাণ হৃদয়ের ফেরেশতারা।

তারা আল্লাহর আদেশ অমান্য করে না এবং যা করতে আদেশ করা হয় তারা তাই করে’ (সুরা তাহরিম-৬)। সুতরাং দোজখের আগুনের ইন্ধন থেকে নিজ ও পরিবারের সদস্যদের রক্ষা করতে হলে বিনম্রচিত্তে সালাত আদায় করা ছাড়া কোনো বিকল্প নেই। 


আরও খবর

১০ জুলাই পবিত্র ঈদুল আযহা

শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২




ভারতের চেরাপুঞ্জিতে ২৭ বছরে বৃষ্টির রেকর্ড

প্রকাশিত:রবিবার ১৯ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

ভারতের মেঘালয় রাজ্যের চেরাপুঞ্জির টানা তিন দিনের বৃষ্টিতে তলিয়ে গেছে বাংলাদেশের সিলেট বিভাগের প্রায় সব জেলা।

গত তিন দিনে আসাম ও মেঘালয়ে প্রায় ২ হাজার ৫০০ মিলিমিটারেরও বেশি বৃষ্টি হয়েছে, যা গত ২৭ বছরের মধ্যে তিন দিনে সবচেয়ে বেশি বৃষ্টিপাতের রেকর্ড। প্রবল বর্ষণে সৃষ্ট ঢল ভাটিতে থাকা বাংলাদেশের সিলেট বিভাগের প্রায় সব জেলায় প্রবেশ করেছে।

বিশ্বের সবচেয়ে বৃষ্টিপ্রবণ ও আর্দ্র স্থানগুলোর একটি চেরাপুঞ্জি। স্থানীয় আবহাওয়া বিভাগ জানিয়েছে চলতি জুনে শুক্রবার (১৭ জুন) পর্যন্ত সর্বমোট প্রায় ৪ হাজার ৮১ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। এর আগে, গত মঙ্গলবার চেরাপুঞ্জিতে বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে ৬৭ দশমিক ৬ সেন্টিমিটার, পরদিন বুধবার ৮১ দশমিক ১ সেন্টিমিটার এবং গত বৃহস্পতিবার রেকর্ড করা হয়েছে ৬২ দশমিক ৬ সেন্টিমিটার।

ভারতের আবহাওয়া অধিদপ্তরের (আইএমডি) বরাত দিয়ে ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস জানিয়েছে, চেরাপুঞ্জিতে গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে ৯৭২ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে, এই বৃষ্টিপাতের পরিমাণ বিগত ১২২ বছরের মধ্যে ৩য় সর্বোচ্চ।

এর আগে সর্বশেষ ১৯৯৫ সালে ১৬ জুন ১৫৬ দশমিক ৩ সেন্টিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছিল চেরাপুঞ্জিতে।

এদিকে, চেরাপুঞ্জির ভাটিতে থাকা বাংলাদেশের সিলেট বিভাগের প্রায় কয়েকটি জেলার বন্যা পরিস্থিতি অবনতি হয়েছে। বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র জানিয়েছে, শুক্রবার সকাল ৯টায় সুরমা নদীর পানি সিলেটের কানাইঘাট পয়েন্টে বিপৎসীমার ১০৮ সেন্টিমিটার, সিলেটে ৭০ সেন্টিমিটার এবং সুনামগঞ্জে ১২০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে বইছিল।

আগামী ৭২ ঘণ্টায় দেশের উত্তরাঞ্চল, উত্তর-পূর্বাঞ্চল এবং তৎসংলগ্ন ভারতের আসাম, মেঘালয় ও হিমালয় পাদদেশীয় পশ্চিমবঙ্গে ভারি থেকে অতিভারি বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস রয়েছে।


আরও খবর



১৫ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে হাইকোর্টে রিট

প্রসূতির পেটে গজ রেখে সেলাই

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে অপারেশনের পর প্রসূতির পেটে গজ রেখে সেলাইয়ের ঘটনায় ভিকটিম শারমিন আক্তার শিলাকে ১৫ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়েছে। রিটে রোগীকে উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থার নির্দেশনা ও তদন্ত করে দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে। এছাড়া ভিকটিমের পরিবারের খরচ নির্বাহের জন্য তাৎক্ষণিক ১০ লাখ টাকা দিতে বলা হয়েছে।

সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট জীবননেছা মুক্তা জনস্বার্থে রিটটি দায়ের করেন। বিচারপতি ফারাহ মাহবুব ও বিচারপতি এস এম মনিরুজ্জামান সমন্বয়ে গঠিত একটি হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চে রিট আবেদনটির শুনানি হবে। রিটে স্বাস্থ্য সচিব, বরিশাল বিভাগীয় কমিশনার, বরিশাল মেডিক্যালের পরিচালকসহ সংশ্লিষ্টদের রিটে বিবাদী (রেসপনডেন্ট) করা হয়েছে।

গত ১৬ এপ্রিল রাতে সিজারের মাধ্যমে কন্যা সন্তানের জন্ম দেন ঝালকাঠীর নলছিটি উপজেলার বাসিন্দা জিয়াউল হাসানের স্ত্রী শারমিন আক্তার শিলা। অস্ত্রোপচারের পর থেকে পেটে ব্যাথা অনুভব করছিলেন তিনি। এ জন্য সার্জারি বিভাগে চিকিৎসা দেয়া হয় তাকে। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফেরার কিছু দিন পর পেটে প্রচণ্ড ব্যাথা শুরু হয়। ফুলে যায় পেট। ২১ মে পেট ফুটো হয়ে পুজ বের হয়। তাৎক্ষণিক ভর্তি করা হয় হাসপাতালে। সেখানে ২২ মে পুনরায় অপারেশন করা হয়।


সূত্র : বাসস



আরও খবর



নির্ঘুম রাত কাটছে তিস্তাপাড়ের বাসিন্দাদের

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

মইনুল ইসলাম মিতুল: হু হু করে বাড়ছে তিস্তা নদীর পানি। ঘর-বাড়িতে পানি উঠায় নদী-তীরবর্তী মানুষগুলো বাড়িঘর ছেড়ে নিরাপদ স্থানে ছুটে যাচ্ছে। এতে নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছেন তিস্তাপাড়ের বাসিন্দারা।

বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে জেলার হাতিবান্ধার দোয়ানীতে অবস্থিত তিস্তা ব্যারাজ পয়েন্টে (৫২.৭০ সেন্টিমিটার) বিপৎসীমার ১০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। (স্বাভাবিক ৫২.৬০ সেন্টিমিটার)।

লালমনিরহাট পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মিজানুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, উজানে ঢল ও ভারী বৃষ্টিপাতের কারণে তিস্তা নদীর পানি হু হু করে বৃদ্ধি পাচ্ছে।

স্থানীয়রা জানান, ইতোমধ্যে নদী-তীরবর্তী নিম্নাঞ্চল ও চরাঞ্চলের কয়েক হাজার মানুষ পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। আজ সকাল ৯টায় পানি বিপৎসীমার কাছাকাছি এবং বিকেল ৩টায় বিপৎসীমা দিয়ে প্রবাহিত হতে শুরু করে। তবে রাত ৯টায় ডালিয়া পয়েন্টের পানি বিপৎসীমার ১০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। রাতে পানি আরও বাড়তে পারে বলে আশংকা করা হচ্ছে।

উজানের ঢল ও টানা বৃষ্টিপাতে তিস্তা ও ধরলা নদীর পাশাপাশি জেলার অন্যান্য নদী ও ঢোবায় পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। এতে ক্রমেই বাড়ছে দুর্ভোগ।

লালমনিরহাট সদর উপজেলার কালমাটির ওবাইদুল ইসলাম জানান, নদীর পানি বিকেল থেকে হু হু করে বাড়ছে। নদীর তীরবর্তী হওয়ায় কয়েকদিন থেকে রাতে ঘুম আসছে না চোখে। কখন কি হয় সে চিন্তাই এখন মূল ভয়। এর আগে তিস্তার গ্রাসে ৮ বার বাড়ি সরিয়ে নিয়েছে বলেও জানান তিনি।

নির্ঘুম রাত কাটানোর অভিজ্ঞতা শুধু ওবাইদুলের নয়, ওই এলাকার শামসুল, আমজাদসহ অনেকেই জানান, পানি বৃদ্ধি পেলে আমরা যেখানে আশ্রয় নিই ইতোমধ্যে সেই স্কুলের মাঠেও পানি প্রবেশ করতে শুরু করেছে।

এদিকে বন্যাসহ যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবিলায় সব রকম প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন লালমনিরহাটের জেলা প্রশাসক আবু জাফর।


আরও খবর