Logo
শিরোনাম
মেঘনা নদীতে গোসল করার সময় নিখোঁজ ছাত্রের মরদেহ উদ্ধার রাজবাড়ীতে ট্রাকের সাথে সংঘর্ষে মোটর সাইকেল আরোহীর মৃত্যু রাজবাড়ীতে আবৃত্তি ও কথামালায় প্রকাশনা উৎসব নওগাঁয় মোটরসাইকেলের ধাক্কায় স্কুল ছাত্র নিহত-মা ও ছোট বোন আহত মোরেলগঞ্জে শ্রমীকদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করলেন এমপি মিলন লালমনিরহাটে বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে মারাগেছে স্কুলছাত্র নওগাঁয় বোরো ধান চাষের শুরুতেই বিদ্যুতের লোড শেডিং, দুঃশ্চিন্তায় কৃষকরা নওগাঁয় ৩৫ কোটি টাকা মূল্যের কষ্টিপাথরের মূর্তি উদ্ধার করেছে পুলিশ কুড়িগ্রামের শীতকাতর অসহায় মানুষের পাশে কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেত্রকোনায় বিশ্ব জলাভূমি দিবস উপলক্ষে মানববন্ধন

ই-টিকেটিংয়ে কমেছে ভাড়ার নৈরাজ্য

প্রকাশিত:Tuesday ২৯ November ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

 ই-টিকেটিংয়ের কারণে গণপরিবহনে অতিরিক্ত ভাড়া নেয়া বন্ধ হয়েছে।এছাড়া মিরপুর সড়কে ভাড়া নিয়ে নৈরাজ্য আগের চেয়ে অনেকটাই কমেছে বলে মনে করছেন যাত্রীরা।

চলতি মাসেই, রাজধানীর মিরপুর থেকে ঢাকার বিভিন্ন রুটে চলাচলকারী ৩০টি কোম্পানির বাসে ই টিকেটিং চালু হয়। শুরুতেই এ নিয়ে যাত্রী ও বাস মালিক-শ্রমিকের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। তবে এখন অনেকেই ই-টিকেটিং সেবায় সন্তুষ্টি জানিয়েছেন। বাড়তি ভাড়া নেয়ার যে অভিযোগ ছিল তা এখন আর নেই। তবে তারা বলেন, টিকেটে কিলোমিটার উল্লেখ করা থাকলে এই সেবায় আরো স্বচ্ছতা আসতো। শুধু মিরপুরেই নয়, রাজধানীর সব এলাকাতেই দ্রুত এই সেবা চালুর দাবি করেছেন যাত্রীরা। 


আরও খবর



নওগাঁয় ২৮ ঘোড়সওয়ারিকে হারিয়ে শীর্ষে দুই বোন তাসমিনা ও হালিমা

প্রকাশিত:Saturday ১৪ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টার :

নওগাঁয় ২৮ ঘোড়সওয়ারিকে হারিয়ে শীর্ষে দুই বোন তাসমিনা ও হালিমা আক্তার।

শনিবার ১৪ জানুয়ারি বিকেলে নওগাঁর পত্নীতলা উপজেলার ঘোষনগর ইউনিয়নের বরহট্টী মাঠে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী ঘোড়দৌড় প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। 

ঘোড়দৌড় প্রতিযোগীতায় মোট ৩০ জন ঘোড়সওয়ারি অংশ গ্রহন করেন। প্রতিযোগীতায় হাজারো মানুষের উপস্থিতিতে নওগাঁর ধামইরহাট উপজেলার চকসুবল গ্রামের আপন দুই বোন দেশের অন্যতম ঘোড়সাওরি তাসমিনা ও হালিমা আক্তার বিভিন্ন স্থান থেকে আগত ২৮ ঘোড়সওয়ারি কে পেছনে ফেলে প্রথম ও দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেন।


ঘোড়দৌড় প্রতিযোগীতা চলার সময় মাঠের চারিদিকে নারী, পুরুষ, শিশু, বৃদ্ধ, বৃদ্ধা সহ হাজারো মানুষ আনন্দ-মূখর পরিবেশে ঘোড়দৌড় প্রতিযোগীতা উপভোগ করেন।

এব্যাপারে ঘোড়সওয়ারি তাসমিনা বলেন, আমি নওগাঁর মেয়ে, ইতি মধ্যেই আমি দেশের বিভিন্ন স্থানে ঘোড়দৌড় প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে প্রথম হয়েছি। আজ নিজের জেলা নওগাঁতেও খেলায় অংশ নিতে পেরে অনেক ভালো লাগছে আমার, তবে আমি ও আমার আপন বোন দু-জনই প্রথম ও দ্বিতীয় স্থান অর্জন করায় আজ আমি অনেক খুশি । তিনি আরো বলেন, আমাদের অসচ্ছল পরিবার, ঘোড়ার খাবার ও পরিবারের ভরন পোষন যোগাড় করতে বাবার খুব কষ্ট হয়, তারপরও আমি আরো সামনে এগিয়ে যেতে চাই, চাই সকলের দোয়া।

ঘোড়দৌড় প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠানে ঘোষনগর ইউপি চেয়ারম্যান আবু বক্কর সিদ্দিক এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন, পত্নীতলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুমানা আফরোজ, বিশেষ অতিথি ছিলেন, নওগাঁর মহাদেবপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জয়ব্রত পাল, পত্নীতলা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) পলাশ চন্দ্র দেব, নজিপুর পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল আলম বেন্টু প্রমূখ। অনুষ্ঠানে অতিথিরা বিজয়ী আপন দুই বোন তাসমিনা ও হালিমা আক্তার এর হাতে বিজয়ীর পুরস্কার তুলে দেন।


আরও খবর



জমে উঠেছে লোককারুশিল্প মেলা ও লোকজ উৎসব

প্রকাশিত:Monday ২৩ January 20২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

বুলবুল আহমেদ সোহেল :

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে চলছে বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশনে চলছে মাসব্যাপী লোককারুশিল্প মেলা ও লোকজ উৎসব। দেশের ঐহিত্যবাহী লোককারু শিল্পের নিদর্শন সংগ্রহ সংরক্ষন, প্রদর্শন ও পুনরুজ্জীবিত করে নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরার জন্যই প্রতি বছর এ মেলার আয়োজন। দর্শনার্থীদের কাছে সব আয়োজন ঠিকঠাক থাকলেও অভিযোগ উঠেছে মূল ভিষণ থেকে সরে যাচ্ছে ফাউন্ডেশন, চারুকারু শিল্পীদের দেয়া হয়নি পর্যাপ্ত স্টল, কনস্ট্রাকশন কাজ বিনষ্ট হচ্ছে প্রাকৃতিক রূপ।

বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশনের ভেতরে শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিন কারুশিল্প যাদুঘর এবং লোক ও কারুশিল্প যাদুঘর।  গ্রাম বাংলার ইতিহাস ও ঐতিহ্যের ধারক ও বাহক এ দুটি যাদুঘরে স্থান পেয়েছে প্রাচীন লোক ও কারুশিল্প।  মাসব্যাপী এ উৎসবেকে কেন্দ্র করে পুরো ফাউন্ডেশন চত্বরকে সাজানো হয়েছে বর্নিল সাজে।  প্রতিদিনই বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা প্রদর্শন করছে লোক জীবন প্রদর্শনী,গ্রাম্য নালিশ,কনে দেখা, বিয়ে,জামাইকেও পিঠা আপ্যায়নের দৃশ্য, গ্রামীন খেলা হা-ডু-ডু ও কানামাছি। 

দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ছড়িয়ে থাকা কারুশিল্পীদের প্রদর্শনী,  পুতুল নাচ, বায়স্কোপ, নাগর দোলা, মুন্সিগঞ্জ ও মৌলভী বাজারের শীতল পাটি, মাগুরা ও ঝিনাইদহের শোলা শিল্প, রাজশাহীর শখের হাড়ি ও মুখোশ, চট্টগ্রামের তালপাতার হাতপাখা, রংপুরের শতরঞ্জি, সোনারগাঁওয়ের জামদানী নিয়ে অংশ গ্রহন করেছেন চারু কারু শিল্পিরা। 

এদিকে দর্শনার্থীদের বিনোদনকে আরো প্রানবন্ত করতে ফাউন্ডেশনের ভেতরের লেকে নৌকায় চড়ে ঘুরে বেড়ানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। প্রতিদিন সন্ধ্যায় লোকজ এই উৎসবে থাকছে পালাগান, বাউল ও জারিসারি গানের।করোনা ভাইরাসের কারনে গত কয়েক বছর মেলা বন্ধ থাকায় এবার অন্তত একলাখ দর্শনার্থী লোকজ এ উৎসবে অংশ নেবেন বলে আশাবাদী আয়োজকরা।

মেলায় দর্শনার্থীরা গ্রামীন এসব ঐতিহ্যে দেখে ও ছেলে মেয়েদের পরিচয় করিয়ে দিতে পেরে অনেকটাই আবেগ আপ্লুত। 

এদিকে বিভিন্ন জেলা থেকে আগত শিল্পিরা জানালেন প্রতিবছরই এ মেলায় অংশ গ্রহণ করেন তারা। তবে প্লাস্টিক ও বিদেশী পণ্যের দাপটে আজ বিপন্ন হওয়ার পথে এসব গ্রামীন ঐতিহ্য। বংশ পরম্পরায় অংশ গ্রহন কারী এসব শিল্পীরা বললেন সরকারী ভাবে পিষ্ট পোষকতা ছাড়া এ শিল্প ধরে রাখা যাবেনা। তারা বললেন যাদের জন্য এ মেলার আয়োজন তাদেরকেই অবমূল্যায়ন করা হয়েছে এবার। কয়েকটি স্টলেই দুজন করে শিল্পকে দেয়া হয়েছে। 

মেলা পরিদর্শনে আসা কবি শাহেদ কায়েস বলেন, ফাউন্ডেশনের মূল  উদ্দেশ্য থেকে সরে যাচ্ছে। চারু কারুশিল্পীদের প্রমোট করা,আর্থিকভাবে স্বচ্ছল করা ও গবেষণা কেন্দ্র গড়ে তোলার লক্ষেই জয়নুল আবেদিন প্রতিষ্ঠা করেছিল এ ফাউন্ডেশন। প্রতিবছর মেলার আয়োজন ছাড়া তেমন কোন কার্যক্রমই চোখে পড়েনা। আবার যাদের জন্য এ মেলার আয়োজন তাদেরকেও অবহেলা করা হচ্ছে। ১শটি স্টলের মধ্যে ৩২ স্টল বরাদ্ধ দেয়া হয়েছে শিল্পীদের। কোন কোন স্টলে দুজন শিল্পীকে বরাদ্ধ দেয়া হচ্ছে। এখানেতো অন্তত ৬৪ জেলার জন্য ৬৪টি স্টল বরাদ্ধ দিয়ে দেশের সব প্রান্ত থেকে অন্তত একজন করে শিল্পীকে জড়োকরা সম্ভব। তা না করে বেশীরভাগ স্টল দেয়া হচ্ছে বিভিন্ন ব্যাবসায়ীদের। যারা এখানে প্লাস্টিক ও চায়না প্রডাক্ট বিক্রি করে লাভবান হচ্ছে।  কোটি টাকার বাজেটে বিভিন্ন ভবন তৈরী হচ্ছে। যা এখানকার প্রাকৃতিক পরিবেশ বিনিষ্ট করা হচ্ছে।

এসব ব্যাপারে ফাউন্ডেশনের পরিচালক এস এম রেজাউল করিম বলেন,তিনি মাত্র একমাস হয়েছে দায়িত্বে বসেছেন। অভিযোগ গুলো তদন্ত করে ব্যাবস্থা নেবেন। এ বছর কর্মরত কারুশিল্পীদের প্রদর্শনীর জন্য ৩২টি স্টল সহ ১০০টি স্টল বরাদ্ধ দেয়া হয়েছে। মেলা চলবে আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত।


আরও খবর



দশমিনায় শেখ কামাল আন্তঃস্কুল অ্যাথলেটিক্স প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:Thursday ১৯ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

মোঃ নাঈম হোসাইন, দশমিনা,পটুয়াখালী :


পটুয়াখালীর দশমিনায় শেখ কামাল আন্তঃস্কুল ও মাদ্রাসা-অ্যাথলেটিক্স প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করা হয়েছে। শনিবার উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে দশমিনা সরকারি মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়  মাঠে শেখ কামাল আন্তঃস্কুল ও মাদ্রাসা-অ্যাথলেটিক্স প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মহিউদ্দিন আল হেলাল। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এ্যাডঃ ইকবাল মাহমুদ লিটন, উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মো.মিজান সিকদার সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক শিক্ষিকা প্রদানগন উপস্থিত ছিলেন  প্রমুখ।  প্রতিযোগিতায় উপজেলা পর্যায়ে ১৫টি স্কুল ও মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করে।


আরও খবর



র‌্যাবের অভিযানে কিশোর গ্যাংয়ের লিডারসহ ৪ জন আটক

প্রকাশিত:Wednesday ১১ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন :


কিশোর গ্যাংয়ের লিডার সহ ৪ জনকে আটক করেছে র‌্যাব।

জয়পুরহাটের সদর থানার নতুন চাতাল বাজার এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে কিশোর গ্যাংয়ের লিডার গোলাম রব্বানী সহ ৪ জনকে আটক করেছে র‍্যাব। 

সত্যতা নিশ্চিত করে র‍্যাব-৫, সিপিসি-৩, জয়পুরহাট কাম্প থেকে জানানো হয়, র‍্যাব-৫, সিপিসি-৩ জয়পুরহাট ক্যাম্পের কোম্পানী অধিনায়ক মেজর মোঃ মোস্তফা জামান এবং স্কোয়াড কমান্ডার সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার মোঃ মাসুদ রানার নেতৃত্বে বুধবার পূর্বরাত সাড়ে ১২ টারদিকে অভিযান পরিচালনা করে তাদেরকে আটক করা হয়।

আটককৃতরা হলেন, জয়পুরহাট জেলা সদর থানার নতুনহাট শেখপাড়া গ্রামের মোঃ ওবায়দুলের ছেলে মোঃ গোলাম রব্বানী (২৪), একই গ্রামের মোঃ আলতাবের ছেলে মোঃ ফাহিম শেখ (২০), মোঃ নজরুলের ছেলে মোঃ ইব্রাহীম হোসেন (২০) ও একই থানার শান্তিনগর গ্রামের মৃত মতিয়ার রহমানের ছেলে মোঃ শাহিন হোসেন (২৩)।

র‌্যাব-৫, সিপিসি-৩ আরো জানান যে, আটককৃত ৪ জন এলাকায় কিশোর সন্ত্রাসী হিসেবে পরিচিত। এরা সবাই রব্বানী গ্রুপের সদস্য, যেখানে রব্বানি তাদের গাং লিডার। গ্যাং লিডার গোলাম রব্বানীর নামে পুর্বে একটি অস্ত্র মামলাসহ মোট ৪ টি মামলা রয়েছে এবং মোঃ শাহিন হোসেনের নামে একটি মামলা রয়েছে। তারা প্রায় ৭/৮ জন একত্রিত হয়ে জয়পুরহাট সদর থানার নতুন হাট গরুরহাটের এক পরিত্যক্ত দোকানের পেছনে সমবেত হয়ে গাঁজা ও ফেন্সিডিল সেবন করে ছিনতাইয়ের প্রস্তুতি নিচ্ছিল। অভিযানের সময় তাদের কাছ থেকে ধারালো টিপ চাকু, ফেন্সিডিলের বোতল, গাঁজার পুরিয়া সহ মাদক সেবন করার অন্যান্য সরঞ্জামাদিও পাওয়া যায়। এছাড়াও গত শনিবার নতুনহাট গরুর বাজারে এক গরু ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ৬ লাখ টাকা ছিনতাই হয়। 

এরপর জয়পুরহাট র‌্যাব ক্যাম্পের সদস্যরা এ ব্যাপারে নতুনহাট এলাকায় গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহ ও নজরদারি বৃদ্ধি করে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উক্ত স্থানে অভিযান পরিচালনা করলে রব্বানী  গ্যাংয়ের ৮ জন সদস্যের মধ্যে ৪ জন সদস্যকে আটক করতে সক্ষম হয়।

আটককৃতদের বিরুদ্ধে জয়পুরহাট সদর থানায় পেনাল কোড-১৮৬০ এর ৩৯৩/৩৪ তৎসহ মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন, ২০১৮ এর ৩৬(৫) ধারায় মামলা দায়ের করে বুধবার দুপুরে তাদের জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে বলেও নিশ্চিত করা হয়।


আরও খবর



নওগাঁয় সীমান্তে বিজিবির উপর হামলা, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে গুলি

প্রকাশিত:Wednesday ০১ February ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টার :


নওগাঁর ধামইরহাট সীমান্ত এলাকায় মাদককারীদের তল্লাশীর সময় বিজিবি সদস্যদের উপর হামলা চালিয়েছে সঙ্গবদ্ধ মাদককারবারিরা। এ সময় অস্ত্র ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করা হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে তিন রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোঁড়ে বিজিবি। ঘটনাস্থল থেকে বেশ কিছু মাদক ও মোটরসাইকেল উদ্ধার করেছে বিজিবি সদস্যরা। 

ঘটনায় তাৎক্ষণিক কাউকে আটক করতে না পারলেও পরিস্থিত নিয়ন্ত্রণের পর আটকের অভিযান শুরু করেছে। পরে ঘটনাস্থলে পুলিশ ও বিজিবি’র উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তাবৃন্দ ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছেন। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড (বিজিবি)-১৪ (পত্নীতলা) ব্যাটলিয়নের অধিনায়ক লে: কর্ণেল হামিদ উদ্দিন পিএসসি নিশ্চিত করেছেন। 

বুধবার বিকেল ৫টারদিকে উপজেলার উমার ইউনিয়নে চকচন্ডি সীমান্তে সুন্দরা- চকমহেশ এলাকায় এই ঘটনা ঘটেছে। 

অধিনায়ক লে: কর্ণেল হামিদ উদ্দিন জানান, চকচন্ডি বিওপি ক্যাম্পের নায়েক মিজান এর নেতৃত্বে একটি দল  চকচন্ডি ক্যাম্পের এলাকায় বিকেলে সুন্দরা ও চকমহেশ টহল দিচ্ছিলেন। ভারতীয় সীমান্তে ঘেঁষা ধামইহাট উপজেরার চকমহেশ গ্রামের উত্তরে মাঠে নজরুল ইসলামের সরিষা ক্ষেতের পাশের রাস্তা দিয়ে মোটরসাইকেল যোগে ৩জন আরোহী যাচ্ছিলেন। মোটরসাইকেল আরোহীদের গতি বিধি সন্দেহ হলে তাদের পথ রোধ করে দেহ তল্লাশী শুরু করে বিজিবি সদস্যরা। এমতাবস্তায় ওই ৩জন বিজিবি সদস্যদের উপর চড়াও হয়। এক পর্যায়ে ওই ৩ জন তাদের সহযোগিদের মোবাইলে ফোন করলে আরো ৫/৬ টি মোটরসাইকেল নিয়ে আরো ১০ থেকে ১২ জন দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে বিজিবি সদস্যদের মারতে শুরু করেন। মাদককারবারিদের সাথে বিজিবি সদস্য লেন্স নায়েক হাফিজ ও সিপাহী মজিবরের সাথে ধস্তাধস্তি হয়। এক পর্যায়ে অস্ত্র ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করলে বিজিবি সদস্যরা ৩ রাউন্ড ফাঁকা গুলি করেন। সংবাদ পেয়ে চকচন্ডি ক্যাম্প হতে আরো বিজিবি সদস্যগণ ঘটনাস্থলে আসলে হামলাকারী মাদককারবারিরা ঘটনাস্থল থেকে দ্রুত পালিয়ে যায়। পরে বিজিবি সদস্যরা ঘটনাস্থল থেকে হামলাকারীদের ফেলে যাওয়া একটি মোটরসাইকেল, ৪০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট ও ৩ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করেন। 

লে: কর্ণেল হামিদ উদ্দিন আরো জানান, ঘটনায় তাৎক্ষণিক কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি। হামলাকারি মাদককারবারিদের আটক করার জন্য অভিযান শুরু হয়েছে। হামলা ও অস্ত্র কেড়ে নেয়ার চেষ্টা সহ মাদক উদ্ধারের ঘটনায় 'অভিযোগে' থানায় মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে। 


আরও খবর