Logo
শিরোনাম

ইমরান খানকে কেন পদচ্যুত হতে হয়েছে

প্রকাশিত:রবিবার ০৮ মে ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | ৬৯জন দেখেছেন
Image

পিটিআই চেয়ারম্যান এবং পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান শনিবার পুনর্ব্যক্ত করেছেন যে, তার ক্ষমতায় থাকাকালীন তিনি প্রতিবেশী আফগানিস্তান থেকে সেনাদের সরিয়ে নেয়ার পরে পাকিস্তানে সামরিক ঘাঁটি হতে দেয়ার কোনও মার্কিন দাবিতে ‘কখনই সম্মত হননি’।

ইমরান, যিনি গত মাসে একটি অনাস্থা আন্দোলনের মাধ্যমে শীর্ষ পদ থেকে বাদ পড়েছিলেন, যা তিনি অভিযোগ করেন যে, একটি স্বাধীন পররাষ্ট্র নীতি অনুসরণ করার জন্য স্থানীয় খেলোয়াড়দের সহায়তায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দ্বারা মাস্টারমাইন্ড করা হয়েছিল, তিনি বিদেশী পাকিস্তানিদের সম্বোধন করার সময় এই মন্তব্য করেছিলেন।

একটি ভিডিও বার্তায় তিনি বলেছিলেন যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র পাকিস্তানে ঘাঁটি চেয়েছিল যাতে ‘আফগানিস্তানে কোনও সন্ত্রাসবাদ থাকলে এখান থেকে (পাল্টা আক্রমণ) পরিচালনা করা যায়’ - যা তিনি বলেছিলেন যে, তিনি ‘একদম অগ্রহণযোগ্য’ বলে মনে করেছিলেন। ইমরান বলেছেন যে, পাকিস্তান ইতিমধ্যেই মার্কিন নেতৃত্বাধীন ‘সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধে’ ৮০ হাজার প্রাণ হারিয়েছে এবং এখনও তার ত্যাগের প্রশংসা করা হয়নি, অনেক মার্কিন রাজনীতিবিদ এর পরিবর্তে তাদেরকে দায়ী করেছেন।

তিনি বলেন, ‘প্রথমে তারা আমাদের দোষারোপ করেছিল, তারপরে তারা আমাদের প্রশংসা করেনি, আমাদের দেশ এবং উপজাতীয় এলাকাগুলি ধ্বংস হয়ে গেছে এবং এখন (তারা) আবার ঘাঁটি চাইছে। আমি কখনই এতে রাজি হতাম না এবং সেখান থেকেই (আমাদের মধ্যে) সমস্যা শুরু হয়েছিল।’ এটি উল্লেখ করা প্রাসঙ্গিক যে, ইমরান, ২০২১ সালের জুনে একটি সাক্ষাত্কারে স্পষ্টভাবে বলেছিলেন যে, পাকিস্তান আফগানিস্তানের অভ্যন্তরে কোনও ধরণের পদক্ষেপের জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে কোনও ঘাঁটি এবং তার ভূখণ্ড ব্যবহারের অনুমতি দেবে না।

ভিডিও ভাষণে, পিটিআই চেয়ারম্যান বলেছিলেন যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র পাকিস্তানের সরকারের ‘স্বাধীন সিদ্ধান্ত মেনে নিতে’ অভ্যস্ত ছিল না। তিনি বলেছিলেন যে, তিনি পাকিস্তানের পররাষ্ট্র নীতি অন্যের উদ্দেশ্য অনুসরণ না করে নিজের সুবিধার জন্য চান। ‘সমস্যা এখান থেকেই শুরু হয়েছিল,’ তিনি বলেন, চীনের সাথে পাকিস্তানের সম্পর্ক এবং রাশিয়া সফরও যুক্তরাষ্ট্রের জন্য একটি ‘সমস্যা’ ছিল।

ইমরান অভিযোগ করেছেন যে তার সরকারকে পতনের ‘ষড়যন্ত্র’ শুরু হয়েছিল যখন তিনি সামরিক ঘাঁটির দাবি প্রত্যাখ্যান করেছিলেন এবং স্থানীয় মদদদাতাদের সাহায্য করেছিলেন। তিনি বলেছিলেন যে, গত বছরের জুলাই এবং আগস্টের মধ্যে তিনি বুঝতে পেরেছিলেন যে ‘কিছু ঘটছে’। ইমরান বলেছিলেন যে তার সরকার পতনের চেয়ে ‘বড় ষড়যন্ত্র’ ছিল যে তাকে প্রতিস্থাপন করা হয়েছিল কারণ তিনি বর্তমান সরকারকে আক্রমণ করেছিলেন এবং এটিকে ‘দুর্নীতিগ্রস্ত মাফিয়া’ হিসাবে চিহ্নিত করেছিলেন।

তিনি বলেছিলেন যে, তার অভিজ্ঞতায়, পাকিস্তানের ‘শাসক অভিজাতরা দুর্নীতিগ্রস্ত, নমনীয় এবং দাস’ এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ছাড়া বাঁচবে না। ‘এ ধরনের লোককে আমাদের উপরে বসানো এই দেশের ভবিষ্যতের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র এবং এর অসম্মান।’ তিনি তার ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার পরে তার সমর্থনে সমাবেশ ও প্রতিবাদ করার জন্য বিদেশী পাকিস্তানিদের ধন্যবাদ জানান এবং কথিত ষড়যন্ত্র সম্পর্কে সচেতনতা ছড়িয়ে দেয়ার জন্য সামাজিক মিডিয়া প্রচারে অংশ নেওয়ার জন্য তাদের আহ্বান জানান।

ইমরান ২০ মে ইসলামাবাদে তার পরিকল্পিত মার্চের জন্য একটি বিশাল জনসমাগমের কথা জানিয়েছেন, তিনি যোগ করেছেন যে, পিটিআই মার্চে বিরোধ বা সহিংসতা চায় না, বরং এটি চায় পরিবারগুলিও অংশগ্রহণ করুক যাতে বিশ্ব এবং প্রতিষ্ঠানগুলি জানতে পারে যে জাতি কোথায় দাঁড়িয়েছে। সূত্র: ডন।


আরও খবর



বঙ্গবন্ধু সেতু দিয়ে একদিনে সাড়ে ৩৩ হাজার যানবাহন পারাপার

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৯ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ১৪ মে ২০২২ | ৭২জন দেখেছেন
Image

ঈদের সময় যতই ঘনিয়ে আসছে ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে যানবাহনের চাপ ততই বাড়ছে। সচরাচর বঙ্গবন্ধু সেতু দিয়ে ১২-১৫ হাজার যানবাহন পারাপার হয়। তবে গত ২৪ ঘন্টায় সেতু দিয়ে ৩৩ হাজার ৫৩৯ টি যানবাহন পারাপার হয়েছে। আর টোল আদায় হয়েছে ২ কোটি ৭৭ লাখ ২৯ হাজার ৫০০টাকা।

বঙ্গবন্ধু সেতু কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা যায়, গাড়ির চাপ ধীরে ধীরে বাড়ছে। সেতুর টোলপ্লাজার উভয় পাশে ১৮ টি পয়েন্টে টোল আদায় করা হচ্ছে। সড়কে যাতে যানজটের সৃষ্টি না হয় সে লক্ষ্যে এ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। বঙ্গবন্ধু সেতু চালু হওয়ার পর গত ঈদে সর্বোচ্চ ৫২ হাজার ৭৬৮ টি যানবাহন পারাপার হয়। যা এ যাবতকালে সর্বোচ্চ যানবাহন পারাপারের রেকর্ড।

এদিকে টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে গত রাত থেকে যানবাহনের চাপ বেড়েছে। ক্রমেই তা বৃদ্ধি পাচ্ছে। ঘরমুখো মানুষের যাত্রা নির্বিঘন করতে নিরলস কাজ করে যাচ্ছে পুলিশ। সড়কের চারটি সেক্টরে ভাগ হয়ে বিভিন্ন পয়েন্টে কাজ করছেন পুলিশ।

এ ব্যাপারে এলেঙ্গা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ আতাউর রহমান জানান, গাড়ির চাপ আস্তে আস্তে বাড়ছে। তবে কোথাও যানবাহন চলাচল থেমে নেই। সড়কে কাজ করে যাচ্ছে পুলিশ।


আরও খবর



সেপটিক ট্যাংক থেকে অজ্ঞাত যুবকের মরদেহ উদ্ধার

প্রকাশিত:রবিবার ০৮ মে ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১৫ মে ২০২২ | ৬৫জন দেখেছেন
Image

অনুপ সিংহ,নোয়াখালী প্রতিনিধিঃ

নোয়াখালীর সদর উপজেলায় সেপটিক ট্যাংক থেকে অজ্ঞাত এক যুবকের (৩৫) অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। পুলিশ বলছে, মরদেহ পচতে শুরু করেছে। এখনো তার পরিচয় শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি।

রোববার (৮ মে) দুপুর ২টার দিকে উপজেলার ৯নং কালাদরাপ ইউনিয়নের ৭নম্বর ওয়ার্ডের উত্তর চাকলা গ্রামের খোনার মসজিদ সংলগ্ন চুটকি বাড়ি থেকে এ মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

কালাদরাপ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাহাদাত উল্যাহ সেলিম জানান,পচা গন্ধ পেয়ে স্থানীয়রা থানায় খবর দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে চুটকি বাড়ির একটি শৌচাগারের সেপটিক ট্যাংক থেকে মরদেহ উদ্ধার করে। ধারণা করা হচ্ছে কয়েক দিন আগে কেউ তাকে হত্যা করে মরদেহ এখানে পেলে যায়।

সুধারাম থানার ওসির দায়িত্বে থাকা পরিদর্শক (তদন্ত) জাকির হোসেন বলেন,  পুলিশ এ ঘটনায় তদন্ত শুরু করেছে। লাশের সুরতহাল রিপোর্ট সম্পন্ন করা হয়েছে। বিকেলের দিকে ময়নাতদন্তের জন্য ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হবে।

পরিদর্শক তদন্ত আরো জানায়,পুলিশ বিষয়টি খতিয়ে দেখছে। এ বিষয়ে এখনই কোন মন্তব্য করা যাচ্ছেনা। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কাউকে আটক করা হয়নি।


আরও খবর



কুমিল্লায় ৩ হাজার লিটার তেল জব্দ। ভোক্তা অধিকারের অভিযান

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৩ মে ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১৫ মে ২০২২ | ২৯জন দেখেছেন
Image

‌নিজস্ব প্রতি‌বেদক ,কু‌মিল্লা:

কুমিল্লায় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের অভিযানে ৫ লিটারের বোতলজাত ৩ হাজার লিটার সয়াবিন তেল জব্দ করা হয়েছে।  শুক্রবার কুমিল্লার সদর দক্ষিণ উপজেলার বিজয়পুর এলাকায় এক দোকানিরর বাড়ি থেকে এই তেল জব্দ করা হয়। ৫লিটারের প্রতিবোতল ৭৬০ টাকা দরে কেনা এসব বোতল তিনি বর্তমান মূল্য ৯৮৫ টাকায় বিক্রির জন্য মজুদ করেছিলেন বলে জানিয়েছে ভোক্তা অধিকার। তেলের মালিক কামরুল হাসান স্টোর্স এর সত্বাধিকারি কামরুল হাসানকে এই অনিয়মের দায়ে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এছাড়া তেলের বোতলের গায়ের দাম মুছে বিক্রির অভিযোগে একই এলাকার ভাই বন্ধু স্টোরকেও ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। 

ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর কুমিল্লার সহকারি পরিচালক আছাদুল ইসলাম জানান, অসাধু ব্যবসায়িরা পূর্বেও কম মূল্যের কেনা সয়াবিন তেল মজুদ করেছে এখন বেশি মূল্যে বিক্রি করার জন্য। আমরা সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করে তিন হাজার লিটার তেলের ৫লিটারের বোতলগুলো স্থানীয়দের কাছে বিক্রি করে দিয়েছি।


আরও খবর



ঢাকার কেরাণীগঞ্জ হতে ২০ কেজি গাঁজাসহ ০২ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৯ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | ৯০জন দেখেছেন
Image

১৯ এপ্রিল ২০২২  র‌্যাব-১০ এর একটি আভিযানিক দল ঢাকা জেলার কেরাণীগঞ্জ থানাধীন স্বর্ণকুঞ্জ আবাসিক এলাকায় একটি অভিযান পরিচালনা করে আনুমানিক ৬,০০,০০০ টাকা মূল্যের ২০ কেজি গাঁজাসহ ০২ জন মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করে।

গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিদের নাম ১। কামাল হোসাইন (৩৮) ও ২। মোঃ টিপু (২৭) বলে জানা যায়। এসময় তাদের নিকট থেকে মাদক পরিবহনে ব্যবহৃত ০১টি প্রাইভেট কার, ০৫টি মোবাইল ফোন ও নগদ- ১,০৫০  টাকা জব্দ করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিরা পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী। তারা বেশ কিছুদিন যাবৎ কেরাণীগঞ্জসহ ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় গাঁজাসহ অন্যান্য মাদকদ্রব্য সরবরাহ করে আসছিল বলে জানা যায়।

গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় একটি মাদক মামলা রুজু করা হয়েছে।


আরও খবর

ঢাকায় ফিরছে মানুষ

বুধবার ০৪ মে ২০২২




টিসিবির পণ্য বিক্রি স্থগিত

প্রকাশিত:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | জন দেখেছেন
Image

দেশে দরিদ্র পরিবারগুলোর জন্য সোমবার (১৬ মে) থেকে ১১০ টাকা লিটার বোতলজাত সয়াবিন তেল বিক্রি কর‌ার ঘোষণা দিলেও হঠাৎ করে সেই সিদ্ধান্ত থেকে পিছু হটল টিসিবি।

রবিবার (১৫ মে) রাত সাড়ে ৯টায় ন্যায্যমূল্যে তেল বিক্রির এ কার্যক্রম স্থগিত ক‌রা হ‌য়ে‌ছে ব‌লে এক বিশেষ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানায় সংস্থাটি।

প্রকাশিত বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে টিসিবি জানায়, বিক্রয় কার্যক্রম সুশৃঙ্খলভাবে পরিচালনা এবং প্রকৃত সুবিধাভোগীর কাছে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য সাশ্রয়ী মূল্যে পৌঁছানোর লক্ষ্যে সরকার নীতিগতভাবে ফ্যামিলি কার্ডের মাধ্যমে টিসিবির পণ্য (ভোজ্য তেল, মসুর ডাল, চিনি) বিক্রয়ের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। ঢাকা (উত্তর ও দক্ষিণ) ও বরিশাল সিটি কর্পোরেশনে ফ্যামিলি কার্ড প্রণয়ন ও বিতরণ কার্যক্রম চলমান রয়েছে। ফ্যামিলি কার্ড বিতরণ কার্যক্রম সম্পন্ন হওয়ার পর শুধুমাত্র ফ্যামিলি কার্ডের মাধ্যমেই টিসিবির পণ্য সামগ্রীর বিক্রয় কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। তাই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের জন্য চলতি মাসের ১৬ মে থেকে ৩০ মে পর্যন্ত স্বল্প পরিসরে সাধারণ ট্রাকসেল কার্যক্রম স্থগিত করা হল। আগামী জুন মাসে ফ্যামিলি কার্ডের মাধ্যমে এক কোটি নিম্ন আয়ের পরিবারের নিকট টিসিবি কর্তৃক ভর্তুকি মূল্যে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য (ভোজ্য তেল, মসুর ডাল, চিনি) বিক্রয় করা হবে।

এর আগে টিসিবি ঘোষণা দিয়েছিল ১৬ থেকে ৩০ মে পর্যন্ত ১৫ দিনব্যাপী দেশের বড় বড় নগরীর পাশাপাশি জেলা-উপজেলা পর্যায়ে ৩০০টি খোলা ট্রাকের মাধ্যমে পণ্য বিক্রি করা হবে।

ট্রাক থেকে একজন ক্রেতা ৫৫ টাকা কেজি দরে সর্বোচ্চ দুই কেজি চিনি, ৬৫ টাকা কেজি দরে সর্বোচ্চ দুই কেজি মসুর ডাল, ১১০ টাকা দরে ২ লিটার সয়াবিন তেল কিনতে পারবেন। এছাড়া গত মাসের অবশিষ্ট ছোলা ৫০ টাকা কেজি দরে ভোক্তার চাহিদা অনুযায়ী বিক্রি করা হবে বলে ঘোষণা দিয়েছিলো টিসিবি।

এছাড়া রোজার মাসে নিত্যপণ্যের দাম সহনীয় রাখতে গত মার্চ ও এপ্রিল মাসে সারাদেশে তালিকাভুক্ত এক কোটি পরিবারের কাছে ফ্যামিলি কার্ডের মাধ্যমে ন্যায্যমূল্য পণ্য বিক্রি করেছে টিসিবি।


আরও খবর

গৌতম বুদ্ধের জন্মদিন আজ

রবিবার ১৫ মে ২০২২