Logo
শিরোনাম

ইরানে সহিংস বিক্ষোভ চলছেই

প্রকাশিত:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০১ ডিসেম্বর ২০২২ |
Image

পুলিশ হেফাজতে মাহসা আমিনীর মৃত্যুর প্রতিবাদে ইরানে সহিংস বিক্ষোভ চলছেই। সহিংস বিক্ষোভে এরই মধ্যে ৪১ জনের মৃত্যু হয়েছে । এদিকে বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে তেহরানে মিছিল করেছে কয়েক লাখ মানুষ ।

রবিবার তেহরানের শান্তিপূর্ণ মিছিলে অংশগ্রহণকারীরা ইরানের জাতীয় পতাকাসহ নানারকম স্লোগান লেখা প্ল্যাকার্ড বহন করেন। তারা যুক্তরাষ্ট্র, ইহুদিবাদী ইসরাইল ও সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর মদদে দাঙ্গা সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণেরও আহ্বান জানান। মিছিলকারীরা পুলিশসহ ইরানের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীগুলোর প্রতি তাদের সমর্থন ঘোষণা করে জানান, জনগণের জানমাল রক্ষা করতে নিরাপত্তা বাহিনীগুলো তাদের দায়িত্ব পালন করছে। 


আরও খবর

স্পেনে ইউক্রেন দূতাবাসে বোমা বিস্ফোরণ

বৃহস্পতিবার ০১ ডিসেম্বর ২০২২

থাইল্যান্ডে গাড়িবোমা বিস্ফোরণ

মঙ্গলবার ২২ নভেম্বর 20২২




নওগাঁয় হত্যা মামলায় ১০ জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড

প্রকাশিত:বুধবার ২৩ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০১ ডিসেম্বর ২০২২ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টারঃ


নওগাঁয় গভীর নলকুপ নিয়ে বিবাদে উজ্জল হোসেন হত্যা মামলায় ৫ সহোদর সহ ১০ জনকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দিয়েছে বিজ্ঞ আদালত। এছাড়া প্রত্যেককে ২০ হাজার টাকা করে জরিমানা, অনাদায়ে আরো দু' বছরের সশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়। এসময় আসামীরা আদালতে উপস্থিত ছিলেন। বুধবার ২৩ নভেম্বর দুপুর ১২টায় অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ দ্বিতীয় আদালত এর বিচারক ফেরদৌস ওয়াহিদ এ রায় প্রদান করেন। মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ছিলে, অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট আব্দুল বাকী এবং আসামীপক্ষের আইনজীবী ছিলেন, অ্যাডভোকেট মামুনুর রশিদ-২।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, নওগাঁর বদলগাছী উপজেলার সারঙ্গপাড়া মৌজায় সমবায় অফিস থেকে নিবন্ধিত গভীর নলকুপ পরিচালনা করতেন দূর্গাপুর গ্রামের নিহত উজ্জল হোসেন এর চাচা সমিতির সাধারণ সম্পাদক মাজহারুল ইসলাম। ২০১৩ ইং সালে ৯ মে ঐ নলকুপকে কেন্দ্র করে পূর্ব শত্রুতার জেরে নলকূপটি দখলে নেওয়ার জন্য দূর্গাপুর গ্রামের কামরুজ্জামান, ওয়াহেদ আলী, সামসুজ্জামান, রকেট, ডাবলু, আব্দুল হামিদ, এনামুল, মোশারফ হোসেন, বজলুর রহমান, এমদাদুল হক, কারিমা বেগম, জলি আক্তার এবং জয়পুরহাট জেলার বাঁশকাটা গ্রামের মোছা. জীবন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা করে নলকুপ ঘড়ের দরজার তালা ভেঙে তারা ভেতরে প্রবেশ করে কৃষকদের কাছ থেকে টাকা আদায়ের রশিদ ছিড়ে ফেলেন এবং বাক্সে রাখা কৃষকদের নিকট থেকে আদায়কৃত ১৭ হাজার ৫শ' টাকা নিয়ে যাওয়ার সময় উজ্জল হোসেন সহ কয়েকজন বাঁধা দিলে লাঠিসোটা ও লোহার রড দিয়ে মারপিট সহ মরিচের গুড়া মেশানো গরম পানি ছিটিয়ে দিলে উজ্জলের শরীর "পেটের বামপাশে" ঝলসে যায়। উজ্জল গুরুত্বর আহত হলে তাকে উদ্ধার করে বদলগাছী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং পরে নওগাঁ সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরবর্তীতে রাজশাহী মেকিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে পরদিন মারা যান উজ্জল।

এঘটনায় নিহতের চাচা মাজহারুল ইসলাম বাদী হয়ে ১৩ জনকে আসামী করে থানায় মামলা করেন। মামলার দীর্ঘ শুনানি শেষে সাক্ষ্য-প্রমাণের ভিত্তিত্বে ১০ জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড রায় দেয় আদালত। এছাড়া প্রত্যেক ২০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো দু' বছরের সশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন আদালত। তবে মামলায় ৩ জন নারীর কোন সম্পৃক্ততা না থাকায় ঐ ৩ জন নারীকে বেকসুর খালাস দেয় আদালত।

ন্যায় বিচারে আদালতের প্রতি সন্তুষ্ট প্রকাশ করে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট আব্দুল বাকী জানান, দেশে যে ন্যায় বিচার আছে তা এই রায়ের মাধ্যমে আবারও প্রমাণিত হয়েছে।

অপরদিকে, আসামী পক্ষের আইনজীবী মামুনুর রশিদ-২ বলেন, এ মামলায় আমাদের বিপক্ষে যারা স্বাক্ষ্য প্রদান করেছেন তাদের প্রত্যেকের সাক্ষী হিসেবে জবানমন্দী ও জেরা এবং পুঙ্খানু-পুঙ্খ বিশ্লেষণে অবশ্যই আসামীদের বিপক্ষে প্রমাণ করতে সক্ষম হয়নি। তারপরও আসামীদের যাবজ্জীবন কারাদন্ড দিয়েছে আদালত। এতে করে আমরা ক্ষুদ্ধ, খুন্ন ও ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছি। আমরা এ রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করবে। 


আরও খবর



মনোহরগঞ্জ আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেল

প্রকাশিত:সোমবার ০৭ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৯ নভেম্বর ২০২২ |
Image

 কুমিল্লা ব্যুরো ঃ

কুমিল্লার মনোহরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার বিকেলে মনেরাহরগঞ্জ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ মাঠে এ ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এতে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পদে মাষ্টার আবদুল কাইয়ুম চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক পদে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. জাকির হোসেনকে পুনরায় নির্বাচিত করা হয়।

ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে মনোহরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন উদ্বোধন করেন অর্থমন্ত্রী ও কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আ হ ম মুস্তফা কামাল। সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় (এলজিআরডি) মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম।

স্থানীয় সরকারমন্ত্রী বলেন, ‘১৫ আগস্ট এলে যখন আমাদের বুকে রক্তক্ষরণ হয়, তখন বিএনপির নেতাকর্মীরা খালেদা জিয়ার কথিত জন্মদিন পালন করে। বিএনপি-জামায়াত জোট ক্ষমতায় থাকাকালে দেশকে সন্ত্রাসের জনপদে পরিণত করেছিল। তারা দেশকে ভিক্ষুকের জাতিতে পরিণত করেছিল। আর আওয়ামী লীগ সরকার দেশকে শান্তির জনপদ, আত্মমর্যাদাশীল জনপদে পরিণত করেছে। বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশকে উন্নয়নশীল দেশে পরিণত করেছেন। ’

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মাষ্টার আবদুল কাইয়ুম চৌধুরীর সভাপতিত্বে সম্মেলনে প্রধান বক্তা ছিলেন কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক রেলপথমন্ত্রী মুজিবুল হক।  বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের চট্টগ্রাম বিভাগীয় দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আবদুস সবুর ও কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের মেয়র আরফানুল হক রিফাত।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. জাকির হোসেন ও কার্যনির্বাহী সদস্য আমিরুল ইসলামের যৌথ সঞ্চালনায় আরো বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, দেলোয়ার হোসেন ভেন্ডার, আবুল বাশার প্রমুখ। সম্মেলনে কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন, এম এ করিম মজুমদার, উপজেলা উন্নয়ন সমন্বয়ক মো. কামাল হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শাহাদাত হোসেন, মাষ্টার সোলাইমান, উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক দেওয়ান জসিম উদ্দিন, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহবায়ক সেলিম কাদের চৌধুরী, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি কামরুজ্জামান শামীম ও সাধারণ সম্পাদক আমজাদ হোসেন বিপ্লব সহ উপজেলার ১১ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে সোমবার সকালে লাকসাম সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে লাকসাম উপজেলা ও পৌরসভা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন এলজিআরডি মন্ত্রী।  

সম্মেলনে লাকসাম উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মো. ইউনুছ ভুঁইয়াকে সভাপতি ও ভাইস চেয়ারম্যান মহব্বত আলীকে সাধারণ সম্পাদক করে উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি এবং তাবারক উল্লাহ কায়েসকে সভাপতি ও অ্যাডভোকেট মো. রফিকুল ইসলাম হিরাকে সাধারণ সম্পাদক করে পৌরসভা আওয়ামী লীগের কমিটি ঘোষণা করা হয়।


আরও খবর



ভয়াবহ আকার ধারণ করছে হুন্ডি

প্রকাশিত:বুধবার ১৬ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০১ ডিসেম্বর ২০২২ |
Image

হুন্ডির কারণে কত বিদেশি মুদ্রা থেকে বাংলাদেশ বঞ্চিত হচ্ছে, কাদের মাধ্যমে এই মুদ্রা পাচার হচ্ছে, তার একটি ধারণা পাওয়া গেল এরকম একটি চক্রের ২০ সদস্য পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) হাতে ধরা পরে।

বিকাশ, নগদ, রকেট ও উপায়সহ বিভিন্ন মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসের (এমএফএস) অন্তত পাঁচ হাজার এজেন্ট হুন্ডি চক্রে জড়িত। আর এদের কারণে বছরে আনুমানিক ৭ দশমিক ৮ বিলিয়ন ডলার থেকে বাংলাদেশ বঞ্চিত হয়।

দেশে ডলারের দামে অস্থিরতা শুরুর পর বিষয়টি নিয়ে তদন্তে নামে সিআইডি। এর অংশ হিসেবে ঢাকা ও চট্টগ্রামে তিন দফা যৌথ অভিযান চালিয়ে ওই ২০ জনকে গ্রেপ্তার করে সিআইডির ফিন্যান্সিয়াল ক্রাইম এবং সাইবার ক্রাইম ইউনিট।


গত ৪ মাসে ২০ কোটি ৭০ লাখ টাকা তাদের মাধ্যমে পাচার হওয়ার তথ্য পেয়েছেন তারা।

আর সাইবার ইন্টেলিজেন্সের মাধ্যমে সিআইডি ৫ হাজারের বেশি এজেন্টের সন্ধান পেয়েছে,যারা এমএফসের মাধ্যমে হুন্ডির কারবারে জড়িত।

 এই চক্র অবৈধভাবে হুন্ডির মাধমে বিদেশে অর্থপাচার করছে। আবার বিদেশে অবস্থানরত ওয়েজ অর্নাদের কষ্টার্জিত অর্থ বিদেশ বাংলাদেশে না এনে স্থানীয় মুদ্রায় মূল্য পরিশোধ করে মানি লন্ডারিংয়ের অপরাধ করছে।

“প্রাথমিক পর্যায়ে বিকাশ, নগদ, রকেট ও উপায় এর বহু এজেন্ট এই অবৈধ হুন্ডি ব্যবসার সাথে জড়িত বলে চিহ্নিত করা হয়েছে।”

পাঁচ হাজার এমএফএস এজেন্টের মাধ্যমে চার মাসে হুন্ডি হয়েছে আনুমানিক পঁচিশ হাজার কোটি টাকা। অর্থাৎ, বৈধ ব্যাংকিং চ্যানেলে দেশে আনা আসায় ওই পরিমাণ রেমিটেন্স থেকে বাংলাদেশ সরকার বঞ্চিত হয়েছে।


 সিআইডি বলছে, এসব এমএফএস এজেন্টের মাধ্যমে বছরে হুন্ডি হয়ে দেশে আসছে আনুমানিক পঁচাত্তর হাজার কোটি টাকা। অর্থাৎ, সরকার প্রায় ৭ দশমিক ৮ বিলিয়ন ডলারের রেমিটেন্স থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

২০২১-২২ অর্থবছরে প্রবাসীরা ২ হাজার ১০৩ কোটি ডলার দেশে পাঠিয়েছিলেন, যা দেশের মোট জিডিপির ৭ শতাংশের মত।


আরও খবর

নওগাঁয় বেগুন গাছে টমেটো চাষে সফল কৃষক বাদল

বৃহস্পতিবার ০১ ডিসেম্বর ২০২২

কাগজ সংকটে বই প্রকাশ অনিশ্চিত

বৃহস্পতিবার ০১ ডিসেম্বর ২০২২




যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন, ভোগান্তি চরমে

মোরেলগঞ্জে খাল কাটা এখন গলার কাটা : কার্পেটিং রাস্তা ধস

প্রকাশিত:বুধবার ১৬ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০১ ডিসেম্বর ২০২২ |
Image

এম.পলাশ শরীফ, নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে বলইবুনিয়া ও পুটিখালী ইউনিয়নের সিমান্তে মোল্লারজোর ৬ কিলোমিটার খাল কাটায় ২ কিলোমিটার কার্পেটিং ও  সোয়া ২ কিলোমিটার ইটসোলিং রাস্তা ভেঙ্গে ডেবে গেছে। খাল কাটা এখন গলার কাটা হয়ে দাড়িয়েছে। ৩ ইউনিয়নের মানুষের চলাচলে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। হুমকির মুখে রয়েছে ব্রীজ। এতে হাজার হাজার মানুষের ভোগান্তি এখন চরমে।

 বুধবার সরেজমিনে খোজ নিয়ে জানাগেছে, উপজেলার বিষখালী খাল হয়ে বলইবুনিয়া শ্রেনীখালী অভিমুখি পানিউন্নয়ন বোর্ড প্রকল্পের মাধ্যমে ৬.৫ কিমি. মোল্লারজোর খাল পুনঃখাননের কাজটি শুরু হওয়ার ২দিনের মাথায় ১২.৬০ কিলোমিটার বলইবুনিয়া হয়ে আমতলা, পুটিখালী ১ কোটি ৪ লাখ টাকা ব্যায়ে কার্পেটিং রাস্তাটি ভেঙ্গে ডেবে যায়। পাশেই সোয়া ২ কিলোমিটারের ইট সোলিং রাস্তাটির একই অবস্থা। জনগুরুত্বপূর্ন এ রাস্তা দুটি ভেঙ্গে পড়ায় বলইবুনিয়া, পুটিখালী ও দৈবজ্ঞহাটীর ৩ ইউনিয়নের মানুষের চলাচলে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। ৮/১০টি গ্রামের মানুষের ভোগান্তি এখন চরমে। অটোভ্যান, মোটরসাইকেল, ইজিবাইক, কৃষকদের উৎপাদিত ফসল বাজারে বিক্রির জন্য বিকল্প ব্যবস্থায় নিয়ে আসতে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

 ক্ষতিগ্রস্ত সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড ইউপি সদস্য কেএম জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, অপরিকল্পিত প্রকল্প কৃষকের উপকারে খালকাটা এখন গলার কাটা হয়ে দাড়িয়েছে। বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল গনি খানের নামে একটি ইটসোলিং রাস্তা সেটিও ভেঙ্গে গিয়ে গ্রামবাসীরা দুর্ভোগে  পড়েছে। কর্তাব্যক্তিদের নেই কোন নজরদারি।


 স্থানীয় বলাইবুনিয়া ইউনিয়নের বাসিন্দা কৃষক আবুল কালাম খান, অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্য আব্দুস কুদ্দুস শেখসহ একাধিক ক্ষতিগ্রস্তরা বলেন, দুটি রাস্তা ভেঙ্গে কয়েক হাজার মানুষের ক্ষতিগ্রস্ত করছে। দুই ইউনিয়নের খালের সংযোগ ব্রীজটিও এখন হুমকির মুখে। সংশ্লিষ্ট উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের প্রতি জরুরি ভিত্তিতে জনসাধারনের দুর্ভোগ লাঘবের জন্য ব্যবস্থা গ্রহনের জোর দাবি জানান তারা।  

বলইবুনিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান আলী খান বলেন, ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান কাজটি শুরুতেই দায়সারাভাবে করেছে। মূল ঠিকাদার স্পর্টে কখনও আসেনি। স্থানীয় এক ব্যক্তিকে দিয়ে কাজটি করানো হচ্ছে। কার্পেটিং রাস্তা ভেঙ্গে পড়ার বিষয়টি পানিউন্নয়ন বোর্ডের কর্তৃপক্ষকে জানানো হলেও এখনও পর্যন্ত কোনো ব্যবস্থা গ্রহন করেনি তারা।

এ সর্ম্পকে বাগেরহাট জেলা পানিউন্নয়ন বোর্ডের ফিল্ড অফিসার (এসও) মোশারেফ হোসেন বলেন, কার্পেটিং রাস্তাটি ভেঙ্গে যাওয়ায় উর্দ্ধতন কর্মকর্তাকে জানানো হয়েছে। ব্যবস্থা গ্রহন করা হচ্ছে বলে তিনি জানান।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রকৌশলী মো. আরিফুল ইসলাম বলেন, এ উপজেলার বলইবুনিয়ার বাসবাড়িয়া আমতলা পুটিখালীর ১২.৬০ মিটার কার্পেটিং রাস্তাটি ২০১৬-২০১৭ অর্থ বছরে নির্মাণ করা হয়। খাল কাটার কারনে রাস্তা ভেঙ্গে যাওয়ার বিষয়টি শুনে সরেজমিনে পরিদর্শন করে। তাৎক্ষনিক ক্ষয়-ক্ষতির বিষয়ে উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের অবহিত করা হয়েছে। 


আরও খবর



নওগাঁয় মাদক বিক্রিতে বাধা দেওয়ায়, মাদক বিক্রেতার মারপিটে স্বামী-স্ত্রী আহত

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৮ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০১ ডিসেম্বর ২০২২ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রির্পোটারঃ


নওগাঁয় মাদক বেচাকেনায় বাধা দেওয়াকে কেন্দ্র করে মাদক ব্যবসায়ীদের মারপিটে আহত হয়েছেন স্বামী ও স্ত্রী। আহত স্বামী-স্ত্রীকে উদ্ধার করে স্থানিয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। মারপিটের ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার সন্ধ্যায় নওগাঁর মান্দা উপজেলার সদর ইউনিয়নের নবগ্রাম স্কুলপাড়া গ্রামে।

আহত স্বামী-স্ত্রী হলেন, মোজাহার আলী (৩৭) ও তার স্ত্রী রুবিনা পারভীন (২৯)। তারা নবগ্রাম স্কুলপাড়া গ্রামের বাসিন্দা। 

চিকিৎসাধীন মোজাহার আলী সাংবাদিকদের জানান, তাদের প্রতিবেশি হারুনুর রশীদ নামে এক ব্যাক্তি দীর্ঘদিন ধরে সপরিবারে মাদকের কারবার করে আসছিলেন। প্রতিদিন মাদক কেনার জন্য বিভিন্ন এলাকা থেকে লোকজন তাদের বাড়িতে ভীড় জমান। 

তিনি অভিযোগ করে বলেন, মাদক বেচা-কেনা সহ সেবনকারীদের আসতে নিষেধ করায় হারুনের সঙ্গে আমার বিরোধের সৃষ্টি হয়। সেই জের ধরে বুধবার সন্ধ্যায় হামলা চালিয়ে আমাদের মারপিট করেন হারুনসহ তার পরিবারের লোকজন।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আলমগীর কবির সাংবাদিকদের বলেন, হারুন এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। প্রায় ৩ মাস আগে হেরোইনসহ তাঁমকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে পাঠায় পুলিশ। সম্প্রতি তিনি জামিনে বেরিয়ে আসেন। পুলিশে খবর দিয়ে হারুনকে ধরিয়ে দেওয়া হয়েছে এমন অভিযোগ তুলে প্রতিবেশি মোজাহারকে দেখে নেওয়ার হুমকি দিয়ে আসছিলেন তিনি।

এব্যাপারে বক্তব্য নিতে অভিযুক্ত হারুনুর রশীদের মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তা রিসিভ না হওয়ায় তার কোন বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

মান্দা থানার ওসি নূর-এ-আলম সিদ্দিকী বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই বা কেউ অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পেলে তদন্ত পূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান ওসি l


আরও খবর