Logo
শিরোনাম

ইটনায় মেডিকেল বর্জ্য ব্যবস্থাপনা শীর্ষক প্রশিক্ষণ

প্রকাশিত:রবিবার ১২ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ |
Image

মুজাহিদ সরকারঃ 

কিশোরগঞ্জ জেলার ইটনায় উপজেলা হেলথ কেয়ার আয়োজিত মেডিকেল বর্জ্য ব্যবস্থাপনা শীর্ষক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

১১ জুন রোজ শনিবার প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা হেলথ কেয়ারের প্রোগ্রাম ম্যানেজার(উপ-পরিচালক) ডা. হাসিবুর রহমান ভূঁইয়া, উপজেলা হেলথ কেয়ারের (ডেপুটি প্রোগ্রাম ম্যানেজার) ডা. শাহীন।  ইটনা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিকল্পনা নির্বাহী কর্মকর্তা ডা.অতিশ দাস রাজিব সহ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডাক্তার ও কর্মচারীবৃন্দ। 

সারা বাংলাদেশে প্রথম পর্যায়ে ১৬ টি উপজেলায় এবং দ্বিতীয় পর্যায়ে ২২টি উপজেলায় এই কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এর মধ্যে কিশোরগঞ্জ জেলার একমাত্র  ইটনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এই দ্বিতীয় পর্যায়ের বর্জ্য ব্যবস্থাপনার অংশ হতে যাচ্ছে। 

ইটনা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিকল্পনা নির্বাহী কর্মকর্তা ডা.অতিশ দাস রাজিব সবাইকে ফেসবুক স্ট্যাটাসে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, ডা. হাসিবুর রহমান ভূঁইয়া ও ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. জহির আহমেদ এবং যার কথা না বললেই নয় ডা. শাহিন, যার অক্লান্ত পরিশ্রম ও নিরলস প্রচেষ্টা আজকের এই মেডিকেল বর্জ্য ব্যবস্থাপনা এবং এর গাইডলাইন তৈরি করতে সাহায্য করেছে। তিনি আরও বলেন, ডা.হাসিবুর রহমান ভূঁইয়া সর্বদাই কিশোরগঞ্জের জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করেন বিশেষ কিছু করার, আমাদের উপজেলায় মেডিকেল বর্জ্য ব্যবস্থাপনা স্থাপনা নির্মাণ এর আরেকটি উদাহরণ। 

ডা. হাসিবুর রহমান ভূঁইয়া অসংখ্য ধন্যবাদ উনি এত ব্যস্ততার মধ্যেও ম্যাডামকে নিয়ে ইটনা উপজেলা পরিদর্শন করেছেন এবং যাবতীয় আরো কি কি প্রয়োজন তার সর্বোচ্চ উপজেলা হেলথ কেয়ার থেকে দেয়ার কথা বলেছেন ।

ধন্যবাদ আমাদের ইটনা উপজেলার স্বনামধন্য চেয়ারম্যান চৌধুরী কামরুল হাসান, কে যিনি প্রথম থেকে মেডিকেল বর্জ্য ব্যবস্থাপনা পিট নির্মাণের জায়গা সহ আরো চলমান কাজের সর্বদা সহযোগিতা এবং দিকনির্দেশনা দিয়ে যাচ্ছেন।

ধন্যবাদ সিভিল সার্জন কিশোরগঞ্জ 

ডা. সাইফুল ইসলাম কে প্রতিটি কাজে পরামর্শ এবং দিকনির্দেশনা দেয়ার জন্য। 

আমাদের মেডিকেল বর্জ্য ব্যবস্থাপনা স্থাপনাটি গড়ে উঠলে এত বছর ধরে চলে আসা সকল  মেডিকেল বর্জ্য একসাথে ডাম্পিং করা অথবা পোড়ানো এবং সেটার জন্য যে সমস্যাগুলো তৈরি হতো সেটা একেবারেই কমে যাবে।

এতে একদিকে  প্লাস্টিক বর্জনের জন্য পরিবেশের যে ক্ষতি হতো সেটা কমে যাবে  এবং অন্যদিকে মেডিকেল বর্জ্য গুলো সুনির্দিষ্টভাবে আলাদা আলাদা জায়গা নিষ্কাশন করা হবে ।


আরও খবর



শিশু আর বয়স্কদের জ্বর-সর্দি-কাশিসহ নানা অসুখ

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৫ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২ |
Image

এখন প্রচণ্ড গরম পড়ছে! তাপমাত্রার এই ব্যাপক তারতম্যে প্রথম শিকার হয় শিশুরা। বড়দের মতো আবহাওয়ার দ্রুত তারতম্যের সাথে শিশুরা নিজেকে মানিয়ে নিতে অনেক সময়ই পারে না। গ্রীষ্মকালের গরম সবার জন্যই কষ্টকর। তবে শিশুরা খুব বেশি স্পর্শকাতর বলে অনেক গরম আবহাওয়ায় সহজে খাপ খাওয়াতে পারে না।

তাই অন্যান্য সময়ের তুলনায় গরমকাল শিশুদের জন্য বেশি কষ্টকর ও অসহনীয় হয়ে ওঠে। তাই জ্বর, পেট খারাপ, সর্দি, কাশিসহ নানা শারীরিক অসুস্থতা দেখা দেয়। গরমে ভাইরাল জ্বরে ভুগতে পারে।

জ্বরের লক্ষণ

শরীরের স্বাভাবিক তাপমাত্রার চেয়ে বেশি তাপমাত্রাই (>৯৮.৬ ড় ফা.) হলো জ্বর। তবে, জ্বর কোনো রোগ নয়, শরীরের কোনো অসুস্থতা বা সংক্রমণের লক্ষণ অর্থাৎ রোগের উপসর্গ হলো জ্বর ।

বিভিন্ন কারণে বিভিন্ন ধরনের জ্বর হতে পারে। যেমন ইনফ্লুয়েঞ্জা, ডেঙ্গু, টাইফয়েড, ম্যালেরিয়া, চিকুনগুনিয়া, নিউমোনিয়া, হাম এবং প্রস্রাবের সংক্রমণ ইত্যাদি নানা কারণে জ্বর হতে পারে।

জ্বরের সাধারণ চিকিৎসা

জ্বর কমানোর জন্য প্রথমে দেহের তাপমাত্রা কমানোর ওষুধ প্যারাসিটামল (এইস, নাপা) খাওয়াতে হবে। তবে অনেক সময় ব্যাকটেরিয়াল সংক্রমণের লক্ষণ থাকলে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী উপযুক্ত এন্টিবায়োটিক সঠিক মাত্রায় পাঁচ থেকে সাত দিন খেতে হবে। তবে ভাইরাস জ্বরে এন্টিবায়োটিক লাগে না। শিশুদের বেলায় জ্বর হলে একটু বেশি সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। মনে রাখতে হবে ৩-৪ দিনের মধ্যে শিশুর জ্বর, সর্দি-কাশি না কমলে এবং জ্বর সাথে যদি শিশুর বেশি বমি হয় বা পাতলা পায়খানা হয়, অনবরত কাঁদতে থাকে, শরীরে গুটি বা দানা দেখা দেয়, খিঁচুনি হয় তাহলে জরুরিভাবে চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়া উচিত।

প্রয়োজনীয় উপদেশ

  • গরমে শিশুকে নিয়মিত গোসল করাতে হবে এবং ধুলাবালি থেকে যতটা সম্ভব দূরে রাখতে হবে।
  • বাইরে বের হলে শিশুর জন্য বিশুদ্ধ খাবার পানি সবসময় সাথে রাখতে হবে।
  • ঘেমে গেলে ঘাম মুছে দিতে হবে। শরীরের ঘাম শুকিয়ে গেলে শিশুর ঠান্ডা লাগতে পারে।
  • যতটা সম্ভব শিশুকে সদ্য তৈরি খাবার ও তাজা ফলমূল খাওয়াতে হবে।
  • ত্বক পরিষ্কার রাখতে হবে, যেন র‌্যাশ জাতীয় সমস্যা না হয়।
  • প্রচুর পানি খাওয়াতে হবে, যেন প্রস্রাবের পরিমাণ স্বাভাবিক থাকে।
  • সদ্যজাত শিশুদের সবসময় ঢেকে রাখতে হবে, যেন শরীর উষ্ণ থাকে। তবে খেয়াল রাখতে হবে যেন ঘেমে না যায়।
  • গরমের সময় মশা, মাছি, পিঁপড়া ইত্যাদি পোকামাকড়ের প্রকোপ বেড়ে যায়। এগুলো শিশুর অসুস্থতার কারণ হতে পারে। ঘরকে পোকামাকড় মুক্ত রাখতে হবে।
  • গরমের সময় প্রচুর মৌসুমি ফল পাওয়া যায়। মৌসুমি ফল শিশুকে খেতে দিন। জুস করে দিতে পারেন। এতে শিশুর ভিটামিন চাহিদা মিটবে ও শিশুর পুষ্টিরও পূরণ হবে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বাড়বে। 

আরও খবর

আজ কলেরার দ্বিতীয় ডোজের টিকা

বুধবার ০৩ আগস্ট ২০২২




খাদ্যশস্য চুক্তির ভবিষ্যৎ নিয়ে শঙ্কা

প্রকাশিত:রবিবার ২৪ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ |
Image

মইনুল ইসলাম মিতুল : রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ শুরুর পর থেকে ইউক্রেনের খাদ্যশস্য রপ্তানি বন্ধ হয়ে যায়। এর ফলে বিশ্বজুড়ে দেখা দেয় খাদ্য সংকট। তুরস্ক এবং জাতিসংঘের দীর্ঘদিনের চেষ্টার পর শুক্রবার (২২ জুলাই) খাদ্যশস্য নিয়ে রাশিয়া এবং ইউক্রেনের মধ্যে নতুন চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। খাদ্যশস্য রপ্তানিতে দেখা দেয় আশার আলো।

তবে রাশিয়ার সঙ্গে চুক্তি সই হওয়ার পরদিনই ইউক্রেনের বৃহৎ একটি বন্দর বিস্ফোরণে কেঁপে ওঠেছে। বন্দর শহর ওডেসাতে রশিয়ার চালানো এই ক্ষেপণাস্ত্র হামলার পর কিয়েভ ও মস্কোর মধ্যে হওয়া এই সমঝোতার ভবিষ্যৎ নিয়ে বড় ধরনের সংশয় দেখা দিয়েছে। যদিও পরিকল্পনা অনুযায়ী খাদ্যশস্য রপ্তানির কার্যক্রম চলবে বলে জানিয়েছে কিয়েভ।

ক্ষেপণাস্ত্র হামলার নিন্দা জানিয়েছেন জাতিসংঘ মহাসচিব। রাশিয়ার বিরুদ্ধে খাদ্যকে অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করার অভিযোগ এনে ওয়াশিংটন মস্কোকে জবাবদিহিতার আওতায় আনার দাবি জানিয়েছে।

ইউক্রেন প্রেসিডেন্ট বলেছেন, ‘রাশিয়া যে কথা দিয়ে কথা রাখে না—এটাই তার প্রমাণ। হোয়াইট হাউজ কিয়েভকে ২৭০ মিলিয়ন ডলারের সামরিক সহায়তা দেওয়ারও ঘোষণা দিয়েছে।’

চুক্তিতে রাশিয়া প্রতিশ্রুতি দিয়েছে যে তারা ওডেসা বন্দর থেকে খাদ্যশস্য বহনকারী কোনো মালবাহী জাহাজের ওপর আক্রমণ করবে না। কিয়েভ থেকে বিবিসির সাংবাদিক পল অ্যাডামস বলছেন, ‘ওডেসা বন্দরে এই হামলার পর চুক্তির ভবিষ্যৎ নিয়ে বেশ কিছু প্রশ্ন তৈরি হয়েছে।’

তিনি বলেছেন, ‘চুক্তি লঙ্ঘন করা হলে রাশিয়ার বিরুদ্ধে কী ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হবে এই প্রশ্নের জবাবে জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস বলেছেন “এরকম কোনো ব্যবস্থা তাদের কাছে নেই, তবে সেরকম কিছু হলে তা কিছুতেই গ্রহণযোগ্য হবে না।”

ইউক্রেন ও রাশিয়ার যুদ্ধের মধ্যেই শুক্রবার তুরস্কের ইস্তাম্বুল শহরে খাদ্যশস্য রপ্তানি নিয়ে চুক্তিটি সই হয় এবং জাতিসংঘের পক্ষ থেকে এটিকে ‘ঐতিহাসিক সমঝোতা’ বলে উল্লেখ করা হয়। কিন্তু চুক্তি সই হওয়ার ২৪ ঘণ্টা পার হওয়ার আগেই ইউক্রেনের বন্দরে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানো হলো।

বলা হচ্ছে, ইউক্রেনের ভেতরে যে লাখ লাখ টন খাদ্যশস্য আটকা পড়ে আছে এই চুক্তির ফলে সেগুলো রপ্তানি করা শুরু হবে। পাঁচ মাস আগে যুদ্ধ শুরুর পরপরই রাশিয়া ইউক্রেনের উপকূলের কাছে কৃষ্ণসাগরে নৌ অবরোধ দিলে ইউক্রেনের রপ্তানি মুখ থুবড়ে পড়ে। ইউক্রেন জুড়ে বিভিন্ন গুদামে প্রচুর খাদ্যশস্য মাসের পর মাস রপ্তানির জন্য পড়ে রয়েছে।

কৃষ্ণসাগর তীরবর্তী ওডেসা বন্দরে গুদামেই এখন ২ কোটি টনের মতো খাদ্যশস্য মজুত রয়েছে। এগুলো এখন আফ্রিকা এবং মধ্যপ্রাচ্যের যেসব দেশে খাদ্যের অভাব দেখা দিয়েছে সেখানে রপ্তানি করা যাবে বলে আশা করা হচ্ছে। এই চুক্তিতে রাশিয়া খাদ্যশস্যবাহী ইউক্রেনীয় জাহাজে হামলা না করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। আর ইউক্রেন অঙ্গীকার করেছে এসব জাহাজে অস্ত্র বহন করা হচ্ছে কি না রাশিয়াকে তারা সেটি পরীক্ষা করে দেখার অনুমতি দেবে।

ইউক্রেনের সামরিক বাহিনীর এক জন মুখপাত্র বলেছেন, ‘পরিকল্পনা অনুযায়ী খাদ্যশস্য রপ্তানির কাজ এগিয়ে চলছে।’ ইউক্রেনের অবকাঠামো বিষয়ক মন্ত্রী অলেক্সান্ডার কুব্রাকভ বলেছেন, ‘আমাদের বন্দর থেকে খাদ্যশস্য রপ্তানির জন্য কারিগরি প্রস্তুতির কাজ এগিয়ে নিচ্ছি।’ আবার ইউক্রেনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক জন মুখপাত্র বলেছেন, ‘এখন যদি খাদ্যশস্য রপ্তানির চুক্তি ভেস্তে যায় তাহলে তার জন্য দায়ী হবে রাশিয়া।


আরও খবর



কু‌মিল্লা মনোহরগঞ্জে প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির পরিচিত সভা

প্রকাশিত:সোমবার ০৮ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ |
Image

কুমিল্লা ব্যুরো ঃ

কুমিল্লা মনোহরগঞ্জ উপজেলা বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির নব গঠিত কমিটির পরিচিত সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সমিতির সাবেক সভাপতি সফিকুর রহমান এর সভাপতিত্বে অথিতি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির কুমিল্লা জেলা শাখার সাধারন সম্পাদক নিজাম উদ্দিন,নির্বাহী সম্পাদক বাহা উদ্দিন,সাংগঠনিক সম্পাদক তোজ্জাম্মেল হক। বক্তব্য রাখেন উপজেলা বাংলাদেশ প্রথমিক শিক্ষক সমিতির নব গঠিত কমিটির সভাপতি আশির পাড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ ফজলুল হক মজুমদার, নির্বাহী সভাপতি হাতিমারা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রোকেয়া হায়দার,সাধারণ সম্পাদক নাথের পেটুয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোস্তাফিজুর রহমান, নির্বাহী সম্পাদক আলীনকিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক (ভারপ্রাপ্ত) ফিরোজ আলম,সাংগঠনিক সম্পাদক লৎসর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বাবুল দেবনাথ। বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি(কাশেম-শাহিন) কেন্দ্রীয় কমিটি সম্প্রতি এ মনোহরগঞ্জ উপজেলা কমিটি অনুমোদন করেন।


আরও খবর



দাপট দেখিয়ে রিয়ালকে হারাল বার্সা

প্রকাশিত:রবিবার ২৪ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২ |
Image

কথা রাখলেন রাফিনহা। আগের ম্যাচ শেষ করে জানিয়েছিলেন, রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে গোল করতে চান তিনি। যুক্তরাষ্ট্রের লাস ভেগাসে তিনি সে চাওয়া পূরণ করলেন অবিশ্বাস্য এক গোল করে।

এর আগে-পরে বার্সেলোনা দাপট দেখিয়েছে প্রায় পুরো ম্যাচেই। তবে দুই দলের ব্যবধানটা শেষমেশ গড়ে দিলো ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড রাফিনহার সেই এক গোলই। তাতে ভর করেই রিয়াল মাদ্রিদকে হারাল কোচ জাভি হার্নান্দেজের শিষ্যরা।

বার্সেলোনা সভাপতি হোয়ান লাপোর্তা ম্যাচের আগেই জানিয়েছিলেন, এল ক্ল্যাসিকো কখনো প্রীতি ম্যাচ হয় না। ম্যাচের শুরু থেকেই যেন সেটা প্রমাণের চেষ্টায় ছিলেন লাস ভেগাসের এলিজ্যান্ট স্টেডিয়ামের দর্শকরা। বিপুল হর্ষধ্বনি আর দুয়োতে মনে হচ্ছিল প্রীতি ম্যাচ নয়, চ্যাম্পিয়ন্স লিগ কিংবা লা লিগার গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচই বুঝি খেলতে নামছে দুই দল!


আরও খবর

এশিয়া কাপের দল ঘোষণা ভারতের

মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২




স্বার্থপর মানুষ

প্রকাশিত:বুধবার ১৩ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২ |
Image

অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান চৌধুরীর ফেসবুক থেকে নেয়া ঃ

স্বার্থপর মানুষ সব সময় মাথা উঁচু করে আকাশের দিকে তাকাতে ভালোবাসে | অথচ স্বার্থপর মানুষ মাটির এতটা কাছাকাছি থেকেও  মাথা নিচু করে মাটির দিকে তাকাতে লজ্জাবোধ করে | কিন্তু এমনটা তো হবার কথা ছিলোনা, তারপরও এমনটাই ঘটে যায় | কারণ মানুষ মনে করে চোখ যত উপরে তোলা যাবে জীবন তত জয়ী  হয়ে উঠবে, কপালটা নামিয়ে চোখ নিচে নেমে এলে  মানুষ সেটাকে নিজের পরাজয় হিসেবে ভাবতে শুরু করে | আসলে মানুষ যা ভাবছে সেটা হয়তো একটা আবরণ, একটা মুখোশ কিংবা অভিনয়  | 

একটা চাদর শরীরে চড়িয়ে দিয়ে মানুষ সে আবরণটাকে মূল্যবান মনে করে | কিন্তু চাদরের ভিতরে নিভৃতে বসে থাকা চামড়ার শরীরটাকে মানুষ কোনো মূল্যই দিতে চায়না |   তবে নির্মম সত্য হলো, ভিতরের চামড়ার কাছে চাদরের কোনো মূল্য নেই | চাদর না থাকলেও মানুষের অস্তিত্ব থাকে, চামড়া না থাকলে অস্তিত্বের সংকটে পড়ে যায় মানুষ | মানুষ চাকচিক্যের মোহে মুগ্ধতাকে আঁকড়ে ধরতে জীবনকে বাজী রাখে, মুগ্ধতার চেয়ে যে বাস্তবতা অনেক বড়  তা কোনোভাবেই মানার মতো যুক্তিপূর্ণ জায়গায় নিজেকে নিয়ে যেতে পারেনা | 

মানুষ পা মাটিতে রেখে মাটিকে আঘাতে আঘাতে ক্ষত-বিক্ষত করতে করতে আকাশ দেখার স্বপ্নে আমোদিত হয়, মাটি  কাঁদে, মাটির কান্না মাটি নিজেই শুষে নেয়   | কিন্তু মাটির নিচে অসহায় কান্না জমতে জমতে নদীর জন্ম দেয়, যে নদী কানায় কানায় কান্নার পানিতে ডুবে থাকে  | খুব সুবিধাবাদী হয় মানুষ, মাটিকে কাঁদায়, আঘাত করে, বার বার বিপন্ন করে মাটির জীবন   আবার   সেই কান্নার জমে থাকা পানি মাটির বুক চিড়ে মানুষ বের করে আনে নিজের অস্তিত্বের স্বার্থে |   অথচ    মাটির সেই বোবা  কান্না মানুষের কানে পৌঁছাতে পারেনা | 

হয়তো মানুষ কান্নাকে কখনো আপন করতে পারেনা অথচ নিজের জন্মের সময় চিৎকার করে মানুষ কেঁদে উঠে | তখন কান্না খুব আপন থাকে , কারণ না কাঁদলে  জন্মটাই যে অর্থহীন হয়ে পড়তে পারে | শেকড়টা মানুষ এখন আর খুঁজেনা, মানুষ শেকড়ের ভিতর তার স্বার্থ খুঁজে |   খুব অদ্ভুত মানুষের মনস্তত্ব | আকাশকে কখনো ধরতে পারেনা অথচ আকাশের চাঁদকে মানুষ ভোগবাদী চিন্তার উৎস বানায় | ঝুলে থাকা তারাদের জ্বল জ্বল করে জ্বলতে দেখে মানুষ নিজের ভিতরের রঙের মেলা বসায় | অথচ সেই তারা গুনতে গুনতে মানুষ খেই হারিয়ে ফেলে | যতবার গুনে ততবার হার মানে | মানুষের কাছে আকাশের তারা ততক্ষন মূল্যবান যতক্ষণ তারাদের পতন ঘটেনা | 

ঝুলন্ত তারায় মানুষ তার স্বার্থের বীজ বুনে অথচ  একটা পতনশীল তারার আর্তনাদ মানুষের কানে  পৌঁছায় না | তারারা হারিয়ে যায় শুন্যতায়, যেমন মানুষও  হারিয়ে যায় শুন্যতায় | 

আকাশ আর মাটি উপমমাত্র | মানুষ তার নিজের মতো করে ভাবুক, ভাবনাগুলো পাখি হোক, সে পাখি কখনো খাঁচায় বন্দি হবেনা | বরং যতক্ষণ বেঁচে থাকবে ততক্ষন মাটিতে পা রেখে স্বাধীন ভাবনা দ্বারা তাড়িত হবে | ভাবনা উড়ুক যতটা উপরে ততটা তবে মানুষটার পা-টা  থাকুক কাদামাটির মাটির নিচে | ক্রমাগত নিচে, যেখানে বিনয় আর ত্যাগ হবে মানুষের শক্তি | যে শক্তির কাছে সব শক্তি একদিন পরাভূত হবে |

--   


আরও খবর

পরাজয় মানুষকে আপন-পর চেনাতে শেখায়

বৃহস্পতিবার ০৪ আগস্ট ২০২২