Logo
শিরোনাম

ইটনায় অবৈধ চায়না জাল পুড়িয়ে ধ্বংস

প্রকাশিত:বুধবার ০৮ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

মুজাহিদ সরকারঃ

কিশোরগঞ্জের ইটনায় চায়না জাল ব্যবসায়ীদের বাসায় অভিযান চালিয়ে অবৈধ চায়না দুয়ার জাল জব্দ করেছে ইটনা উপজেলা নির্বাহি অফিসার নাফিসা আক্তার। পরে উপজেলার খোলা মাঠে ইটনা উপজেলা চেয়ারম্যান চৌধুরী কামরুল হাসান,ইটনা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সোহরাব হোসেন(খসরু ঠাকুর) এবং উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা ফরিদ আহমেদের উপস্থিতিতে জব্দকৃত জাল পুড়িয়ে ধ্বংস করে দেওয়া হয়। 

বুধবার (০৮ জুন) বিকালে আনসার বাহিনীর সহযোগিতায় উপজেলা মৎস্য বিভাগ এ অভিযান পরিচালনা করেন । এ সময় কাউকে আটক করা হয়নি।

জানা যায়, উপজেলা ইটনা বাজার থেকেই অবৈধ চায়না দুয়ার জাল বা ডারকি জাল কিনে ফাঁদ পেতে দেশীও মাছ শিকার করছে স্থানীয় লোকজন। এ অভিযানে অবৈধ ১২০ টি চায়না দুয়ার জাল জব্দ করা হয়। পরে জব্দকৃত জাল পুড়িয়ে ধ্বংস করে দেওয়া হয়। এই চায়না দুয়ার জালের মূল্য আনুমানিক ছয় লাখ টাকার হবে বলে জানান মৎস্য বিভাগ। 

উপজেলা নির্বাহি অফিসার নাফিসা আক্তার জানান, আমাদের বিশেষ মোবাইল কোর্টের অভিযানে মৎস্য সম্পদ ধ্বংসকারী অবৈধ চায়না জব্দ করা হয়েছে। পরে সেগুলো জনসম্মুখে পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয়। ভবিষ্যতে এমন অবৈধ জালের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে।


আরও খবর



বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মৎস্যচাষীদের তালিকা জানেন না জেলা মৎস্য কর্মকর্তা

প্রকাশিত:সোমবার ১৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

নিজস্ব প্রতিনিধি লালমনিরহাট।

তিস্তায় ২৫ সেন্টিমিটার পানি কমলেও দুর্ভোগে রত্নাই ও সতী নদী পাড়ের মানুষ, ক্ষতিগ্রস্ত মৎস্য চাষীর তালিকা জানেন না জেলা মৎস্য অফিসার।

লালমনিরহাটে তিস্তার পানি ২৫ সেন্টিমিটার কমে ৫২.২৫ লেবেলে বইছে দূর্ভোগ কমেনি সতী, রত্নাই নদী পাড়ের পানিবন্দি মানুষগুলোর। জেলা মৎস্য অফিসার জানেন না কতটা পুকুরের মাছ ভেসে এলগেছে কিংবা কত টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে মৎস্য চাষীদের। এদিকে লালমনিরহাট কৃষি অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক জানান, মাঠ পর্যায়ের কাজ করা উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তাদের দেয়া তথ্য অনুযায়ী জেলায় চলমান বন্যায় 89 হেক্টর আবাদি জমিতে কৃষকদের উৎপাদিত ঘরে তোলার উপযোগী ফসল পানিতে নিমজ্জিত হয়ে আছে। অপরদিকে তিস্তার পানি ২৫ সেন্টিমিটার কমলেও,বইছে ৫২ দশমিক ২৫ সেন্টিমিটার এর উপর দিয়ে। তবে রত্নাই ও সতী নদী পাড়ের মানুষের দুর্ভোগ এখনো কমেনি। অপরদিকে লালমনিহাট জেলা প্রশাসক আবু জাফর জানান, কোথাও পানিবন্দি আছে এমন কোন খবর তার কাছে নেই। তবে বলল আসলে বাংলাদেশিদের জন্য যথেষ্ট পরিমান বরাদ্দ রয়েছে যা প্রয়োজন নেই সেগুলো নিয়ম মেনে বিতরণ করা হবে।

বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মৎস্যচাষী আসাদুল হক সহ অসংখ্য চাষিরা জানান তাদের খোঁজখবর নেওয়ার জন্য জেলা উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তার দপ্তর থেকে কোনো কর্মকর্তা কর্মচারী তাদের খোঁজ খবর নেননি। বিগত বছরগুলোর ন্যায় এ বছরও ক্ষতিগ্রস্ত মৌচাষিরা হতাশ তারা কোনো সরকারি সহায়তা ইতিপূর্বেও পাননি এবার পাবেন বলে এমন আশা করতেই পারেন না তারা।

সতী নদীপাড়ের বন্যার পানিতে নিমজ্জিত ধান , আমন বীজতলা সহ বিভিন্ন জাতের ফসল বানের পানিতে তলিয়ে আছে। তবে কেউ কেউ পানি থেকে ধান কেটে ঘরে তোলার চেষ্টা করছেন।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মিজানুর রহমান জানান, জেলার তিস্তা ধরলা সহ কয়েকটি নদীর পাড় ভাঙন অব্যাহত রয়েছে। কোথাও কোথাও সেগুলো ভাঙ্গনরোধে চেষ্টা চলছে। বড় ধরনের ভাঙ্গন ঠেকাতে প্রস্তুত আছে। উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশ পেলেই স্থায়ী ভাঙ্গন রোধ করা সম্ভব।


আরও খবর



পদ্মা সেতুতে মোটরসাইকেল চলবে কি না, যা জানালেন প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৮ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

গত শনিবার (২৫ জুন) উদ্বোধনের পরদিন সকাল ৬টায় খুলে দেওয়া হয় দেশের সবচেয়ে বড় অবকাঠামো স্বপ্নের পদ্মা সেতু। ৬.১৫ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের এই সেতুতে উঠতে রীতিমতো পাল্লা দেওয়া শুরু হয় বাইকারদের। ১০০ টাকা টোল দিয়ে সেতুতে উঠে বাইকারদের অনেকেই নিয়ম না মেনে হুল্লোড়ে মাতেন। বেপোরোয়া গতিতে বাইক চালাতে শুরু করেন অনেক।

ওইদিন সন্ধ্যায় সেতুতে মোটরসাইকেলে চড়ে মোবাইলে ভিডিও করার সময় দুর্ঘটনার শিকার হয়ে প্রাণ হারান দুই তরুণ। এই দুর্ঘটনার পরই সেতুতে মোটরসাইকেল ওঠা নিষিদ্ধ করে সেতু বিভাগ। চালুর একদিন পরই এই সিদ্ধান্তে দুর্ভোগে পড়েন বাইকাররা।

এ প্রেক্ষাপটে মঙ্গলবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে নৌপরিবহণ প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী জানিয়েছেন, পদ্মা সেতুতে স্পিডগান ও সিসি ক্যামেরা বসানোর পর মোটরসাইকেল চলাচলের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

পদ্মা সেতুতে মোটরসাইকেল চলাচলে নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘এটা যে অনির্দিষ্টকালীন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, ব্যাপারটা তা নয়। এটা এখন বন্ধ আছে, এটা একটা নিশ্চয়ই....মোটরবাইকের সম্পর্কে যেটা বলা হয়েছে সেখানে এখন স্পিডগান, সিসিটিভি বসানো হবে। সেগুলো স্থাপনের পর পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

সিসি ক্যামেরায় নির্দিষ্ট স্থানের ভিডিও ধারণের পাশাপাশি রাডার স্পিডগান যন্ত্রের মাধ্যমে চলন্ত গাড়ির গতি কত- সেটি পরিমাপ করা যায়। স্পিডগান যন্ত্রটি বিভিন্ন দেশে সড়কে শৃঙ্খলা বজায় রাখতে ব্যবহার করা হচ্ছে।


আরও খবর



বলিউড ছাড়লেন নার্গিস ফাখরি !

প্রকাশিত:বুধবার ০৮ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

রণবীর কাপুরের হাত ধরে ২০১১ সালে রোমান্টিক ঘরানার সিনেমার মধ্য দিয়ে বলিউডে কাজ করা শুরু করেন নার্গিস ফাখরি। প্রথম সিনেমার মধ্য দিয়েই দর্শকদের নজরে আসে নার্গিসের অভিনয়। এভাবেই বলিউড যাত্রা শুরু। এবার বলিউড ছাড়ছেন অভিনেত্রী নার্গিস ফাখরি।

হতাশা থেকেই তার এ সিদ্ধান্ত বলে ভারতীয় বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন তিনি।

বেশ কিছু সিনেমায় অভিনয় করলেও বলিউডে নিজের জায়গা পাকাপোক্ত করতে পারেননি তিনি। অভিনেত্রী হওয়ার সেই লড়াই নিয়ে একাধিকবার মুখ খুলেছিলেন অতীতে। এবার নার্গিস জানালেন তিনি অভিনয় থেকে বিরতি নিতে চান।

তার এমন সিদ্বান্তের পর উঠে এসেছিল অনেক প্রশ্ন ও বিতর্ক। এবার নিজেই জানালেন বলিউড ছাড়ার কারণ। তিনি বলেন, টানা ১১ বছর ধরে বলিউডে কাজ করছি। কিন্তু এত পরিশ্রম করে কী লাভ যদি পরিবার ও নিজেকে সময় না দিতে পারি? তাই বলিউড থেকে আপাতত নিজেকে সরিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

তিনি আরও বলেন, আগামীতে এমনও হতে পারে, আমি হয়তো আর কাজ পাব না। সিনেমার এই জগতে ফিরতেও সমস্যা হতে পারে। তার পরও নিজের এ সিদ্ধান্তে আমি খুশি। কারণ এখন আর অন্তত বলিউড তারকাদের সঙ্গে ইঁদুর দৌড়ে নামতে হবে না। কিন্তু বলিউড ছাড়লেও অভিনয়ের প্রতি যে ভালোবাসা সবসময় ছিল, তা অটুট থাকবে। যে কারণে ভবিষ্যতে হয়তো অভিনয়ে ফিরেও আসতে পারি।


আরও খবর

শিশুদের সিনেমায় মিথিলা

শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২




সেন্ট লুসিয়া টেস্টে ২৩৪ রানে থামল বাংলাদেশ

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

প্রথম টেস্টের মতো টপ অর্ডার ও মিডল অর্ডারের ব্যাটাররা ভালো পার্টনারশিপ করতে পারেনি। এতেই শঙ্কা জেগেছিল দুইশ রানের মধ্যে গুটিয়ে যাওয়ার। তবে শেষদিকে শরিফুল ইসলাম আর এবাদত হোসেনের লড়াকু ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ সেন্ট লুসিয়া টেস্টের প্রথম ইনিংসে ২৩৪ সংগ্রহ করেছে।

এদিন ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট টস হেরে আগে ব্যাটিংয়ে নামে সাকিব আল হাসানের দল। এদিন তামিম ইকবাল আর লিটন ছাড়া সুবিধা করতে পারেননি স্বীকৃত ব্যাটাররা। তবে অ্যান্টিগা টেস্টের প্রথম ইনিংস বিবেচনায় সেন্ট লুসিয়ার ড্যারেন স্যামি আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে লড়াইটা মন্দ করেনি তারা।

৬ উইকেট হারিয়ে স্কোর বোর্ডে ১৫৯ রান নিয়ে চা বিরতিতে যায় টাইগাররা। লিটন ৩৪ ও মেহেদী হাসান মিরাজ ৫ রান নিয়ে দিনের তৃতীয় ও শেষ সেশনের খেলা শুরু করেন। তবে বিরতি থেকে ফিরে লিটনকে বেশিক্ষণ সঙ্গ দিতে পারেননি মিরাজ। অহেতুক শটে নিজের উইকেট বিলিয়ে দেন এই ডানহাতি।

এরপর লেজের দিকের ব্যাটসম্যান এবাদত হোসেনকে নিয়ে ব্যাট চালিয়ে খেলেন লিটন। আগ্রাসী ব্যাটিংয়ে অর্ধশতক পূর্ণ করেন তিনি। মাত্র ৬৬ বলে পাওয়া ফিফটিতে চারের মার ৮টি। তবে এরপরই যেন নিজের মনোযোগ হারিয়ে বসেন এই ডানহাতি। আলজারি জোসেফকে উড়িয়ে সীমানা ছাড়া করতে গিয়ে ক্যাচ দেন ব্র‍্যাথওয়েটের হাতে। ৭০ বলে থামে তার ৫৩ রানের ইনিংস।

লিটনের আউটের পর ক্রিজে এসে আগ্রাসী শরিফুল ইসলাম। টি-টোয়েন্টি স্বভাবের ব্যাটিং করে দলকে দুইশর কোটা পার করেন তিনি। শরিফুলের ক্যারিয়ার সেরা ২৬ রানের সঙ্গে এবাদতের ক্যারিয়ার সেরা অপরাজিত ২১ এবং খালেদ আহমেদের ১ রানের কল্যাণে অলআউট হওয়ার আগে স্কোর বোর্ডে ২৩৪ রানের সংগ্রহ পেয়েছে বাংলাদেশ দল।

আজকের ম্যাচে বাংলাদেশ দল অবশ্য দুই পরিবর্তন নিয়ে মাঠে নেমেছেন। দলে ফিরেছেন ব্যাটার এনামুল বিজয়, বাদ পড়েছেন সাবেক টেস্ট কাপ্তান মুমিনুল হক। ২০১৪ সালে সেন্ট লুসিয়াতেই সবশেষ টেস্ট খেলেছিলেন বিজয়। আর পেসার মোস্তাফিজকে দলের বাইরে রেখে মূল একাদশে ফেরানো হয়েছে শরীফুল ইসলামকে।


আরও খবর



লালমনিহাটে বাদাম চাষিদের ক্ষতি

প্রকাশিত:বুধবার ১৫ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

লালমনিহাট জেলা প্রতিনিধি ঃ

লালমনিহাটে তিস্তাপাড়ের বাদাম চাষী জালাল উদ্দিন , আব্দুল হামিদ জন্মগতভাবে তিস্তা পাড়ের মানুষ জীবন-জীবিকা সুখ-দুঃখ হাসি-কান্না সবই এই নদী পাড়ে। বিগত বছরগুলোর ন্যায় এ বছরও স্ত্রী সন্তানের মুখে হাসি ফোটাতে বাদাম চাষ করেন তিস্তা পাড়ের জমিতে । সেই চাষ করা বাদামের ক্ষেত থেকে বাদাম ঘরে তুলতে আনতে পারেনি এখানকার বাদাম চাষীরা। যতটুকু আনতে পেরেছেন তা হয়তো রোপনের সময়ের খরচ এর চার ভাগের এক ভাগের আনতে পারেনি । সর্বনাশা তিস্তা নদী তে   আকস্মিক গেল বৃহস্পতিবার থেকে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় সুখের গুজরাটের ফাশন বিনষ্ট হয়েছে। এসকল ভুক্তভোগী কৃষকদের কৃষি বিভাগের লোকজনের কাছে আবেদন করলেও তারা কেউ সাড়া দেননি ভুক্তভোগী কৃষকদের মাঝে। এই অভিযোগ মৎস্যচাষীদের মত বাদাম চাষীদের ও। বাদাম চাষ জালালউদ্দিন ২৫ দোন মাটিতে বাদাম চাষ করেন কিন্তু ঘরে ক্ষেত থেকে নিয়ে আসতে পেরেছেন দুইদোন ক্ষেতের ফসল।

প্রতীকে কৃষক হাদী ১০ দোন মাটিতে বাদামের চাষ করেন সংসারের সবার মুখে হাসি ফোটাবেন বলে কিন্তু বাদশা যে সর্বনাশা তিস্তা নদী পানিতে তলিয়ে থাকা ফসলের ক্ষেত থেকে প্রায় দুইজন মাটির বাদাম ঘরে আনতে পেরেছেন। 

আরেকজন বাদাম চাষী জয়নাল ২৩ দোন মাটিতে বাদাম চাষ করেন কিন্তু উজানের পাহাড়ি ঢল অনবরত বৃষ্টির জলে বাদাম চাষের স্বপ্ন ধ্বংস করেছে। ২৩ দোন জমির মধ্যে মাত্র ৭ দোন জমির বাদাম খেত থেকে তুলতে পেরেছেন। এসকল ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের পাশে লালমনিরহাট জেলার সহকারী নিয়োগ প্রাপ্ত কৃষি কর্মকর্তা, ত্রাণ ও দুর্যোগ মন্ত্রণালয় সহ জেলা প্রশাসনের কাউকে পাশে পাননি তাদের এই দুঃসময়ে।


আরও খবর