Logo
শিরোনাম

ইটনায় সরকারি স্কুলে বেলা ১২টায় শিক্ষক আসে নাই, ক্লাস নিচ্ছেন দপ্তরী

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ |
Image

মোঃ মুজাহিদ সরকার কিশোরগঞ্জ ঃ

কিশোরগঞ্জের ইটনা উপজেলার জয়সিদ্ধি ইউনিয়নের ভয়রা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রথম শ্রেণির ক্লাস নিচ্ছেন দপ্তরী মোঃ নরু আলম। স্থানীয়দের অভিযোগ এটা শুধুমাত্র আজকের দৃশ্য না এই স্কুলে সচরাচর এমন দৃশ্য দেখা যায়। 

গত ২৪ আগস্ট ইটনায় মহামান্য রাষ্টপতি তার বক্তব্যে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে কঠোর নির্দেশনা দিয়ে বলেন গেছেন, যারা শিক্ষকতা করেন অনেকেই প্রতিদিন জেলা সদর থেকে শিক্ষকতা করতে ইটনায় আসেন আবার এইদিনই জেলা সদরে চলে যান, এতে করে ছেলে-মেয়েদের শিক্ষাগ্রহণ কার্যক্রম ব্যহত হচ্ছে, আপনারা যদি এলাকায় থেকে শিক্ষকতা করতে না পারেন, তাহলে চাকরি ছেড়ে চলে যান, এটা কোনভাবেই মেনে নেওয়া হবে না। 

২৮ আগস্ট রোজ রবিবার বেলা সাড়ে এগারোটায়(১১:৩০) ভয়রা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সংবাদ প্রতিবেদক সরজমিনে উপস্থিত হলে এমন দৃশ্য দেখেন। প্রথম শ্রেণির ক্লাস নিচ্ছেন ঐ ব্যক্তির পরিচয় জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি স্কুলের শিক্ষক না আমি দপ্তরী। তিনিও আরও জানান, স্যার-ম্যাডাম এখনও আসেন নাই এই জন্য আমি প্রথম শ্রেণির ছাত্র-ছাত্রীদের একটু পড়াচ্ছি। প্রতিদিন এমন ভাবে ক্লাস নেন নাকি এই প্রশ্নের উত্তরে তিনি মুচকি হাসি দিয়ে এড়িয়ে যান। 

বেলা সাড়ে এগারোটায় স্যার-ম্যাডাম এখনও স্কুলে আসেন নাই এই প্রশ্নের জবাবে দপ্তরী মোঃ নরু আলম বলেন, প্রধান শিক্ষকের আত্মীয়ের চিকিৎসার জন্য তিনি আসেন নাই, বাকি স্যার ম্যাডাম মনে হয় রাস্তায় আছে, আসতেছেন। নির্দেশনা আছে স্কুল শুরু হবে সকাল ৯টায় এবং সকাল সারে নয়টায় ক্লাস কার্যক্রম শুরু করতে হবে। 

ভয়রা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি ১৯৩৬ সালে প্রতিষ্ঠিত। স্কুলটিতে ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা প্রায় ২১৫ জন। বর্তমানে স্কুলটিতে ০৬ জন সরকারি শিক্ষক আছেন। 

ভয়রা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বিদ্যোৎসাহী মোঃ মাহাতুবুদ্দিন বলেন, আমিও স্কুলে এসে দেখি কোন স্যার ম্যাডাম নাই। স্যার ম্যাডাম বেলা সাড়ে এগারোটায় উপস্থিত নাই এই প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, এমন অভিযোগ আগেও শুনছি এখন আপনি, আমি এবং এলাকার মানুষ নিজ চোখে দেখলাম, এমন ভাবে হলে আমাদের সন্তানদের পড়াশোনা কীভাবে হবে। 

ভয়রা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্রী তাহেরা আক্তারের অভিভাবক মোঃ শাহাবুদ্দিন অভিযোগ করে বলেন, এই স্কুলে স্যার-ম্যাডামরা যার যেমন ইচ্ছামতো আসেন আবার যায়, স্যার-ম্যাডাম যদি কিশোরগঞ্জ থাকেন আর আসতে আসতে যদি বেলা ১১-১২টা বাজে তাহলে পড়াশোনা কখন করাবে। 

স্কুলের সাবেক শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করে বলেন, আমরা এই স্কুলের সাবেক শিক্ষার্থী, আমাদের ছোট ভাই-বোন এই স্কুলে পড়াশোনা করেন, তাদের খোঁজ খবর নিতে আসলে দেখি স্যার-ম্যাডাম ক্লাস রেখে মোবাইল ফোন নিয়ে ব্যস্ত আছেন। একজন বলেন, একদিন আমি একজন ম্যাডামকে ক্লাস রেখে মোবাইলে কথা বলতে দেখে আমি প্রতিবাদ করলে আমার সাথে খুব খারাপ ব্যবহার করেন। 

উল্লেখ্য যে, বেলা ১২ টা বাজলে প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের ছুটির ঘন্টা বাজিয়ে ছুটি দিচ্ছেন দপ্তরী মোঃ নরু আলম। বেলা ১২টা পর্যন্ত স্কুলে উপস্থিত থেকে সংবাদ প্রতিবেদক কোন শিক্ষকদের দেখা না পেয়ে চলে আসার সময় একজন সহকারী শিক্ষক মোঃ ইকবাল হোসাইন আসেন। 

ভয়রা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নজরুল ইসলামের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, আমি একজন রোগী নিয়ে হাসপাতালে আছি, এই ছুটির ব্যাপারে উপজেলা শিক্ষা অফিসার স্যার কে জানিয়ে আসছি। বাকি শিক্ষক বৃন্দ স্কুলে বেলা সারে এগারোটায় উপস্থিত নাই এই প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, আমি আসার আগে সবাই কে বলছি স্কুলে ঠিক সময় যাওয়ার জন্য। এখনও স্কুলে কেন আসে নাই, খোঁজ খবর নিতে হবে। কিছুক্ষণ পর তিনি ফোন দিয়ে জানান, দুইজন রাস্তায় আছে, আসতেছেন তখন ঘুরির কাঁটায় বেলা ১১:৪৭ বাজে। 

কিশোরগঞ্জ জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার সুব্রত কুমার বণিক কে উক্ত বিষয়ে অবগত করলে তিনি জানান, সাংবাদিকদের কে ধন্যবাদ জানাই আপনারা তথ্য পেয়ে, মাঠ পর্যায়ে গিয়ে তথ্যের সত্যতা যাচাই করে আমাদের কে জানানোর জন্য। আমি অভিযোগ এবং সংবাদ প্রকাশিত হবার পর তদন্ত করে বিভাগীয় আইনগত ব্যবস্থা নিব। সরকারি দায়িত্ব অবহেলা করলে কেউ ছাড় পাবে না।


আরও খবর

১১০০ শিক্ষকের সনদ জাল

শনিবার ০১ অক্টোবর ২০২২




রাঙ্গামাটির সাফ বিজয়ী রুপনা চাকমার পরিবার

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে নতুন ঘর পাচ্ছেন

প্রকাশিত:বুধবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ |
Image

 উচিংছা রাখাইন কায়েস,রাঙ্গামাটি ঃ

-প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাফ উইমেন্স চ্যাম্পিয়ানশিপ, ২০২২ এর শিরোপা বিজয়ী বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের একজন গর্বিত সদস্য রুপনা চাকমার জন্য তার নিজ শহর রাঙ্গামাটিতে একটি ঘর নির্মাণ করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন। বাংলাদেশ সাফ নারী চ্যাম্পিয়নশীপের ফাইনালে স্বাগতিক নেপালকে ৩-১ গোলে হারিয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বর্তমানে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৭তম৭78± সম্মেলনে যোগ দিতে নিউইয়র্কে অবস্থান করছেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে রুপনা চাকমার জীর্ণ কুটিরের ছবি ভাইরাল হলে তা প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে এবং তিনি এই নির্দেশ দেন।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান-যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থারত প্রধানমন্ত্রী রুপনা চাকমার ঘর নির্মাণের নির্দেশ দিয়েছেন। রুপনা চাকমা সাফ নারী ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের সেরা গোলরক্ষক হয়েছেন।

এব্যপারে রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান জানান, সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ জয়ী সেরা গোলকিপার রুপনা চাকমার বাড়ি তৈরি করে দেয়ার জন্য নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি জানান, নির্দেশনা পেয়েই আমরা কাজ শুরু করেছি। আমি ইতোমধ্যে নানিয়ারচর উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে নির্দেশনা দিয়েছি। বুধবার বিকালে এলজিইডির প্রকৌশলী নিয়ে ঘর নির্মাণের বিষয়ে সরেজমিন দেখে আসবেন। আশা করছি দ্রুত সময়ের মধ্যে আমরা এটি করে দিতে পারবো।

নানিয়ারচর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ ফজলুর রহমান জানান, দুপুরে জেলা প্রশাসক প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার বিষয়ে জানান। নির্দেশনা অনুযায়ী এলজিইডি প্রকৌশলীকে নিয়ে রুপনা চাকমার বাসায় দিয়ে ঘরের বিভিন্ন স্থান ও জায়গা পরিদর্শন করেছি। আশা করি দ্রুত সময়ের মধ্যে কাজ সম্পন্ন করতে পারবো। আগামী এক মাসের মধ্যেই কাজ সম্পন্ন করার ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করেন ইউএনও।

রাঙ্গামাটির নানিয়ারচর উপজেলার দুর্গম ভুঁইয়া আদাম গ্রামে রুপনা চাকমার বাড়ি। সাফজয়ী বাংলাদেশ দলের আরেক গর্বিত সদস্য ঋতুপর্ণা চাকমার বাড়ি কাউখালীর ঘাগড়া ইউনিয়নের মগাছড়ি গ্রামে। রাঙ্গামাটি জেলার দুই ফুটবলারের কীর্তিতে আনন্দের জোয়ার বইছে পুরো রাঙ্গামাটি জুরে।

প্রসঙ্গত, সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) নেপালের কাঠমান্ডুতে নেপালকে ৩-১ গোলে হারিয়ে দক্ষিণ এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করেছেন বাংলাদেশের ফুটবল দল। খেলায় সেরা গোলরক্ষকের স্বীকৃতি পেয়েছেন রাঙ্গামাটির নানিয়ারচরের বাসিন্দা বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের গোলরক্ষক রূপনা।


আরও খবর



মেয়ের সংসার ভাঙার দীর্ঘদিন পর মুখ খুললেন সামান্থার বাবা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ |
Image

দক্ষিণী ভারতীয় সিনেমার জনপ্রিয় জুটি নাগা চৈতন্য ও সামান্থা রুথ প্রভু। গত বছরের ২ অক্টোবর যৌথ এক বিবৃতিতে বিচ্ছেদের ঘোষণা দেন এই তারকা যুগল। তাদের সংসার ভাঙার পর সামান্থার বাবা টুঁ-শব্দও করেননি। দীর্ঘদিন পর মেয়ের বিচ্ছেদ নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় আবেগঘন পোস্ট দিলেন সামান্থার বাবা জোসেফ প্রভু। মেয়ে ও মেয়ের জামাইয়ের এই সিদ্ধান্তে হতবাক হয়েছিলেন বলে জানান তিনি।

ইনস্টাগ্রাম পোস্টে জোসেফ প্রভু লিখেছেন, ‘সামান্থা-নাগার বিচ্ছেদের সিদ্ধান্তের খবর জানার পর আমি স্তব্ধ হয়ে গিয়েছিলাম। আশা করেছিলাম, দ্রুত সামান্থা-নাগার সমস্যার সমাধান হবে। ওদের দুজনের এই সিদ্ধান্ত খুবই বেদনাদায়ক।’

আমাকে ভেবে এখন চিত্রনাট্য তৈরি হয়: শেফালিআমাকে ভেবে এখন চিত্রনাট্য তৈরি হয়: শেফালি তিনি আরো বলেন, ‘এই মুহূর্তগুলো কখনো ভুলতে পারব না। নাগা-সামান্থার উচিত পরস্পরের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রাখা।’

২০১০ সালে তেলেগু ভাষার ‘ইয়ে মায়া চেসাভ’ সিনেমায় একসঙ্গে অভিনয় করেন নাগা চৈতন্য ও সামান্থা। সিনেমার সেটেই তাদের প্রথম পরিচয়। তারপরই প্রেমের সম্পর্কে জড়ান তারা। এরপর লুকিয়ে দীর্ঘদিন প্রেম করেন এই জুটি। ২০১৭ সালের ৬ অক্টোবর বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন তারা।

জানা গেছে, বিয়ের পরও অভিনয় চালিয়ে যেতে চাইছেন সামান্থা। কিন্তু পর্দায় তার খোলামেলাভাবে উপস্থিতি পছন্দ করছিলেন না নাগা চৈতন্য ও তার বাবা নাগার্জুনা আক্কিনেনি। আর এজন্যই তাদের দূরত্ব তৈরি হয়; শেষ পর্যন্ত যা বিচ্ছেদে গড়ায়।


আরও খবর

ঋতুপর্ণা-প্রসেনজিতের বিয়ে

শুক্রবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২




অস্তিত্ব সংকটে শীতলক্ষ্যা

প্রকাশিত:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৪ অক্টোবর ২০২২ |
Image

রবিবার বিশ্ব নদী দিবস। প্রতি বছরের সেপ্টেম্বর মাসের শেষ রবিবার সারা বিশ্বে দিবসটি পালিত হয়। বাংলাদেশেও নানা আয়োজন থাকে। বাংলাদেশের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত সব নদ-নদীকে জীবন্ত সত্তা ঘোষণা করেছে হাইকোর্ট। তুরাগ নদ রক্ষায় মানবাধিকার ও পরিবেশবাদী সংগঠন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের করা এক রিটের চূড়ান্ত শুনানি নিয়ে ২০১৯ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি ওই রায় দেয় হাইকোর্ট।

এর আগে ২০১৭ সালে কলম্বিয়ার সাংবিধানিক আদালত ‘রিয়ো এট্রাটো’ নামক একটি নদীকে জীবন্ত সত্তা ঘোষণা করে। নদীটি সোনা আর কয়লার খনির কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়াতে সেখানকার আদিবাসী সম্প্রদায় ও অন্যদের জন্য ব্যাপক সমস্যা হচ্ছিল।

নিউজিল্যান্ডের একটি নদীকেও জীবন্ত সত্তা ঘোষণা করা হয়, ওই নদীকে সেখানকার মানুষ খুবই পবিত্র মনে করে একে ঘিরে নানা উপাসনাও করত। ভারতের মধ্য প্রদেশের রাজ্য আদালত থেকে নর্মদা নদীকে জীবন্ত সত্তা ঘোষণা দেওয়া হয়।

নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের ২০২১ সালের এক জরিপে জানা গেছে, সারা দেশে ৬৫ হাজার ১২৭ জন নদী দখলদার রয়েছে। তবে এরমধ্যে ১৯ হাজার ৮৭৪ জন অবৈধ দখলদার উচ্ছেদ করা হয়েছে।

বাংলাদেশ রিভার ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মো. মনির হোসেন বলেন, জেলা প্রশাসক জেলা নদী রক্ষা কমিটির সভাপতি একই সঙ্গে তিনি জেলা পানিসম্পদ ব্যবস্থাপনা কমিটির আহ্বায়ক। জেলা প্রশাসক পরিবেশ অধিদপ্তর, মৎস্য অফিস, কৃষি অফিস, পানি উন্নয়ন বোর্ড, বিআরডিবি, পরিবেশবাদী, জনপ্রতিনিধি, সিভিল সোসাইটি, মিডিয়ার প্রতিনিধির সমন্বয়ে নদী রক্ষার কাজকে এগিয়ে নিতে হবে। তাছাড়া জলাধার সংরক্ষণ আইন ২০০০, পানি আইন ২০১৩, বাংলাদেশ পরিবেশ সংরক্ষণ আইন ১৯৯৫, বাংলাদেশ জীববৈচিত্র্য আইন ২০১৭, বন্যপ্রাণী (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) আইন ২০১২ কঠোর প্রয়োগে সুফল আসতে পারে বলেও তিনি মনে করেন।

 শীতলক্ষ্যার পানি হাতে বা শরীরে লাগলে চর্মরোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা থাকে। এলাকার কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তি নদী ভরাট, অবৈধভাবে বালু উত্তোলন ও স্থাপনা নির্মাণ করছেন।

তারা আরো জানান, উপজেলার পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া শীতলক্ষ্যা নদী পাড়ের কৃষিজমিগুলো ছিল ফসলে ভরা। নদীতে ছিল নানা প্রজাতির মাছ। এখন শীতলক্ষ্যায় বিপন্ন জীববৈচিত্র্য, আর বেকার জেলে পরিবার।

তারা আরো জানান, কারখানা গড়ার আগে স্থানীয় কিছু মানুষকে সেখানে চাকরির ব্যবস্থা করা হয়। আর চাকরির কারণে স্থানীয়রাও তেমন কিছু বলেন না। মাঝে মাঝে সামাজিক ও পরিবেশবাদী সংগঠনগুলো নদী রক্ষায় আন্দোলন করে। আর নীতিনির্ধারকরা বরাবরই উদাসীন থাকেন।

ঘোড়াশাল পৌর এলাবার জামালপুর গুদারাঘাটের নৌকার মাঝি হাসমত আলী বলেন, দীর্ঘ ১৫ বছর যাবত এই ঘাটে নৌকা চলাই। নদীর পানি আগে এতটাই দূষিত যে নৌকা চালাতে ভয় হয়। ‘বাঁচাও শীতলক্ষ্যা’ আন্দোলনের সমন্বয়ক মাহবুব সৈয়দ বলেন, একটা সময় আসবে যখন দেশজুড়ে নগর-জনপদের বিপুল পানির চাহিদা পূরণ করতে হবে নদী থেকে। কারণ ভূগর্ভস্থ পানির স্তর বিপজ্জনক মাত্রায় নিচে নেমে গেছে।


আরও খবর

শিগগিরই বাড়ছে বিদ্যুতের দাম

মঙ্গলবার ০৪ অক্টোবর ২০২২




প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে শিশুদের নিয়ে আনন্দ উৎসবে সংসদ সদস্য

প্রকাশিত:বুধবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ |
Image

 এম.পলাশ শরীফঃ

জানান, সারাদেশের ন্যায় শিশুদের আনন্দঘন উৎসবে বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জেও স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জ্যেষ্ঠ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা-এঁর ৭৬ তম জন্মবার্ষিকী পালন করা হয়েছে।

বুধবার দুপুরে উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উদ্যোগে উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে দিবসটি উপলক্ষে শিশুদের নিয়ে কেক কাটা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বাগেরহাট-৪, আসনের সংসদ সদস্য, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সদস্য অ্যাড. আমিরুল আলম মিলন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. জাহাঙ্গীর আলমের সভাপতিত্বে বক্তৃতা করেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক মোজাম, থানা অফিসার ইনচার্জ মো. সাইদুর রহমান, উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. জালাল উদ্দিন খান, উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক এ্যাড. তাজিনুর রহমান পলাশসহ স্থানীয় বিভিন্ন নেতৃবৃন্দ। অপরদিকে   শহীদ শেখ রাসেল মুজিব মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে প্রধানমন্ত্রীর জন্মবার্ষিকীতে পুষ্প মাল্য অর্পন, আলোচনা সভা দোয়া  ও শেখ রাসেল দেওয়ালিকায় শিক্ষার্থীদের জন্ম  দিনের শুভেচ্ছা  বার্তা উপস্থাপন। এ সময় আলোচনা করেন  বিদ্যালয়ের সভাপতি খ. ম লুৎফর রহমান প্রধান শিক্ষক  মো. শহিদুল ইসলাম খান, সাবেক সভাপতি মোঃ  আবদুস সামাদ মুন্সি,  ইউপি সদস্য মোঃ রফিকুল ইসলাম, মাস্টার  অমৃত কুমার। দোয়া পরিচালনা করেন  ইসলাম ধর্মীয় শিক্ষক মাওলানা মো. আল আমিন। 


আরও খবর

পুলিশের পক্ষে বললেন খামেনি

মঙ্গলবার ০৪ অক্টোবর ২০২২




কু‌মিল্লা বরুড়ার ৮৮‌টি মন্ড‌পে আর্থিক অনুদান‌ বিতরণ

প্রকাশিত:শুক্রবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ০৫ অক্টোবর ২০২২ |
Image

কু‌মিল্লা ব্যুরো ঃ

কু‌মিল্লা বরুড়ার ঐতিহ‌্যবাহী নর‌সিংহ‌দেব ও জগন্নাথ দেব কেন্দ্রীয় ম‌ন্দি‌রে অনুদান বিতরণ ক‌রেন অনুষ্ঠা‌নের প্রধান অ‌তি‌থি বরুড়‌া উপ‌জেলা জনকল‌্যাণ সভাপ‌তি ও‌ যোগা‌যোগ মন্ত্রণাল‌য়ের যুগ্ন স‌চিব প্রশাসন বাবু মনীন্দ্র কি‌শোর মজুমদার।                  শুক্রবার দুপু‌রে এস কিউ ফাউন্ডেশ‌নের সদস‌্য স‌চিব মোঃ তোফা‌য়েল হো‌সে‌নের সভাপ‌তি‌ত্বে অনু‌ষ্ঠিত আর্থিক অনুদান বিতরণ অনুষ্ঠা‌নে বক্তব‌্য রা‌খেন বরুড়া জনকল‌্যাণ স‌মি‌তির সাধারণ সম্পাদক আবদুস ছামাদ, সা‌বেক মেয়র বাহাদুরউজ্জামান  বাহাদুর।                      এস‌ কিউ গ্রুপ ও এস কিউ ফাউন্ডেশ‌নের চেয়ারম‌্যান এ জেড এম শ‌ফিউদ্দিন শামী‌মের আর্থিক সহায়তায় ৮৮‌টি ম‌ন্দি‌রের পু‌জোমন্ড‌বে অনুদান প্রদান করা হয়।         অনুষ্ঠা‌নে বরুড়ার সনাতন ধর্ম‌লম্বী নেতৃবৃন্দরাসহ স্থানীয় পু‌জোমন্ড‌পের সভাপ‌তি ও সাধারণ সম্পাদকসহ নেতৃবৃন্দরা উপ‌স্থিত‌ ছি‌লেন।


আরও খবর